• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭

বিয়ের প্রলোভনে শিক্ষিকাকে ধর্ষণ: রংপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রনি বহিষ্কার

বিয়ের প্রলোভনে শিক্ষিকাকে ধর্ষণ: রংপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রনি বহিষ্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর১২ অক্টোবর ২০২০, ০৯:২৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুল শিক্ষিকাকে ধর্ষণ ও ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণকে ‘কুরুচিপূর্ণ’ ভাষায় ব্যঙ্গ করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরালের অভিযোগে জেলা রংপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকী রনিকে সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

সোমবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, দলীয় নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলাপরিপন্থী কাজে জড়িত থাকায় রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকি রনিকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুমন সরকারকে রংপুর জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হলো।

এর আগে গত ৫ সেপ্টেম্বর রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানায় রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকী রনির বিরুদ্ধে ভুয়া বিয়ে করে একাধিকবার ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন এক স্কুল শিক্ষিকা।

সেখানে প্রধান আসামি করে স্কুল শিক্ষিকা অভিযোগ করেন, প্রেমের সম্পর্কের জেরে ভুয়া বিয়ের নাটক সাজিয়ে দীর্ঘদিন তাকে ধর্ষণ করা হয়। এছাড়াও ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কয়েকবার ভারতের বিভিন্নস্থানে নিয়ে গিয়েও তাকে ধর্ষণ করা হয়। এর বিচার চেয়ে ওই স্কুল শিক্ষিকা রংপুরে ও ঢাকায় বিভিন্নভাবে প্রতিবাদ জানায়। তবে মেহেদী হাসান সিদ্দিকী রনিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

আরও পড়ুন

রংপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে শিক্ষিকার ধর্ষণ মামলা

 

টাইমস/এইচইউ

৩৮ বিসিএস : ননক্যাডারে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ৫৪১ জন

৩৮ বিসিএস : ননক্যাডারে নিয়োগ পাচ্ছেন আরও ৫৪১ জন

৩৮তম বিসিএস পরীক্ষার নন-ক্যাডার থেকে প্রথম শ্রেণির বিভিন্ন পদে আরও

বিয়ের জন্য বাসায় ডেকে ছাত্রীকে ধর্ষণ করল ছাত্রলীগ নেতা!

বিয়ের জন্য বাসায় ডেকে ছাত্রীকে ধর্ষণ করল ছাত্রলীগ নেতা!

বিয়ের কথা বলে ডেকে নিয়ে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগ

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ভাবনা

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ভাবনা

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর ) পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের

অর্থনীতি

আলুর দাম কেজিপ্রতি ৩৫, বেশি নিলেই ব্যবস্থা

আলুর দাম কেজিপ্রতি ৩৫, বেশি নিলেই ব্যবস্থা

বাজার নিয়ন্ত্রণ করতে এবার সরকারই বাড়িয়ে দিল আলুর দাম। খুচরা পর্যায়ে কেজি প্রতি আলুর দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। আগামীকাল বুধবার থেকে সরকার নির্ধারিত আলুর দাম বাস্তবায়ন হবে। সরকারি নির্দেশনা না মানলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানা গেছে।

আন্তর্জাতিক

কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান : নিহত ৪

কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর অভিযান : নিহত ৪

গত কয়েকদিন ধরেই কাশ্মিরে ভারতীয় বাহিনীর সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান চলছে। অভিযানকালে গত দু’দিনে ৪ কাশ্মিরি ভারতীয় সেনাদের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

জাতীয়

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

এবার রাস্তা থেকে কলেজছাত্রীকে তুলে নির্জন চরে নিয়ে রাতভর গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। টাঙ্গাইলের গোপালপুরে কাগুজিআটা গ্রামে এঘটনা ঘটেছে।

জাতীয়

বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা : ২০০ নয়, ১০০ নম্বর

বিভাগীয় শহরে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা : ২০০ নয়, ১০০ নম্বর

অনলাইনে নয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি অনার্স প্রথমবর্ষে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।শিক্ষার্থীদের রেজাল্টের পর ভর্তির তারিখ জানানো হবে। তবে, ডিসেম্বরের

জাতীয়

দশ বছরে ২ বস্তা ও ৪ বালতি কয়েন জমিয়ে বিপদে খাইরুল!

দশ বছরে ২ বস্তা ও ৪ বালতি কয়েন জমিয়ে বিপদে খাইরুল!

মাগুরার মহম্মদপুরের সবজি ব্যবসায়ী খাইরুল ইসলাম খবির। দশ বছর ধরে তিনি ৬০ হাজার টাকার কয়েন জমিয়েছেন। সবজি ক্রেতা ও ভিক্ষুকদের কাছ থেকে পাওয়া ওই কয়েন জমিয়ে এখন ৪ বালতি ও দুই বস্তা হয়েছে। ওই কয়েনের ওজন প্রায় ছয় মণ। কয়েনের মধ্যে রয়েছে চার আনা, আট আনা, এক টাকা, দুই টাকার ধাতব মুদ্রা। এসব কয়েন নিয়ে এখন তিনি বিপাকে পড়েছেন। এত টাকা এখন কোন কাজে আসছে না ওই ব্যবসায়ীর। তার ওই কয়েন কেউ নিচ্ছে না।

লাইফস্টাইল

ডিজিটাল স্ক্রিনে কাজ করার ফলে ঘাড়ে ব্যথা হলে কি করবেন

ডিজিটাল স্ক্রিনে কাজ করার ফলে ঘাড়ে ব্যথা হলে কি করবেন

দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারে কাজ করতে গিয়ে বা মোবাইল কিংবা ল্যাপটপে ভিডিও দেখতে দেখতে অনেকেই ঘাড়ে ব্যথা অনুভব করেন। অনেকেই ঘাড় নাড়াতে চরম কষ্টে ভুগেন। এ সমস্যাকে সাধারণত ‘টেক নেক’ বলা হয়ে থাকে। বাংলায় যাকে বলে- ‘ঘাড়ে ব্যথা’।