• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

নিজের বক্তব্যের পক্ষে ব্যাখ্যা দিলেন প্রিয়া সাহা  

নিজের বক্তব্যের পক্ষে ব্যাখ্যা দিলেন প্রিয়া সাহা   

সেন্ট্রাল ডেস্ক২১ জুলাই ২০১৯, ০৬:৪৩পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে অভিযোগ করে আলোচিত প্রিয়া সাহা নিজের বক্তব্যের পক্ষে ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা নিজের পরিচালিত প্রতিষ্ঠান ‘শার’ এর ইউটিউব চ্যানেলে ৩৫ মিনিটের একটি ভিডিও বার্তায় জানিয়েছেন, তার পরিবার হুমকিতে আছেন।

ভিডিও বার্তায় প্রিয়া সাহা জানান, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিনিধি হয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে যাননি। বরং যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকে তাকে মেইল করা হয়। সেই মেইল পেয়ে তিনি ১৫ তারিখ যুক্তরাষ্ট্রে যান। তিনি আরও জানান, তিনি অনেকবার যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছেন।

প্রিয়া সাহা জানান, ২০০৪ সালের পর থেকে পিরোজপুরে তার গ্রামে অনেক পরিবার নিখোঁজ হয়ে যায়। তিনি বলেন, ২০০৪ সালে ৪০ টি সংখ্যালঘু পরিবার ছিলো এখন আছে ১৩ টি পরিবার।

ভিডিও বার্তায় তিনি নির্বাচনপরবর্তী সহিংসতায় সংখ্যালঘু পরিবারের ওপর নির্যাতন করা হয় তা উল্লেখ করেন।

ভিডিও বার্তায় দেখা যায়, একজন প্রশ্নকারীকে প্রিয়া বলছেন, ‘আমি ভাল নেই। আপনারা দেশে আছেন, আপনারা দেখতে পাচ্ছেন পরিস্থিতি কোথায় যাচ্ছে। আমার পরিবার ভীষণ সমস্যায় আছে। গতকাল আমার বাসার তালা ভাঙতে চেষ্টা করা হয়েছে। বাসার সামনে মিছিল করা হয়েছে। হুমকি দেয়া হয়েছে। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো আমার পরিবারের ছবি পত্রিকায় ছাপা হয়েছে। কথা বলেছি আমি, তারা আমার ছবি ছাপাতে পারতো। এর মাধ্যমে পরিবারের সবার জীবনকে বিপন্ন করা হয়েছে। আমার পরিবারের কেউ আমার কাজের সাথে কোনোভাবেই যুক্ত নয়।’

হোয়াইট হাউজে আপনি কেন এমন কথা বলেছিলেন- প্রশ্নের জবাবে প্রিয়া বলেন, ‘এই কথাগুলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা ২০০১ সালে যখন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্বাচনোত্তর চরম নির্যাতন চলছিল ৯৪ দিন ধরে। আজকের প্রধানমন্ত্রী তখন বিরোধীদলীয় নেত্রী। তিনি বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের রক্ষা করার জন্য সারা পৃথিবীতে ঘুরেছেন। সমস্ত জায়গায় বক্তব্য দিয়েছেন। আমি তার কথায় অনুপ্রাণিত হয়ে, তার অনুসরণে আমি বলেছি। যে কোনো অন্যায়ের বিরুদ্ধে যে কোনো জায়গায় বলা যায়, এটা আমি তার কাছে শিখেছি।’

প্রিয়া আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের যে পরিসংখ্যান বই রয়েছে। ২০০১ সালের পরিসংখ্যান বইয়ের সংখ্যালঘু যে চাপ্টার রয়েছে সেখানে এ বিষয়গুলো লেখা রয়েছে। প্রতি বছর সরকার যে সেনসাস রিপোর্ট (আদমশুমারি) বের করে সেই রিপোর্ট অনুসারে দেশভাগের সময় জনসংখ্যা (সংখ্যালঘু) ছিল ২৯ দশমিক ৭ ভাগ। আর এখনকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জনসংখ্যা হচ্ছে ৯ দশমিক ৭ ভাগ। এখন দেশের মোট জনসংখ্যা ১৮০ মিলিয়নের মতো। তো সেক্ষেত্রে জনসংখ্যা একইভাবে বৃদ্ধি পায়নি। ফলে আমি ক্রমাগতভাবে হারিয়ে গেছে বলে যে সংখ্যা বলেছি সেটা মিলে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকারের প্রকাশিত পরিসংখ্যান বইয়ের ওপর ভিত্তি করেই অধ্যাপক আবুল বারকাত গবেষণা করেছেন। এবং সেই গবেষণায় উনি দেখিয়েছেন, প্রতিদিন বাংলাদেশ থেকে ৬৩২ জন লোক হারিয়ে যাচ্ছে। এবং কী পরিমাণে ক্রমাগতভাবে লোক হ্রাস পেয়েছে। আমি ২০১১ সালে স্যারের সাথে সরাসরি কাজ করেছিলাম এ কারণে এ বিষয়ে অবহিত।’

তিনি বলেন, ‘আমি রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করতে চাইনি। আমার নিজের গ্রামের কথা বলি। সেখানে ২০০৪ সালে ৪০টি পরিবার ছিল। এখন ১৩টি পরিবার আছে। এই মানুষগুলো কোথায় গেল, কোথায় আছে সেটা রাষ্ট্রের দেখার কথা।’

কেন ট্রাম্পের কাছে তার বক্তব্য তুলে ধরেছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মৌলবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। সেক্ষেত্রে আমাদের আইন শৃঙ্খলা বাহিনী পৃথিবীর মধ্যে সফলতা দেখিয়েছে। আমি চেয়েছি বা যে জন্য বলেছি, বাংলাদেশের সাথে মার্কিন প্রশাসনও একসাথে কাজ করে যাতে কোনভাবেই মৌলবাদের উত্থান না ঘটে। তাই আমি বলেছি। সরকার যে কাজটি আমি সেই কাজটি শক্তিশালী করবার জন্য এই কথাগুলো বলেছি।’

সরকার তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘সরকার যখন প্রকৃত সত্য জানতে পারবেন তখন আমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে না বরং আমার পাশে দাঁড়িয়ে আমাকে সাথে নিয়ে এই মৌলবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবে।

তিনি বলেন, মুসলমান হিন্দুদের শত্রু না, মুসলমান সম্প্রদায়ের ৯৯.৯৯ শতাংশ মানুষই অসাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাস করে একসাথে থাকে কিন্তু কিছু দুষ্টু লোক আছে যারা এই ঘটনা ঘটায়।’

 

টাইমস/জেডটি

এনজিও’র উস্কানিতে যেতে রাজি হচ্ছে না রোহিঙ্গারা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

এনজিও’র উস্কানিতে যেতে রাজি হচ্ছে না রোহিঙ্গারা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে কিছু এনজিওর তৎপরতা বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার প্রত্যাবাসন পরিকল্পনা ভেস্তে যাওয়ার দিনই সংসদ ভবনে সংসদীয় কমিটির বৈঠকে বিষয়টি আলোচনায় ওঠে। মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে এই অভিযোগ শুনে ওই এনজিওগুলোকে চিহ্নিত করার সুপারিশ করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। তবে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সফল না হলেও নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, থেমে না গিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। মিয়ানমারে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তার জন্য বহু পক্ষীয় উদ্যোগ নিতে হবে।

আশুলিয়ায় জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে লুটপাট, হত্যাচেষ্টার মামলা

আশুলিয়ায় জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে লুটপাট, হত্যাচেষ্টার মামলা

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অন্যতম ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে নাছির উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি ঢাকার আশুলিয়া থানায় বুধবার রাতে একটি মামলা করেছেন। মামলায় জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে লুটপাট, ভাঙচুর, মারধর ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলার বাদী নাছির উদ্দিন সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক। তিনি আশুলিয়ার নলাম এলাকার বাসিন্দা।

সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে কমিটির ১১১ সুপারিশ

সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে কমিটির ১১১ সুপারিশ

সড়ক পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা জোরদারকরণ এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে ১১১ দফা সুপারিশ সংবলিত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে এ-সংক্রান্ত কমিটি। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের সভায় সুপারিশগুলো সংযোজন, পরিবর্তন ও পরিমার্জন করে চূড়ান্ত অনুমোদন করা হবে। বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর হাতে তুলে এই প্রতিবেদন তুলে দেন কমিটির প্রধান সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি। এ সময় মশিউর রহমান রাঙ্গা এমপি উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয়

হাইকোর্টের তিন বিচারককে বিচার কার্য থেকে বিরত থাকার নির্দেশ

হাইকোর্টের তিন বিচারককে বিচার কার্য থেকে বিরত থাকার নির্দেশ

হাইকোর্টের তিনজন বিচারপতির বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগের তদন্ত শুরুর পর তাদের বিচারকাজ থেকে সাময়িকভাবে বিরত থাকতে বলেছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। তিন বিচারক হলেন- বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী, বিচারপতি একেএম জহিরুল হক এবং বিচারপতি কাজী রেজাউল হক। বৃহস্পতিবার বিকালে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র ও স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান।

জাতীয়

জানুয়ারি-আগস্ট পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৬০ হাজার

জানুয়ারি-আগস্ট পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৬০ হাজার

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত সারা দেশের সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে প্রায় ৬০ হাজার ভর্তি হয়েছেন বলে তথ্য দিয়েছে সরকার। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট সেন্টার অ্যান্ড কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী, ১ জানুয়ারি থেকে ২২ আগস্ট পর্যন্ত সারা দেশে ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫৯ হাজার ৫৫২ জন।

জাতীয়

একজন রোহিঙ্গাও ফিরল না মিয়ানমারে

একজন রোহিঙ্গাও ফিরল না মিয়ানমারে

বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনাগ্রহের কারণে দ্বিতীয় দফায় ব্যাপক প্রস্তুতি ও উদ্যোগ থাকা সত্ত্বেও শেষ পর্যন্ত শুরু করা গেল না প্রত্যাবাসন কর্মসূচি। মিয়ানমারের রাখাইনে প্রত্যাবাসনের সহায়ক পরিবেশ না থাকায় রোহিঙ্গাদের কেউ তাদের আদি নিবাসে ফিরতে চাইছেন না। বৃহস্পতিবার রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা ছিল। এর আগে গত বছর নভেম্বর মাসে একই রকমের একটি প্রত্যাবাসনের উদ্যোগ রোহিঙ্গাদের অনাগ্রহের কারণেই ভেস্তে যায়।

জাতীয়

সব ধরনের অপরাধে জড়িত আইনের রক্ষকরা: ইফতেখারুজ্জামান

সব ধরনের অপরাধে জড়িত আইনের রক্ষকরা: ইফতেখারুজ্জামান

বাংলাদেশে এখন সব ধরনের অপরাধের সঙ্গে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত বলে মন্তব্য করেছেন দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান।

জাতীয়

বগুড়া ও ফরিদপুরে বজ্রপাতে স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত ৬

বগুড়া ও ফরিদপুরে বজ্রপাতে স্বামী-স্ত্রীসহ নিহত ৬

বগুড়া ও ফরিদপুরে পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় স্বামী-স্ত্রীসহ ছয় জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া স্কুলছাত্রীসহ আহত হয়েছেন আরও দুইজন। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বজ্রপাতের এসব ঘটনা ঘটে।

লাইফস্টাইল

গর্ভাবস্থায় পানি ভাঙা ও করণীয়

গর্ভাবস্থায় পানি ভাঙা ও করণীয়

গর্ভাবস্থায় পানি ভাঙার কথা শুনলেই অনেকে হয়তো ভয় পেয়ে থাকেন। আসলে ভয়ের কিছু নেই। তবে সব কিছুই জেনে রাখা প্রয়োজন। পানি ভাঙার লক্ষণ দেখা দিলেই গর্ভবতী নারীদের উচিত অনতিবিলম্বে নিকটস্থ চিকিৎসককে অবহিত করা।