• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

ধানচাষিদের বাঁচাতে বিএনপির ১২ প্রস্তাব

ধানচাষিদের বাঁচাতে বিএনপির ১২ প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদক২৫ মে ২০১৯, ০২:৫৮পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, দলীয় নেতা-কর্মীদের পকেট ভারী করার জন্য তাদের ধান কেনার অনুমতি দিয়ে সরকার কৃষকদের ন্যায্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করছে। দেশে ধান উৎপাদন সম্পর্কে সরকার মিথ্যাচার করছে। মৌসুমের আগেই ধানের সংগ্রহ মূল্য ঘোষণা করা এবং সংগ্রহ মূল্য অবশ্যই উৎপাদন খরচের চেয়ে যৌক্তিক পরিমাণ বেশি হবে।

তিনি বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের খাদ্যের জোগানদাতা কৃষক পরিবারের অবস্থা আজ খুবই নাজুক ও দুর্বিষহ। কিন্তু কৃষকেরা ধানের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে হতাশাগ্রস্ত। দেশের প্রায় দেড় কোটি কৃষক পরিবারের আজ ত্রাহি অবস্থা।

কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্যের জন্য সরকারে কাছে ১২ দফা দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ দাবিগুলো তুলে ধরেন।

কৃষকের পণ্যের ন্যায্য মূল্য, বিশেষ করে ধানের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, কৃষি উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ বৃদ্ধি করতে হবে, কৃষিঋণ মওকুফ করতে হবে। অন্য দাবির মধ্যে আছে কৃষকদের উৎপাদিত ধানের বিপরীতে সরকার–ঘোষিত মূল্য অনুযায়ী কৃষককে কমপক্ষে তিন মাসের জন্য সমপরিমাণ টাকা বিনা সুদে প্রদান করা, সরকারি পর্যায়ের ধান–চাল গুদামজাত করার ক্ষমতা হলো প্রায় ২১ দশমিক ৮ লাখ মেট্রিক টন, এই ধারণক্ষমতা বাড়িয়ে বেশি পরিমাণে সরকারকে ধান ক্রয় করতে হবে। কৃষকদের সহায়তার জন্য বেসরকারি গুদাম ভাড়া করে সেখানে ধান–চাল সংগ্রহ করতে হবে, কৃষকের কাছ থেকে বেশি পরিমাণ ধান ক্রয়ের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকার অতিরিক্ত বরাদ্দ দিতে হবে। কৃষকদের হয়রানি কমিয়ে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান বা চাল কিনতে হবে, প্রান্তিক চাষি ও খেতমজুরদের জন্য বিশেষ সুদবিহীন ঋণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, ধান–চাল ক্রয়ের ক্ষেত্রে অসৎ কর্মকর্তাদের জড়িত করা যাবে না এবং অসৎ কর্মকর্তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।

কৃষকদের বিশেষ করে ধানচাষিদের চাওয়া হচ্ছে সরকার ন্যায্য মূল্যে চাষিদের কাছ থেকে সরাসরি ধান ক্রয় করুক। কৃষকদের এই দাবির বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘কৃষকদের চাওয়া খুবই সামান্য ও যৌক্তিক। আমরা কৃষকদের এই যৌক্তিক দাবির সঙ্গে একমত।’

চাল আমদানির ক্ষেত্রে দুর্নীতির মাত্রা ব্যাপক উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, সরকারের অংশীদারি একটি দলের প্রধান সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেননও চাল আমদানিতে সরকারের দুর্নীতির কথা স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছেন। এ ছাড়া সরকারি দলের সাংসদ রমেশ চন্দ্র সেনও এই পরিস্থিতির জন্য এ সরকারের সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলামকে দায়ী করেছেন।

ফখরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘গত বছরের উৎপাদনকে হিসাবে নিলে বোরো ধানের উৎপাদন হবে প্রায় দুই কোটি মেট্রিক টন। আর সরকার সংগ্রহ করবে মাত্র ১৩ লাখ টন, যা উৎপাদনের মাত্র ৬ দশমিক ৫ শতাংশ। আমাদের দাবি, ধান অথবা চাল সংগ্রহের পরিমাণ কমপক্ষে বোরো উৎপাদনের ১৫ শতাংশ করা হোক। এতে বেশি পরিমাণ কৃষককে সহায়তা দেয়া যাবে।’

খেলাপি ঋণের পরিমাণ প্রায় এক লাখ কোটি টাকা উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই খেলাপি ঋণগ্রহীতাদের জন্য সরকার বিশেষ ছাড় দিয়েছে। যদিও এই ছাড় মহামান্য হাইকোর্ট আটকে দিয়েছেন। সরকার ব্যাংক লুটপাটকারীদের দুধকলা দিয়ে পুষছে। অথচ এই খেলাপি ঋণের মাত্র ১০ শতাংশ বরাদ্দ দিলে সরকার আরও প্রায় ৩৬ লাখ মেট্রিক টন ধান কৃষকদের কাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারে। এতে দেশের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষিরা উপকৃত হবেন। বর্তমানে কৃষকদের যে দুরবস্থা, তা দূর করতে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়ার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।’

সরকারের দুর্নীতি ও অদূরদর্শিতার কারণে কৃষিনির্ভর বাংলাদেশের কৃষি আজ ধ্বংসের মুখে বলে অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

তিনি বলেন, বারবার গরিব কৃষক তার উৎপাদিত ফসলের ন্যায্য মূল্য না পেয়ে ফসল উৎপাদনে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। এর সুদূরপ্রসারী পরিণাম অত্যন্ত ভয়াবহ। জাতীয় অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি কৃষি খাতকে একটি আধুনিক ও টেকসই খাত হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এবং কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করার জন্য আজ বড়ই প্রয়োজন সত্যিকার অর্থে একটি নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে খুব দ্রুত সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের একটি সরকার।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ন্যাপ সভাপতি মোজাফ্ফর আহমেদ আর নেই

ন্যাপ সভাপতি মোজাফ্ফর আহমেদ আর নেই

প্রবীণ রাজনৈতিক নেতা ও ন্যাপ ( মোজাফ্ফর) এর সভাপতি অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমেদ আমাদের মাঝে আর নেই। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

চীন ‘চোর’, সম্পর্কের দরকার নেই বললেন ট্রাম্প

চীন ‘চোর’, সম্পর্কের দরকার নেই বললেন ট্রাম্প

যুক্তরাষ্ট্র থেকে চীন ‘বিশাল অঙ্কের অর্থ চুরি করে নিয়ে গেছে’ বলে অভিযোগ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার রাতে তিনি নিজের ভেরিফাইড টুইটারে এমন দাবি করেন।

মেয়রকে নিয়ে মধ্যরাতে রাস্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মেয়রকে নিয়ে মধ্যরাতে রাস্তায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেট শহরে চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ঘুরে দেখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

উক্তি প্রতিদিন

সন্দেহের কাছে সৎ লোক আত্মসমর্পণ করে না

সন্দেহের কাছে সৎ লোক আত্মসমর্পণ করে না

স্যামুয়েল টেলর কোলরিজ (এস টি কোলরিজ), একজন ব্রিটিশ কবি। যাকে সাধারণভাবে অভিহিত করা হয় একজন দূর কল্পচারী, অসীম কল্পনাগামী ও রোমান্টিক কবির পাশাপাশি প্রকৃতি এবং বিষণ্ণতার কবি হিসেবে।

জাতীয়

কাঁচা পেঁপের বহুমাত্রিক পুষ্টিগুণ

কাঁচা পেঁপের বহুমাত্রিক পুষ্টিগুণ

কাঁচা পেঁপের আছে আশ্চর্য কিছু গুণ। এতে রয়েছে ভিটামিন ‘এ’, ভিটামিন ‘বি’ ও ভিটামিন ‘সি’। সেই সঙ্গে রয়েছে লৌহ ও ক্যালসিয়াম। শরীর সুস্থ রাখতে ও শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে কাঁচা পেঁপে দারুণ কার্যকর।

রাজনীতি

শেখ হাসিনার সরকার সংখ্যালঘুবান্ধব: কাদের

শেখ হাসিনার সরকার সংখ্যালঘুবান্ধব: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি শুধু সংখ্যালঘুদের শত্রু নয়, এরা সারা বাংলাদেশের শত্রু। আসুন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে সকলে মিলে সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে প্রতিহত করি। রাজধানীর পলাশীর মোড়ে ঐতিহাসিক জন্মাষ্টমী মিছিলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

জাতীয়

মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ তৈরি করুন: আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ তৈরি করুন: আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারে গিয়ে অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বলব তারা যেন মিয়ানমারে যায়। এজন্য একটি কমিশন গঠন করা যেতে পারে। কমিশন, জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা এবং অন্যান্য সবার এখন কাজ হচ্ছে মিয়ানমার যাওয়া। সেখানে গিয়ে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের জন্য অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করা। আমাদের এখানে তাদের আর কাজ নেই।

আন্তর্জাতিক

কেমন জীবনযাপন করছেন মিয়ানমারের মুসলিমরা

কেমন জীবনযাপন করছেন মিয়ানমারের মুসলিমরা

মিয়ানমার মূলত সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধদের দেশ। তবে সেখানে মুসলিম, হিন্দু, খ্রিষ্টানদের সংখ্যাও কম নয়। দেশটিতে প্রায়ই সংখ্যালঘু ও ধর্মীয় সহিংসতার ঘটনা ঘটে থাকে। দেশটি রাখাইন প্রদেশে মুসলিম রোহিঙ্গাদের খবর কম-বেশি সবাই জানে। দেশটির অন্যান্য অঞ্চলে বা শহরে মুসলিমরা কেমন আছেন? বৃহস্পতিবার এ নিয়ে একটি তথ্যচিত্র করেছে বিবিসি অনলাইন। প্রতিবেদনটিতে ইয়াঙ্গুন শহরের তিনজন মুসলিম বিবিসির সংবাদদাতা নিক বিকের কাছে বর্ণনা করেছেন মুসলিম হওয়াতে তাদের কি পরিমাণ ভয়াবহ সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

বিনোদন

বিয়ের পরই রিয়ার সেক্স বাণিজ্য!

বিয়ের পরই রিয়ার সেক্স বাণিজ্য!

অন স্ক্রিন কিংবা অফ স্ক্রিন, কোথাও চমক দিতে ভোলেন না রিয়া সেন। তবে বেশ কিছুদিন ধরে চমক দেয়া’তো দূরের কথা, হারিয়েই গেলেন তিনি। বহুদিন ক্যামেরার সামনেই দেখা যায়নি তাকে।