• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬

পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৭০ টাকা

পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৭০ টাকা

ছবি সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:০৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসার পর থেকে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। দুদিনের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে ৭০-৮০ টাকা।

সোমবার রাজধানীর সবচেয়ে বড় পাইকারি আড়ত শ্যামবাজারে পাইকারি দরে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকা। দুদিন আগেও এর দাম ছিল ২১০-২৩০ টাকা। নতুন দেশি পেঁয়াজ (ঈশ্বরদীর) ১১০-১২০ টাকা এবং আমদানি করা চায়না পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০০-১১০ টাকা।

শ্যামবাজার পেঁয়াজ ব্যবসায়ীদের নেতা মো. সামসুর রহমান জানান, দেশি নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসছে ইতোমধ্যে ঈশ্বরদীর পেঁয়াজ বাজারে উঠেছে। এছাড়া সরকারি উদ্যোগে বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হচ্ছে। এসব পেঁয়াজ দেশে এলে দাম স্বাভাবিক হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

তবে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে দাম কমেনি পেঁয়াজের। এখানে পাইকারি দরে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি করা হচ্ছে ২০০ টাকা করে। বেশি দামে পেঁয়াজ কেনা হয়েছে বলে দাম কমানো হয়নি বলে জানিয়েছেন কারওয়ানবাজারের পেঁয়াজের পাইকার আশরাফ।

কারওয়ানবাজারের মতো খুচরা বাজারেও কমেনি পেঁয়াজের দাম। মতিঝিল, খিলগাঁও, মুগদা, সেগুনবাগিচা, ধানমন্ডি এলাকার বাজারগুলোতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০-২২০ টাকা। আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৬০-১৮০ টাকা এবং নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকা।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর হঠাৎ করেই ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করলে পেঁয়াজের দাম হুরহুর করে বাড়তে থাকে। সর্বোচ্চ ২৫০ টাকা ধরে রাজধানীর খুচরা বাজারগুলোতে পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা যায়। এমন পরিস্থিতিতে অনেক জায়গায় হালি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে দেখা যায়।

 

টাইমস/এএইচ/এইচইউ

করোনা: ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১১২, একজনের মৃত্যু

করোনা: ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১১২, একজনের মৃত্যু

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন আরও

প্রস্তুত ফাঁসির মঞ্চ, যেকোনো সময় কার্যকর মাজেদের ফাঁসি

প্রস্তুত ফাঁসির মঞ্চ, যেকোনো সময় কার্যকর মাজেদের ফাঁসি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা মামলার ফাঁসির

কমলো ব্যাংকের লেনদেন সময়

কমলো ব্যাংকের লেনদেন সময়

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান সাধারণ ছুটির সময় দেশের তফসিলি

জাতীয়

চট্টগ্রামে ব্যাংক এশিয়ার শাখা লকডাউন: কোয়ারেন্টাইনে ১৫ জন

চট্টগ্রামে ব্যাংক এশিয়ার শাখা লকডাউন: কোয়ারেন্টাইনে ১৫ জন

চট্টগ্রাম নগরের হালিশহরে শনাক্ত হওয়া এক করোনা রোগী যাতায়াত করায় ব্যাংক এশিয়ার আন্দরকিল্লা শাখা লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। ওই শাখার ১৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

জাতীয়

করোনায় আক্রান্ত হাতিয়ার এক চিকিৎসক

করোনায় আক্রান্ত হাতিয়ার এক চিকিৎসক

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক চিকিৎসক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: নাজিম উদ্দিন।

আন্তর্জাতিক

করোনায় বেসামাল সৌদি রাজপরিবার : আক্রান্ত ১৫০

করোনায় বেসামাল সৌদি রাজপরিবার : আক্রান্ত ১৫০

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের হানা যেন থামছে না। হর হামেশাই মৃত্যুর মিছিলে যুক্ত হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ। এই ভাইরাসের কারণে দিশেহারা বিশ্বের বাঘা বাঘা রাষ্ট্র নায়করা। অন্যান্য দেশের মতো করোনার বিষাক্ত ছোবল পড়েছে সৌদি আরবেও। এর মধ্যেই দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। করোনার এই থাবায় বেসামাল হয়ে পড়েছে সৌদি রাজপরিবার। ওই পরিবারের দেড়শ সদস্যের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। পারিবারিক সূত্রের বরাতে এ খবর দিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস।

জাতীয়

নারায়ণগঞ্জের ডিসির করোনা শনাক্ত হয়নি

নারায়ণগঞ্জের ডিসির করোনা শনাক্ত হয়নি

নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিনের করোনাভাইরাস আক্রান্ত হননি। করোনা সন্দেহে তার নমুনা পরীক্ষার পর রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

জাতীয়

করোনায় দাদির মৃত্যু: কুমিল্লায় দুই শিশুও আক্রান্ত

করোনায় দাদির মৃত্যু: কুমিল্লায় দুই শিশুও আক্রান্ত

করোনায় ঢাকায় দাদির মৃত্যুর পর কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় এসে দুই শিশুও করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। তাদের একজনের বয়স সাত বছর ও অন্যজনের বয়স পাঁচ।

স্বাস্থ্য

করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে যাদের ভেন্টিলেটর প্রয়োজন

করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে যাদের ভেন্টিলেটর প্রয়োজন

বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। প্রতিদিন মানুষের মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। রাশ টানা যাচ্ছে না এ মহামারির। সাধারণত শুষ্ক কাশি ও জ্বরের মাধ্যমেই শুরু হয় করোনাভাইরাসের উপসর্গ, পরে শ্বাস প্রশ্বাসে সমস্যা দেখা দেয়। এই ভাইরাস জনিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্তদের ভেন্টিলেটরের (কৃত্রিমভাবে স্বাস্থ্য প্রশ্বাস নেয়ার যন্ত্র) মাধ্যমে চিকিৎসা দেয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা। চিকিৎসকদের মতে, যেসব রোগীর শ্বাস-প্রশ্বাসে সমস্যা হয়, গলাব্যথা, নিউনোমিয়ার প্রকোপ বেড়ে যায়, রোগীর জীবন যখন সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে, তখন তার জন্য ভেন্টিলেটর ব্যবহার করা জরুরি।