• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬

আবরার হত্যায় ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহা গ্রেপ্তার

আবরার হত্যায় ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক১০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৩৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা অমিত সাহাকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার সবুজবাগ থেকে তাকে আটক করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম।

অমিত সাহা বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৬তম ব্যাচের ছাত্র। তিনি বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের আইনবিষয়ক উপসম্পাদক। এ নিয়ে আবরার হত্যার ঘটনায় ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

ডিবির যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম জানান, রাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন রাজারবাগ কালীবাড়ি এলাকায় এক আত্মীয়ের বাসা থেকে অমিত সাহাকে আটক করা হয়েছে। তাকে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফাহাদ হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে আদালতে পাঠানো হবে।

ফাহাদকে যে কক্ষে নিয়ে পেটানো হয় সেই ২০১১ কক্ষের বাসিন্দা অমিত সাহা। আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর বুয়েট ক্যাম্পাসে আলোচনার শীর্ষে আছেন অমিত সাহা। সব ছাত্রছাত্রীর মুখে তার নাম। আবরার হত্যাকান্ডের পর থেকেই পলাতক ছিলেন তিনি। যদিও আবরার হত্যায় করা মামলার ১৯ জনের মধ্যে অমিতের নাম ছিলনা।

হত্যাকাণ্ডের আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৭ ব্যাচের (ফাহাদের সহপাঠী) এক শিক্ষার্থীকে অমিত সাহা মেসেঞ্জারে জিজ্ঞেস করেন, আবরার ফাহাদ কি হলে আছে?

এ ধরনের একটি স্ক্রিনশট সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ১৭ ব্যাচের ওই শিক্ষার্থী নিজের পরিচয় প্রকাশ করতে না চাওয়ায় তারই এক সিনিয়র এ বিষয়টি ফেসবুকে প্রকাশ করেন।

মেসেজের এক ঘণ্টার মধ্যেই শের-ই বাংলা হলের ছাত্রলীগ নেতারা আবরারকে ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যায়। ২০১১ নম্বর কক্ষে এনে তাকে লাঠি, চাপাতি ও স্ট্যাম্প দিয়ে পেটায়।

সূত্র বলছে, ৬ আগস্ট রাতে অমিত সাহার রুমে প্রথম দফায় মারধরের নেতৃত্ব দেন ছাত্রলীগ বুয়েট শাখার সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল। তার সঙ্গে মারধর শুরু করেন বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন ও উপসমাজ সেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল।

পরে যোগ দেন অনিক, জিওন, মনির এবং মোজাহিদুলসহ অন্যরা। প্রথম দফায় মারধর চলে রাত ১১টা পর্যন্ত। এরপর রাতের খাবার খাওয়ানো হয় আবরারকে। খাওয়ানো হয় ব্যথানাশক ট্যাবলেটও। দেয়া হয় মলম। দ্বিতীয় দফা মারধর শুরুর সময় অনিক ছিলেন সবচেয়ে মারমুখী।

আবরার এ সময় বারবার বমি করছিলেন। একপর্যায়ে তাকে টেনে নিয়ে যাওয়া হয় মুন্নার কক্ষে। সেখানে আবরারের শরীরের ওপর অনিক ক্রিকেট স্ট্যাম্প ভাঙেন। পরে আরেকটি স্ট্যাম্প দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয়। তৃতীয় দফার মারধর শুরু হয় মুন্নার কক্ষে। তখন মধ্যরাত।

নির্মম পিটুনিতে আবরার লুটিয়ে পড়েন। এরপর নিথর দেহ টেনে-হিঁচড়ে নিচে নামানোর চেষ্টা করেন ঘাতকরা। মাঝ সিঁড়িতে যেতেই তারা বুঝতে পারেন আবরার মারা গেছেন। সিঁড়িতেই মরদেহটি রেখে তখন ওই স্থান ত্যাগ করেন তারা।

ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, যারা নির্বিঘ্নে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেছে তারাই রাতে দীর্ঘ একটি সময় কাটিয়েছেন হল প্রভোস্ট জাফর ইকবাল খান ও বুয়েট ছাত্রকল্যাণ পরিচালক মিজানুর রহমানের সঙ্গে। ঘটনার পর তারা বেরিয়ে হলের গেটেই অবস্থান করেন।

সকালের দিকে হল সরগরম হয়ে উঠলে শুরু হয় ঘাতকদের ছোটাছুটি। সবচেয়ে বেশি মারধর করা অনিক ওরফে মাতাল অনিক দৌড়ে চলে যান তার রুমের দিকে। পরে ডাকা হয় ডাক্তার। সাদা পাঞ্জাবি-পায়জামা পরা ওই ডাক্তার আবরারকে দেখে মৃত ঘোষণা করেন।

এর ২ মিনিট পর খুনিরা একটি স্ট্রেচারের ব্যবস্থা করেন। স্ট্রেচারটি সিঁড়ির মুখে বারান্দায় রাখা হয়। এর ২০ মিনিট পর লাশের কাছে আসেন প্রভোস্ট জাফর ইকবাল খান এবং ছাত্রকল্যাণ পরিচালক মিজানুর রহমান।

পরে প্রভোস্ট এবং ছাত্রকল্যাণ পরিচালককে খুনিরা নিজেদের মতো করে ঘটনার বর্ণনা দিতে থাকেন। চশমা পরা রাসেল এবং সবচেয়ে বেশি মারধর করা অনিককে প্রভোস্টের সঙ্গে দীর্ঘ সময় কথা বলতে দেখা যায়।

আবরার হত্যা: আরও তিন আসামির রিমান্ড

 

টাইমস/এইচইউ

বান্দরবানে ইউপি নির্বাচনে বিজিবির গুলিতে নিহত ২

বান্দরবানে ইউপি নির্বাচনে বিজিবির গুলিতে নিহত ২

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, ফাত্রাঝিরি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়...

দ্রুত সময়ের মধ্যে আবরার হত্যার বিচার, মা-বাবাকে প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস

দ্রুত সময়ের মধ্যে আবরার হত্যার বিচার, মা-বাবাকে প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাস

এর আগে বিকেলে ৫ টার দিকে গণভবনে আবরার ফাহাদের বাবা...

দিরাইয়ের শিশু হত্যা: স্বজনদের সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশ

দিরাইয়ের শিশু হত্যা: স্বজনদের সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশ

পুলিশ সুপার জানান, ‘তুহিন হত্যাকাণ্ডে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার বাবা...

আন্তর্জাতিক

জেরুজালেমের গভর্নরকে তুলে নিয়ে গেছে ইসরায়েল

জেরুজালেমের গভর্নরকে তুলে নিয়ে গেছে ইসরায়েল

পবিত্রভূমি জেরুজালেমের গভর্নর আদনান গাইথকে তুলে নিয়ে গেছে ইহুদিবাদী ইসরায়েলের পুলিশ বাহিনী। সোমবার ভোরে অভিযান চালিয়ে তাকে আটকের পর তাকে নিয়ে যাওয়া হয়। প্যালেস্টাইন প্রিজনার্স সোসাইটি এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছ। তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদলু এজেন্সির খবরে বলা হয়, জেরুজালেমের সিলওয়ান এলাকার নিজ বাড়ি থেকে গভর্নর আদনান গাইথকে আটক করা হয়। এসময় ইসরায়েলের পুলিশ তার বাড়ি ও আশপাশের সড়কগুলো নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয়। 

জাতীয়

‘শিবির’ সন্দেহেই আবরার হত্যা:মনিরুল

‘শিবির’ সন্দেহেই আবরার হত্যা:মনিরুল

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আবরার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ১৯ আসামির মধ্যে চারজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আসামিদের জবানবন্দিতে বলা হয়, মূলত শিবির সন্দেহেই আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আসামিদের জবানবন্দিতে হত্যার কারণ হিসেবে এমনটাই উঠে এসেছে’

জাতীয়

দুদক প্রধানের পদত্যাগ চাইলেন সাংসদ তাপস

দুদক প্রধানের পদত্যাগ চাইলেন সাংসদ তাপস

শেখ পরিবারের সদস্য এই সংসদ সদস্য বলেন, বেসিক ব্যাংক কেলেঙ্কারির ঘটনার মামলায় বাচ্চুকে আসামি করে চার্জশিট দিতে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের নির্দেশনা ছিল। কিন্তু দুদক সে নির্দেশনা মানেনি। কী কারণে দুদক এ রকম কাজ করেছে, এটি জাতি জানতে চায়।

জাতীয়

প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় কিশোরীকে কুপিয়ে জখম

প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় কিশোরীকে কুপিয়ে জখম

সোমবার মেয়েটি স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিল। পথে বিলাশখান এলাকায় রিফাত তার পথরোধ করে। একপর্যায়ে রিফাত ওই ছাত্রীকে মারধর শুরু করে। এক পর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। পরে গ্রামবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। ভুক্তভোগী মেয়েটির মা বলেন, ‘মেয়েকে বিয়ে করার জন্য রিফাত দীর্ঘদিন থেকে উত্ত্যক্ত করছিল। মাঝে কিছুদিন মেয়ের পড়ালেখাও বন্ধ রেখেছিলাম। বিষয়টি রিফাতের পরিবারকে জানানো হলেও তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি’। 

আন্তর্জাতিক

অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন এক ভারতীয়সহ তিনজন

অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন এক ভারতীয়সহ তিনজন

বৈশ্বিক দারিদ্র্য লাঘবে অবদান রাখায় চলতি বছর অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন এক ভারতীয়সহ তিন অর্থনীতিবিদ। তারা হলেন- অভিজিৎ ব্যানার্জি, এস্তার ডুফলো ও মাইকেল ক্রেমার।

স্বাস্থ্য

কাজে মানসিক চাপ সামলাবেন যেভাবে

কাজে মানসিক চাপ সামলাবেন যেভাবে

শারীরিক সমস্যা নিয়ে আমরা সবাই কম বেশি সচেতন। শরীরকে সুস্থ রাখার জন্য আপ্রান কত চেষ্টাই না করি। কিন্তু শরীরের পাশাপাশি মনের সুস্থতাও যে জরুরী, সে খেয়াল রাখি ক’জনে?