• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

এবার হত্যার পর ধর্ষণ!

এবার হত্যার পর ধর্ষণ!

কান্ট্রি ডেস্ক১২ জুন ২০১৯, ০৮:৪৮পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

নরসিংদীর শিবপুরে নিখোঁজের দুই দিন পর সাবিনা আক্তার (২১) নামের এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ঘটনায় সাইফুল ইসলাম (২৮) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১।

র‌্যাব জানিয়েছে, ধর্ষণে বাধা দেওয়ায় পরনের শার্ট খুলে তা দিয়ে সাবিনাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর সাইফুল তাকে ধর্ষণ করেন।

বুধবার দুপুরে নরসিংদী প্রেসক্লাবে র‌্যাব-১১-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল কাজী শামসের উদ্দিন সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মঙ্গলবার রাতে শিবপুরের কলেজ গেট এলাকা থেকে সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে সাইফুলের দেওয়া তথ্য মতে তার বাড়ির একটি নর্দমা থেকে সাবিনার ভ্যানিটি ব্যাগ, বাথরুমের ভেতর থেকে সাবিনার মুঠোফোন ও শ্বাসরোধে হত্যায় ব্যবহৃত শার্টটি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তার সাইফুলের বাড়ি শিবপুর উপজেলার দুলালপুরের খালপাড় গ্রামে। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর শাহিনুর বেগম নামের এক নারীকে বিয়ে করেন সাইফুল। ৫ বছর ও ১০ মাস বয়সী দুই সন্তান আছে তার।

অন্যদিকে নিহত সাবিনা একই উপজেলার মাছিমপুর মধ্যপাড়া গ্রামের আফিয়া আক্তারের মেয়ে। মা-মেয়ে একটি বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সাবিনার মুঠোফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে সাইফুল ইসলামকে চিহ্নিত করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিন মাস আগে সাইফুলের সঙ্গে পরিচয় হয় সাবিনার। সাইফুল তার দ্বিতীয় স্ত্রী ও সন্তানদের তথ্য গোপন করে সাবিনার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন।

এর সূত্র ধরে সাবিনাকে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরতে নিয়ে গিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্কের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন সাইফুল। সাইফুল গত বৃহস্পতিবার বিকেলে মুঠোফোনে সাবিনাকে বিয়ের কথা বলে বাড়ি থেকে বের করে নেন।

র‌্যাব বলছে, গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল জানিয়েছেন যে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তিনি ও সাবিনা বিয়ে করার জন্য ৬ জুন বিকেলে একত্রিত হন। পরে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে সাইফুলের এক চাচাতো বোনের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন তারা।

পথে রাত নয়টার দিকে অটোরিকশা থেকে নেমে নির্জন স্থানে নিয়ে সাইফুল সাবিনার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক করতে চান। এতে বাধা দিলে সাবিনাকে জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা করেন সাইফুল।

ওই সময় সাবিনা চিৎকার করতে থাকলে সাইফুল তার পরনের শার্ট খুলে তা গলায় পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। পরে মৃত সাবিনাকে ধর্ষণ করে ফেলে যান তিনি।

সাবিনার ব্যবহৃত মুঠোফোন ও ভ্যানিটি ব্যাগ নিজ বাড়িতে নিয়ে লুকিয়ে ফেলেন। এরপর থেকে তিনি আত্মগোপনে ছিলেন।

নিহত সাবিনার মা আফিয়া আক্তারের ভাষ্য, ৬ জুন বিকেলে এক বান্ধবীর বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল সাবিনা। ওই বান্ধবীর বাড়িসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও মেয়েকে পাওয়া যায়নি। দুই দিন পর নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে মেয়ের লাশ শনাক্ত করা হয়। পরের দিন তিনি বাদী হয়ে শিবপুর থানায় মামলা করেন। তিনি মেয়ে হত্যার সর্বোচ্চ বিচার দাবি করেন।

 

টাইমস/জেডটি

সড়ক আইন নিয়ে শ্রমিকদের সুপারিশ মন্ত্রণালয়ে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সড়ক আইন নিয়ে শ্রমিকদের সুপারিশ মন্ত্রণালয়ে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নতুন সড়ক পরিবহন আইন নিয়ে শ্রমিকদের সুপারিশ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই: কাদের

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই: কাদের

পরিবহন ধর্মঘট আর নেই উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় শিশুদের বহিষ্কার কেন অবৈধ হবে না: হাইকোর্ট

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় শিশুদের বহিষ্কার কেন অবৈধ হবে না: হাইকোর্ট

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষায় শিশুদের বহিষ্কার করা কেন অবৈধ

জাতীয়

গুজবে কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

গুজবে কান দেবেন না: প্রধানমন্ত্রী

গুজবে কান না দেয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহবান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মাঝে মাঝে আমরা দেখি, অপপ্রচার চালিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হয়। আমি সবাইকে একটা কথা বলবো, এই অপপ্রচারে কান দেবেন না।’ বৃহস্পতিবার ঢাকা সেনানিবাসের আর্মি মাল্টিপারপাস হলে অনুষ্ঠিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধে বীরশ্রেষ্ঠ পরিবারের সদস্য এবং সশস্ত্র বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০১৯ উপলক্ষ্যে এই সংবর্ধনার আয়োজন করেন প্রধানমন্ত্রী।

আন্তর্জাতিক

রোহিঙ্গা গণহত্যা: বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন সু চি

রোহিঙ্গা গণহত্যা: বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন সু চি

নেদারল্যান্ডসের হেগে অবস্থিত আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি। রোহিঙ্গা গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার করা মামলার শুনানিতে অংশ নিতেই সেখানে যাচ্ছেন তিনি। এ মামলায় মিয়ানমারের পক্ষে আইনি লড়াইয়ের জন্য টিম গঠিত হয়েছে। সেই টিমের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন অং সান সু চি।

রাজনীতি

৭৪ সালের অস্থিরতার পদধ্বনি দেখতে পাচ্ছি: মওদুদ

৭৪ সালের অস্থিরতার পদধ্বনি দেখতে পাচ্ছি: মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ বলেছেন, পেঁয়াজের সমস্যা নিয়ে আজকে বাংলাদেশের মানুষ ক্ষুব্ধ। একটা সরকার যে একটি সামান্য পণ্যের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে পারে না সেই সরকারের মনে হয় আর ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার থাকে না। পেঁয়াজের পরে আসলো লবণ, এখন চালের দাম একদিনে পাঁচ টাকা বেড়েছে। তিনি আরও বলেন, ‘১৯৭৪ সাল এখনও আমার চোখের সামনে ভাসছে। চুয়াত্তর সালের যে ঘটনা বাংলাদেশে, যে অর্থনৈতিক, সামাজিক অবস্থা বিরাজ করছিল, যে অস্থিরতা বিরাজ করছিল, আজকে সেই একই পদধ্বনি আমি দেখতে পাচ্ছি।’

জাতীয়

ছেলের চাকরি ফেরতের দাবিতে রংপুরে অনশনে মুক্তিযোদ্ধা বাবা

ছেলের চাকরি ফেরতের দাবিতে রংপুরে অনশনে মুক্তিযোদ্ধা বাবা

রংপুরে ছেলের চাকরি ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে সপরিবারে অনশন করছেন মুক্তিযোদ্ধা রঙ্গলাল মহন্ত। বৃহস্পতিবার টানা তৃতীয় দিনের মতো অনশনে অসুস্থ হয়ে পড়েন এই মুক্তিযোদ্ধা বাবা।

জাতীয়

যশোরে দুই ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ দিতে চাওয়ায় ৫ জনের কারাদণ্ড

যশোরে দুই ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ দিতে চাওয়ায় ৫ জনের কারাদণ্ড

দুই ছাত্রীকে বাল্যবিবাহ দেয়ার সময় পাঁচজনকে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার রাতে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলায় শালবরাট ও ঠাকুরকাঠি গ্রামে অভিযান চালিয়ে দুই ছাত্রীর বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হয়। বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও নির্বাহী হাকিম তানিয়া আফরোজ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

লাইফস্টাইল

দেহের নানা উপকারে নারিকেল

দেহের নানা উপকারে নারিকেল

নারিকেল গাছ ‘স্বর্গীয় গাছ’ হিসেবে সবার কাছে সমাদৃত ও সুপরিচিত। এটা এমন এক বৃক্ষ যার প্রতিটি অঙ্গ জনজীবনে কোনো না কোনোভাবে কাজে আসে। এ গাছের পাতা, ফুল, ফল, কাণ্ড, শিকড়, সব কিছুই বিভিন্ন ছোট-বড় শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার হয়ে থাকে।