• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গ্যাসের দাম সহনশীল মাত্রায় বাড়ান: নাসিম

গ্যাসের দাম সহনশীল মাত্রায় বাড়ান: নাসিম

সেন্ট্রাল ডেস্ক১৫ মার্চ ২০১৯, ০৬:৩৪পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত স্বাধীনতাবিরোধী ঘাতকদের আশ্রয় দিয়েছে। বিএনপির রেখে যাওয়া পাপকে জনগণ ভুলতে পারেনি। এ কারণে আজ এমন বিএনপির এ ভরাডুবি। তাদের এই ভুলের কারণেই তাদের নেত্রীকে (খালেদা জিয়া) কারাগারে থাকতে হচ্ছে।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ভিআইপি লাউঞ্জে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের দেখানো পথে ঘুরে দাঁড়ানো বাংলাদেশের উন্নয়নের তথ্যচিত্র সমৃদ্ধ বই প্রকাশ পূর্বপ্রস্তুতি সভায় মোহাম্মদ নাসিম এসব কথা বলেন।

সরকারের অগ্রগতির কথা তুলে ধরে নাসিম বলেন, বর্তমান সরকার দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তার নেতৃত্বে অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। বাংলাদেশের সর্বক্ষেত্রে এ উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে। এ সরকার বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিদের সম্পূর্ণ মুক্ত করতে সম্ভব হয়েছে। এ কারণে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাই। বারবার তিনি এ বাংলায় ক্ষমতায় আসুক, সেটাই প্রত্যাশা করি।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ টেনে নাসিম বলেন, ‘এত বড় উন্নত দেশ হয়ে জঙ্গিকে পুরোপুরি দমন করতে পারেনি। এই হামলায় বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ক্ষতি হতে পারত। কিন্তু আল্লাহ তাদের হেফাজত করেছেন।’ এ হামলার তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি।

গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রসঙ্গ টেনে নাসিম বলেন, গ্যাসের দাম যেন বেশি না বাড়ে, সেজন্য সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলব। তাদের আমরা বলব, দাম যদি বাড়াতেই হয়, তাহলে সহনশীল মাত্রায় বাড়ান।

লেখক শামীম আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, দিলীপ রায়, তোফায়েল হোসেনসহ অন্যরা।

 

 

টাইমস/এসআই

করোনায় আক্রান্ত আ'লীগের আরেক এমপি, এনিয়ে ৪ জন

করোনায় আক্রান্ত আ'লীগের আরেক এমপি, এনিয়ে ৪ জন

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনের আওয়ামী লীগের এমপি

করোনাভাইরাসে প্রফেসর ডা: গোলাম কিবরিয়া মৃত্যু

করোনাভাইরাসে প্রফেসর ডা: গোলাম কিবরিয়া মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রফেসর ডা: এস এ এম গোলাম কিবরিয়া

দুগ্ধজাত খাবার ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে সক্ষম

দুগ্ধজাত খাবার ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি কমাতে সক্ষম

বর্তমান যুগে আমাদের জটিল জীবনযাত্রা ও খাদ্যাভ্যাসের কারণে ডায়াবেটিস ও

লাইফস্টাইল

গরমে ঘর ঠান্ডা রাখার ঘরোয়া পদ্ধতি

গরমে ঘর ঠান্ডা রাখার ঘরোয়া পদ্ধতি

ঘাম ও অস্বস্তিকর গরম। গ্রীষ্মের এমন আচরণে এসি ছাড়া থাকা অনেকের পক্ষেই দুর্বিসহ। কিন্তু করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এসি ব্যবহারেও নানা বিধিনিয়ম আরোপ হয়েছে। তবু গরমের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে এসি চালানোর প্রবণতা। এদিকে এসি চালিয়ে রাখায় চাপ পড়ছে পকেটে। সঙ্গে ঠান্ডা লেগে বাড়ছে সর্দি-কাশির সমস্যা। করোনা সংক্রমণের স্থায়ী ভয় তো রয়েছেই। যখন এসি-র উদ্ভাবন হয়নি তখনও গরমের সময় মানুষ নানা উপায়ে ঘর ঠান্ডা রাখতেন।

স্বাস্থ্য

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাস্কের সঙ্গে চশমাও কি দরকার?

করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাস্কের সঙ্গে চশমাও কি দরকার?

আমরা ইতিমধ্যে সবাই জানি যে, নাক বা মুখ দিয়ে করোনাভাইরাস দেহে প্রবেশ করে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা নাক ও মুখের পাশাপাশি হাত না ধুয়ে চোখ স্পর্শ করতেও বারবার নিষেধ করছেন। এমন অবস্থায় অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগছে সত্যিই কি চোখ দিয়ে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়া সম্ভব? যদি সত্যিই চোখ দিয়ে করোনা সংক্রমিত হবার সম্ভাবনা থাকে তাহলে চোখ স্পর্শ না করলেও বাতাসের মাধ্যমে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি থেকে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে নাক ও মুখে মাস্ক পরার পাশাপাশি চোখের নিরাপত্তা চশমা ব্যবহার করাও জরুরি হয়ে দাঁড়াবে।

স্বাস্থ্য

মস্তিষ্কের টিউমারের লক্ষণ ও চিকিৎসা

মস্তিষ্কের টিউমারের লক্ষণ ও চিকিৎসা

মস্তিষ্কের টিস্যুর অস্বাভাবিক বৃদ্ধিকে ব্রেইন বা মস্তিষ্কের টিউমার বলে। যেকোনো বয়সেই মস্তিষ্কের টিউমার হতে পারে। যার সঠিক কোনো কারণ খুঁজে পাওয়া যায়নি। তবে রেডিয়েশন বা বিকিরণ একটা কারণ হতে পারে বলে বিজ্ঞানীদের ধারনা। অতীতে পরিবারে কারও মস্তিষ্কে টিউমার হয়ে থাকলে অন্যদেরও খানিকটা ঝুঁকি থাকে।

জাতীয়

ফিসারি দেখতে গিয়ে বিদ্যুতের ছেড়া তারে শিক্ষকের মৃত্যু

ফিসারি দেখতে গিয়ে বিদ্যুতের ছেড়া তারে শিক্ষকের মৃত্যু

নেত্রকোনার বারহাট্টায় ফিসারি দেখতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি সিংধা ইউনিয়নের তেলীকুড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের

মতামত

যেভাবে মাত্র ৭ দিনে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর করোনা জয়!

যেভাবে মাত্র ৭ দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর করোনা জয়!

আসলে কতটুকু সচেতনতা আমাদেরকে জয় এনে দিতে পারে নভেল করোনা ভাইরাসের বিপক্ষে? ভয় না পেয়ে সচেতনতার সাথেইতো বাসায় ছিলাম,

স্বাস্থ্য

মাস্ক না ফেস শিল্ড, কোনটি বেশি নিরাপদ?

মাস্ক না ফেস শিল্ড, কোনটি বেশি নিরাপদ?

কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্তের গ্রাফ ক্রমেই উর্ধমুখী। এর মধ্যেই যেতে হচ্ছে বিভিন্ন অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। রাস্তা ও যানবাহনে সামাজিক দূরত্বের মাপকাঠি বজায় থাকছে না বললেই চলে। এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে জানানো হচ্ছে- করোনাভাইরাসের মারণক্ষমতা একটুও কমেনি। কাজেই লকডাউন তোলার পর্যায়ে খুব সতর্ক থাকতে হবে। বাড়তি সতর্কতা হিসেবে অনেকেই মাস্কের উপর স্বচ্ছ প্লাস্টিকের মুখাবরণ বা ফেস শিল্ড পরছেন।