• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

কি হচ্ছে তাবলিগে?

কি হচ্ছে তাবলিগে?

খলিলুর রহমান স্টালিন, জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক০৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:৩৪পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

তাবলিগ জামাতের মধ্যে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব দিন দিন বেড়েই চলছে। কবে এর সমাধান হবে এমন কোনো তথ্যও মিলছে না কারো কাছে। তাই সারা দেশের তাবলিগ সদস্যদের মধ্যে ভয়, আতঙ্ক ও হতাশা দেখা দিয়েছে। তাদের মধ্যে দ্বন্দ্বের সমাধান নিয়ে হাজারো প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে।

কি হচ্ছে তাবলিগ জামাতে?

এই প্রশ্ন তাবলিগের প্রায় ৯০ ভাগ ভক্ত, সমর্থক ও সদস্যদের। মঙ্গলবার তাবলিগ ভক্ত, সমর্থক ও সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে।

জুবায়ের আহমেদ নামের এক তাবলিগ সদস্য জানান, তাবলিগ একটি দীনি প্রতিষ্ঠানের নাম। যেখানে এক মাত্র কাজ আল্লাহকে ভয় করে সহী তরিকায় ইসলামের দাওয়াতী কাজ করা। সেখানে কোনো ধরনের নেতৃত্ব বা পদ পদবীর লোভ থাকার কথা নয়। কিন্তু সম্প্রতি তাবলিগ জামাত দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। প্রথমে নিজেদের মধ্যে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব। এক পর্যায়ে ওই দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে ছড়িয়ে পড়ে।

পরবর্তীতে বিষয়টি আংশিক সমাধান হলেও বর্তমানে ফের দু’পক্ষ দ্বন্দ্বে লিপ্ত হয়েছে। তাই সাধারণ সদস্যদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে। আবার কারো কারো মনে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তবে এর সমাধান কিভাবে, কবে হবে তা নিয়ে কেউ কিছু বলছে না বলে জানান জুবায়ের আহমেদ।

আব্দুর রহমান নামের আরেক সদস্য ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তাবলিগের মধ্যে এমন দ্বন্দ্ব দেখা দিবে তা কখনো ভাবি নাই। তবে যা হচ্ছে তা অবশ্যই দুঃখজনক। এ সংকট নিরসের উপায় কবে, কিভাবে হবে সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমি অনেক মুরব্বিদের কাছে দ্বন্দ্বের সমাধান সম্পর্কে জানতে চাই। কিন্তু কেউই ওই প্রশ্নের উত্তর দিতে চান না।

মুরব্বিদের মধ্যে যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে সেটার সমাধান কী হবে এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে প্রায়ই কাকরাইল জামে মসজিদ যান পুরান ঢাকার ইব্রাহিম আলী নামের এক তাবলিগ সদস্য। তিনি জানান, তাবলিগের সবাই হতাশ। কেউ এর সমাধান জানেন না। আল্লাহ এর ভালো সমাধান জানেন।

তবে ভক্তদের এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে বাংলাদেশ টাইমসের এই প্রতিবেদকও ব্যর্থ হয়েছেন। উভয় পক্ষের মুরব্বিরা সামাধানের পথ না খুঁজে একে অপরের উপর দোষারূপে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

মঙ্গলবারও রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় একে অপরের বিরুদ্ধে মিছিল-সমাবেশে করতে দেখা গেছে।

তাবলিগ সূত্রে জানা গেছে, আমির নির্ধারণকে কেন্দ্র করে দুটি পক্ষে বিভক্ত হয়ে পড়ে তাবলিগ জামাত। আর ওই দ্বন্দ্বের মূলে রয়েছেন মোহাম্মদ সা'দ কান্দালভি। এক পক্ষ তাকে সারা বিশ্বের আমীর নির্বাচিত করেছেন। অপর পক্ষ তার নেতৃত্ব মানতে নারাজ। এই দ্বন্দ্বের রেশ কাটতে না কাটতেই ২০১৭ সালে টঙ্গিতে বিশ্ব ইজতেমা শুরু হয়ে যায়। ওই সময় মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্দালভি টঙ্গি ইজতেমায় অংশ নিতে ঢাকায় আসেন।

কিন্তু অপর পক্ষের বাধায় তিনি টঙ্গিতে না গিয়ে ভারতে ফেরত যেতে বাধ্য হয়েছিলেন। পরবর্তীতে প্রায় কয়েক মাস প্রকাশ্যে ওই দ্বন্দ্ব দেখা না গেলেও এবার ইজতেমার প্রস্তুতি নেয়াকে কন্দ্রে করে উভয় পক্ষের মধ্যে প্রকাশ্যে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়।

সর্বশেষ ১ ডিসেম্বর তাবলিগের মাওলানা সাদ আহমাদ কান্ধলভী ও মাওলানা জোবায়ের আহমেদ সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষে ইসমাইল মন্ডল (৭০) নামের একজন নিহত হন। তার বাড়ি মুন্সীগঞ্জের মিলকিপাড়া গ্রামে। এছাড়াও আহত হয়েছেন উভয় পক্ষের শতাধিক মানুষ।

পরবর্তীতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান মিয়া কামলা উভয় পক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং নির্বাচনের আগে টঙ্গি ময়দানে কেউ সমাবেশ করতে পারবেন না বলে ঘোষণা দেন। এ ঘোষণার পর পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। তবে জোবায়ের পক্ষের লোকজন সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন। এছাড়া সোমবার প্রথমবারের মত সাদ অনুসারীরা সংবাদ সম্মেলন করে তাদের বক্তব্য উপস্থাপর করেন।  

সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষ একে অপরের বিপক্ষে মামলাও দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সাদ অনুসারী বাংলাদেশের আমীর মাওলানা আশরাফ আলী বলেন, আমরা বিষয়টি সমাধানের পক্ষে। কিন্তু তারা বিষয়টি সমাধান না করে উল্টো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিতে লিপ্ত রয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে মাওলানা জোবায়ের আহমেদ পক্ষের দায়িত্বশীল এক নেতা বাংলাদেশ টাইমসকে বলেন, আমরা বিষয়টি সমাধান করতে চাই। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সমাধান হচ্ছে না।

 

টাইমস/কেআর/টিএইচ

সিলেট সিটির সাবেক ও বর্তমান মেয়রের স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

সিলেট সিটির সাবেক ও বর্তমান মেয়রের স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) সাবেক ও বর্তমান মেয়রের স্ত্রী করোনাভাইরাসে

চকরিয়ায় বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে পেটালেন যুবলীগ নেতা

চকরিয়ায় বৃদ্ধকে বিবস্ত্র করে পেটালেন যুবলীগ নেতা

পূর্ব শত্রুতার জেরে আওয়ামী লীগের এক প্রবীণ নেতাকে প্রকাশ্যে বিবস্ত্র

নটরডেম-হলিক্রসসহ চার্চ পরিচালিত ৪ কলেজে ভর্তি স্থগিত

নটরডেম-হলিক্রসসহ চার্চ পরিচালিত ৪ কলেজে ভর্তি স্থগিত

চার্চ (খ্রিস্টান মিশনারি) পরিচালিত চার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের একাদশে ভর্তি স্থগিত

চাকরি

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই পররাষ্ট্র ক্যাডার ঢাবির পুনম!

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই পররাষ্ট্র ক্যাডার ঢাবির পুনম!

হুমাইরা চৌধুরী পুনম। শেরপুরের এই ছাত্রী ক্লাসে সবসময় ফার্স্টগার্ল থাকতেন। শেরপুর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০০৭ সালে এসএসসি

জাতীয়

করোনায় স্ত্রীর পর এবার বিমানের ক্যাপ্টেনও না ফেরার দেশে

করোনায় স্ত্রীর পর এবার বিমানের ক্যাপ্টেনও না ফেরার দেশে

স্ত্রীর মৃত্যুর পর এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সাবেক পাইলট আলী আশরাফ খান। তার স্ত্রীও

জাতীয়

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে একদিনে রেকর্ড ২ হাজার ৯১১ জন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এনিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়াল ৫২ হাজার ৪৪৫ জন। এছাড়া সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ডের দিনে দেশে কোভিড-১৯ এ আরও ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে কোভিড-১৯ এ মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাড়াল ৭০৯ জনে।

স্বাস্থ্য

করোনা দুর্বল হয়নি এখনো শক্তিশালী

করোনা দুর্বল হয়নি এখনো শক্তিশালী

করোনাভাইরাস নিয়ে নানা আতঙ্কের মধ্যেই সম্প্রতি সুখবর দিয়েছিলেন ইতালির দুই চিকিৎসক। তারা দাবি করেছিলেন, এই ভাইরাস আগের মতো আর শক্তিশালী নেই। এই ভাইরাস দিন দিন শক্তি হারিয়ে দুর্বল হচ্ছে। কিন্তু এর জবাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলেছে, হুট করে এ ভাইরাস ক্ষতিকর ক্ষমতা হারিয়ে নির্বিষ হয়ে গেছে- এমন কোনো প্রমাণ নেই।

স্বাস্থ্য

করোনার ওষুধ আবিষ্কার রাশিয়ার

করোনার ওষুধ আবিষ্কার রাশিয়ার

কোভিড-১৯ রোগের একটি কার্যকর ওষুধ আবিষ্কার করেছে রাশিয়া। রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (আরডিআইএফ) এবং রাশিয়ান ফার্মাসিউটিক্যাল ফার্ম যৌথভাবে তৈরি ওষুধটি করেছে। ইতিমধ্যে অ্যাভিফ্যাভির নামের ওষুধটির অনুমোদন দিয়েছে রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আগামী সপ্তাহ থেকেই এর ব্যবহারে চিকিৎসা শুরু হবে। খবর সিএনবিসির

স্বাস্থ্য

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

ইন্টারনেটে যেকোনো তথ্য কিংবা ভিডিও জনপ্রিয় হওয়ার পেছনে রহস্যময় কোনো না কোনো কারণ থাকতে পারে, কিন্তু সঠিক তথ্য প্রদানের সাথে এর কোনো যোগসূত্র নেই বলে মনে করছেন গবেষকরা। বিএমজে গ্লোবাল হেলথ কর্তৃক সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, সার্স-কোভ-২ নিয়ে আলোচনা করা সর্বাধিক দেখা প্রতি চারটি ইউটিউব ভিডিওর মধ্যে একটিতে বিভ্রান্তিমূলক বা ভুল তথ্য রয়েছে।