• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

জইশ-ই-মোহাম্মদ প্রধানকে মুক্তি দিয়েছিল বিজেপি: রাহুল গান্ধী

জইশ-ই-মোহাম্মদ প্রধানকে মুক্তি দিয়েছিল বিজেপি: রাহুল গান্ধী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক০৯ মার্চ ২০১৯, ০৭:১৪পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

পাকিস্তানভিত্তিক জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধান মাওলানা মাসুদ আজহারকে কে মুক্তি দিয়েছিল তা জাতিকে জানাতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আহ্বান জানিয়েছেন কংগ্রেস প্রধান রাহুল গান্ধী।

তিনি বলেন, ১৯৯৯ সালে ভারতের জেল থেকে মাসুদকে তৎকালীন বিজেপি সরকার মুক্তি দিয়েছিল। আফগানিস্তানের কান্দাহার দিয়ে তাকে পাকিস্তান পাঠানো হয়েছিল।

শনিবার উত্তর কর্ণাটক রাজ্যের হাভেরিতে এক শোভাযাত্রায় এসব কথা বলেন কংগ্রেস প্রধান।

রাহুল গান্ধী বলেন, ‘মোদি আমাকে অবগত করুক কে মাসুদ আজহারকে ভারতের কারাগার থেকে পাকিস্তান পাঠিয়েছিল।’

সম্প্রতি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর ৪৪ জওয়ান নিহতের ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে জইশ-ই-মোহাম্মদ।

কংগ্রেস প্রধান বলেন, ‘মোদি জি’র কাছে আমার একটা ছোট্ট প্রশ্ন-সিআরপিএফ জওয়ানদের কারা হত্যা করেছে? জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধানের নাম কি? তার নাম মাসুদ আজহার।’

‘১৯৯৯ সালে বিজেপি সরকার ভারতের জেল থেকে আফগানিস্তানের কান্দাহার দিয়ে পাকিস্তানে পাঠিয়েছিল’, যোগ করেন তিনি।

মোদিকে উদ্দেশ্য করে রাহুল গান্ধী আরও বলেন, ‘আপনি কেন এ বিষয়ে কথা বলছেন না। আপনি কেন বলছেন না যে, সিআরপিএফ জওয়ানদের যিনি হত্যা করেছেন বিজেপি সরকারই তাকে পাকিস্তান পাঠিয়েছিল...মোদি জি, আমরা আপনাকে পছন্দ করি না। আমরা সন্ত্রাসীদের সামনে মাথা নত করব না। ভারতবাসীকে স্পষ্ট করুন- কে মাসুদ আজহারকে পাঠিয়েছে।’

১৯৯৯ সালে বিজেপি প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর শাসনকালে ছিনতাই হওয়া ইন্ডিয়া এয়ারলাইন্স বিমানের যাত্রীদের বিনিময়ে মাসুদ আজহারকে মুক্তি দেয়া হয়েছিল।

 

টাইমস/জেডটি

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে একদিনে রেকর্ড

এবার না ফেরার দেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র

এবার না ফেরার দেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র

এবার না ফেরার দেশে চলে গেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র

ফ্লেক্সিলোড দোকানির সোনালী ব্যাংক অফিসার হয়ে উঠার গল্প

ফ্লেক্সিলোড দোকানির সোনালী ব্যাংক অফিসার হয়ে উঠার গল্প

অভাবের সংসারে থেকেও অদম্য স্পৃহা নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। বাবা চাকরি

জাতীয়

এবার করোনায় ‘গরীবের বন্ধু’ সেই বিসিএস ক্যাডারের মৃত্যু

এবার করোনায় ‘গরীবের বন্ধু’ সেই বিসিএস ক্যাডারের মৃত্যু

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন গরীবের বন্ধু হিসেবে খ্যাত বিসিএস ক্যাডার খাদ্য কর্মকর্তা উৎপল সাহা (উৎপল হাসান)। তিনি

জাতীয়

এসএসসিতে ১৩শ' নম্বরের মধ্যে ১২৭৪ পেয়ে সেরা নাফিস

এসএসসিতে ১৩শ' নম্বরের মধ্যে ১২৭৪ পেয়ে সেরা নাফিস

এসএসসি পরীক্ষায় রাজশাহী বোর্ডে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে প্রথম হয়েছেন নাফিস উদ্দীন ফুয়াদ। তিনি মোট ১৩০০ নম্বরের পরীক্ষায়

জাতীয়

মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচ আবারও বাড়ছে

মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচ আবারও বাড়ছে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশের অর্থনৈতিক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগামী অর্থবছরে দেশের টেলিকম খাত থেকে রাজস্ব বৃদ্ধির পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের একাধিক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

রাজনীতি

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার: রিজভী

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার: রিজভী

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে রিজভী বলেন, শর্তসাপেক্ষে গণপরিবহন চালুর কথা থাকলেও সরকার সেটি কোনোভাবেই সেটি বাস্তবায়ন করতে পারেনি। গণপরিবহন চালুর প্রথমদিন থেকেই চরম ভাবে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করা হচ্ছে। যা বিভিন্ন গণমাধ্যম মারফত দেশবাসী প্রত্যক্ষ করেছে।

জাতীয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনায় প্রথম একজনের মৃত্যু

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনায় প্রথম একজনের মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রথমবারের মতো এক বৃদ্ধের (৭১) মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তিনি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা।

স্বাস্থ্য

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

ইন্টারনেটে যেকোনো তথ্য কিংবা ভিডিও জনপ্রিয় হওয়ার পেছনে রহস্যময় কোনো না কোনো কারণ থাকতে পারে, কিন্তু সঠিক তথ্য প্রদানের সাথে এর কোনো যোগসূত্র নেই বলে মনে করছেন গবেষকরা। বিএমজে গ্লোবাল হেলথ কর্তৃক সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, সার্স-কোভ-২ নিয়ে আলোচনা করা সর্বাধিক দেখা প্রতি চারটি ইউটিউব ভিডিওর মধ্যে একটিতে বিভ্রান্তিমূলক বা ভুল তথ্য রয়েছে।