ইসরায়েলের হামলায় রক্তে ভাসছে ফিলিস্তিনের গাজা

ইহুদীবাদী ইসরায়েলের বিমান হামলায় ফের রক্তাক্ত হলো ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যাকা। গত দুদিনের সেখানে ২৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের দু'জন শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার রয়েছেন।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বলছে, জিহাদ আন্দোলনের সশস্ত্র শাখা আল-কুদস ব্রিগেড বুধবার এক বিবৃতিতে জানায়, ইসরায়েলের বিমান হামলায় খালিদ মাবাজ নামে ৩৮ বছর বয়সী আরও একজন কমান্ডার নিহত হয়েছেন। ইসরায়েলের সেনাবাহিনী বলেছে, ইসরায়েলের বিরুদ্ধে রকেট উৎক্ষেপণের প্রস্তুতি নেয়ার সময় মাবাজের ওপর হামলা চালায় তারা।

এর একদিন আগে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর বিমান হামলায় জিহাদ আন্দোলনের শীর্ষ পর্যায়ের কমান্ডার বাহা আবু আল-আতা ও তার স্ত্রীর নিহত হন। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, ইসরায়েলের দু'দিনের হামলায় ৪৫ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ২৩ শিশু রয়েছে।

ইসরায়েলি হামলার জবাবে জিহাদ আন্দোলন এ পর্যন্ত গাজা উপত্যকা থেকে ২০০’র বেশি ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়েছে। ইসরায়েলের জাতীয় জরুরি বিভাগ বলছে, এ পর্যন্ত তারা ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় আহত ৪৬ জনকে চিকিৎসা দিয়েছে।

ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের একজন মুখপাত্র ইসরায়েলকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, তেল আবিব যুদ্ধ শুরু করলেও যুদ্ধ শেষ করার ক্ষমতা তাদের হাতে থাকবে না এবং চলমান সংঘাতের সম্পূর্ণ দায়-দায়িত্ব ইসরায়েলকে বহন করতে হবে।

এদিকে, ইসরায়েল এবং গাজার মধ্যকার সংঘর্ষের পর আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কূটনৈতিক উদ্যোগ শুরু হয়েছে। দু'পক্ষের মধ্যে যুদ্ধবিরতির জন্য প্রচেষ্টা শুরু করেছে মিশর। অন্যদিকে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) আরব লীগ এবং জর্ডান ইসরায়েলি হামলার নিন্দা জানিয়েছেন।

লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহও ইসরায়েলি হামলার সমালোচনা করেছে। সংগঠনটি ফিলিস্তিনিদের যেকোনো সংগ্রামের প্রতি নিজেদের সমর্থনের কথা ব্যক্ত করেছে। 

 

টাইমস/এমএস

Share this news on: