• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

জীবাণুনাশক ছিটানোয় উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি

জীবাণুনাশক ছিটানোয় উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি

স্বাস্থ্য ডেস্ক১৮ মে ২০২০, ১০:৫৯এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

করোনাভাইরাসের জীবাণু ধ্বংস করতে বিশ্বের অনেক দেশেই জীবাণুনাশক স্প্রে করতে দেখা যায়। কেউ কেউ বিভিন্ন রাসায়নিকের মিশ্রণ তৈরি করে ধোঁয়াও দিচ্ছে। সেটা যেমন রাস্তাঘাটে করা হচ্ছে, তেমনি বিপণিবিতানেও করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এমন চেষ্টাকে বৃথা বলে আখ্যা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। শনিবার সংস্থার পক্ষ থেকে দেয়া এক সতর্ক বার্তায় এমন আখ্যা দেয়া হয়।

বলা হয়েছে, খোলা জায়গায় জীবাণুনাশক ছিটালে করোনাভাইরাস দূর হয় না বরং এতে স্বাস্থ্যঝুঁকি আরও বাড়ে। কারণ বাহিরে, রাস্তায় কিংবা বিপণিবিতানে জীবাণুনাশক কিংবা ধোঁয়া দিয়ে ভাইরাসের জীবাণু কিংবা প্যাথোজেন মারা যায় না।

স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, খোলা জায়গায় জীবাণুনাশক স্প্রে করার কোনো পরামর্শ দেয়া হয়নি। কারণ, রাস্তাঘাটের ময়লা ও বর্জ্যের কারণে জীবাণুনাশক নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। কোথাও যদি জীবাণুনাশক প্রয়োগ করতেই হয় তাহলে কাপড় কিংবা ন্যাপকিন ভিজিয়ে সেটা দিয়ে মুছে দেয়া যেতে পারে।

খোলা স্থানে জীবাণুনাশক ছিটানো মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে উল্লেখ করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, জীবাণুনাশক ছিটানোয় উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি। কারণ, এটা নতুন করোনাভাইরাসের জীবাণু ধ্বংস করতে পারে না। পারে না আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশি থেকে করোনা ছড়ানোর ঝুঁকি কমাতে। উল্টো স্প্রেতে নানা রাসায়নিকের ব্যবহার মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

জাতিসংঘের স্বাস্থ্যবিষয়ক এই বিশেষ সংস্থার মতে, জীবাণুনাশক ছিটানোর কারণে চোখের সমস্যা, শ্বাসযন্ত্র কিংবা ত্বকের সমস্যাসহ নানারকম স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হতে পারে। নির্দিষ্ট কিছু রাসায়নিক বিশেষ করে ফর্মালডিহাইড, ক্লোরিন ভিত্তিক মিশ্রণ, ব্লিচিং, অ্যামোনিয়ামের মিশ্রণ মানুষের শরীরে বিরূপ স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করায় এগুলো কখনোই ছিটানোর ক্ষেত্রে পরামর্শ দেয়া হয় না। এটা যিনি ছিটানোর কাজ করেন তার শারীরিক ও মানসিকভাবে ক্ষতির বিষয়।

 

টাইমস/জিএস

‘করোনায় অযথা দামি ইনজেকশন নয়, খরচ মাত্র ১০০ টাকা’

‘করোনায় অযথা দামি ইনজেকশন নয়, খরচ মাত্র ১০০ টাকা’

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানিয়েছেন করোনাভাইরাসে

সব পাবলিক-প্রাইভেট ভার্সিটি ১৫ জুন পর্যন্ত ছুটি

সব পাবলিক-প্রাইভেট ভার্সিটি ১৫ জুন পর্যন্ত ছুটি

সব পাবলিক ও প্রাইভেট ভার্সিটিতে ছুটি বৃদ্ধি করা হয়েছে। আগামী

অন্যদের বাঁচাতে প্লাজমা দিলেন করোনাজয়ী ভাই-বোন

অন্যদের বাঁচাতে প্লাজমা দিলেন করোনাজয়ী ভাই-বোন

করোনা ভাইরাসকে জয় করেছেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী মাহপারা তাসনীম ও তার

জাতীয়

প্রেমিককে আটকে ছাত্রীকে ধর্ষণ, মুক্তিপণ চেয়ে আটক বখাটেরা!

প্রেমিককে আটকে ছাত্রীকে ধর্ষণ, মুক্তিপণ চেয়ে আটক বখাটেরা!

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ার পটিখালঘাটায় প্রেমিককে আটকে রেখে ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয় তাদের আটকে রেখে মুক্তিপণও

আন্তর্জাতিক

করোনাভাইরাসে ১৮ দেশে ৭১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

করোনাভাইরাসে ১৮ দেশে ৭১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু

করোনাভাইরাসে দেশের বাইরেও মৃত্যুর মিছিল থামছে না। এপর্যন্ত আমেরিকাসহ ১৮ দেশে ৭১৭ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে

জাতীয়

করোনা: একদিনে রেকর্ড ২৫২৩ জন শনাক্ত, ২৩ জনের মৃত্যু

করোনা: একদিনে রেকর্ড ২৫২৩ জন শনাক্ত, ২৩ জনের মৃত্যু

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৫২৩ জন। যা একদিনে আক্রান্তের হিসেবে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪২ হাজার ৮৪৪। একই সময়ে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ২৩ জন। এতে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৮২ জনে।

জাতীয়

করোনায় আক্রান্ত পুলিশের ৪৫৪৪ সদস্য, সুস্থ ১৫৬৩

করোনায় আক্রান্ত পুলিশের ৪৫৪৪ সদস্য, সুস্থ ১৫৬৩

মহামারী করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ চার হাজার ৫৪৪ জন সদস্য। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৫৬৩ জন। সুস্থ হওয়াদের মধ্যে বেশির ভাগ পুলিশ সদস্যই পুনরায় কাজে যোগ দিয়েছেন।

জাতীয়

প্রাথমিকের প্রশ্ন যাবে বাড়িতে, অভিভাবকদের সামনে পরীক্ষা!

প্রাথমিকের প্রশ্ন যাবে বাড়িতে, অভিভাবকদের সামনে পরীক্ষা!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দিনে দিনে বাড়ছে। এরই মাঝে দেশে লকডাউন শিথিল করে দেয়া হচ্ছে। খুলছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। গাড়ি চলাচলও ধীরে

বিনোদন

যেসব শর্তে আবার শুরু হচ্ছে নাটকের শুটিং

যেসব শর্তে আবার শুরু হচ্ছে নাটকের শুটিং

কিছুদিন আগে গত ১৭ মে ৬ শর্ত মেনে নিজ দায়িত্বে শুটিং শুরুর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল টিভি নাটকের শীর্ষ সংগঠনগুলো। যদিও এই সিদ্ধান্তের একদিন পরই নিজেদের মধ্যে মতের মিল না হওয়ায় দূরে সরে আসে সংগঠনগুলো।