• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

উক্তি প্রতিদিন

“অসংলগ্ন কথাবার্তা বিরক্তি উদ্রেক করে”

“অসংলগ্ন কথাবার্তা বিরক্তি উদ্রেক করে”

ফ্রঁসোয়া-মারি আরুয়ে, যিনি ছদ্মনাম ভলতেয়ার নামেই বেশি পরিচিত। ফরাসি আলোকময় যুগের একজন লেখক, প্রাবন্ধিক, দার্শনিক ও পথ প্রদর্শক। ১৬৯৪ সালের ২১ নভেম্বর ফ্রান্সের প্যারিসে এক মধ্যবিত্ত পরিবারে ভলতেয়ারের জন্ম। ফরাসি বিপ্লবের সময় তিনি লেখনীর মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করায় ইতিহাসে বিখ্যাত হয়ে রয়েছেন। ভলতেয়ার ছিলেন `ফিলোসফিস` নামে অভিহিত একটি ফরাসি সংস্কারবাদী গোষ্ঠীর নেতা, মুখ্য সংগঠক ও প্রচারকর্তা। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে অন্যতম

“বেশি কথা বলা নির্বুদ্ধিতার নিদর্শন”

“বেশি কথা বলা নির্বুদ্ধিতার নিদর্শন”

প্রাচীন গ্রিসের প্রভাবশালী তিন দার্শনিকের একজন অ্যারিস্টটল। অন্য দু’জন হলেন সক্রেটিস ও প্লেটো। সক্রেটিসের ছাত্র ছিলেন প্লেটো আর প্লেটোর ছাত্র অ্যারিস্টটল। অ্যারিস্টটলকে প্রাণীবিজ্ঞানের জনক বলা হয়।

“চোখের বদলে চোখ বিশ্বকে অন্ধ করে দেবে”

“চোখের বদলে চোখ বিশ্বকে অন্ধ করে দেবে”

ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব মহাত্মা গান্ধী। তার পুরো নাম মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। তিনি ছিলেন ব্রিটিশবিরোধী অহিংস নীতি এবং শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পথিকৃৎ। তাকে “ভারতের জাতির জনক” বলা হয়।

“প্রেমে পড়লে মানুষ  কবি হয়ে উঠে”

“প্রেমে পড়লে মানুষ কবি হয়ে উঠে”

বিশ্ববিখ্যাত গ্রিক দার্শনিক প্লেটো। ৪২৭ খ্রিস্টপূর্বাব্দে গ্রিসের এথেন্সে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। প্লেটো ছিলেন দার্শনিক সক্রেটিসের ছাত্র এবং দার্শনিক এরিস্টটলের শিক্ষক। প্লেটো একাধারে গণিতজ্ঞ এবং দার্শনিক ভাষ্যের রচয়িতা হিসেবে খ্যাত।

“ভালো কথা খারাপ লোকে  বললেও তা গ্রহণ করবে"

“ভালো কথা খারাপ লোকে বললেও তা গ্রহণ করবে"

সক্রেটিস ছিলেন একজন গ্রিক দার্শনিক। বিশ্বে যত বড় বড় দার্শনিকের জন্ম হয়েছে তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। সক্রেটিস ৪৭০ খ্রিষ্টপূর্বে গ্রীসের রাজধানী এথেন্সে জন্মগ্রহণ করেন। তাকে পশ্চিমা দর্শনের ভিত্তি স্থাপনকারী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

“গণ মানুষকে জাগিয়ে তোলার  জন্য কবিতা অস্ত্রসরূপ”

“গণ মানুষকে জাগিয়ে তোলার জন্য কবিতা অস্ত্রসরূপ”

বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। ১৮৯৯ সালের ২৪ মে পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বিদ্রোহী কবি নামে খ্যাত। ১৯৭৪ সালের ৯ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এই কবিকে সম্মানসূচক ডি.লিট উপাধিতে ভূষিত করে।