• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

ব্রিটিশ রানী ভিক্টোরিয়ার গল্প

ব্রিটিশ রানী ভিক্টোরিয়ার গল্প

ফিচার ডেস্ক০৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:৩০পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

আলেক্সান্দ্রো ভিক্টোরিয়া। ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের অন্যতম সফল শাসকদের একজন। বলা হয়, ব্রিটিশ লোকদের জন্য সবচেয়ে দীর্ঘ সুখ-শান্তি-সমৃদ্ধময় সময় ছিল রানী ভিক্টোরিয়ার যুগ।

রাজা তৃতীয় জর্জ এর চার পুত্র। জর্জের চতুর্থ পুত্র প্রিন্স এডওয়ার্ডের কন্যা হলেন ভিক্টোরিয়া।

১৮১৯ সালে ২৪ মে কিংস্টন প্যালেসে জন্মগ্রহণ করেন আলেক্সান্দ্রো ভিক্টোরিয়া। ১৮২০ সালে তার দাদা রাজা তৃতীয় জর্জ মারা যান। এর ঠিক ৬ দিন পর মারা যান বাবা প্রিন্স এডওয়ার্ড।

অতঃপর গ্রেট বৃটেনের রাজা হন রাজা জর্জের আরেক পুত্র উইলিয়াম চতুর্থ। কিছুদিন পর তিনিও মারা যান। একে একে রাজা জর্জের চার পুত্রের সবাই মারা যান। ভিক্টোরিয়া ছাড়া তাদের কারো কোন সন্তান ছিল না।

তাই ১৮৩৭ সালে গ্রেট বৃটেনের রানী হিসেবে শাসনভার গ্রহণ করেন ভিক্টোরিয়া। তিনি ১৮৩২-১৯০১ পর্যন্ত অত্যন্ত দক্ষতার সাথে ব্রিটিশ সাম্রাজ্য শাসণ করেছেন।

রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের পর তিনিই সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ব্রিটেনের শাসক ছিলেন।

তিনিই প্রথম রানী যিনি ব্রিটিশ রাজ পরিবারের বাসভবন “বাকিংহাম প্যালেস”-এ বসবাস করেছিলেন।

ঊনিশ শতকে ব্রিটেনে জ্ঞান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যাপক উন্নতি ঘটে। এর প্রভাবে ব্রিটেন বিশ্বব্যাপী তাদের সাম্রাজ্য বিস্তার করতে সক্ষম হয়। রানী ভিক্টোরিয়া ব্রিটিশ সাম্রাজ্য বিস্তারে নেতৃত্ব দেন। তাই তাকে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদ এবং অহংকারের প্রতীক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তার সময়ে চীন ও ব্রিটেনের মধ্যে প্রথম আফিমের যুদ্ধ (১৮৩৯-১৮৪২) অনুষ্ঠিত হয়। এ যুদ্ধে পরাজিত হলে চীন ব্রিটেনের কাছে হংকং দ্বীপ লিজ দিতে বাধ্য হয়।

১৮৫৭ সালে ভারতে ঐতিহাসিক সিপাহী বিদ্রোহ হয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি থেকে ভারতের শাসনভার ব্রিটিশ সরকারের হাতে চলে যায়। ১৮৭৭ সালে রানী ভিক্টোরিয়া ব্রিটিশ ভারতের সম্রাজ্ঞীর দায়িত্ব নেন।

তার সময়ে ১৮৫৩ সালে উপমহাদেশে রেল যোগাযোগ চালু করেন লর্ড ডালহৌসি। এছাড়া ১৮৫৭ সালে কাগজের মুদ্রা এবং ১৮৬১ সালে পুলিশ সার্ভিস চালু করেন লর্ড ক্যানিং।

রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে রানী ভিক্টোরিয়া অত্যন্ত রক্ষণশীল ছিলেন। একবার রাজদরবারে এক নারী কর্মচারীকে দেখে গর্ভবর্তী মনে হয়েছিল। রানী সন্দেহ করলেন যে, ওই নারীর কারও সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। তাই তিনি তার কুমারীত্ব পরীক্ষা করতে বললেন। পরীক্ষা করে দেখা গেল নারীর পেটে টিউমার। এক পর্যায়ে ওই নারী মারা যায়। এ ঘটনায় রানী ভিক্টোরিয়ার জনপ্রিয়তা অনেক কমে গিয়েছিল।

লর্ড মেলবোর্ন ওই সময় প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। তার সাথে রানীর গভীর বন্ধুত্ব হয়। লর্ড মেলবোর্ন নিজেও একজন রক্ষণশীল। তাই রানী অধিকাংশ সময় তার পরামর্শেই রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতেন।

স্বামী প্রিন্স আলবার্টের প্রতি অত্যন্ত নিবেদিত ছিলেন রানী ভিক্টোরিয়া। ১৮৬১ সালে মাত্র ৪১ বছর বয়সে আলবার্ট মারা গেলে তিনি ভীষণ মর্মাহত হন। শোকাতুর রানী জনসম্মুখে আসা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। জনগণের কাছ থেকে গোপনতায় তার জনপ্রিয়তা হ্রাস পায়।

তবে তার শাসনের শেষ দিকে বিশ্বব্যাপী ব্রিটিশ সাম্রাজ্য ব্যাপক সম্প্রসারিত হলে তিনি জনপ্রিয়তা ফিরে পান। অত্যন্ত রক্ষণশীল হলেও তার সাহসী মনোভাবের কারণে তিনি ব্রিটিশ জনগণের হৃদয়ে পৌঁছতে সক্ষম হয়েছিলেন।

১৯০১ সালের ২২ জানুয়ারি রানী ভিক্টোরিয়া মারা গেলে ভিক্টোরিয়ান যুগের সমাপ্তি ঘটে। তার সময়ে শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং সামরিক ক্ষেত্রে গ্রেট ব্রিটেন অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করে।

তাই ভিক্টোরিয়ান যুগের অবসান হলে লোকে বুঝতে পারলো ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সূর্য কখনও অস্ত যায় না।

 

ইন্টারনেট অবলম্বনে লিখেছেন এনামুল হক।

 

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই: কাদের

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই: কাদের

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী

গুজবে কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

গুজবে কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

গুজবে কান না দেয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী

৭৪ সালের অস্থিরতার পদধ্বনি দেখতে পাচ্ছি: মওদুদ

৭৪ সালের অস্থিরতার পদধ্বনি দেখতে পাচ্ছি: মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, পেঁয়াজের সমস্যা নিয়ে

পথিকৃৎ

ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বারের গল্প

ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বারের গল্প

বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। আমাদের সুখ, দুঃখ, অনুভূতি প্রকাশের প্রধান মাধ্যম এই বাংলা ভাষা। আজ যেমন করে আমরা বাংলা ভাষায় আমাদের মনের ভাব প্রকাশ করতে পারছি, তা হয়তো সম্ভব হতো না। যদি না বাংলার দামাল ছেলেরা তাদের বুকের তাজা রক্ত ও প্রতিবাদের মাধ্যমে পাকিস্তানি শাসকদের বিরুদ্ধে রুখে না দাঁড়াতো। বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেতে যে কয়জন তাদের বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়েছেন তাদের একজন ভাষা শহীদ আব্দুল জব্বার।

ইতিহাস

চেরোনবিল: পারমাণবিক দুর্ঘটনার ভয়ানক ইতিহাস

চেরোনবিল: পারমাণবিক দুর্ঘটনার ভয়ানক ইতিহাস

প্রযুক্তির উন্নয়ন ও জীবনযাত্রার মান পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে পারমানবিক প্রযুক্তির ব্যবহার দিন দিন বেড়েই চলেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন, মারণাস্ত্র তৈরী, চিকিৎসা প্রভৃতি বহু কাজে রয়েছে এর বিস্তর ব্যবহার। পারমানবিক শক্তি ব্যবহারের জন্য প্রয়োজন হয় পারমানবিক রিয়্যাক্টরের।

লাইফস্টাইল

দেহের নানা উপকারে নারিকেল

দেহের নানা উপকারে নারিকেল

নারিকেল গাছ ‘স্বর্গীয় গাছ’ হিসেবে সবার কাছে সমাদৃত ও সুপরিচিত। এটা এমন এক বৃক্ষ যার প্রতিটি অঙ্গ জনজীবনে কোনো না কোনোভাবে কাজে আসে। এ গাছের পাতা, ফুল, ফল, কাণ্ড, শিকড়, সব কিছুই বিভিন্ন ছোট-বড় শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে।

জাতীয়

তূর্ণা নিশীথার চালকসহ ৩ জন দায়ী: রেলমন্ত্রী

তূর্ণা নিশীথার চালকসহ ৩ জন দায়ী: রেলমন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনায় তূর্ণা নিশীথা এক্সপ্রেস ট্রেনের লোকোমাস্টার তাছের উদ্দিন, সহকারী লোকোমাস্টার অপু দে এবং গার্ড মো. আবদুর রহমানকে দায়ী করেছে রেলওয়ের তিনটি তদন্ত কমিটি। বুধবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এ তথ্য দেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

স্মার্টফোন ভালো রাখার উপায়

স্মার্টফোন ভালো রাখার উপায়

পছন্দের নতুন স্মার্টফোনটি হাতে নিয়ে দেখা সবার কাছেই স্বপ্নের মতন। দাগমুক্ত, চকচকে ডিভাইসটিতে ‘নতুন ফোনের’ গন্ধ থাকে; কিন্তু সময়ের সঙ্গে ফোনটির আকর্ষণ ম্লান হতে শুরু করে এবং এর গতি মন্থর হয়ে যায়।

ভ্রমণ

এই শীতে ঘুরে আসুন চায়ের রাজধানীতে পর্ব-১

এই শীতে ঘুরে আসুন চায়ের রাজধানীতে পর্ব-১

যত দূর চোখ যায় কেবল সবুজের হাতছানি। চা বাগানের সারি সারি টিলা, আঁকাবাঁকা পাহাড়ি পথ আর ঘন সবুজ অরণ্যের অপরূপ সৌন্দর্য যে কাউকে আকৃষ্ট করে। তাই পর্যটকরা বার বার ছুটে যায় চায়ের রাজধানীখ্যাত শ্রীমঙ্গলের চিরসবুজের শোভা আর বৃষ্টিস্নাত পাহাড়ি সৌন্দর্য দেখতে। ৯২টি চা বাগানের সতেজ সবুজ পাতায় পূর্ণ হয়ে আছে মৌলভীবাজার জেলার নিসর্গশোভা। পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে এবং চায়ের রাজধানী হিসেবে মৌলভীবাজার জেলার খ্যাতি সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়েছে। নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক দৃশ্য আর নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি এই মৌলভীবাজারে বেড়াতে যাওয়ার এখনই সময়।