• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির বিরুদ্ধে করা গ্রামবাসীর তিন মামলা খারিজ

ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবির বিরুদ্ধে করা গ্রামবাসীর তিন মামলা খারিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক১১ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:২১পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিজিবির গুলিতে তিনজন নিহতের ঘটনায় গ্রামবাসীর করা তিনটি মামলা খারিজ করে দিয়েছে আদালত।

বৃহস্পতিবার বিচারিক হাকিম আরিফুর রহমান এ আদেশ দেন বলে জানান বাদীপক্ষের আইনজীবী নুরুল ইসলাম। একই ঘটনায় আগে বিজিবির করা মামলার তদন্ত শেষ না হওয়ার কথা উল্লেখ করে আদালত এ মামলাগুলো খারিজ করেছে বলে জানান নুরুল ইসলাম।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি হরিপুরের বকুয়া ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামে বিজিবির গুলিতে তিন গ্রামবাসী নিহত হন।

এ ঘটনায় গত ২৪ ফেব্রুয়ারি নিহত জয়নুলের বাবা নূর ইসলাম, নিহত নবাব উদ্দিনের বাবা নজরুল ইসলাম ও নিহত সাদেকের ভাই আব্দুল বাসেদ বাদী হয়ে পৃথক তিনটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এসব মামলায় ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ (৩৩), বেতনা ক্যাম্পের নায়েক হাবিবুল্লাহ (৩২), নায়েক দেলোয়ার হোসেন (৩০), সিপাহী হাবিবুর রহমান (৩৫), সিপাহী মুরসালিন (৩২), সিপাহী বায়রুল ইসলাম (২৮) ও নায়েক সুবেদার জিয়াউর রহমানকে (৩৫) আসামি করা হয়।

আইনজীবী নুরুল ইসলাম বলেন, আদালতের বিচারক ফারহানা খান ১২ মার্চ এই তিন মামলা আমলে নিয়ে হরিপুর থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দেন এবং ১১ এপ্রিল মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেন।

নিহতের স্বজনদের মামলার আগে ১৪ ফেব্রুয়ারি বেতনা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার নায়েক সুবেদার জিয়াউর রহমান বাদী হয়ে হরিপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন।

একটি মামলায় নিহত নবাব, সাদেকসহ আরও একজনকে আসামি করা হয় এবং আরেকটি মামলায় ১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত পরিচয় ২৫০ জনকে আসামি করা হয়।

আইনজীবী নুরুল ইসলাম বলেন, বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা তিনটি করার আগে একই ঘটনায় হরিপুর থানায় দুইটি মামলা করে বিজিবি। যেহেতে হরিপুর থানায় বিজিবির মামলা দুটি তদন্তাধীন রয়েছে; সে কারণে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত একই ঘটনায় আর কোনো মামলা করা সম্ভব নয় উল্লেখ করে আদালত গ্রামবাসীর তিনটি অভিযোগ খারিজ করে দেয়।

নিহতদের পরিবারের মামলা খারিজ করে দেয়ায় ন্যায়বিচার নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে এবং তারা উচ্চ আদালতে যাবেন বলে নুরুল ইসলাম জানান।

 

 

টাইমস/এসআই

রূপপুর বালিশকাণ্ড: মাসুদুল আলমসহ ১৩ প্রকৌশলী গ্রেপ্তার

রূপপুর বালিশকাণ্ড: মাসুদুল আলমসহ ১৩ প্রকৌশলী গ্রেপ্তার

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বালিশ ও আসবাবপত্র কেনাকাটায় দুর্নীতির

‘এক কেজি পেঁয়াজের বিমান ভাড়া ১৫০ টাকা’

‘এক কেজি পেঁয়াজের বিমান ভাড়া ১৫০ টাকা’

জরুরি ভিত্তিতে ঘাটতি মেটাতে বিমানে করে পেঁয়াজ আমদানি করতে গিয়ে

খুলনায় অনশনে অসুস্থ হয়ে পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু

খুলনায় অনশনে অসুস্থ হয়ে পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু

খুলনায় আমরণ অনশনে অসুস্থ হয়ে প্লাটিনাম জুট মিলের এক শ্রমিক

জাতীয়

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩

ঢাকার কেরানীগঞ্জের একটি প্লাস্টিক কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ জন হয়েছে। বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১২ জনের মৃত্যু হয়। এর আগে ঘটনাস্থল থেকে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জাতীয়

রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত   

রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  

রাজশাহীতে বাসের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন।

জাতীয়

বেনাপোলে নারীর কাছে মিলল ২০ হাজার মার্কিন ডলার

বেনাপোলে নারীর কাছে মিলল ২০ হাজার মার্কিন ডলার

ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ২০ হাজার মার্কিন ডলার ও দুটি মোবাইল ফোনসহ এক নারীকে আটক করেছে বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা।

জাতীয়

নোয়াখালীতে মাতাল অবস্থায় চার সহযোগীসহ জেলা পরিষদ সদস্য আটক

নোয়াখালীতে মাতাল অবস্থায় চার সহযোগীসহ জেলা পরিষদ সদস্য আটক

মদ্যপান করে মাতলামি করার সময় চার সহযোগী সহ নোয়াখালী জেলা পরিষদ সদস্য কামাল উদ্দিন প্রকাশকে (সিএনজি কামাল) ’আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

জাতীয়

মাগুরায় একই ওড়নায় বেয়াই-বেয়াইনের লাশ

মাগুরায় একই ওড়নায় বেয়াই-বেয়াইনের লাশ

মাগুরায় একই ওড়নার দুইপ্রান্তে ঝুলন্ত অবস্থায় এক গৃহবধূ ও এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে সদর উপজেলার বাটাজোড় গ্রাম থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে এটিকে আত্মহত্যা বলে ধারণা করছে পুলিশ।

স্বাস্থ্য

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে জামের বীজ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে জামের বীজ

জাম এমন একটি ফল, যা বাংলাদেশে খুবই পরিচিত। আপনি একটু লক্ষ্য করলেই হয়ত আপনার বাড়ির আঙ্গিনা বা পাড়াতে জাম গাছ পেয়ে যাবেন। জামের মৌসুমে পথে ঘাটে, বাজারে, ট্রেন-বাসে বিক্রি হয় অত্যন্ত জনপ্রিয় জাম মাখা। জাম ফল শুধু খেতেই সুস্বাদু তাই নয়, বরং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্যও এটি সমান পরিচিত।