• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

‘এক-দুই সন্তান নীতি’ প্রত্যাশা ও প্রভাব

‘এক-দুই সন্তান নীতি’ প্রত্যাশা ও প্রভাব

সাঈদা জাহান২২ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৫০এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

চীনের one-child policy (এক সন্তান নীতি) সম্পর্কে আমরা মোটামুটি সবাই জানি। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে চীনে ১৯৭৯ সালে এই নীতি চালু হয়। এই নীতি পৃথিবীর বৃহৎ জনসংখ্যার দেশ চীনকে বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে ‘লিঙ্গ ভারসাম্যহীনতা’ উপহার দিয়েছে! যার ফলে ২০১৫ সালে সেই নিয়ম ভেঙে দেয় চীনা সরকার।

এই ‘এক সন্তান নীতি’ ৪-২-১ সমস্যারও জনক। ৪-২-১ সমস্যা হচ্ছে- একজন বাচ্চা তার বয়স্ক দুই বাবা-মা (এখানে বাবা-মা এক সন্তান নীতির ফলে উনারা তাদের বাবা মার একমাত্র বাচ্চা) এবং চার গ্র্যান্ড পেরেন্টস (নানা-নানী ও দাদা-দাদী) সবাইকে দেখে রাখার একমাত্র অবলম্বন। যেহেতু তার অন্য কোনো ভাইবোন নেই এই বয়স্ক মানুষদের দেখভাল করতে।

আমাদের দেশে যদিও এ রকম কোনো নীতি নেই, তারপরও সবার মাঝে ছেলেমেয়ে যাইহোক- দুটো বাচ্চা নেয়ার একটি সুপ্ত চাপ বিদ্যমান। যেমন ধরা যাক, চাকুরীজীবী মায়েদের জন্য মাত্র দুইটি মাতৃত্বকালীন ছুটি বরাদ্দ দেয়া। আর বাবাদের তো তাও নেই।

অথচ ছোট বাচ্চা বড় করাতো চাট্টিখানি কথা নয়- তাই উচ্চশিক্ষা শেষে ক্যারিয়ারের চাপ সামলানো ক্লান্ত মায়েদের আর বেশি বাচ্চা নেয়ার এনার্জিও থাকে না।

এতে করে যে সমস্যা হচ্ছে, তা নিয়ে নিজের একটা উদাহরণ দেই- পরে সবাই যার যার জীবনের সঙ্গে মিলিয়ে নিতে পারবেন।

আমার দাদী-নানী কেউই চাকুরী করতেন না এবং খুবই অল্প বয়সে (দাদীর ১২ বছর বয়সে) উনাদের বিয়ে হয়েছিল। আলহামদুলিল্লাহ্‌ আমার মামা, খালা, চাচা থাকলেও কোনো ফুফু নেই। এরপর আসলো আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম। আমার মেয়ের কোনো ফুফু কিংবা খালা নেই।

এবার যদি আমরা ভবিষ্যতের দিকে তাকাই তাহলে দেখবো, এই ‘এক-দুই সন্তান নীতি’ প্রত্যাশার জাঁতাকলে আমাদের নাতি-নাতনিদের প্রজন্মের বেশির ভাগের কপালেই মামা কিংবা চাচা কিংবা খালা কিংবা ফুফু না থাকার সম্ভাবনাই বেশি। তবে, সমাজের বেশির ভাগ মানুষের জন্য এই দশা হওয়া দুঃখজনক।

আমাদের তিন ভাইবোনের নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে বেড়ে উঠার পিছনে আমাদের মামা-খালাদের বিরাট অবদান রয়েছে। যেটা আমাদের বাচ্চাদের পাওয়ার আর সুযোগ নেই।

অভিভাবক বিশেষজ্ঞদের মতে, একটা বাচ্চার মানসিক বিকাশের জন্য প্রসবকালীন ও পৈতৃক মামা কিংবা চাচা থাকার গুরুত্ব অপরিসীম।

ছহীহ আবু দাউদের এক হাদিসের বর্ণনা অনুযায়ী “খালা মায়ের মতো একই মর্যাদার।”

বর্তমানে আমরা দেখতে পাচ্ছি, বিশ্বব্যাপী পারিবারিক বন্ধনের ভালোবাসার অভাবে তরুণ প্রজন্ম একাকী বেড়ে উঠছে। যার ফলে তারা শারীরিক ও মানসিক বিকাশে বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে। এর পেছনে আমাদের ‘এক-দুই সন্তান নীতি’ প্রত্যাশার প্রভাব কোনো অংশেই কিন্তু কম নয়।

লেখক: সাঈদা জাহান তানিয়া, গবেষণা সহযোগী, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

 

টাইমস/জিএস

এবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ করোনায় আক্রান্ত

এবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ করোনায় আক্রান্ত

এবার কারোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি

খুলনায় হাঁটুপানিতে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজের ছবি ভাইরাল!

খুলনায় হাঁটুপানিতে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজের ছবি ভাইরাল!

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে খুলনা অঞ্চলে। ভেঙে গেছে

দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল

দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ৭৯তম দিনে মোট মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে

রাজনীতি

খালেদার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় সন্ধ্যায়

খালেদার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় সন্ধ্যায়

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সোমবার সন্ধ্যায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। সন্ধ্যা ৭টায় চেয়ারপার্সনের গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আসবেন বিএনপির নেতারা।

জাতীয়

যেসব এলাকায় হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি

যেসব এলাকায় হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি

রংপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ, ঢাকা ও সিলেট অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যোতে বলা হয়েছে।

জাতীয়

সিরাজগঞ্জে ঈদের নামাজে সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

সিরাজগঞ্জে ঈদের নামাজে সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

ঈদের নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন আইউব আলী নামে এক ইমাম। এঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ইমাম আইউব আলী সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার নন্দলালপুর গ্রামের মৃত দেরাজ আলী মুন্সির ছেলে ও নন্দলালপুর আলিম মাদ্রাসার সিনিয়র প্রভাষক ছিলেন।

স্বাস্থ্য

করোনাকালে ঈদে সুস্থ থাকতে প্রয়োজন স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ

করোনাকালে ঈদে সুস্থ থাকতে প্রয়োজন স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ

এক মাস সিয়াম সাধনার পর উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ আনন্দের বড় অনুষঙ্গ হলো খাবারদাবার। এই সময় কিছুটা ভালো-মন্দ খাওয়া হবে, এটাই তো স্বাদের নানা আয়োজনে উদরপূর্তিময়। কিন্তু এ বছর করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে পরিস্থিতি ভিন্ন। এবার ঈদ উদযাপনের চেয়ে শরীর ঠিক রাখার দিকেই নজর দিতে হচ্ছে বেশি। পাশাপাশি মেনে চলতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

অর্থনীতি

ইঁদুরের আঁকা ছবি বিক্রি করে লাখ টাকা আয়

ইঁদুরের আঁকা ছবি বিক্রি করে লাখ টাকা আয়

গুস নামের ইঁদুরটি সাধারণ কোনো ইঁদুর নয়, বরং সে একজন শিল্পী। একই সঙ্গে বড়লোক ইঁদুর। কারণ, ছবি এঁকে বেশ মোটা অঙ্কের টাকার রোজগার করছে সে। গুস তার ছোট ছোট পাঞ্জা ব্যবহার করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র মাস্টারপিস (ছবি) তৈরি করে, যা এখন পর্যন্ত বিক্রি করে আয় হয়েছে ১,০০০ পাউন্ড বা প্রায় এক লাখ টাকা।

জাতীয়

বাংলাদেশিসহ ৪ নাগরিকের জন্য এয়ার এম্বুলেন্স পাঠাল তুরস্ক!

বাংলাদেশিসহ ৪ নাগরিকের জন্য এয়ার এম্বুলেন্স পাঠাল তুরস্ক!

তুবা আহসান একজন তুর্কি নাগরিক। তিনি বিয়ে করেছিল বাংলাদেশি এক নাগরিককে। কিছুদিন আগে তুবা আহসান এবং তার পরিবারের কয়েক সদস্য