• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

আজ তারা, কাল হয়তো আমি কিংবা তুমি

আজ তারা, কাল হয়তো আমি কিংবা তুমি

অতিথি লেখক২৯ মার্চ ২০১৯, ০৪:২৩পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

চারদিকে আগুনের লেলিহান শিখা। আকাশ ঢেকে গেছে কালো ধোঁয়ায়। বাতাসে শুধু পোড়া লাশের গন্ধ। মর্গে জমা হচ্ছে সারি সারি লাশ। একের পর এক লাশ এসে শামিল হচ্ছে মৃত্যুর মিছিলে।

কেউ কেউ ছবি তুলছেন মৃত্যুপুরীর। বাঁচাও বাঁচাও আর্তনাদে প্রকম্পিত হয়ে ওঠছে আকাশ-বাতাস। কেউ কেউ নির্বাক শ্রোতা হয়ে সেই আহাজারি শুনছে। শত শত গণমাধ্যমকর্মীরা সেই দৃশ্য ক্যামেরাবন্দী করতে ব্যস্ত।

দমকল কর্মীদের অক্লান্ত চেষ্টার ফলে একসময় সেই ধ্বংসলীলার ইতি ঘটে। আর দিন শেষে খবরের শিরোনাম হয় ‘অবশেষে আগুন নিয়ন্ত্রণে’।

ওপরের দৃশ্যপট কোনো সিনেমার নয়। এটা বাস্তব। বাংলাদেশে রোজকার ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে আগুন লাগার ঘটনা। ঘটনা যখন ঘটে তখন সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে সাংবাদিক আর প্রশাসন সবাই ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দোষারোপ করতে থাকি। সরকার ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও পরিবারকে কিছু টাকা ক্ষতিপূরণ দেবার আশ্বাস দেন। এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি না হবার একটি আনুষ্ঠানিকতার প্রতিশ্রুতি দেন। যে প্রতিশ্রুতি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই কেবল সম্মান রক্ষার্থে করা হয়। সংবাদ সংগ্রহ করতে করতে দিন শেষে সাংবাদিকরাও ক্লান্ত হয়ে পড়েন। ধীরে ধীরে ঘটনার রেশ কেটে যায়। আর এ নিয়ে কারো মাথা ব্যাথাও থাকে না।

তবে এসব নিয়ে কিন্তু অনেক তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। কমিটি প্রতিবেদন জমা দেয়, সুবিধা মতো দোষারোপ করে এবং সমস্যা প্রতিরোধে এক বিশাল লম্বা সুপারিশমালা তুলে ধরে। তবে সেই সুপারিশ ওই প্রতিবেদনের পাতায়ই আটকে থাকে। বাস্তবায়নের কোনো চেষ্টাও দেখা যায় না। কিছু দিন পত্রপত্রিকার শিরোনাম হবার পর সাংবাদিকরাও বিরক্ত হয়ে পড়েন। ফলে অবস্থা দাঁড়ায় এমন যে, ‘যেই লাউ সেই কদু’।

কিছুদিন পর আবারো সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। সেই কান্না, সেই আহাজারি, সেই লাশের মিছিল। আবারো সেই তদন্ত কমিটি, পারস্পরিক দোষারোপ আর প্রতিশ্রুতির সংস্কৃতি।

অথচ আমরা কখনো এটা ভাবতে পারি না যে, আজ হয়ত এই হতভাগা মানুষগুলোর মৃত্যু হয়েছে, কাল তো আপনার কিংবা আমার একই পরিণতি হতে পারে? তবে কেন আমরা এই দোষারোপ আর প্রতিশ্রুতির ন্যাক্কারজনক সংস্কৃতি থেকে বের হতে পারি না? আমাদের সমস্যাটা কোথায়? আমাদের কি এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি প্রতিরোধ করার সামর্থ্য নেই? না কি আমাদের একটু সদিচ্ছা আর মানুষের প্রতি ভালোবাসার অভাব আছে? তা না হলে কেন আমরা প্রতিনিয়ত একের পর এক ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সম্মুখীন হচ্ছি? আমাদের গলদ কোথায়?

পুরান ঢাকার নিমতলীর অগ্নিকাণ্ডের কথা তো সবারই মনে আছে? আর ২০ ফেব্রুয়ারি পুরান ঢাকার চুড়িহাট্টার ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড। যা প্রায় ৮০ জনেরও বেশি নিরীহ মানুষের জীবন কেড়ে নিয়েছে। এর মাত্র কয়েকদিন আগে চট্টগ্রামে আরেকটি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নয় জন মারা যায়।

চুড়িহাট্টা ট্রাজেডির রেশ কাটতে না কাটতেই আবার সেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড। ২৮ মার্চ বনানীর ২২ তলা ভবন এফআর টাওয়ারে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ২৫ জন মারা যায় এবং অর্ধশতাধিক মানুষ গুরুতর আহত হয়। ক্যামেরার সামনে জীবন্ত মানুষগুলো পুড়ে যাওয়ার সেই দৃশ্য আর বেঁচে থাকার আকুতি দেখলে গা শিউরে ওঠে।

অথচ দুঃখজনক হলেও সত্য আধুনিক বহুতল ভবনটিতেও ছিল সেই অব্যবস্থাপনা। একটি আধুনিক বহুতল ভবন হওয়া সত্ত্বেও সেখানে পর্যাপ্ত অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না বলে অভিযোগ ওঠেছে। যে সামান্য ব্যবস্থাটুকু ছিল তাও কার্যকর ছিল না বলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা জানিয়েছেন। তাছাড়া ভবন নির্মাণেও নীতিমালা অনুসরণ করা হয়নি।

কিন্তু প্রশ্ন হলো- এখন কেন আমরা এরকম দোষারোপ করছি? এতে কি যারা হারিয়ে গেছে তাদের ফিরে পাওয়া যাবে? তা না হলে এতদিন এই বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হলো না কেন? একটি অভিজাত এলাকায় এরকম একটি আধুনিক ভবন নির্মাণে নীতিমালা মানা হয়নি, অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা  নেই- এই বিষয়গুলো কীভাবে প্রশাসন থেকে আড়াল থাকে? এর দায়ভার কি কোনো ভাবে প্রশাসন এড়াতে পারবে?

না, প্রশাসন কোনো ভাবেই এই দায়ভার এড়াতে পারে না? তাই এখনই সময়, আমি, আমরা, প্রশাসন সবাইকেই একসঙ্গে এগিয়ে আসতে হবে। এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধ করতে হবে। এবং এটা আমাদের স্বার্থেই। অন্যথায়, আজ হয়ত এই হতভাগা লোকগুলোর জীবন গেছে। কাল তো হতে পারে আমি কিংবা তুমি?

 

 

লেখক: এনামুক হক, সাংবাদিক

একাদশ নির্বাচনে কামাল হোসেন গোপনে আ.লীগের পক্ষে কাজ করেছেন: নাসিম

একাদশ নির্বাচনে কামাল হোসেন গোপনে আ.লীগের পক্ষে কাজ করেছেন: নাসিম

একাদশ নির্বাচনে গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন গোপনে আওয়ামী লীগের পক্ষে কাজ করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। ভোটে আওয়ামী লীগের বিজয়কে ড. কামাল হোসেনের উপহার বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে রাজি করাতে চীনকে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান   

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে রাজি করাতে চীনকে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান  

বাংলাদেশে থাকা ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা নাগরিককে নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে রাজি করাতে চীনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে চীনা রাষ্ট্রদূত ঝ্যাং জু সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ আহ্বান জানান।

মিল্কভিটা, আড়ংসহ সব কোম্পানির দুধেই ক্ষতিকর এন্টিবায়োটিক!   

মিল্কভিটা, আড়ংসহ সব কোম্পানির দুধেই ক্ষতিকর এন্টিবায়োটিক!  

মিল্কভিটা, আড়ংসহ বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সাতটি প্যাকেটজাত (পাস্তুরিত) দুধের নমুণা পরীক্ষা করে সেগুলোতে মানুষের চিকিৎসায় ব্যবহৃত শক্তিশালী অ্যান্টিবায়োটিকের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। সেসঙ্গে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ঘি, ফলের জুস, মরিচ ও হলুদের গুঁড়া, পাম অয়েল, সরিষার তেল ও সয়াবিন তেলের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে; যার অধিকাংশকই মানহীন।

জাতীয়

২০-২২ জুলাইয়ের মধ্যে এইচএসসির ফল প্রকাশ

২০-২২ জুলাইয়ের মধ্যে এইচএসসির ফল প্রকাশ

জুলাই মাসের ২০, ২১ বা ২২ উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হতে পারে। এই তিন দিনের যেকোনো এক দিন ফল প্রকাশের অনুমোদন চেয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠিয়েছে শিক্ষা বোর্ডগুলো।

জাতীয়

এফআরের মালিক,  রূপায়ন চেয়ারম্যানসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

এফআরের মালিক,  রূপায়ন চেয়ারম্যানসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ঢাকার বনানীর এফআর টাওয়ার নির্মাণে অনিয়ম ও জালিয়াতির অভিযোগ এনে ভবন মালিক, নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রূপায়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং রাজউকের সাবেক দুই চেয়ারম্যানসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

জাতীয়

নয় মাসে রাসেলকে ৪৫ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ আদালতের

নয় মাসে রাসেলকে ৪৫ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ আদালতের

বাস চাপায় পা হারানো প্রাইভেটকার চালক রাসেল সরকারকে প্রতি মাসে পাঁচ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণের বাকি ৪৫ লাখ টাকা পরিশোধ করতে গ্রিনলাইন পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

বিনোদন

অভিনয়-গানে নতুন এক জয়া

অভিনয়-গানে নতুন এক জয়া

দুই বাংলায় বেশ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বাংলাদেশি অভিনেত্রী জয়া আহসান। সৌন্দর্য ও অভিনয়গুণে এরই মধ্যে কলকাতায়ও সমানভাবে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। এবার সে জনপ্রিয়তাকে আরো পাকাপোক্ত করতে ভিন্ন আঙ্গিকে পাওয়া গেছে তাকে।

জাতীয়

স্কুলে বসে নেশা, বাধা দেয়ায় শিক্ষককে মারধর

স্কুলে বসে নেশা, বাধা দেয়ায় শিক্ষককে মারধর

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নেশা করতে বাধা দেয়ায় আইয়ুব আলী (২৮) নামে এক শিক্ষককে জনসমক্ষে মারধরের অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষার্থী ও তার স্বজনদের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার রঘুনিলী মঙ্গলবাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। আইয়ুব আলী ওই বিদ্যালয়ের গণিতের শিক্ষক। আর অভিযুক্ত শিক্ষার্থীর নাম ছাব্বির হোসেন। সে একই বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র এবং উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের বিপাচান গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

বিনোদন

আমেরিকা থেকে ফিরে আবার অভিনয়ে ব্যস্ত হচ্ছেন তমালিকা

আমেরিকা থেকে ফিরে আবার অভিনয়ে ব্যস্ত হচ্ছেন তমালিকা

টিভি পর্দার একসময়কার জনপ্রিয় অভিনেত্রী তমালিকা কর্মকার। বহুদিন ধরে দেশে ছিলেন না তিনি। নিজের জীবনের খানিকটা পরিবর্তন আনতে বছর খানেক আগে আমেরিকায় পাড়ি জমান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী। শোনা গিয়েছিল, আর সেখান থেকে দেশে ফিরে আসবেন না তিনি।