• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭

বাসে কিংবা গাড়িতে ভ্রমণের সময় শরীর খারাপ লাগার কারণ ও প্রতিকারের উপায়

বাসে কিংবা গাড়িতে ভ্রমণের সময় শরীর খারাপ লাগার কারণ ও প্রতিকারের উপায়

স্বাস্থ্য ডেস্ক১০ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৪৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

জল, স্থল কিংবা আকাশ পথে ভ্রমণের সময় অনেকের শরীর খারাপ লাগে, মাথা ঘুরায়, বমি বমি লাগে কিংবা বমি হয়। এই জাতীয় অসুস্থতাকে সাধারণত মোশন সিকনেস বা ট্রাভেল সিকনেস বলা হয়ে থাকে। তবে জলপথে ভ্রমণের সময় এরকম অসুস্থতা দেখা দিলে তাকে বলা হয় ‘সি সিকনেস’।

এমনটা কেন হয়?

মোশন বা গতি আমাদের অভ্যন্তরীণ কান, চোখ এবং দেহপৃষ্ঠের টিস্যুসহ বিভিন্ন স্নায়ুতন্ত্রের সাহায্যে মস্তিষ্কের দ্বারা অনুভূত হয়। যখন আমাদের দেহ ইচ্ছাকৃতভাবে সরানো হয় বা গতি লাভ করে (যেমন হাঁটার সময়) তখন সমস্ত কিছু মস্তিষ্কের মাধ্যমে সমন্বিত হয়।

কিন্তু যখন আমারা কোন যানবাহনের মাধ্যমে যাতায়াত করি তখন কার্যত আমরা বসে থাকি কিন্তু আমাদের দেহ গতি লাভ করে। এর ফলে আমাদের স্নায়ুতন্ত্র একধরণের বিপরীত সংকেত লাভ করে এবং বিভ্রান্ত বোধ করতে শুরু করে।

উপসর্গ সমূহ

মোশন সিকনেসে বিভিন্ন উপসর্গের মধ্যে রয়েছে বমি বমি ভাব, বমি, ঘাম হওয়া, শ্বাস-প্রশ্বাস দ্রুত হওয়া, মাথা ঘোরা, তন্দ্রা, অস্বস্তি প্রভৃতি।

চিকিৎসা

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই সমস্যাটি মৃদু এবং মাঝারি মাত্রার হয়ে থাকে এবং ঘরোয়াভাবেই এটি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। তবে মারাত্মক আকার ধারণ করলে অবশ্যই ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে। সেক্ষেত্রে কান, স্নায়ু ও নিয়ন্ত্রণ (ব্যাল্যান্স) বিষয়ক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে।

কিভাবে এটি নিয়ন্ত্রণ করবেন?

সাধারণত যাত্রাকালীন সময়েই এই ধরণের সমস্যা দেখা দেয় এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই যাত্রার কিছুক্ষণ পরেই এই উপসর্গগুলো এমনিতেই সেরে যায়। তবে অনেকের কাছেই এর ফলে যাত্রাকালীন সময়টা অসহ্যকর হয়ে ওঠে। বিভিন্ন উপায়ে মোশন সিকনেসের উপসর্গগুলো নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে।

দিগন্তের দিকে তাকিয়ে থাকুন

যাত্রাকালে চলন্ত গাড়ির জানালার বাইরে তাকিয়ে থাকতে পারেন, এক্ষেত্রে যে দিকে গাড়ি চলছে সেদিকের দিগন্তে দৃষ্টি রাখুন। এটি গতির ভিজ্যুয়াল পুনর্নির্মাণের মাধ্যমে আমাদের দৈহিক ভারসাম্যের অভ্যন্তরীণ অনুভূতি সামঞ্জস্য করতে সহায়তা করে।

চোখ বন্ধ করে থাকুন বা ঘুম দিন

রাতে বা জানালাবিহীন কোন জাহাজে বা জানালা বন্ধ গাড়িতে চোখ বন্ধ করে রাখলে  ইতিবাচক ফল পাওয়া যাবে। এটি চোখ এবং অভ্যন্তরীণ কানের মধ্যকার অনুভূতির বৈপরীত্য সমাধান করে।

কিছু চিবাতে পারেন

কোনো কিছু চিবালে এই গতি অসুস্থতা বা মোশন সিকনেস নিয়ন্ত্রণে থাকে। সাধারণ এবং হালকা মোশন সিকনেস থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য একটি সহজ এবং কার্যকর পদ্ধতি হলো কোনো কিছু চিবানো। এক্ষেত্রে আপনি চুয়িংগাম চিবাতে পারেন।

বিশুদ্ধ বাতাস

টাটকা ও শীতল বাতাস মোশন সিকনেস কিছুটা উপশম করতে পারে। তবে দুর্গন্ধযুক্ত বাতাস বমি বমি ভাব আরো বাড়িয়ে দিতে পারে।

আদা

আদা মোশন সিকনেস হ্রাস করতে সহায়তা করে। আপনি মোশন সিকনেসের উপসর্গ থেকে মুক্তি পেতে আদার তাজা বা শুকনো কাণ্ড চিবাতে পারেন। অনেক সময় যাত্রাপথে শুকনো আদা কিনতেও পাওয়া যায়।

আরো যা যা করতে পারেন

  • সর্বদা এমন স্থানে বসার চেষ্টা করুন যেখান থেকে আপনার দেহ এবং অভ্যন্তরীণ কান যে গতি অনুভব করে তা যেন আপনার চোখেও ধরা পড়ে।
  • গাড়িতে সামনের সিটে বসে দূরবর্তী দৃশ্যের দিকে তাকিয়ে থাকুন।
  • নৌকায় করে ভ্রমণের সময় ডেকে উঠুন এবং দিগন্তের দিকে তাকান।
  • আকাশ পথে ভ্রমণের সময় জানালা দিয়ে বাইরে তাকান। এছাড়া সম্ভব হলে বিমানের ডানার পাশের একটি আসন চয়ন করুন।
  • মোশন সিকনেসের সম্মুখীন হলে ভ্রমণের সময় বই বা অন্যকিছু পড়বেন না।
  • পিছনের দিকে কোনো আসনে বসবেন না।
  • মোশন সিকনেসের উপসর্গ দেখা দিয়েছে এমন কোন ভ্রমণকারীকে দেখতে যাবেন না বা তার সাথে কথা বলবেন না।
  • ভ্রমণের সময় বা তার আগে কড়া গন্ধযুক্ত এবং মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলুন।

ওষুধ

ঘরোয়া প্রতিকার কার্যকর হলেও মোশন সিকনেস প্রতিরোধের একটি ভাল উপায় ওষুধ। সাধারণত ভ্রমণের আগে সেটি গ্রহণ করতে হয়।

স্কোপোলামাইন- মোশন সিকনেস নিয়ন্ত্রণের জন্য সর্বাধিক ব্যবহৃত ওষুধ। ভ্রমণ শুরুর আগে এটি গ্রহণ করতে হয়।

প্রমিথাজাইন- ভ্রমণের ২ ঘণ্টা আগে খাওয়া উচিত। এর প্রভাব ৬-৮ ঘণ্টা স্থায়ী হয়। পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে ঘুম পেতে পারে এবং মুখ শুকিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সাইক্লিজাইন- ভ্রমণের কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে সেবন করলে সর্বাধিক কার্যকারিতা পাওয়া যায়। ৬ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের এটি খাওয়ানো উচিত নয়।

ডাইমেনহাইড্রিনেট– এই ওষুধটি ৪-৮ ঘণ্টা পর্যন্ত কার্যকর থাকে।

ম্যাক্লাইজাইন (বনাইন)- ভ্রমণের ১ ঘণ্টা আগে খাওয়া হলে ভাল ফলাফল পাওয়া যায়। তবে ১২ বছরের কম বয়সীদের এটি গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে হবে। পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলোর মধ্যে ঘুম ঘুম ভাব ও গলা শুকিয়ে যাওয়া অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

তথ্যসূত্র: মেডিকেল নিউজ টুডে

 

টাইমস/এনজে

৩৮ বিসিএস : ননক্যাডারে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ৫৪১ জন

৩৮ বিসিএস : ননক্যাডারে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ৫৪১ জন

৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার নন-ক্যাডার থেকে প্রথম শ্রেণির বিভিন্ন পদে আরও

বিয়ের জন্য বাসায় ডেকে ছাত্রীকে ধর্ষণ করল ছাত্রলীগ নেতা!

বিয়ের জন্য বাসায় ডেকে ছাত্রীকে ধর্ষণ করল ছাত্রলীগ নেতা!

বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ভাবনা

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ভাবনা

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর ) পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের

অর্থনীতি

আলুর দাম কেজিপ্রতি ৩৫, বেশি নিলেই ব্যবস্থা

আলুর দাম কেজিপ্রতি ৩৫, বেশি নিলেই ব্যবস্থা

বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে এবার সরকারই বাড়িয়ে দিল আলুর দাম। খুচরা পর্যায়ে কেজি প্রতি আলুর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। আগামীকাল বুধবার থেকে সরকার নির্ধারিত আলুর দাম বাস্তবায়ন হবে। সরকারি নির্দেশনা না মানলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানা গেছে।

আন্তর্জাতিক

কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান : নিহত ৪

কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান : নিহত ৪

গত কয়েকদিন ধরেই কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান চলছে। অভিযানকালে গত দু’দিনে ৪ কাশ্মিরি ভারতীয় সেনাদের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

জাতীয়

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নির্জন চরে নিয়ে রাতভর গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। টাঙ্গাইলের গোপালপুরে কাগুজিআটা গ্রামে এঘটনা ঘটেছে।

জাতীয়

বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা : ২০০ নয়, ১০০ নম্বর

বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা : ২০০ নয়, ১০০ নম্বর

অনলাইনে নয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি অনার্স প্রথমবর্ষে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।শিক্ষার্থীদের রেজাল্টের পর ভর্তির তারিখ জানানো হবে। তবে, ডিসেম্বরের

জাতীয়

দশ বছরে ২ বস্তা ও ৪ বালতি কয়েন জমিয়ে বিপদে খাইরুল!

দশ বছরে ২ বস্তা ও ৪ বালতি কয়েন জমিয়ে বিপদে খাইরুল!

মাগুরার মহম্মদপুরের সবজি ব্যবসায়ী খাইরুল ইসলাম খবির। দশ বছর ধরে তিনি ৬০ হাজার টাকার কয়েন জমিয়েছেন। সবজি ক্রেতা ও ভিক্ষুকদের কাছ থেকে পাওয়া ওই কয়েন জমিয়ে এখন ৪ বালতি ও দুই বস্তা হয়েছে। ওই কয়েনের ওজন প্রায় ছয় মণ। কয়েনের মধ্যে রয়েছে চার আনা, আট আনা, এক টাকা, দুই টাকার ধাতব মুদ্রা। এসব কয়েন নিয়ে এখন তিনি বিপাকে পড়েছেন। এত টাকা এখন কোন কাজে আসছে না ওই ব্যবসায়ীর। তার ওই কয়েন কেউ নিচ্ছে না।

লাইফস্টাইল

ডিজিটাল স্ক্রিনে কাজ করার ফলে ঘাড়ে ব্যথা হলে কি করবেন

ডিজিটাল স্ক্রিনে কাজ করার ফলে ঘাড়ে ব্যথা হলে কি করবেন

দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারে কাজ করতে গিয়ে বা মোবাইল কিংবা ল্যাপটপে ভিডিও দেখতে দেখতে অনেকেই ঘাড়ে ব্যথা অনুভব করেন। অনেকেই ঘাড় নাড়াতে চরম কষ্টে ভুগেন। এ সমস্যাকে সাধারণত ‘টেক নেক’ বলা হয়ে থাকে। বাংলায় যাকে বলে- ‘ঘাড়ে ব্যথা’।