• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
“নেতার গতির উপর অনুসারীদের গতি নির্ভর করে”

“নেতার গতির উপর অনুসারীদের গতি নির্ভর করে”

মেরি কে অ্যাশ ১৯১৮ সালের ১২ মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বিশ্ববিখ্যাত প্রসাধনী উৎপাদনকারী  প্রতিষ্ঠান ‘মেরি কে কসমেটিকস’ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি তার বড় ছেলে বেন রজারস জুনিয়রকে সঙ্গে নিয়ে মাত্র পাঁচ হাজার ডলার দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। গৃহযুদ্ধ ও নারীদের ক্যান্সার প্রতিরোধে অর্থ সংগ্রহ করার লক্ষ্যে তিনি দাতব্য প্রতিষ্ঠান মেরি কে অ্যাশ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন।

বিস্তারিত
ন্যায়বিচার রক্ষা না করলে আমাদের রক্ষা নেই

ন্যায়বিচার রক্ষা না করলে আমাদের রক্ষা নেই

ফ্রান্সিস বেকন ১৫৬১ সালের ২২ জানুয়ারি লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন একাধারে একজন ইংরেজ দার্শনিক, আইনজ্ঞ, কূটনৈতিক ও বৈজ্ঞানিক চিন্তাধারার পথপ্রদর্শক। আইনজীবী হিসেবে পেশাগত জীবন শুরু করলেও তিনি বৈজ্ঞানিক বিপ্লবের প্রবক্তা এবং জ্ঞানান্ধতা ও গোঁড়ামি বিরোধী হিসেবে সুখ্যাত হন। তাই তাকে অভিজ্ঞতাবাদের জনক বলা হয়।

বিস্তারিত
“বড় বাধার উত্তরণে বড় গৌরব অর্জিত হয়"

“বড় বাধার উত্তরণে বড় গৌরব অর্জিত হয়"

মলিয়ের ১৬২২ সালের ১৫ জানুয়ারি ফ্রান্সের প্যারিসে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন একজন ফরাসি নাট্যকার ও অভিনেতা। তার আসল নাম জ্যঁ-ব্যাপ্টিস্ট পোকেলিন হলেও তিনি তার মঞ্চনাম মলিয়ের নামেই পরিচিত ছিলেন।

বিস্তারিত
রাজনীতিবিদদের জন্য ভালোবাসা ও ঘৃণা...

রাজনীতিবিদদের জন্য ভালোবাসা ও ঘৃণা...

জন ড্রাইডেন ১৬৩১ সালের ৯ আগস্ট ইংল্যান্ডের নর্থাম্পটনশায়ারের আল্ডউংকল নামক গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন সপ্তদশ শতাব্দীর একজন ইংরেজ লেখক, কবি ও নাট্যকার। লেখক হিসেবে তিনি এতটাই প্রভাব বিস্তার করেছিলেন যে তার আবির্ভাবকালকে বলা হতো ড্রাইডেনের যুগ। তিনি ৩০টির বেশি নাটক রচনা করেছেন। মূলত ১৬৮০ সাল পর্যন্ত নিয়মিত নাটক লিখে গেছেন তিনি। এরপর মনোযোগ দেন কবিতার দিকে।

বিস্তারিত
“প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই একটা শিল্পীমন ঘুমিয়ে আছে”

“প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই একটা শিল্পীমন ঘুমিয়ে আছে”

ফ্রান্সিস বেকন ১৫৬১ সালের ২২ জানুয়ারি যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন একাধারে একজন ইংরেজ দার্শনিক, আইনজ্ঞ, কূটনৈতিক ও বৈজ্ঞানিক চিন্তাধারার পথপ্রদর্শক। তিনি বিজ্ঞান, দর্শন, শিক্ষা, রাজনীতিসহ বিভিন্ন বিষয়ে পঞ্চাশটিরও অধিক বই লিখেছেন। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল- এসেজ, দ্য অ্যাডভান্সমেন্ট অব লার্নিং ডিভাইন অ্যান্ড হিউম্যান, নাভাম অর্গানাম সায়েন্টিয়ারম ও নিউ আটলান্টিস।

বিস্তারিত
মধ্যবিত্ত থেকেই বড়লোকের উৎপত্তি

মধ্যবিত্ত থেকেই বড়লোকের উৎপত্তি

রালফ ওয়াল্ডো এমারসন ১৮০৩ সালের ২৫ মে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের বস্টনে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বিখ্যাত আমেরিকান সাহিত্যিক ও দার্শনিক। তিনি ১৯ শতকের সবচেয়ে প্রভাবশালী আমেরিকানদের মধ্যে একজন ছিলেন। তার লেখাগুলি আমেরিকান সাহিত্যের বিকাশের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল এবং তার চিন্তাধারা রাজনৈতিক নেতাদের পাশাপাশি অসংখ্য সাধারণ মানুষকে প্রভাবিত করেছিল।

বিস্তারিত
“ভিক্ষুকের আশা অপরিমিত”

“ভিক্ষুকের আশা অপরিমিত”

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় ১৮৩৮ সালের ২৬ জুন চব্বিশ পরগণার অন্তর্গত কাঁঠালপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বাঙালি সাহিত্যিক ও সাংবাদিক। বাংলা গদ্য ও উপন্যাসের বিকাশে তার অসীম অবদানের জন্যে তিনি বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে অমর হয়ে আছেন।

বিস্তারিত
“অপছন্দের চেয়ে ঘৃণার স্থায়িত্ব বেশি”

“অপছন্দের চেয়ে ঘৃণার স্থায়িত্ব বেশি”

অ্যাডলফ হিটলার ১৮৮৯ সালের ২০শে এপ্রিল অস্ট্রিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি অস্ট্রিয়ায় জন্মগ্রহণ করলেও ছিলেন জার্মান রাজনীতিবিদ। হিটলার প্রথম বিশ্বযুদ্ধে সৈনিক হিসেবে যোগদেন। পরবর্তীকালে ভাইমার প্রজাতন্ত্রে নাৎসি পার্টির নেতৃত্ব লাভ করেন। এভাবেই এক সময় জনপ্রিয় নেতায় পরিণত হন।

বিস্তারিত
পরিবেশ ধ্বংস করে সুস্থ  সমাজ আশা করা যায় না

পরিবেশ ধ্বংস করে সুস্থ সমাজ আশা করা যায় না

মার্গারেট মিড ১৯০১ সালের ১৬ ডিসেম্বর যুক্তরাজ্যের ফেলাডেলফিয়াতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন বিখ্যাত আমেরিকান সাংস্কৃতিক নৃবিজ্ঞানী। মার্গারেট মিড ১৯৭৬ সালে আমেরিকার ন্যাশনাল উইমেনস হল অফ ফ্রেমে জায়গা করে নেন। ১৯৭৯ সালে প্রেসিডেন্টশিয়াল মেডেলে ভূষিত হন তিনি। এছাড়াও তার নামে আমেরিকার অনেক স্কুলের নামকরণ করা হয়।

বিস্তারিত
.......আমার তো কারুকে  দুঃখ দেবার কথা নয়

.......আমার তো কারুকে দুঃখ দেবার কথা নয়

সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় ১৯৩৪ সালের ৭ সেপ্টেম্বর (২১ ভাদ্র, ১৩৪১ বঙ্গাব্দ) অধুনা বাংলাদেশের মাদারীপুর জেলার কালকিনি থানার মাইজপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন একাধারে কবি, ঔপন্যাসিক, ছোটগল্পকার, সাংবাদিক ও কলামিস্ট। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় ‘নীললোহিত’, ’সনাতন পাঠক’, ’নীল উপাধ্যায়’ ইত্যাদি ছদ্মনাম ব্যবহার করতেন।

বিস্তারিত