ব্যাটিং-বোলিংয়ে চরম ব্যর্থতা, হারের দ্বারপ্রান্তে বাংলাদেশ

টেস্ট ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ৪১৮ রান তাড়া করে জয়ের বিশ্বরেকর্ড গড়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশের সামনে সে রেকর্ড ভাঙার সুযোগ ছিল কারণ সিলেট টেস্টে শ্রীলঙ্কা যে টাইগারদের ৫১১ রানের লক্ষ্য দিয়েছে। আর এই লক্ষ্য তাড়া করে জয় পাওয়া এক প্রকার অবান্তর স্বপ্ন। তবে জিততে না পারলেও ব্যবধান কমাতে পারতো স্বাগতিকরা।

কিন্তু বাংলাদেশ দলের ব্যাটারদের লড়াই করার যেন সেই মানসিকতাটাই নেই। বাংলাদেশি ব্যাটাররা যেন ভেবেই বসে আছেন, হারবই যখন তাহলে আর খেলে লাভ কী! টেস্টের মতো ফরম্যাটে তারা অনেক বাইরের বল চালিয়ে খেললেন, প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকানোর মতো দুঃসাহস করে উইকেট বিলিয়ে দিতেও দ্বিতীয়বার ভাবলেন না।

দৃষ্টিকটু ব্যাটিংয়ে সিলেট টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে করেছে বাংলাদেশ দল। পড়েছে বড় ব্যবধানে পরাজয়ের শঙ্কায়। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটে ৪৭ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে নাজমুল হোসেন শান্তর দল। জিততে হলে করতে হবে আরও ৪৬৪ রান।

পাহাড় সমান লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নেমে ৯ রানের মধ্যে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার মাহমুদুল হাসান জয় এবং অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। জয়ের আউটটা তবু মানা যায়। বিশ্ব ফার্নান্ডোর বলে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে পড়েছেন এই ওপেনার (০)। রিভিউ নিয়েও কাজ হয়নি।

তবে অধিনায়ক শান্ত যেভাবে আউট হলেন, সেটাকে দায়িত্বজ্ঞানহীনতা বলতে হবে এক কথায়। কাসুন রাজিথার অফস্টাম্পের অনেক বাইরে বলে ড্রাইভ খেলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফিরে আসেন শান্ত (৬)।

অধিনায়কের দেখানো পথ ধরে জাকির হাসান, শাহাদাত হোসেন দিপুরা দ্রুতই ফিরেছেন। জাকির আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলছিলেন, তবে সেই আত্মবিশ্বাসী ইনিংসটা থেমেছে ১৯ রানেই। লাহিরুর কুমারার বলে ব্যাট ছুঁইয়ে উইকেটরক্ষককে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন জাকির।

শাহাদাত হোসেন দিপুও সুইংয়ে বিভ্রান্ত। বিশ্ব ফার্নান্ডের বলে ব্যাট ছুঁইয়ে দিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়েছেন শূন্য করেই। ঠিক পরের বলেই লিটন দাস যেভাবে খেললেন, চোখ কপালে ওঠার মতো।

দলের বিপর্যয়ে হাল ধরবেন কি, ডাউন দ্য উইকেটে ছক্কা হাঁকাতে গিয়েছিলেন লিটন। ফল যা হওয়ার তাই হয়েছে, বল সোজা উঠে যায় আকাশে। সহজ ক্যাচ নেন ম্যাথিউস। গোল্ডেন ডাক লিটনের। ৩৭ রানে ৫ উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে ১১০.৪ ওভারে ৪১৮ রানে অলআউট হয়েছে শ্রীলঙ্কা। একই টেস্টে দুই ইনিংসে জোড়া সেঞ্চুরির রেকর্ড উপহার দিলেন শ্রীলঙ্কার ব্যাটার ধনঞ্জয়া ডি সিলভা এবং কামিন্দু মেন্ডিস। প্রথম ইনিংসেও সেঞ্চুরি করেছিলেন তারা।

Share this news on: