• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬

বিড়াল কেন ঘাস খায়?

বিড়াল কেন ঘাস খায়?

ফিচার ডেস্ক১৮ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩৮এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বিড়াল সাধারণত মাংসাশী প্রাণী। কিন্তু যখন ঘাস খেতে শুরু করে, তখন খুব অদ্ভুত লাগে তাই না? যারা বিড়াল পোষেন তারা জানেন, তৃণভোজী না হয়েও মাঝে মাঝে বিড়াল ঘাস খায়। কেন খায় সেই প্রশ্নের উত্তর জানালেন ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার একদল গবেষক।

ওই ইউনিভার্সিটির স্কুল অব ভেটেরিনারি মেডিসিন বিভাগের গবেষকরা বলছেন, আদিকালে বিড়ালের ঘাস খাওয়ার অভ্যাস ছিল। জিনগতভাবে সেটি এখনো থেকে গেছে। মূলত পরিপাকতন্ত্রে কোনো ধরনের গোলযোগ দেখা দিলে বিড়াল সবুজ ঘাস খেয়ে থাকে। ঘাস খাওয়ার পর বমি করার মাধ্যমে বিড়াল পরিপাকতন্ত্রের জটিলতা থেকে মুক্তি পায়।

গবেষকরা অনলাইনে একটি জরিপ চালিয়েছেন। প্রতিদিন অন্তত তিনঘণ্টা বিড়ালকে সময় দেন এ রকম ১ হাজার ২১ জন এ জরিপে অংশ নেন। এর মধ্যে শতকরা ৭১ ভাগ জানান, তারা তাদের বিড়ালকে ঘাস খেতে দেখেছেন। সেই সময় তাদের বিড়াল অসুস্থ ছিল। প্রায় ৯১ ভাগ জানান, ঘাস খাওয়ার কারণে বিড়ালের কোনো শারীরিক অসুবিধা হয়নি।

এছাড়া গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ঘাস খাওয়ার পর সব বিড়াল বমি করে না। তার মানে, পরিপাকতন্ত্রে তাদের কোনো ধরনের ঝামেলা না থাকা সত্ত্বেও ঘাস খেয়ে থাকে তারা। ঘাস খাওয়ার পর মাত্র চার ভাগের এক ভাগ বিড়ালকে বমি করতে দেখা গিয়েছে।

সম্প্রতি নরওয়েতে হয়ে যাওয়া ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর অ্যাপ্লাইড ইথোলজি’র বার্ষিক সভায় এই তথ্যগুলো উপস্থাপন করা হয়। পরবর্তীতে সেই তথ্যগুলো বিজ্ঞান বিষয়ক প্রকাশনা ‌‘জার্নাল সায়েন্স’ প্রকাশ করে।

 

টাইমস/জিএস

যেখানে করোনা আক্রান্ত বেশি, সেই অঞ্চল লকডাউন: প্রধানমন্ত্রী

যেখানে করোনা আক্রান্ত বেশি, সেই অঞ্চল লকডাউন: প্রধানমন্ত্রী

দেশের যেসব অঞ্চলে করোনা আক্রান্ত রোগী বেশি, সেসব অঞ্চল লকডাউন

আগামী ১৫ দিন কোনোভাবেই ঘরের বাইরে বের হবেন না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আগামী ১৫ দিন কোনোভাবেই ঘরের বাইরে বের হবেন না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মারাত্মক ভাবে ছড়িয়ে

দেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৩৫, মৃত্যু তিন: আইইডিসিআর   

দেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৩৫, মৃত্যু তিন: আইইডিসিআর  

করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও তিন জন

জাতীয়

কাঁচা বাজার ও সুপার শপ ৬টার মধ্যে বন্ধ: ডিএমপি

কাঁচা বাজার ও সুপার শপ ৬টার মধ্যে বন্ধ: ডিএমপি

রাজধানীর সবধরণের কাঁচা সবজির বাজার ও সুপারশপসহ নিত্যপণ্যের বাজার ও দোকানপাট সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ডিএমপি কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

জাতীয়

চট্টগ্রাম লকডাউন: ফার্মেসী ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ

চট্টগ্রাম লকডাউন: ফার্মেসী ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ

মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শেষমেষ চট্টগ্রাম লকডাউন করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকা ও রাজশাহীর পর বিভাগীয় শহর হিসাবে এবার লকডাউন হল বন্দরনগরী। এদিকে লকডাউন ঘোষণার আগেই ফার্মেসী বাদে নগরীর সব দোকানপাট বন্ধ ঘোষণা করেছে পুলিশ প্রশাসন।

জাতীয়

রমজান মাসে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত অফিস

রমজান মাসে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত অফিস

আসন্ন পবিত্র রমজান মাসে সকাল ৯টা থেকে সাড়ে তিনটা পর্যন্ত অফিস চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও আধা-স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানে নতুন এ নিয়মে অফিস চলবে।

জাতীয়

মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ

মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ

মহামারী করোনাভাইরাস ধীরে ধীরে কঠিন রুপ নিচ্ছে বাংলাদেশে। গত তিন দিনে দ্বিগুন হারে বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। সেই সঙ্গে বাড়ছে প্রাণহানী। এমন পরিস্থিতিতে মুসল্লিদের ঘরে নামাজ আদায় করার নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

আন্তর্জাতিক

করোনা রোগীদের সেবা দিতে ডাক্তারি পেশায় ফিরলেন আইরিশ প্রধানমন্ত্রী

করোনা রোগীদের সেবা দিতে ডাক্তারি পেশায় ফিরলেন আইরিশ প্রধানমন্ত্রী

পেশায় একজন চিকিৎসক লিও ভারাদকার। সেই সঙ্গে তিনি আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী। তিনি চাইলেই ঘরে বন্দি থেকে অনায়াসে রাষ্ট্রকার্য চালিয়ে নিতে পারতেন। কিন্তু তিনি ব্যতিক্রম, তিনি অনন্য। কারণ তিনি মানুষের সেবা করার জন্য, করোনা আক্রান্তদের পাশে সরাসরি থাকার জন্য তার পেশায় ফিরে এসেছেন।

স্বাস্থ্য

করোনায় সংক্রমণ কমাবে ভিটামিন-ডি

করোনায় সংক্রমণ কমাবে ভিটামিন-ডি

করোনাভাইরাস মহামারীতে অচল গোটা বিশ্ব। হু হু করে বাড়ছে আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা। এই অবস্থায় করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে এর উৎস, বিস্তার ও প্রতিরোধ নিয়ে বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞরা গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে, আয়ারল্যান্ডের দুটি বৈজ্ঞানিক গবেষণায় বলা হয়েছে ভিটামিন-ডি করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সহায়তা করে। এমন দাবি করা প্রতিষ্ঠান দুটি হলো- টেকনোলজিক্যাল ইউনিভার্সিটি ডাবলিন এবং ট্রিনিটি কলেজ ডাবলিন।