• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০, ২৭ চৈত্র ১৪২৬

পানের কাণ্ড পচা রোগের দমন ব্যবস্থাপনা

পানের কাণ্ড পচা রোগের দমন ব্যবস্থাপনা

ফিচার ডেস্ক১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০:০২এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

দেশে পানের বরজ খুব বেশি দেখা না গেলেও এর অর্থনৈতিক গুরুত্ব কোনো অংশে কম নয়। দেশে-বিদেশে পানের রয়েছে ব্যাপক চাহিদা। এতে বিদ্যমান অনেক ওষধিগুণ। কিন্তু রোগবালাই পান উৎপাদনের একটি প্রধান অন্তরায়। পানের একটি মারাত্মক রোগ হল কাণ্ড পচা রোগ। Sclerotium rolfsii নামক ছত্রাকের আক্রমণে পানে এ রোগ হয়ে থাকে। এ রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে ফলন অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে। তাই চাষিদের এই রোগের লক্ষণ ও দমন ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে জানতে হবে।

পানের কাণ্ড পচা রোগের লক্ষণ

  • পান গাছের যেকোনো বয়সে এ রোগ হতে পারে। বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে মাটির ওপর শায়িত লতার গোঁড়ায় মাটির কাছের একটি বা দুটি পর্ব মধ্যে কালো বর্ণ ধারণ করে।
  • এই রোগে আক্রমণের ফলে পান গাছের উপরের লতার পাতা হলুদ হয়ে ঝরে পড়ে। এছাড়াও মাটি সংলগ্ন লতার ওপর সাদা সুতার মত ছত্রাক মাইসেলীয় দেখা যায়।
  • পরবর্তীতে হালকা বাদামি থেকে বাদামি রঙ এর সরিষার ন্যায় অসংখ্য দানার মত স্ক্লেরোসিয়াম দেখা যায় এবং মাটি সংলগ্ন লতা পচে গাছ ঢলে পড়ে মারা যায়।

পানের কাণ্ড পচা রোগ দমন ব্যবস্থাপনা

  • উক্ত রোগাক্রান্ত লতা-পাতা পানের বরজ থেকে তুলে মাটিতে পুঁতে বা পুড়িয়ে ফেলতে হবে।
  • রোগ প্রতিরোধী পানের জাত যেমন- বারি পান-৩ এর চাষ করতে হবে।
  • পান চাষের পূর্বে জমি গভীরভাবে চাষ দিয়ে রোদে ভালো করে শুকাতে হবে।
  • পানের বরজে সবসময় আগাছামুক্ত ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।
  • যদি বরজে পানি বা বৃষ্টির পানি জমে তাহলে দ্রুত নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করতে হবে। তা না হলে পান গাছের গোঁড়া পচে যেতে পারে।
  • পানের বরজে যেন সরাসরি রোদ না পড়ে সে জন্য সার্বক্ষণিক ছায়ার ব্যবস্থা করতে হবে। এছাড়াও সুস্থ সবল রোগমুক্ত পানের লতা সংগ্রহ করতে হবে।
  • ট্রাইকোডার্মা কম্পোস্ট সার প্রতি গাছে পাঁচ গ্রাম হারে জমিতে প্রয়োগ করতে হবে।
  • লতা রোপণের পূর্বে প্রতি লিটার পানিতে দুই গ্রাম হারে কার্বোক্সিন (১৭.৫%) + থিরাম (১৭.৫%) গ্রুপের যেমন- প্রোভাক্স বা কার্বেনডাজিম গ্রুপের যেমন- ব্যভিস্টিন দ্বারা লতা শোধন করে নিতে হবে।
  • বরজে রোগ দেখা দিলে হেক্সাকোনাজল গ্রুপের যেমন- কনটাফ ৫ ইসি ছত্রাকনাশক ১ মিলি/ লিটার অথবা মেনকোজেব (৬৪%) + মেটালাক্সিল (৮%) গ্রুপের যেমন- পদ্মমিল ৭২ ডব্লিউপি ২ গ্রাম/লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। তথ্য সূত্র- উদ্ভিদ সংরক্ষণ উইং, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

টাইমস/জিএস

ইতালিতে করোনায় প্রাণ হারালেন ১০০ চিকিৎসক

ইতালিতে করোনায় প্রাণ হারালেন ১০০ চিকিৎসক

মহামারী করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় ইতালি যেন মৃত্যুপুরী। এখনো থামছেনা মৃত্যুর

সন্ধ্যা ৬টার পর ঘরের বাইরে যাওয়া নিষিদ্ধ

সন্ধ্যা ৬টার পর ঘরের বাইরে যাওয়া নিষিদ্ধ

দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সন্ধ্যা ৬টার পর নাগরিকদের ঘরের বাইরে

করোনায় প্রাণ গেল আরও ৬ জনের

করোনায় প্রাণ গেল আরও ৬ জনের

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৬ জনের

জাতীয়

সাধারণ ছুটি বাড়ল ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত

সাধারণ ছুটি বাড়ল ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। শুক্রবারের ঘোষণার মধ্য দিয়ে চতুর্থ দফায় সাধারণ ছুটি বাড়ানো হলো। এর আগে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আমহদ কায়কাউস সাধারণ ছুটি বাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

জাতীয়

সিঙ্গাপুরে আরও ১১৬ বাংলাদেশী করোনায় আক্রান্ত

সিঙ্গাপুরে আরও ১১৬ বাংলাদেশী করোনায় আক্রান্ত

সিঙ্গাপুরে গত ২৪ ঘন্টায় ১১৬ প্রবাসী বাংলাদেশীসহ মোট ২৮৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের বাংলাদেশী প্রবাসীদের সংখ্যা গিয়ে দাড়াল ৩৬০ জনে। সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য বিভাগ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জাতীয়

করোনা : রাজধানীর মিরপুরে দুটি আবাসিক ভবন লকডাউন

করোনা : রাজধানীর মিরপুরে দুটি আবাসিক ভবন লকডাউন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে রাজধানীর মিরপুরে আরও দুটি আবাসিক ভবন লকডাউন করা হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) সূত্রে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

জাতীয়

রাজধানীতে আরও দুই সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত

রাজধানীতে আরও দুই সাংবাদিক করোনায় আক্রান্ত

রাজধানী ঢাকায় আরও দুইজন সাংবাদিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের এক সংবাদকর্মী করোনায় আক্রান্ত হন। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত দেশে তিনজন সংবাদকর্মী প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্য

করোনাভাইরাস : অ্যাজমা রোগীদের যা জানা প্রয়োজন

করোনাভাইরাস : অ্যাজমা রোগীদের যা জানা প্রয়োজন

নোভেল করোনাভাইরাসের ফলে সৃষ্ট কোভিড-১৯ রোগটির অন্যতম প্রধান উপসর্গ হলো- কফ ও শ্বাসকষ্ট। সাধারণ ঠাণ্ডা বা ইনফ্লুয়েঞ্জার মতোই কোভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তির শ্বাসযন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়, শ্বাসকষ্ট দেখা দেয় এবং অনেক সময় কৃত্রিম শ্বাসপ্রশ্বাস গ্রহণের প্রয়োজন পড়ে। ফলে যাদের অ্যাজমা বা শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়েছে, রোগটি তাদের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে উঠতে পারে। বিভিন্ন গবেষণা বলছে, যাদের ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ কিংবা অ্যাজমার মতো দুরারোগ্য ব্যাধি রয়েছে, কোভিড-১৯তে আক্রান্ত হলে তাদের ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় বেশি। তবে রোগটি অ্যাজমা রোগীদেরকে কিভাবে প্রভাবিত করবে কিংবা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ায় কিনা, সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

বিনোদন

প্রবাসীদের পাশে দাঁড়ালেন সুজানা, দিলেন ১৫ দিনের খাবার!

প্রবাসীদের পাশে দাঁড়ালেন সুজানা, দিলেন ১৫ দিনের খাবার!

মডেল অভিনেত্রী সুজানা জাফর। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে আটকা পড়েছেন তিনি। পরিস্থিতি যখন স্বাভাবিক ছিল তখন সেখানে গিয়েছিলেন সুজানা, পরে আর ফিরতে পারেননি তিনি।