• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

উক্তি প্রতিদিন

“কথার শক্তিকে না জেনে মানুষকে জানা অসম্ভব”

“কথার শক্তিকে না জেনে মানুষকে জানা অসম্ভব”

চীনের ঐতিহ্য আর সংস্কৃতির কথা বলতে গেলে সে দেশের একজন বিখ্যাত ব্যক্তির কথা অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে, তিনি হলেন কনফুসিয়াস। কনফুসিয়াস জন্মেছিলেন প্রাচীন চীনের লু নামক ক্ষুদ্র রাজ্যে (বর্তমানে শ্যানডং প্রদেশের অন্তর্গত) আনুমানিক ৫৫০ খ্রিস্টপূর্বাব্দে। তিনি ছিলেন একজন বিশিষ্ট চীনা দার্শনিক, যার দর্শন পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার চীন, জাপান, কোরিয়া, সিঙ্গাপুর, লাওস, কম্বোডিয়া, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনামের মতো দেশের সামাজিক জীবন, কর্ম-পেশা, নৈতিকতা

“কাপুরুষ ব্যক্তি নারীর  সমতুল্য”

“কাপুরুষ ব্যক্তি নারীর সমতুল্য”

ফার্সি সাহিত্যে একটি প্রবাদ আছে- ‘সাতজন কবির সাহিত্যকর্ম রেখে যদি বাকি সাহিত্য দুনিয়া থেকে মুছে ফেলা হয়, তবু ফার্সি সাহিত্য টিকে থাকবে। এই সাতজন কবির অন্যতম শেখ সাদি।’ ফার্সি গদ্যের জনক মহাকবি শেখ সাদি দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাভাষী পাঠকের কাছে অতি প্রিয় কবি। শুধু বাঙালিই নয় বিশ্বজুড়ে তিনি অত্যন্ত সমাদৃত।

“যদি তুমি কথা বলতে ভালোবাসো তবে নিম্ন স্বরে কথা বল।”

“যদি তুমি কথা বলতে ভালোবাসো তবে নিম্ন স্বরে কথা বল।”

সক্রেটিস ছিলেন একজন গ্রিক দার্শনিক। বিশ্বে যত বড় বড় দার্শনিকের জন্ম হয়েছে তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম। তিনি ৪৭০ খ্রিষ্টপূর্বে গ্রীসের রাজধানী এথেন্সে জন্মগ্রহণ করেন।

“কেউ বা মরে কথা বলে, কেউ  বা মরে না বলে।” 

“কেউ বা মরে কথা বলে, কেউ বা মরে না বলে।” 

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৮৬১ সালের ৭ মে ভারতের কলকাতার জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। একাধারে তিনি ছিলেন অগ্রণী বাঙালি কবি, ঔপন্যাসিক, সংগীতস্রষ্টা, নাট্যকার, চিত্রকর, ছোটগল্পকার, প্রাবন্ধিক, অভিনেতা, কণ্ঠশিল্পী ও দার্শনিক।

“অসংলগ্ন কথাবার্তা বিরক্তি উদ্রেক করে”

“অসংলগ্ন কথাবার্তা বিরক্তি উদ্রেক করে”

ফ্রঁসোয়া-মারি আরুয়ে, যিনি ছদ্মনাম ভলতেয়ার নামেই বেশি পরিচিত। ফরাসি আলোকময় যুগের একজন লেখক, প্রাবন্ধিক, দার্শনিক ও পথ প্রদর্শক। ১৬৯৪ সালের ২১ নভেম্বর ফ্রান্সের প্যারিসে এক মধ্যবিত্ত পরিবারে ভলতেয়ারের জন্ম।

“বেশি কথা বলা নির্বুদ্ধিতার নিদর্শন”

“বেশি কথা বলা নির্বুদ্ধিতার নিদর্শন”

প্রাচীন গ্রিসের প্রভাবশালী তিন দার্শনিকের একজন অ্যারিস্টটল। অন্য দু’জন হলেন সক্রেটিস ও প্লেটো। সক্রেটিসের ছাত্র ছিলেন প্লেটো আর প্লেটোর ছাত্র অ্যারিস্টটল। অ্যারিস্টটলকে প্রাণীবিজ্ঞানের জনক বলা হয়।