• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭

ঘরে বসে ঈদের আনন্দ উপভোগ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ঘরে বসে ঈদের আনন্দ উপভোগ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সেন্ট্রাল ডেস্ক২৪ মে ২০২০, ০৯:৪৮পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে আসা ঈদে সবাইকে ঘরে বসে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঈদের আগে রোববার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে এ আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দেওয়া এ ভাষণ টেলিভিশন ও রেডিওতে সম্প্রচার করা হয়।

সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন। ঘরে বসেই ঈদের আনন্দ উপভোগ করুন। এ বছর আমরা সশরীরে পরস্পরের সঙ্গে মিলিত হতে বা ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করতে না পারলেও টেলিফোন বা ভার্চুয়াল মাধ্যমে আত্মীয় স্বজনের খোঁজখবর নেব।

দেশের অর্থনীতিতে করোনার প্রভাবে কর্মহীন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, সামর্থ্যবানদের প্রতি আহ্বান জানাই, এই দুঃসময়ে আপনি আপনার দরিদ্র প্রতিবেশি, গ্রামবাসী বা এলাকাবাসীর কথা ভুলে যাবেন না। আপনার যেটুকু সামর্থ্য আছে তাই নিয়ে তাঁদের পাশে দাঁড়ান। তাহলেই ঈদের আনন্দে পরিপূর্ণ হয়ে উঠবে আপনার ঘর এবং হৃদয়-মন।

দীর্ঘ সাধারণ ছুটির মধ্যে প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কথায় আছে বিপদ কখনও একা আসে না। আল্লাহর অশেষ রহমত এবং আমাদের আগাম প্রস্তুতির কারণে জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি এড়ানো সম্ভব হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে যাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি না হয়, সে জন্য বিভিন্ন দ্বীপ, চরাঞ্চল এবং সমুদ্র-উপকূলে বসবাসকারী ২৪ লাখেরও বেশি মানুষকে এবং প্রায় ছয় লাখ গবাদিপশু আমরা ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করি। সর্বাত্মক প্রস্তুতি সত্বেও গাছ ও দেয়াল চাপায় বেশ কয়েকজন মানুষ মারা গেছেন এবং বহু ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। আমি তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি।

করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ঈদের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থার কথা স্মরণ করিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এবছর আমরা সকল ধরনের গণ-জমায়েতের উপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছি। কাজেই স্বাভাবিক সময়ের মত এবার ঈদুল ফিতর উদযাপন করা সম্ভব হবে না। ঈদগাহ ময়দানের পরিবর্তে মসজিদে মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায় করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জানান, এর আগে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধন অনুষ্ঠান, স্বাধীনতা দিবস এবং বাংলা নববর্ষের অনুষ্ঠানও জনসমাগম এড়িয়ে রেডিও, টেলিভিশন এবং ডিজিটাল মাধ্যমে উদযাপন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ডাক্তার, নার্সসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, বিজিবি, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী, সশস্ত্রবাহিনীর সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ও মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের শুভেচ্ছা জানান। তারা সবাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, সংবাদকর্মীরা সংক্রমণের ঝুঁকি উপেক্ষা করে করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরছেন। মানুষকে সচেতন করতে সহায়তা করছেন। তিনি তাদেরও ধন্যবাদ এবং শুভেচ্ছা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনার সময় আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য, ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী, প্রশাসনের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক কর্মকর্তা, ব্যাংক কর্মী এবং সংবাদকর্মী করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। বেশ কয়েকজন ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্য, প্রশাসনের কর্মকর্তা এবং ব্যাংক ও সংবাদকর্মী ইতোমধ্যে মারা গেছেন। আমি তাদের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ইতিমধ্যে আমরা চিকিৎসা সক্ষমতা অনেকগুণ বৃদ্ধি করেছি। সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি খাতের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হাসপাতালকেও আমরা করোনাভাইরাস চিকিৎসায় সম্পৃক্ত করেছি। জরুরিভিত্তিতে দুই হাজার ডাক্তার এবং পাঁচ হাজার নার্স নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ত্রাণ কার্যক্রম সম্পর্কে শেখ হাসিনা বলেন, কর্মহীন মানুষের সহায়তার জন্য সরকার সর্বাত্মক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। খাদ্য সহায়তা ছাড়াও দেওয়া হচ্ছে নগদ অর্থ। এ পর্যন্ত ১ লাখ ৬২ হাজার ৮৬৭ মেট্রিক টন চাল এবং নগদ ৯১ কোটি ৪৭ লাখ ৭২ হাজার টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। ১০ কেজি টাকা দরে বিক্রির জন্য ৮০ হাজার মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। মে মাসে দরিদ্র পরিবারের জন্য অতিরিক্ত ৫০ লাখ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে যার মাধ্যমে তারা এই চাল কিনতে পারবেন। কাজ হারিয়েছেন কিন্তু কোন সহায়তা কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত নন এ ধরনের ৫০ লাখ পরিবারকে আড়াই হাজার টাকা করে মোট ১২ শো ৫০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে।

প্রধানমন্ত্রী জানান, কওমি মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষকদের জন্য দু-দফায় ১৭ কোটিরও বেশি এবং সারা দেশের মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনদের জন্য ১২২ কোটি ২ লাখ ১৫ হাজার টাকা সহায়তা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সমাজের প্রান্তিক জনগোষ্ঠির সহায়তার জন্যও বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

যতদিন পর্যন্ত পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হবে, ততদিন এসব কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, উৎপাদন ব্যবস্থাকে পুনরায় সচল করতে আমরা ইতোমধ্যে ১ লাখ ১ হাজার ১১৭ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছি। যা জিডিপি'র ৩ দশমিক ৬ শতাংশ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পূর্বাভাসে বলা হচ্ছে করোনাভাইরাসের এই মহামারী সহসা দূর হবে না। কিন্তু জীবন তো থেমে থাকবে না। যতদিন না কোন প্রতিষেধক টীকা আবিস্কার হচ্ছে, ততদিন করোনাভাইরাসকে সঙ্গী করেই হয়তো আমাদের বাঁচতে হবে। জীবন-জীবিকার স্বার্থে চালু করতে হবে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড।

শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের প্রায় সকল দেশই ইতোমধ্যে লকডাউন শিথিল করতে বাধ্য হয়েছে। কারণ অনির্দিষ্টকালের জন্য মানুষের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ করে রাখা সম্ভব নয়। বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশের পক্ষে তো নয়ই।

তিনি বলেন, আমরা ঈদের আগে স্বাস্থ্যবিধি এবং অন্যান্য নিয়মনকানুন মেনে কিছু কিছু দোকানপাট খুলে দেওয়ার অনুমোদন দিয়েছি। যারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন এবং যারা দোকানে কেনাকাটা করতে যাচ্ছেন, আপনারা অবশ্যই নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন। ভিড় এড়িয়ে চলবেন।’

প্রধানমন্ত্রী জনগণের উদ্দেশে বলেন, আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে। মনে রাখবেন আপনি সুরক্ষিত থাকলে আপনার পরিবার সুরক্ষিত থাকবে, প্রতিবেশি সুরক্ষিত থাকবে, দেশ সুরক্ষিত থাকবে।

শেখ হাসিনা জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের-ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ- গানটির কয়েক চরণ তুলে ধরে তার ভাষণ শেষ করেন।

 

টাইমস/এইচইউ

বন্যার আশঙ্কা, ২৩ জেলায় আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার নির্দেশ

বন্যার আশঙ্কা, ২৩ জেলায় আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার নির্দেশ

দেশের ২৩টি জেলায় আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত করতে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) নির্দেশ

করোনা: আক্রান্ত ছাড়াল পৌনে দুই লাখ, মৃত্যু ২২০০

করোনা: আক্রান্ত ছাড়াল পৌনে দুই লাখ, মৃত্যু ২২০০

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৩ হাজার ৩৬০

এমপি পাপুল কুয়েতের নাগরিক নন

এমপি পাপুল কুয়েতের নাগরিক নন

অর্থ ও মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার এমপি শহিদ ইসলাম পাপুল কুয়েতের

জাতীয়

মোটরসাইকেল বহরে বন্ধুসহ ঘুরতে গিয়ে প্রাণ হারাল সাব্বির

মোটরসাইকেল বহরে বন্ধুসহ ঘুরতে গিয়ে প্রাণ হারাল সাব্বির

কয়েকজন বন্ধু মিলে চারটি মোটরসাইকেলযোগে বেড়াতে যায়। সারা দিন ঘোরাঘুরি শেষে সন্ধ্যায় বাড়ি উদ্দেশে রওনা দেয় তারা। পথে বালুবাহী ড্রাম ট্রাকের সঙ্গে সাব্বির ও প্রান্তকে বহনকারী মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় স্থানীয়দের সহায়তায় বন্ধুরা আহত দুইজনকে দ্রুত হাসপাতাল নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাব্বিরকে মৃত ঘোষণা করেন।

জাতীয়

রিজেন্টের মালিক সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

রিজেন্টের মালিক সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

রিজেন্ট গ্রুপ ও রিজেন্ট হাসপাতাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাহেদ করিম ওরফে মো. সাহেদের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে ইমিগ্রেশন বিভাগকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি দেয়া হয়েছে। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশ সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জাতীয়

যশোরে চরমপন্থী সংগঠনের সাবেক নেতাকে গুলি করে হত্যা

যশোরে চরমপন্থী সংগঠনের সাবেক নেতাকে গুলি করে হত্যা

যশোরের মণিরামপুরে এক ইজিবাইক চালককে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার নাম রফিকুল ইসলাম (৫০)। বৃহস্পতিবার বেলা ১টার দিকে উপজেলার কুশলিয়া গ্রামে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটে।

বিনোদন

ট্রেলারেই ইতিহাস গড়লো সুশান্তের শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’

ট্রেলারেই ইতিহাস গড়লো সুশান্তের শেষ ছবি ‘দিল বেচারা’

কিছুদিন আগে হঠাৎ করেই পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। তার মৃত্যু আত্মহত্যা না হত্যা- এ নিয়ে এখনও চলছে রহস্য। এরই মধ্যে গত ৬ জুলাই তার অভিনীত সর্বশেষ ছবি ‘দিল বেচারা’র ট্রেলার মুক্তি দেওয়া হয়েছে। মুক্তির পর থেকেই ট্রেলারটি একের পর এক রেকর্ড ভেঙ্গে চলেছে।

জাতীয়

কুমিল্লা মেডিকেলে একদিনে করোনা ও উপসর্গে ৯ জনের মৃত্যু

কুমিল্লা মেডিকেলে একদিনে করোনা ও উপসর্গে ৯ জনের মৃত্যু

করোনা ও উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে চার নারীসহ ৯ জন মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার সকালে কুমেক হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. সাজেদা খাতুন এ তথ্য জানিয়েছেন।

শিল্প ও সাহিত্য

ঘরে বসে মহামারী সম্পর্কিত যেসব মুভি দেখতে পারেন

ঘরে বসে মহামারী সম্পর্কিত যেসব মুভি দেখতে পারেন

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ মহামারীর ফলে ইতিমধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন বহু লোক, সংক্রমণের সংখ্যাও প্রতিদিন বেড়েই চলেছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ বহু দেশে দেখা দিয়েছে দ্বিতীয় পর্যায়ের মহামারী। দীর্ঘ দিনের লকডাউন, স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকা, ব্যবসায় ধস, ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা প্রভৃতি নানা কারণে সাধারণ মানুষের দিন কাটছে আতঙ্ক আর উদ্বেগের মধ্য দিয়ে।