• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭

ঢাবির অভাবী সেই ছেলেটি এখন ওয়াশিংটন ভার্সিটির শিক্ষক!

ঢাবির অভাবী সেই ছেলেটি এখন ওয়াশিংটন ভার্সিটির শিক্ষক!

নিজস্ব প্রতিবেদক২৭ জুন ২০২০, ০৯:৪৮পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

অভাবের সঙ্গে বড় হয়েছেন তিনি। স্বপ্ন ছিল নতুন কিছু করার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর নিজেকে মেলে ধরেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য দশটা শিক্ষার্থীর মতো বিসিএস ক্যাডার হওয়ার গতানুগতিক স্বপ্নে হাবুডুবু খাওয়ার ছেলে তিনি নন। পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় বেড়ে উঠা সেই ছেলেটি এখন ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির শিক্ষক হয়েছেন। তিনি এখন এমন পলিমারিক ম্যাটেরিয়াল উদ্ভাবন করার চেষ্টা করেছেন, যেগুলো সহজে রিসাইকেল (recycle) করা যায় এবং সেলফ হিলিং (self-healing), অর্থাৎ এসব ম্যাটেরিয়ালে স্ক্রাচ (scratch) হলে অথবা আঘাত হলে নিজে নিজে এই ম্যাটেরিয়াল ঐ স্ক্রাচ/আঘাত দূর করতে পারবে। সফলতার এই গল্পটা নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান প্রজ্ঞাতেজ চাকমার। জানালেন বিসিএসের স্বপ্ন দেখলে হয়তো তিনি আন্তর্জাতিক মানের গবেষক হতে পারতেন না।

জানা গেছে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স শেষ করে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম সেরা মিয়ামি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তার পিএইচডি গবেষণার বিষয় ছিল অর্গানিক আর পলিমার কেমিস্ট্রি। পিএইচডি অর্জন করার পর ড. প্রজ্ঞাতেজ চাকমা এখন পোস্ট ডক স্কলার হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনে যোগদান করছেন।

প্রজ্ঞাতেজ চাকমা খাগড়াছড়ির পানছড়ি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাশ করেন। খাগড়াছড়ি ক্যান্ট. পাবলিক কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন। পরে ভর্তি হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফলিত রসায়ন এবং কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে।

প্রজ্ঞাতেজ চাকমা বিগত ৫ বছরে তার ১১টি প্রকাশনা Macromolecules, Macro Letters, Angewandte Chemie, Polymer Chemistry নামক স্বনামধন্য জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। প্রজ্ঞাতেজ চাকমাকে হাই রিসার্চ এক্টিভিটির জন্য ডিপার্টমেন্ট থেকে Dissertation Scholar পুরস্কার দেয়া হয়। যা তার জন্য অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে।

ড. প্রজ্ঞাতেজ চাকমা বলেন, ঢাবিতে ভর্তি হয়ে থার্ড ইয়ারের দিকে অনেক সিনিয়রকে দেশের বাইরে পিএইচডি নিতে দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হন। এছাড়াও আমাদের পাহাড়ি সমাজের কৃতি সন্তান আমেরিকান প্রবাসী ড. মংসানু মারমাও আমার কাছে অনুপ্রেরণার ছিলেন। আর্থিকভাবে আমাদের পরিবার কখনো সচ্ছল ছিলাম না। আমিও হয়তো ঢাবি থেকে অনার্স-মাস্টার্স করে বিসিএস অথবা সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুতি নিতে পারতাম। কিন্তু আমি সংকল্প নিই আমাকে যেকোন উপায়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করে একজন বিজ্ঞানী হতে হবে। আমার পরিবারের নাম, আমার সমাজের নাম উজ্জ্বল করতে হবে।

তিনি বলেন, আর্থিক অসচ্ছলতার মাঝেও আমার পরিবার যতটুকু সম্ভব আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে। আমি আমার এই পিএইচডি ডিগ্রি আমার প্রাণপ্রিয় মাকে উৎসর্গ করতে চাই, যিনি ছোটবেলা থেকে নিজের সবকিছু দিয়ে আমাদের তিন ভাই-বোনকে আগলে রেখেছেন। শত কষ্ট সহ্য করে আমাদের মানুষ করেছেন। মায়ের ত্যাগ ছাড়া এতদূর আসা কখনো সম্ভব ছিলো না।

টাইমস/জেকে

সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে আক্রান্ত ছাড়াল দেড় লাখ

সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে আক্রান্ত ছাড়াল দেড় লাখ

দেশে প্রতিদিনই বেড়ে চলছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। দেশে

‘হীনমন্যতায় প্রতি রাতেই কেঁদেছি, অবশেষে পররাষ্ট্র ক্যাডার’

‘হীনমন্যতায় প্রতি রাতেই কেঁদেছি, অবশেষে পররাষ্ট্র ক্যাডার’

আমি সফল কেউ নই। অন্তত এখনো নই। তাই সফলতার গাঁথা

৩৭তম বিসিএসে শিক্ষা, এবার প্রশাসন ক্যাডার ঢাবি ছাত্রের

৩৭তম বিসিএসে শিক্ষা, এবার প্রশাসন ক্যাডার ঢাবি ছাত্রের

হুছাইন মুহাম্মদ। ৩৮ তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন। মেধাক্রম

জাতীয়

করোনা উপসর্গে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকের মৃত্যু

করোনা উপসর্গে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকের মৃত্যু

করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অবসরপ্রাপ্ত ইমেরিটাস অধ্যাপক ডা. ফকরুল ইসলামের (৮৬) মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

চাকরি

৩৮তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে ১৭তম বুয়েটের সনদ বড়ুয়া

৩৮তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে ১৭তম বুয়েটের সনদ বড়ুয়া

চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এসএসসি পাস করার পর ভর্তি হন চট্টগ্রাম কলজে। সেখানেও কৃতিত্বের সঙ্গে এইচএসসি পাস করেন তিনি।

স্বাস্থ্য

এবার করোনায় হলি ফ্যামিলি মেডিকেল চিকিৎসকের মৃত্যু

এবার করোনায় হলি ফ্যামিলি মেডিকেল চিকিৎসকের মৃত্যু

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি হলেন হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের

চাকরি

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই এএসপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী!

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই এএসপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী!

নুসরাত ইয়াছমিন তিসা। পড়াশোনা করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে। দ্বিতীয় বর্ষেই তাকে বিয়ে দিয়ে দেয়া হয়।

চাকরি

শাবিতে পড়াশোনা, একসঙ্গে বিসিএস ক্যাডার হওয়ার গল্প দুই বোনের

শাবিতে পড়াশোনা, একসঙ্গে বিসিএস ক্যাডার হওয়ার গল্প দুই বোনের

ফাতেমাতুজ জুহরা চাঁদনী ও সাদিয়া আফরিন তারিন পড়াশোনা করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। ৩৮তম বিসিএসে তারা দুই বোনই

স্বাস্থ্য

স্ট্রেস আমাদের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে পারে

স্ট্রেস আমাদের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে পারে

স্ট্রেস মানব জীবনের অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ক্যারিয়ার বা কাজের চাপ থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত-সামাজিক ইস্যু, হালের মহামারীসহ একাধিক কারণে স্ট্রেস বা মানসিক চাপ সৃষ্টি হতে পারে। স্ট্রেস বা মানসিক চাপ নানাভাবে আমাদের দেহের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। তবে, অনেকে স্ট্রেসের নেতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে সচেতন নয়, ফলে সময়মতো প্রতিকার বা চিকিৎসা গ্রহণ করেন না।