• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ০২ জুলাই ২০২০, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭

শ্রীলঙ্কায় যুদ্ধকবলিত এলাকা  থেকে ২৩০টি কঙ্কাল উদ্ধার

শ্রীলঙ্কায় যুদ্ধকবলিত এলাকা  থেকে ২৩০টি কঙ্কাল উদ্ধার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক২২ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১৭পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কায় যুদ্ধকবলিত  পুরোনো এলাকার একটি গণকবর থেকে ২৩০টির বেশি কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়েছে।

চলতি বছরের আগস্ট মাসে গণকবরটি থেকে ৯০টি কঙ্কাল উদ্ধার করার পর থেকে এখন পর্যন্ত ২৩০টিরও বেশি কঙ্কাল উদ্ধার করা হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের শুরুতে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় মানার শহরে ওই গণকবরটির সন্ধান পাওয়া যায়। যা এখন পর্যন্ত সন্ধান পাওয়া গণকবরে মধ্যে সবচেয়ে বড়।

শ্রীলঙ্কায় সেনাবাহিনীর সঙ্গে বিদ্রোহী তামিল গেরিলাদের দীর্ঘ ২৬ বছর ধরে গৃহযুদ্ধ চলে। ওই যুদ্ধে এক লাখের বেশি মানুষ নিহত হন। নিখোঁজ রয়েছেন অন্তত ২০ হাজার মানুষ । ২০০৯ সালে গৃহযুদ্ধের অবসানের পর যুদ্ধাঞ্চলে খুঁজে পাওয়া এটি প্রথম বৃহৎ গণকবর।

কলম্বোর কাছাকাছি কেলানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরেনসিক প্রত্নতত্ত্ববিদ অধ্যাপক রাজ সমাদেভা বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত ২৩০টির বেশি কঙ্কাল উদ্ধার করেছি। তিনি এই উদ্ধারকাজের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি বলেন, আমার এ যাবৎকালের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী এটাই সবচেয়ে বড় গণকবর।

তবে গণকবরে পাওয়া দেহাবশেষের পরিচয় এখন পর্যন্ত সনাক্ত করা যায়নি। জানা যায়নি কিভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

এ বছরের শুরুর দিকে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য ওই স্থানে খোঁড়াখুঁড়ি শুরু হলে শ্রমিকরা প্রথম কঙ্কালগুলো দেখতে পান। পরে শ্রীলঙ্কার একটি আদালত রাসায়নিক বিশেষজ্ঞদের গণকবরটি খুঁড়ে দেখার নির্দেশ দিলে গণকবরটি খোঁড়াখুঁড়ি ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শুরু হয়।

মানার শহরের জাতিগত সংখ্যালঘু তামিল সম্প্রদায় এবং কমিউনিটির নেতারা জানিয়েছেন, দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী এবং তামিল টাইগার বিদ্রোহীদের মধ্যে কয়েক দশক ধরে চলা সংঘর্ষের ঘটনায় শত শত মানুষ নিখোঁজ হয়েছিলেন।

মানুষের দেহের বিভিন্ন অংশ ছাড়াও প্রত্নতত্ত্ববিদরা সেখান থেকে চিনামাটির বাসন, সিরামিক এবং ধাতব বস্তু উদ্ধার করেছেন। এছাড়া অনেক মৃতদেহের শরীরে অলঙ্কারও পরা ছিল।

সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে আক্রান্ত ছাড়াল দেড় লাখ

সর্বোচ্চ শনাক্তের দিনে আক্রান্ত ছাড়াল দেড় লাখ

দেশে প্রতিদিনই বেড়ে চলছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। দেশে

‘হীনমন্যতায় প্রতি রাতেই কেঁদেছি, অবশেষে পররাষ্ট্র ক্যাডার’

‘হীনমন্যতায় প্রতি রাতেই কেঁদেছি, অবশেষে পররাষ্ট্র ক্যাডার’

আমি সফল কেউ নই। অন্তত এখনো নই। তাই সফলতার গাঁথা

স্ত্রীর অনুপ্রেরণায় ৩৭তম বিসিএসে শিক্ষা, এবার প্রশাসন ক্যাডার

স্ত্রীর অনুপ্রেরণায় ৩৭তম বিসিএসে শিক্ষা, এবার প্রশাসন ক্যাডার

হুছাইন মুহাম্মদ। ৩৮ তম বিসিএসে প্রশাসন ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন। মেধাক্রম

চাকরি

উপহাস জয় করে কোচিং ছাড়াই বিসিএস ক্যাডার ইডেন ছাত্রী!

উপহাস জয় করে কোচিং ছাড়াই বিসিএস ক্যাডার ইডেন ছাত্রী!

তৃপ্তি অনার্স পাস করেছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে। এজন্য তাকে অবজ্ঞা ও উপহাস করা হত। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে কিছুই করা যায় না।

চাকরি

৩৮তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে ১৭তম বুয়েটের সনদ বড়ুয়া

৩৮তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে ১৭তম বুয়েটের সনদ বড়ুয়া

চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল থেকে এসএসসি পাস করার পর ভর্তি হন চট্টগ্রাম কলজে। সেখানেও কৃতিত্বের সঙ্গে এইচএসসি পাস করেন তিনি।

স্বাস্থ্য

এবার করোনায় হলি ফ্যামিলি মেডিকেল চিকিৎসকের মৃত্যু

এবার করোনায় হলি ফ্যামিলি মেডিকেল চিকিৎসকের মৃত্যু

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি হলেন হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের

চাকরি

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই এএসপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী!

সংসার সামলে প্রথম বিসিএসেই এএসপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী!

নুসরাত ইয়াছমিন তিসা। পড়াশোনা করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে। দ্বিতীয় বর্ষেই তাকে বিয়ে দিয়ে দেয়া হয়।

চাকরি

শাবিতে পড়াশোনা, একসঙ্গে বিসিএস ক্যাডার হওয়ার গল্প দুই বোনের

শাবিতে পড়াশোনা, একসঙ্গে বিসিএস ক্যাডার হওয়ার গল্প দুই বোনের

ফাতেমাতুজ জুহরা চাঁদনী ও সাদিয়া আফরিন তারিন পড়াশোনা করেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। ৩৮তম বিসিএসে তারা দুই বোনই

স্বাস্থ্য

স্ট্রেস আমাদের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে পারে

স্ট্রেস আমাদের দেহের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে পারে

স্ট্রেস মানব জীবনের অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ক্যারিয়ার বা কাজের চাপ থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত-সামাজিক ইস্যু, হালের মহামারীসহ একাধিক কারণে স্ট্রেস বা মানসিক চাপ সৃষ্টি হতে পারে। স্ট্রেস বা মানসিক চাপ নানাভাবে আমাদের দেহের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। তবে, অনেকে স্ট্রেসের নেতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে সচেতন নয়, ফলে সময়মতো প্রতিকার বা চিকিৎসা গ্রহণ করেন না।