• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • রোববার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭

বাংলায় আধুনিক প্রবন্ধের জনক রাজা রামমোহন রায়

বাংলায় আধুনিক প্রবন্ধের জনক রাজা রামমোহন রায়

ফিচার ডেস্ক১৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:৩০এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ভারতীয় ধর্মীয়-সামাজিক পুনর্গঠন আন্দোলন ব্রাহ্মসমাজের প্রতিষ্ঠাতা এবং বাঙালি দার্শনিক রামমোহন রায়। তিনি ১৭৭২ সালের ২২ মে হুগলী জেলার রাধানগর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত ও কুলীন হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। একেশ্বরবাদ বা ব্রাহ্মসমাজের প্রতিষ্ঠাতা রামমোহন রায়কে দিল্লির বাদশাহ দ্বিতীয় আকবর ‘রাজা’ উপাধি দেন।

তৎকালীন রাজনীতি, জনপ্রশাসন, ধর্মীয় ও শিক্ষাক্ষেত্রে তিনি উল্লেখযোগ্য প্রভাব রাখতে পেরেছিলেন। তিনি সবচেয়ে বেশি বিখ্যাত হয়েছেন সতীদাহ প্রথা বিলুপ্ত করার প্রচেষ্টার জন্য। তখন হিন্দু বিধবা নারীদের স্বামীর চিতায় সহমরণে যেতে বা আত্মাহুতি দিতে বাধ্য করা হত।

রাজা রামমোহন রায় বাংলা ভাষায় আধুনিক প্রবন্ধ সাহিত্যিক সূচনা করেছিলেন। তিনি প্রায় ৩০টি বাংলা গ্রন্থের রচয়িতা। তার রচিত ‘ব্রহ্মসঙ্গীত’, ‘গৌড়ীয় ব্যাকরণ’ উল্লেখযোগ্য। তার আগে এমন কিছু চেষ্টা হলেও তিনিই প্রথম সার্থক প্রবন্ধের স্রষ্টা। এজন্য তাকে বাংলা গদ্যের জনক বলা হয়।

রাজা রামমোহন রায়ের ব্রাহ্মধর্মের ধর্মীয় মতামত ও সামাজিক আদর্শ প্রচারের জন্য তিনি গতানুগতিক পয়ার চিত্রপদীর বদলে গদ্যের ব্যবহার করতেন। তার গদ্যরীতি অনুসরণ করে শ্রীরামপুরের মিশনারিরা বাইবেলের অনুবাদ ও বিদ্যালয়ের পাঠ্য বাংলা বই ছাপকে শুরু করে। ১৮১৮ সালে ‘প্রবর্তক ও নিবর্তনের স্বাদ’ নামে একটি পুস্তিকা প্রকাশ করলেন। সেটিই বাংলা গদ্যের বিকাশ ভূমিকা রেখেছিলো। তার কাজকে এগিয়ে নিলেন একদিকে মৃত্যুঞ্জয় তার সংস্কৃত ভাষানুগ বাংলা গদ্য, অন্যদিকে রামরাম বসু তার মুন্সীয়ানা বাংলা গদ্যের মাধ্যমে।

১৮১৮ সালেই শ্রীরামপুরের মিশনারিরা প্রকাশ করলো ‘সমাচার দর্পণ’। এ সংবাদপত্রের মাধ্যমে বাংলা গদ্য কথ্য ভাষার কাছাকাছি এক সহজতর রূপ নিলো। এরপর দ্রুতই গদ্যধারায় প্রকাশিত হতে থাকে বহু সংবাদপত্র। এদের মধ্যে তত্ত্বোবোধিনী, সংবাদ প্রভাকর প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

আর তত্ত্বোবোধিনীই গদ্য সাহিত্যিকদের স্রষ্টা। এ পত্রিকার সম্পাদক অক্ষয় কুমার দত্ত এবং লেখকদের মধ্যে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, দেবেন্দ্রনাথ, রাজ নারায়ণ বসু গদ্য সাহিত্যের বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তত্ত্বোবোধিনীকে অবলম্বন করে বাংলা মননশীল গদ্য সাহিত্যের সৃষ্টি হয়।

 

টাইমস/জিএস

সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড, কমেছে শনাক্ত

সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড, কমেছে শনাক্ত

দেশে গত ২৪ ঘন্টায় ৫ হাজার ৩৪৩ জন নতুন করোনা

অরাজকতা করলে কঠোর ব্যবস্থা : আইনমন্ত্রী

অরাজকতা করলে কঠোর ব্যবস্থা : আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, কেউ অরাজকতা করলে, জনগণের জানমালের ক্ষতি

সোমবার বন্ধ হচ্ছে বইমেলা

সোমবার বন্ধ হচ্ছে বইমেলা

আগামী সোমবার (১২ এপ্রিল) অমর একুশে গ্রন্থমেলা শেষ হচ্ছে। সংস্কৃতি

আন্তর্জাতিক

মিয়ানমারে এক রাতে সেনাদের গুলিতে নিহত ৬০

মিয়ানমারে এক রাতে সেনাদের গুলিতে নিহত ৬০

জান্তা বিরোধী বিক্ষোভ দমাতে আরও কঠোর অবস্থান নিয়েছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। শুক্রবার (৯ এপ্রিল) রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত সামরিক বাহিনীর অভিযানে দেশটিতে কমপক্ষে ৬০ জন বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন।

জাতীয়

টাঙ্গাইলে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খাদে, যোগাযোগ বন্ধ

টাঙ্গাইলে ব্রিজ ভেঙে ট্রাক খাদে, যোগাযোগ বন্ধ

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে ব্রিজ ভেঙে খাদে পড়ে গেছে বালুভর্তি একটি ট্রাক। শুক্রবার (৯ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে নাগরপুর দরগ্রাম ভায়া ছনকা বাজার সড়কের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন ব্রিজটি ভেঙে যায়। এতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সড়কসহ পাশের মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর, সাটুরিয়া ও ঢাকাগামী সড়কে সরাসরি যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

জাতীয়

গাইবান্ধায় আ'লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত লাশ

গাইবান্ধায় আ'লীগ নেতার বাড়িতে ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত লাশ

গাইবান্ধা জেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মাসুদ রানার বাসা থেকে এক ব্যবসায়ীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে গাইবান্ধা শহরের খানকা শরীফ সংলগ্ন নারায়ণপুর এলাকা থেকে এই লাশ উদ্ধার করা হয়।

জাতীয়

নোয়াখালীতে শিশুকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নোয়াখালীতে শিশুকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় এক শিশুকে (১২) ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জাতীয়

কাশিমপুর কারাগারে হাজতির মৃত্যু

কাশিমপুর কারাগারে হাজতির মৃত্যু

মাদক মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে কারাগার থেকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

উক্তি প্রতিদিন

“কৃতজ্ঞ কুকুর অকৃতজ্ঞ মানুষের চেয়ে শ্রেয়”

“কৃতজ্ঞ কুকুর অকৃতজ্ঞ মানুষের চেয়ে শ্রেয়”

আবু মুহাম্মদ মুসলিহ আল দীন বিন আবদাল্লাহ শিরাজি বা শেখ সাদি ছিলেন মধ্যযুগের গুরুত্বপূর্ণ ফার্সি কবিদের অন্যতম। ফারসিভাষী দেশের বাইরেও তিনি সমান সমাদৃত।