• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

জিপি ও রবির লাইসেন্স কেন বাতিল হবে না: নোটিশ বিটিআরসি'র

জিপি ও রবির লাইসেন্স কেন বাতিল হবে না: নোটিশ বিটিআরসি'র

নিজস্ব প্রতিবেদক০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৪৯পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

দুই মোবাইল অপারেটরের কাছ থেকে বিশাল অঙ্কের পাওনা আদায়ে গ্রামীণফোন (জিপি) ও রবি আজিয়াটাকে বৃহস্পতিবার বিকালে টুজি ও থ্রিজি লাইসেন্স বাতিলের চিঠি পাঠিয়েছে টেলিযোযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। অপারেটর দুইটির লাইসেন্স বাতিল কেন করা হবে না সে বিষয়ে কারণ দর্শানোর জন্য ৩০ দিনের সময় দিয়েছে সংস্থাটি।

বৃহস্পতিবার বিটিআরসি এই চিঠি দেয় বলে জানান সংস্থাটির জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) মো. জাকির হোসেন খান।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নোটিশের জবাব না দিলে বা পাওনা টাকা পরিশোধ না করলে পরবর্তী পদক্ষেপ বিষয়ে সোয়া ১২ লাখ গ্রাহকের এই দুই অপারেটরে প্রশাসক নিয়োগের মত পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে বলে বিটিআরসির তরফ থেকে জানানো হয়েছে।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বিটিআরসির ওই নোটিশকে ‘অযৌক্তিক’ আখ্যায়িত করে গ্রামীণফোন বলেছে, নিয়ন্ত্রক সংস্থার এই ‘অন্যায্য’ পদক্ষেপের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা তারা নেবে।

১৯৯৭ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত গ্রামীণফোনের ওপর নিরীক্ষা করে ১২ হাজার ৫৮০ কোটি টাকা পাওনা দাবি করছে বিটিআরসি। রবির কাছে দাবি করা হচ্ছে ৮৬৭ কোটি টাকা। এ অর্থের মধ্যে বিলম্বের মাশুল ও সুদও ধরা আছে। টাকা পরিশোধের জন্য অপারেটর দুইটিকে দুই সপ্তাহ সময়ও দেয়া হয়।

বিটিআরসি থেকে তখন বলা হয়, গ্রামীণফোন ও রবির সর্বশেষ অডিটের পরে এই ডিমান্ড লেটার পাঠানো হয়েছে। কিন্তু দুই সপ্তাহের মধ্যে টাকা পরিশোধ না করায় বিটিআরসির কঠোর পদক্ষেপের অংশ হিসেবে গত ৪ জুলাই অপারেটর দু’টির ব্যান্ডউইথ সীমিত করে দেয়া হয়। পরে তা আবার খুলে দিলেও দুই অপারেটরের প্যাকেজ অনুমোদন, টাওয়ার স্থাপন, সরঞ্জাম আমদানির ক্ষেত্রে অনাপত্তি পত্র (এনওসি) দেয়া বন্ধ করে দেয়া হয়। 

বিটিআরসি বলছে, জনগণের পাওনা টাকায় ছাড় দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। তাদের আইনে এ বিষয়ে সালিসেরও কোনো সুযোগ নেই।

 

টাইমস/এসআই

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে ৫ করোনা রোগীর মৃত্যু

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে ৫ করোনা রোগীর মৃত্যু

গুলশানে ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা ইউনিটে অগ্নিকাণ্ড হয়েছে। বুধবার রাত ৯টা

করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন শিল্পপতিরা, এপর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু

করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন শিল্পপতিরা, এপর্যন্ত ৪ জনের মৃত্যু

যোবায়ের মোহাম্মদ : করোনাভাইরাসে প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। দীর্ঘ হচ্ছে

বিসিএসে অপেক্ষমানের আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ!

বিসিএসে অপেক্ষমানের আরও ২ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দিনে দিনে বাড়ছে। এ অবস্থায় রোগীদের চিকিৎসা নিয়ে

জাতীয়

করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, আক্রান্ত ১৫৪১

করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, আক্রান্ত ১৫৪১

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ৮১তম দিনে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে আরও ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা গিয়ে দাড়াল ৫৪৪ জন।

রাজনীতি

খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন -ফখরুল

খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন -ফখরুল

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দেশে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পরপরই খালেদা জিয়াকে শর্ত সাপেক্ষে ছয় মাসের জামিন দেয় আদালত।

জাতীয়

নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ মায়ের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ মায়ের মৃত্যু

ঝড়ের আঘাতে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে টিনের ঘরের ওপর পড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ গৃহবধূর মৃত্যুর হয়েছে। এ ঘটনায় বিদ্যুতায়িত হয়ে আহত হয়েছেন আরও ৫ জন।

জাতীয়

বজ্রপাত থেকে রক্ষার উপায়

বজ্রপাত থেকে রক্ষার উপায়

তীব্র গরমে স্বস্তি এনে দেয় বৃষ্টি। কিন্তু এই স্বস্তির বৃষ্টির সঙ্গে আসা বজ্রপাত বিপর্যয়ের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আমাদের দেশে মার্চ থেকে অক্টোবর পর্যন্ত বজ্রপাত হয়ে থাকে। এর মধ্যে এপ্রিল ও মে মাসে বজ্রপাত তুলনামূলকভাবে বেশি হয়। আর এই বজ্রপাতে প্রায়শই প্রাণহানির শিকার হচ্ছেন দেশের মানুষ।

যা কিছু প্রথম

তালাচাবি আবিষ্কারের ইতিহাস

তালাচাবি আবিষ্কারের ইতিহাস

যবে থেকে মানুষের কিছু জিনিসপত্র সম্বল হল, তবে থেকেই সেগুলোকে আগলে রাখার প্রবণতা এসে গেল। প্রথম প্রথম তালাচাবি বলতে শুধু দড়ি বা অন্য কিছু দিয়ে বেঁধে রাখা হতো। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সত্যিকারের তালাচাবি ব্যবহার করতে শুরু করল মানুষ। সেগুলো কাঠ বা ধাতুর তৈরি। ঠিক কে বা কোনো সভ্যতায়ে প্রথম তালাচাবি ব্যবহার হয়েছিল সেটা সঠিকভাবে জানা যায়নি।

বিনোদন

লকডাউনে কাজ নেই, নিজের প্রাণটাই দিয়ে দিলেন অভিনেত্রী!

লকডাউনে কাজ নেই, নিজের প্রাণটাই দিয়ে দিলেন অভিনেত্রী!

করোনাভাইরাসে লকডাউনের কারণে কোন কাজ নেই। একারণে হতাশায় পড়ে আত্মহত্যা করেছেন এক অভিনেত্রী।