• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

সন্ত্রাস-জঙ্গি নিয়ে ডিসিদের সতর্ক থাকার নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

সন্ত্রাস-জঙ্গি নিয়ে ডিসিদের সতর্ক থাকার নির্দেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক১৮ জুলাই ২০১৯, ০৩:৫৬পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও চরমপন্থিদের আবির্ভাব যেন না হয় সেদিকে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) খেয়াল রাখার নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। একই সঙ্গে মাদক নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসকদের আরও কঠোর হতে বলেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সম্মেলন কক্ষে ডিসি সম্মেলনের পঞ্চম দিনের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ যেভাবে আমরা দমন করছি, সেদিকে তারাও (ডিসি) খেয়াল রাখবেন। যাতে কোনো ধরনের সন্ত্রাস, জঙ্গি, চরমপন্থিদের আবির্ভাব না হয়।’

মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে তিনি বলেন, ‘‌মাদকের বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে জিরো টলারেন্স নীতির কথা বলেছেন, সেই জায়গায় তারা কাজ করবেন। ডিসিদের বলেছি, মাদক নিয়ে আমরা যে অভিযান চালাচ্ছি, তা চলবেই। সবাইকে নিয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য তারা কাজ করবেন। সেজন্য তাদের সব পেশাজীবীদের নিয়ে এ সংগ্রামে সম্পৃক্ত করবেন।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তারা কী অসুবিধা ভোগ করছেন এবং আরো কী করলে তারা অধিক স্বচ্ছতার সাথে কাজ করতে পারবেন, সেগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তারা কিছু বিষয় বলেছেন সবগুলো মনে হয়েছে যুক্তিসঙ্গত, এগুলো ইতোমধ্যে আমরা বাস্তবায়ন শুরু করেছি, বাকিগুলোও উদ্যোগ নেয়া হবে।’

নারী ও শিশু নির্যাতন নিয়ে কোনো কথা হয়েছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আজকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়নি। তবে বিষয়টি নিয়ে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সবসময় সজাগ রয়েছে। এটা নিয়ে আজকে কোনো আলোচনা হয়নি।’

জেলা প্রশাসকেরা তাদের মোবাইল কোর্টের পরিধি বাড়ানোর জন্য সার্বক্ষণিক বিশেষায়িত একটি পুলিশ ফোর্স চেয়েছেন- এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মোবাইল কোর্টের পরিধি যেটা প্রয়োজন সেটা অলরেডি হয়ে গেছে। মাদক নিয়ন্ত্রণ আইন বলবৎ রয়েছে। বিশেষ ‍পুলিশ তো প্রয়োজন নেই। কারণ পুলিশ সদস্যরা সবসময় জেলা প্রশাসকদের সহযোগিতা করেন। এছাড়া ডিসিদের নির্দেশনায় পুলিশ সব জায়গায় কাজ করছেন। বিজিবি, আনসারসহ আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী সবসময় একসঙ্গে বসে কাজ করেন। 

 

টাইমস/এসআই

রূপপুর বালিশকাণ্ড: মাসুদুল আলমসহ ১৩ প্রকৌশলী গ্রেপ্তার

রূপপুর বালিশকাণ্ড: মাসুদুল আলমসহ ১৩ প্রকৌশলী গ্রেপ্তার

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বালিশ ও আসবাবপত্র কেনাকাটায় দুর্নীতির

‘এক কেজি পেঁয়াজের বিমান ভাড়া ১৫০ টাকা’

‘এক কেজি পেঁয়াজের বিমান ভাড়া ১৫০ টাকা’

জরুরি ভিত্তিতে ঘাটতি মেটাতে বিমানে করে পেঁয়াজ আমদানি করতে গিয়ে

খুলনায় অনশনে অসুস্থ হয়ে পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু

খুলনায় অনশনে অসুস্থ হয়ে পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু

খুলনায় আমরণ অনশনে অসুস্থ হয়ে প্লাটিনাম জুট মিলের এক শ্রমিক

জাতীয়

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩

ঢাকার কেরানীগঞ্জের একটি প্লাস্টিক কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ জন হয়েছে। বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১২ জনের মৃত্যু হয়। এর আগে ঘটনাস্থল থেকে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

জাতীয়

রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত   

রাজশাহীতে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  

রাজশাহীতে বাসের সাথে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন।

জাতীয়

বেনাপোলে নারীর কাছে মিলল ২০ হাজার মার্কিন ডলার

বেনাপোলে নারীর কাছে মিলল ২০ হাজার মার্কিন ডলার

ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ২০ হাজার মার্কিন ডলার ও দুটি মোবাইল ফোনসহ এক নারীকে আটক করেছে বেনাপোল কাস্টমস শুল্ক গোয়েন্দা সদস্যরা।

জাতীয়

নোয়াখালীতে মাতাল অবস্থায় চার সহযোগীসহ জেলা পরিষদ সদস্য আটক

নোয়াখালীতে মাতাল অবস্থায় চার সহযোগীসহ জেলা পরিষদ সদস্য আটক

মদ্যপান করে মাতলামি করার সময় চার সহযোগী সহ নোয়াখালী জেলা পরিষদ সদস্য কামাল উদ্দিন প্রকাশকে (সিএনজি কামাল) ’আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

জাতীয়

মাগুরায় একই ওড়নায় বেয়াই-বেয়াইনের লাশ

মাগুরায় একই ওড়নায় বেয়াই-বেয়াইনের লাশ

মাগুরায় একই ওড়নার দুইপ্রান্তে ঝুলন্ত অবস্থায় এক গৃহবধূ ও এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে সদর উপজেলার বাটাজোড় গ্রাম থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে এটিকে আত্মহত্যা বলে ধারণা করছে পুলিশ।

স্বাস্থ্য

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে জামের বীজ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে জামের বীজ

জাম এমন একটি ফল, যা বাংলাদেশে খুবই পরিচিত। আপনি একটু লক্ষ্য করলেই হয়ত আপনার বাড়ির আঙ্গিনা বা পাড়াতে জাম গাছ পেয়ে যাবেন। জামের মৌসুমে পথে ঘাটে, বাজারে, ট্রেন-বাসে বিক্রি হয় অত্যন্ত জনপ্রিয় জাম মাখা। জাম ফল শুধু খেতেই সুস্বাদু তাই নয়, বরং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্যও এটি সমান পরিচিত।