• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

স্মার্টফোন: নারীর ক্ষমতায়নের মাধ্যম

স্মার্টফোন: নারীর ক্ষমতায়নের মাধ্যম

প্রযুক্তি ডেস্ক০৩ আগস্ট ২০১৯, ০৭:১৮পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বিশ্বজুড়ে সহজলভ্য হচ্ছে ইন্টারনেট সেবা। প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে বাড়ছে অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তি। তবে উন্নতির সে দৌঁড়ে এখনো পুরুষের তুলনায় নারীরা পিছিয়ে রয়েছে। সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, নারীদের এ পিছিয়ে থাকা মানে হলো সামগ্রিকভাবে পশ্চাৎপদ পৃথিবী। তাই নারীদের এগিয়ে আনতে ইন্টারনেট বা স্মার্টফোনে নারীর সমান অন্তর্ভুক্তি প্রয়োজন।  

সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম খালিজ টাইমসে।

নিবন্ধটিতে গার্ল ইফেক্ট নামক একটি আন্তর্জাতিক সংস্থার সিইও জেসিকা পসনার ওডেডে বলেন, শিক্ষা এবং শালীন কাজ থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য এবং সহিংসতা পর্যন্ত এমন অঞ্চলে আজ ১ দশমিক ৪ বিলিয়ন মেয়ে এবং মহিলা লিঙ্গ সমতার ক্ষেত্রে পিছিয়ে। তবুও মেয়েদের ক্ষমতায়নের অন্যতম কার্যকর উপায়- মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেটের নিরাপদ এবং নির্ভরযোগ্য অন্তর্ভুক্তি। যদিও এতে কিছু ঝুঁকিও রয়েছে।

তিনি বলেন, জিএসএমএ - মোবাইল অপারেটরদের জন্য বৈশ্বিক বাণিজ্য সংস্থা অনুমান করেছে যে, বর্তমানে পাঁচ বিলিয়নেরও বেশি মানুষের মোবাইল ডিভাইস রয়েছে যার অর্ধেকেরও বেশি স্মার্টফোন। তবে মোবাইল প্রযুক্তির দ্রুত প্রসারণ সমানতালে হয়নি। যদিও গত পাঁচ বছরে মোবাইল ফোন রয়েছে এমন মধ্যম আয়ের দেশগুলোর মহিলাদের সংখ্যা প্রায় ২৫০ মিলিয়ন বেড়েছে। এখনও মোবাইল ফোনসহ পুরুষদের তুলনায় ১৮৪ মিলিয়ন কম মহিলা রয়েছেন এবং ইন্টারনেট ব্যবহারে সম্ভবত মহিলারা পুরুষদের তুলনায় ২৬ শতাংশ কম।

একইভাবে, যদিও অল্প বয়সীরা তাদের বড়দের তুলনায় অধিক হারে মোবাইল ফোনের মালিক তবে এখানেও নারী-পুরুষে বৈষম্য রয়েছে। গার্ল এফেক্টের ২০১৮ সালের এক সমীক্ষা বলছে, একটি অলাভজনক সংস্থা যা মেয়েদের ক্ষমতায়নে মিডিয়া এবং মোবাইল প্রযুক্তি ব্যবহার করে। তারা দেখিয়েছে মেয়েদের তুলনায় ছেলেদের স্মার্ট ফোনের মালিক হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় দেড়গুণ বেশি।

তবে মালিকানায় অন্তর্ভুক্তির মতো নয় বরং মেয়েরা মোবাইল ডিভাইসটি তাদের হাতে পেতে সবচেয়ে বুদ্ধিমান উপায়গুলি প্রয়োগ করে। আমরা যখন সংস্থার পক্ষ হয়ে মেয়েদের সাক্ষাতকার নেই, তখন তাদের মধ্যে ভারত, মালাভি এবং তানজানিয়ার মত দেশগুলোর অন্তত অর্ধশতাধিক মেয়ে জানায়, তারা নিয়মিত তাদের বাবা-মা, ভাইবোন বা বন্ধুদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন ধার করে। কেউ কেউ সিম কার্ড এবং ডিভাইস অন্যের সঙ্গেও ভাগাভাগি করে।

ইন্টারনেটে অন্তর্ভুক্তির বিশাল সুবিধার মধ্যে এটি একটি সুসংবাদ যে, এই অন্তর্ভুক্তিই কেবল শেষ নয় বরং এটি কেবল জ্ঞানের মাধ্যমেই নয় সংযোগের মাধ্যমেও বৈষম্য কমায়। এটি নারী-পুরুষ বৈষম্য কমানোর একটা মাধ্যম। আজকাল, মোবাইল ফোনগুলি স্বাস্থ্য এবং আর্থিক পরিষেবাদির মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবাগুলিতে সময় ব্যয় করে।

তাই স্বাস্থ্য থেকে শুরু করে কর্মসংস্থান পর্যন্ত সকল ক্ষেত্রে নিজের জীবন সম্পর্কে অবগত হওয়ার জন্য মোবাইলে সম্পৃক্ত হওয়া একটি ন্যায়সঙ্গত অধিকারও বটে।

মেয়েদের অনলাইনে প্রবেশ, তাদের নিজস্ব ডিভাইসের সুযোগ দেওয়া এটি কেবল প্রথম পদক্ষেপ। তবে আমাদের অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে, তারা যে ডিভাইসগুলি ব্যবহার করছে তার পুরো সুবিধা নিতে তাদের পর্যাপ্ত প্রযুক্তিগত সাক্ষরতা রয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, সামগ্রিকভাবে ছেলেরা মেয়েদের চেয়ে অনেক বেশি বৈশিষ্ট্য এবং ক্ষমতা সম্পন্ন ফোন ব্যবহার করে।

এরপরও, মেয়েরা অনলাইন সুবিধা পেলে তারা কী খুঁজে পায় তা আমাদের অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে। তারা যে তথ্য পায় তা কি সঠিক? তারা কি শোষণের ঝুঁকিতে রয়েছে? এই প্রশ্নগুলিকে এড়িয়ে যাওয়া কিংবা উপেক্ষা করা হবে বিপজ্জনক।

আমাদের উচিত নিরাপদ অনলাইন স্পেস তৈরি করা। যেখান থেকে মেয়েরা তাদের জন্য উপযুক্ত নির্ভরযোগ্য তথ্য পেতে পারে। তাদের জন্য প্রয়োজনীয় মূল্যবান পরিষেবাগুলি আবিষ্কার করতে পারে এবং মুখোমুখি অন্যদের সাথে যোগাযোগ করতে পারে। এতে তাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস  বাড়বে, তারা স্বপ্নবাজ হয়ে উঠবে।

মেয়েরা যখন অনলাইনে প্রবেশের পূর্ণ সুযোগ পাবে তখন তারা হয় শিখতে চাইবে না হয় বিনোদন দেবে। আমাদের অবশ্যই তাদের সেখানে দেখা উচিত। এছাড়া তাদের জন্য এমন অভিজ্ঞতা প্রদান করা যা আকর্ষণীয় কিন্তু বিদঘুটে নয়। যেন ডিজিটাল সাক্ষরতার অভাব রয়েছে এমন কেউও যেন ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারে, সেবা পায়।  

ইথিওপিয়া, রুয়ান্ডা এবং মালাভির মেয়েরা ইতিমধ্যে এই জাতীয় প্ল্যাটফর্মগুলি থেকে উপকৃত হচ্ছে এবং একই রকম উদ্যোগ ভারত এবং তানজানিয়ায় চালু করা হচ্ছে। এই সমস্ত পরিবেশ, পদ্ধতির স্থানীয় সহযোগিতা প্রয়োজন এবং দৃষ্টিভঙ্গি অনুসারে এর ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।

জেন্ডার সমতার সুদূরপ্রসারী এবং বিস্তৃতভাবে ভাগ-ভাগাভাগি করে নিরীক্ষণের কোনও অভাব নেই। উদাহরণস্বরূপ, ভারতে মহিলা শ্রমশক্তির অংশগ্রহণ বাড়াতে দেশটির অর্থনীতিতে ৫ বিলিয়ন ডলার যুক্ত হতে পারে। যা কর্মজীবীদের পুরো ২৭ ভাগকে ধনী করে তুলবে। ফলে তা উর্বরতার হার হ্রাস করে উচ্চতর বিনিয়োগে সক্ষম করে তুলবে। এতে করে অর্থনৈতিক বৃদ্ধি এবং বিকাশ টেকসই হবে।

এই লাভজনক অবস্থাকে সুরক্ষিত করতে চাইলে সরকার এবং তার অংশীদারদের অবশ্যই প্রযুক্তি ভিত্তিক উদ্যোগে বিনিয়োগ করতে হবে। যাতে মেয়েদের অংশগ্রহণ বাড়ে। তাদের জন্য নিরাপদ, আকর্ষক এবং তথ্যমূলক অংশগ্রহণের জন্য অনলাইন হবে একটি সুন্দর প্ল্যাটফর্ম।

 

টাইমস/এমএস/এইচইউ

বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ট্রাক ধর্মঘটের ঘোষণা

বুধবার থেকে অনির্দিষ্টকালের ট্রাক ধর্মঘটের ঘোষণা

সড়ক পরিবহন আইন স্থগিতসহ নয় দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের পণ্য প‌রিবহন

এবার কন্যা সন্তানের বাবা হলেন তামিম

এবার কন্যা সন্তানের বাবা হলেন তামিম

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল খান দ্বিতীয়বারের মতো

শোভন-রাব্বানীসহ শতাধিক ব্যক্তির সম্পদের অনুসন্ধানে দুদক

শোভন-রাব্বানীসহ শতাধিক ব্যক্তির সম্পদের অনুসন্ধানে দুদক

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক

স্বাস্থ্য

দেহের সর্বাঙ্গীণ উন্নতি ঘটায় কারিপাতা

দেহের সর্বাঙ্গীণ উন্নতি ঘটায় কারিপাতা

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কারিপাতা এক অপরিহার্য ভেষজ। নানান কাজে এর ভূমিকার জুরি মেলা ভার। কারিপাতা এক কথায় মাথার চুল থেকে পায়ের নখ পর্যন্ত শরীরের প্রতি অঙ্গের কর্মক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। একাধিক মরণব্যাধি রোগকে দূরে রেখে আয়ু বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে।

বিনোদন

মিথিলার বিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি, বর কলকাতার সৃজিত!

মিথিলার বিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি, বর কলকাতার সৃজিত!

আবারও বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চলেছেন ছোট পর্দার অভিনেত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। জানা গেছে, আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি ভারতের পরিচালক সৃজিত মুখার্জি ও বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হচ্ছেন তিনি।

উক্তি প্রতিদিন

“কাপুরুষ ব্যক্তি নারীর  সমতুল্য”

“কাপুরুষ ব্যক্তি নারীর সমতুল্য”

ফার্সি সাহিত্যে একটি প্রবাদ আছে- ‘সাতজন কবির সাহিত্যকর্ম রেখে যদি বাকি সাহিত্য দুনিয়া থেকে মুছে ফেলা হয়, তবু ফার্সি সাহিত্য টিকে থাকবে। এই সাতজন কবির অন্যতম শেখ সাদি।’ ফার্সি গদ্যের জনক মহাকবি শেখ সাদি দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাভাষী পাঠকের কাছে অতি প্রিয় কবি। শুধু বাঙালিই নয় বিশ্বজুড়ে তিনি অত্যন্ত সমাদৃত।

ভ্রমণ

থাইল্যান্ড ভ্রমণ: পাতায়া থেকে কোরাল দ্বীপ (পর্ব-৩)

থাইল্যান্ড ভ্রমণ: পাতায়া থেকে কোরাল দ্বীপ (পর্ব-৩)

থাইল্যান্ডের পাতায়াতে আমাদের ২য় দিন। মা-বাবা ভোর ৬ টায় আমাকে ডেকে তুললেন। কিছুতেই ঘুম থেকে উঠতে মন চাচ্ছিল না। তবে ঘুরতে আসার পর যদি ঘুম কাবু করে ফেলে তাহলে যে, বড়ই সমস্যা। তাই ঘুম থেকে উঠে রেডি হয়ে বেড়িয়ে পড়লাম নতুন গন্তব্যে।

অর্থনীতি

বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার

বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার

মিসর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে। ১৯ নভেম্বর ঐ পেঁয়াজের প্রথম চালান দেশে আসবে। এলসির মাধ্যমে সমুদ্রপথে পেঁয়াজ আমদানিতে দেড় মাসের মতো সময় লাগে। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপদকালীন সমস্যা নিরসনে দ্রুত গতিতে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আমদানির নির্দেশ দিয়েছেন।

বিনোদন

নায়ক শাকিব খানকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ১০ লাখ টাকা জরিমানা!

নায়ক শাকিব খানকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ১০ লাখ টাকা জরিমানা!

নকশা না মেনে রাজধানীর নিকেতনে বাড়ি করায় ঢাকার শীর্ষ নায়ক শাকিব খানকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে রাজউকের ভ্রাম্যমান আদালত। সোমবার (১৮ নভেম্বর) সকালে রাজউকের এ অভিযান পরিচালিত হয়। এতে জরিমানার মুখোমুখি হন নায়ক শাকিব।