• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

গফরগাঁওয়ে যৌতুকের জন্য কিশোরী গৃহবধূকে হত্যা  

গফরগাঁওয়ে যৌতুকের জন্য কিশোরী গৃহবধূকে হত্যা   

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ০১:২২পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে যৌতুকের দাবিতে সাথী আক্তার (১৩) নামে এক কিশোরী গৃহবধূকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ নাসিমা খাতুন নামে একজনকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার উপজেলার চরমছলন্দ কাঁচারী পাড়া গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

নিহত সাথী আক্তার চরমছলন্দ জিরাতি পাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই নিহতের পিতা আব্দুল লতিফ বাদী হয়ে স্বামী শারফুল, শাশুড়ি, দেবর, ননদ-ননাসসহ ছয়জনকে আসামি করে গফরগাঁও থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ছয় মাস আগে চরমছলন্দ মুসলিম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সাথী আক্তারকে রাওনা ইউনিয়নের ছয় বাড়িয়া গ্রামের চানু মিয়ার ছেলে শারফুল ইসলামের (৩৫) সাথে বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের সময় সাথী আক্তারকে দুই ভরি স্বর্ণালংকার প্রদান করে তার বাবা-মা। বিয়ের পর থেকে বাবার বাড়ি থেকে দুই লাখ টকা যৌতুক নিয়ে আসার জন্য শারফুল ও তার পরিবারের সদস্যরা সাথীর উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিলো। পরে মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে সাথীর বাবা আব্দুল লতিফ কিছুদিন পূর্বে শারফুলকে এক লাখ টাকা দেন।

কিন্তু দাবিকৃত বাকি এক লাখ টাকার জন্য সাথীর ওপর নির্যাতন অব্যাহত থাকে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে সাথীকে নিয়ে শারফুল শ্বশুর বাড়ির পার্শ্ববর্তী চরমছলন্দ কাঁচারী পাড়া গ্রামে তার ভগ্নিপতি কবিরের বাড়িতে যায়। বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে ভগ্নিপতি কবিরের বাড়িতে শারফুল ও তার স্বজনরা এক লাখ টাকার জন্য পুনরায় সাথীর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালায়। এসময় নির্যাতন সইতে পেরে সাথী মারা যায়। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে মৃত্যুর খবর জানতে পেরে সাথীর বাবার বাড়ির লোকজন ছুটে আসেন এবং গফরগাঁও থানায় খবর দেন।

পরে সন্ধ্যায় পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় শারফুলসহ ভগ্নিপতি কবিরের বাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে শারফুলের বোন নাসিমা খাতুনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

গফরগাঁও থানার ওসি মোহাম্মদ আবদুল আহাদ খান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

টাইমস/এইচইউ

মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ তৈরি করুন: আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ তৈরি করুন: আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বলব তারা যেন মিয়ানমারে যায়। এজন্য একটি কমিশন গঠন করা যেতে পারে। কমিশন, জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা এবং অন্যান্য সবার এখন কাজ হচ্ছে মিয়ানমার যাওয়া। সেখানে গিয়ে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করা। আমাদের এখানে তাদের আর কাজ নেই।

নারী ও শিশু নির্যাতন ঠেকাতে তারেকের নির্দেশে বিএনপির নতুন সংগঠন

নারী ও শিশু নির্যাতন ঠেকাতে তারেকের নির্দেশে বিএনপির নতুন সংগঠন

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনায় ‘নারী ও শিশু অধিকার ফোরাম’ গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার স্থায়ী কমিটির সদস্য বেগম সেলিমা রহমান ও কেন্দ্রীয় নেতা নিপুণ রায় চৌধুরীর নেতৃত্বে ৬৬ সদস্যের গঠিত কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়।

কেমন জীবনযাপন করছেন মিয়ানমারের মুসলিমরা

কেমন জীবনযাপন করছেন মিয়ানমারের মুসলিমরা

মিয়ানমার মূলত সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধদের দেশ। তবে সেখানে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিষ্টানদের সংখ্যাও কম নয়। দেশটিতে প্রায়ই সংখ্যালঘু ও ধর্মীয় সহিংসতার ঘটনা ঘটে থাকে। দেশটি রাখাইন প্রদেশে মুসলিম রোহিঙ্গাদের খবর কম-বেশি সবাই জানে। দেশটির অন্যান্য অঞ্চলে বা শহরে মুসলিমরা কেমন আছেন? বৃহস্পতিবার এ নিয়ে একটি তথ্যচিত্র করেছে বিবিসি অনলাইন। প্রতিবেদনটিতে ইয়াঙ্গুন শহরের তিনজন মুসলিম বিবিসির সংবাদদাতা নিক বিকের কাছে বর্ণনা করেছেন মুসলিম হওয়াতে তাদের কি পরিমাণ ভয়াবহ সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

জাতীয়

রাঙামাটিতে সেনা টহলের সময় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত

রাঙামাটিতে সেনা টহলের সময় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত

রাঙামাটিতে সেনাবাহিনীর টহলের সময় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইউপিডিএফ প্রসীতপন্থী দলের শীর্ষ সন্ত্রাসী সুমন চাকমা নিহত হয়েছেন। নিহত সুমন নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা হত্যার অন্যতম আসামি।

জাতীয়

রংপুরে প্রসূতির জরায়ুতে সুই রেখেই সেলাই

রংপুরে প্রসূতির জরায়ুতে সুই রেখেই সেলাই

রংপুর শহরের আদর্শ পাড়া এলাকার অটোরিকশা চালক তানজিদ হোসেনের স্ত্রী আফরোজা বেগমকে প্রসববেদনা নিয়ে ভর্তি করা হয় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নরমাল ডেলিভারির সময় কষ্ট হলে পায়খানা ও প্রস্রাবের রাস্তা কেটে নবজাতককে বের করা হয়। পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলে চিকিৎসক ছাড়াই নার্স ও আয়া সুই রেখে সেলাই করে দেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

বিশ্বে ঝুঁকি বাড়াচ্ছে কিলার রোবট

বিশ্বে ঝুঁকি বাড়াচ্ছে কিলার রোবট

রোবটকে আমরা মানুষের সাহায্যকারী বা কাজের চাপ কমানোর যন্ত্র হিসেবেই মনে করি। কিন্তু বর্তমানে সারা বিশ্বের আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে কিলার রোবট। যার কাজ হবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মানুষ খুন করা। অ্যামাজন, মাইক্রোসফট ও ইনটেলের মতো বিখ্যাত টেক কোম্পানি এসব কিলার রোবট তৈরি করছে। বিভিন্ন দেশের সামরিক বাহিনী যুদ্ধক্ষেত্রে এসব রোবট ব্যবহার করতে চায়।

বিনোদন

পূর্ণাঙ্গ ভূত হয়ে খুনিদের খুঁজছেন জয়া!

পূর্ণাঙ্গ ভূত হয়ে খুনিদের খুঁজছেন জয়া!

দুই বাংলার জনপ্রিয় নায়িকা জয়া আহসান। একের পর এক দর্শকনন্দিত ছবিগুলোর নায়িকা হয়ে বাংলাদেশ-কলকাতায় সমানভাবে পরিচিতি পেয়েছেন তিনি। কিছুদিন আগে বাংলাদেশে মুক্তি পেয়েছে তার সিনেমা 'দেবী'। হ‌ুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত এই সিনেমায় জয়াকে দেখা গিয়েছিলে আধা-ভৌতিক এক চরিত্রে। যেখানে পুরোপুরি ভূত রূপ ধারণ করতে পারেননি তিনি।

বিনোদন

অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন  এষা

অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন এষা

বলিউড অভিনেত্রী এষা গুপ্তা। এবার সড়কে অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন তিনি। দুর্ঘটনায় আহত হলেও খারাপ কিছু হয়নি এই অভিনেত্রীর। পরে আহত অবস্থায় মুম্বাইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানে নায়িকাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন, এষা ভালো আছেন। অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন।

বিনোদন

বিয়ের পরই রিয়ার সেক্স বাণিজ্য!

বিয়ের পরই রিয়ার সেক্স বাণিজ্য!

অন স্ক্রিন কিংবা অফ স্ক্রিন, কোথাও চমক দিতে ভোলেন না রিয়া সেন। তবে বেশ কিছুদিন ধরে চমক দেয়া’তো দূরের কথা, হারিয়েই গেলেন তিনি। বহুদিন ক্যামেরার সামনেই দেখা যায়নি তাকে।