• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

চা বিক্রেতা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী

চা বিক্রেতা থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী

ফিচার ডেস্ক৩১ অক্টোবর ২০১৮, ০২:২০পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

শৈশবে তিনি রেল স্টেশনে চা বিক্রি করতেন। পরে রাষ্ট্রীয় সেবক সংঘ (আরএসএস) এর মাধ্যমে জড়িয়ে পড়েন রাজনীতিতে। ২০১৪ সালে তিনি বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ভারতের ১৫তম প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।

এতোক্ষণে হয়তো ঠিকই ধরতে পেরেছেন, তিনি কে। বলছি ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদার দাস মোদীর কথা।

১৯৫০ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর গুজরাটের মেহসানা জেলার উনঝা শহরে অবহেলিত গাঞ্চি সম্প্রদায়ে মোদীর জন্ম। তার বাবা ছিলেন চা বিক্রেতা। ছয় ভাইবোনের মধ্যে মোদী ছিলেন তৃতীয়। বাবাকে সাহায্য করতে শৈশবে তিনি আহমেদাবাদের ভাদনগর রেলস্টেশনের ক্যান্টিনে চা বিক্রি করতেন। এক সময় গুজরাট রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির ক্যান্টিন বয় হিসেবেও কাজ করেছেন।

আট বছর বয়স থেকেই একজন স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে রাষ্ট্রীয় সেবক সংঘ (আরএসএস) এর সাথে যুক্ত ছিলেন তিনি। ভারতের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং বিচিত্র সংস্কৃতি উপভোগ করতে ১৯৬৭ সালে ১৭ বছর বয়সে একবার তিনি বাড়ি ছেড়ে চলে যান।

অবশ্য দুই বছর পরেই ১৯৭১ সালে বাড়ি ফিরে আসেন এবং আরএসএস এর প্রচারক হিসেবে রাজনীতিতে পা রাখেন। ১৯৭৫-৭৭ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী জরুরি অবস্থা জারি করলে মোদী আন্ডারগ্রাউন্ডে চলে যান এবং সরকার বিরোধী প্রচারণায় ভূমিকা রাখেন। এসময়ই মোদীর সাংগঠনিক দক্ষতা এবং নেতৃত্বের বহিঃপ্রকাশ ঘটে।

১৯৮৫ সালে তিনি বিজেপিতে যোগ দেন এবং ১৯৮৭ সালে এর গুজরাট শাখার সেক্রেটারি নির্বাচিত হন। ১৯৯৫ সালে মোদী চমক দেখান যখন ১২১টি আসনে বিজয়ী হয়ে গুজরাটে সরকার গঠন করে বিজেপি। এ নির্বাচনে জয়ের পেছনে বড় অবদান রাখেন মোদী।

ফলস্বরূপ ১৯৯৮ সালে তিনি কেন্দ্রীয় বিজেপির জেনারেল সেক্রেটারী নিযুক্ত হন এবং দিল্লি চলে যান। ২০০১ সালে কাশুভাই প্যাটেল পদত্যাগ করলে মোদীর কপাল খুলে যায় এবং গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নিযুক্ত হন।

২০০২ সালে গুজরাটে স্বাধীন ভারতের সবচেয়ে ভয়াবহ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় ১২শতাধিক লোক নিহত হয়। মোদির বিরুদ্ধে এ ঘটনায় উস্কানি দেয়ার অভিযোগ উঠে এবং এ নিয়ে তিনি কঠোর সমালোচিত হন। অবশ্য পরে সুপ্রিম কোর্ট তাকে এই অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছিল।

পরবর্তীতে এ ঘটনাকেই পুঁজি করে মোদি নতুন চাল চালেন। গুজরাট দাঙ্গার পক্ষে সাফাই গেয়ে এবং হিন্দুত্ববাদের দোহাই দিয়ে পরবর্তী তিন দফা তিনি গুজরাট নির্বাচনে জয় পান।

২০০৭ সালের পর তিনি নিজেকে একজন সর্বভারতীয় নেতা হিসেবে তুলে ধরতে মাঠে নামেন। তার সময়ে গুজরাটে ব্যাপক উন্নয়ন এবং অগ্রগতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

যদিও বিভিন্ন গবেষণা ও পরিসংখ্যান বলছে ওই সময় গুজরাটের মানবসম্পদ উন্নয়ন, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পুষ্টি এবং দারিদ্র্য বিমোচনে তেমন কোনো অগ্রগতি হয়নি।

মোদি সবচেয়ে বড় চমক দেখান ২০১৪ সালে। জাতীয় নির্বাচনে বিজেপি থেকে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হন। এ নির্বাচনে বিজেপি লোকসভার ৫৩৪ আসনের ২৮২ তে জয় পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে এবং সরকার গঠন করে। আর মোদি হয়ে যান ভারতের ১৫তম এবং স্বাধীন ভারতে জন্ম নেয়া প্রথম প্রধানমন্ত্রী।

২০০৭ সালে তিনি ইন্ডিয়া টুডে ম্যাগাজিনের জরিপে ভারতের শ্রেষ্ঠ মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালে ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির তালিকায় ১৫তম স্থানে জায়গা পান তিনি।

জাবির প্রক্টর ও অন্তরের অডিওতে যা আছে...

জাবির প্রক্টর ও অন্তরের অডিওতে যা আছে...

সদ্য ফাঁস হওয়া অডিও বার্তায় জাবির প্রক্টর ফিরোজ-উল-আলম ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি হামজা রহমান অন্তরের কথোপকথন রয়েছে। হামজা নিজেই এই ফোনালাপ ফাঁস করেন। এ ব্যাপারে আগে থেকে জানিয়েছিলেনও তিনি। ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়।

ঢাবি সিনেট থেকে অব্যাহতি চেয়ে শোভনের চিঠি

ঢাবি সিনেট থেকে অব্যাহতি চেয়ে শোভনের চিঠি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) সিনেটের ছাত্র প্রতিনিধি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার চেয়ে উপাচার্য বরাবর চিঠি দিয়েছেন ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

জাবির সেই চাঁদার টাকা হয় হরিলুট, অন্তরের খোলা চিঠি

জাবির সেই চাঁদার টাকা হয় হরিলুট, অন্তরের খোলা চিঠি

কথপোকথনের এক পর্যায়ে হামজা রহমান অন্তরকে বলতে শোনা যায়, ক্যাম্পাসের ৪৪-৪৫ ব্যাচ পর্যন্ত টাকা পাইছে, আমি এটা গোপন রাখার কী আছে স্যার?....স্যার আপনি যদি চান, আমি আপনাকে প্রমাণ দেখাতে পারবো, ৪৪-৪৫ ব্যাচও টাকা পাইছে।

জাতীয়

প্রাথমিকে শিক্ষকপদে উত্তীর্ণদের যা করতে হবে

প্রাথমিকে শিক্ষকপদে উত্তীর্ণদের যা করতে হবে

উত্তীর্ণ প্রার্থীগণকে অনলাইনে আবেদনের আপলোডকৃত ছবি, আবেদনের কপি,লিখিত পরীক্ষার প্রবেশপত্র,নাগরিকত্ব সনদ এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ মুক্তিযোদ্ধা সনদ,মুক্তিযোদ্ধার সাথে সম্পর্ক সনদ,প্রযোজ্য ক্ষেত্রে এতিম সংক্রান্ত সনদ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কমপক্ষে ৯ম গ্রেডের গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত করে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর-২০১৯ অফিস চলাকালে নিজ নিজ জেলায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিয়ে স্বীকারপত্র সংগ্রহ করতে হবে।

রাজনীতি

ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে গোলাম রাব্বানীর স্ট্যাটাস   

ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে গোলাম রাব্বানীর স্ট্যাটাস  

চাঁদাবাজিসহ নানা অনিয়মের দায়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বরখাস্ত হওয়া গোলাম রাব্বানী নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত হয়ে কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। সোমবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেয়া স্ট্যাটাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষমা চান রাব্বানী। পোস্টে নিজের ভুলত্রুটির জন্য অনুতপ্ত বলে উল্লেখ করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

খেলাধুলা

সৌম্যসহ চারজন বাদ, ফিরেছেন রুবেল-শফিউল

সৌম্যসহ চারজন বাদ, ফিরেছেন রুবেল-শফিউল

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। তাতে সৌম্য সরকারসহ চারজন দল থেকে বাদ পড়েছেন। আর নতুন করে দল অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন পাঁচজন। বাদ পড়াদের মধ্যে সৌম্য সরকার ছাড়াও রয়েছেন মেহেদী হাসান, ইয়াসিন মিশু ও আবু হায়দার রনি।

জাতীয়

ডেঙ্গু জ্বরে খুলনা মেডিকেলে আট মাসের শিশুর মৃত্যু

ডেঙ্গু জ্বরে খুলনা মেডিকেলে আট মাসের শিশুর মৃত্যু

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে রাফিত নামে আট মাসের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাত ১২টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটি মারা যায়।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এফআরবিস শনাক্ত: সত্যিই কি ভিনগ্রহীরা সংকেত পাঠাচ্ছে?

এফআরবিস শনাক্ত: সত্যিই কি ভিনগ্রহীরা সংকেত পাঠাচ্ছে?

হলিউড সিনেমা বা সাইন্সফিকশন গল্পে প্রায়ই এলিয়েনের দেখা মেলে। তবে পৃথিবীর বাইরে সত্যিই প্রাণের অস্তিত্ব আছে কিনা, সে এক অজানা রহস্য। এই রহস্য সমাধানে বিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

স্বাস্থ্য

মনোযোগ বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

মনোযোগ বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

অস্বীকার করার উপায় নেই যে আমরা যখন বৃদ্ধ হয়ে যাই, সঙ্গে সঙ্গে আমাদের দেহও বার্ধক্যে উপনীত হয়। তবে, আনন্দের খবর হলো একটু হিসেব করে দৈনন্দিন জীবনের খাদ্যাভাস নির্বাচন করলে আমরা নিজেদের মস্তিষ্ক সুস্থ রাখতে পারি।