• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

সজনে পাতার জাদুকরী কিছু গুণ

সজনে পাতার জাদুকরী কিছু গুণ

ফিচার ডেস্ক৩১ অক্টোবর ২০১৮, ০২:১৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

সামান্য অসুখ-বিসুখ হলেই আমরা ডাক্তারের কাছে দৌড়াই। অথচ আমাদের হাতের কাছেই রয়েছে প্রাকৃতিক অনেক উপাদান যা আমাদের রোগ-ব্যাধি নিরাময় করতে পারে। এমনি একটি প্রাকৃতিক উপাদান সজনে পাতা।

সজনে পাতা এমন একটি উদ্ভিদ, হাজার হাজার বছর আগে থেকেই যার ব্যবহার ও পুষ্টিগুনের প্রশংসা করা হচ্ছে। সজনে গাছের পাতা এবং ডাটা উভয়ই ভেষজ চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়।

চিকিৎসা বিজ্ঞান সজনে পাতার বেশ কিছু উপকারিতা আবিষ্কার করেছে। উল্লেখযোগ্য উপকারিতাগুলো হচ্ছে-

১. খুব বেশি পুষ্টিকর: ভিটামিন এবং খনিজের একটি উত্তম উৎস সজনে পাতা। এতে আমিষ, ভিটামিন এ, ভিটামিন বি২, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন সি, লৌহ এবং ম্যাগনেসিয়াম সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য উপাদান রয়েছে। তাই সজনে পাতা অত্যন্ত পুষ্টিকর একটি খাদ্য।

২. অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ: সজনে পাতা কোয়ারসেটিন এবং ক্লোরোজেনিক অ্যাসিড সহ বিভিন্ন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদানে সমৃদ্ধ। মানব দেহে থাকা মুক্ত র‍্যাডিকেলস হৃদরোগ এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন ধরনের মারাত্মক রোগের জন্য দায়ী। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের যৌগ শরীরে থাকা মুক্ত র‍্যাডিকেলস এর বিরুদ্ধে কাজ করে। সজনে পাতার গুঁড়া রক্তের অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের মাত্রা বৃদ্ধি করে।

৩. রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধ: শরীরে রক্তের পরিমান কমে গেলে পানি দিয়ে সজনে ডাঁটা সেদ্ধ করে তার ক্বাথ এবং ডাঁটা চিবিয়ে খেলে রক্তল্পতা দূর হয়।

৪. ব্লাড-সুগার নিয়ন্ত্রন করে: রক্তে উচ্চ মাত্রার শর্করা (ব্লাড সুগার) হৃদরোগ সহ মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে। গবেষণায় দেখা গেছে, সজনে পাতা রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করে।

৫. প্রদাহ নিয়ন্ত্রণ করে: মানব দেহে প্রদাহ একটি প্রাকৃতিক ঘটনা যা সংক্রমণ ও ক্ষত তৈরি করে। প্রদাহ একটি অপরিহার্য ঘটনা হলেও দীর্ঘ সময়ব্যাপী অব্যাহত প্রদাহ হৃদরোগ এবং ক্যান্সারসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে। বিজ্ঞানীরা বিশ্বাস করেন যে, সজনে পাতায় ইসোথাওসায়ানেট নামে একপ্রকার প্রদাহ প্রতিরোধী যৌগ রয়েছে। তাই প্রদাহজনিত রোগ প্রতিরোধে সজনে পাতা একটি উত্তম উপাদান।

৬. কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করে: উচ্চমাত্রার কোলেস্টেরল হৃদরোগের জন্য দায়ী। তিসি, যব, কাজুবাদামসহ অনেক উদ্ভিজ খাবার রয়েছে যা কার্যকরভাবে কোলেস্টেরল কমাতে পারে। গবেষণা বলছে, সজনে পাতা কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে। তাই এটি উল্লেখযোগ্যভাবে হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করে।

৭. আর্সেনিকের প্রভাব নিয়ন্ত্রণ: পানীয় এবং খাদ্যে আর্সেনিকের উপস্থিতি বিশ্বজুড়ে অন্যতম একটি স্বাস্থ্য সমস্যা। দীর্ঘদিন ধরে আর্সেনিকযুক্ত খাদ্য গ্রহণের ফলে হৃদরোগ ও ক্যান্সারের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, সজনে পাতা আর্সেনিকের প্রভাব নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

৮। ব্ল্যাড প্রেসার: ‘সোডিয়াম ক্লোরাইড’ বা খাবার লবন ব্ল্যাড প্রেসার রোগীদের জন্য খুবই ক্ষতিকর। গবেষণায় দেখা গেছে, সজনে ডাঁটাতে সোডিয়াম ক্লোরাইড নেই বললেই চলে। কাজেই এটা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রিত করতে সাহায্য করে।

এগুলো ছাড়াও সজনে পাতা যেসব উপকারে আসে তা হল-
• বসন্ত রোগ প্রতিরোধ করে,
• হজম বৃদ্ধিকারক এবং হৃদপিন্ড ও রক্ত চলাচলের শক্তিবর্ধক হিসাবে কাজ করে,
• সজনের ফলের নির্যাস যকৃৎ ও প্লীহার অসুখে ধনুষ্টংকার ও প্যারালাইসিসে উপকারী,
• সজনের মূলের রস হাপানি নিবারক ও মূত্রকারক হিসেবে ভূমিকা রাখে,
• সজনের ডাঁটা কৃমিনাশক ও জ্বরনাশক বলে দেশীয় ডাক্তাররা পক্ষাঘাত রোগে এটা ব্যবহার করেন,
• সজনের শিকড়ের ক্বাথ কাশি, হাঁপানি, গেটে বাত, কটি বেদনা এবং সাধারণ বাত রোগের ঔষধ হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

জাবির প্রক্টর ও অন্তরের অডিওতে যা আছে...

জাবির প্রক্টর ও অন্তরের অডিওতে যা আছে...

সদ্য ফাঁস হওয়া অডিও বার্তায় জাবির প্রক্টর ফিরোজ-উল-আলম ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি হামজা রহমান অন্তরের কথোপকথন রয়েছে। হামজা নিজেই এই ফোনালাপ ফাঁস করেন। এ ব্যাপারে আগে থেকে জানিয়েছিলেনও তিনি। ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়।

ঢাবি সিনেট থেকে অব্যাহতি চেয়ে শোভনের চিঠি

ঢাবি সিনেট থেকে অব্যাহতি চেয়ে শোভনের চিঠি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) সিনেটের ছাত্র প্রতিনিধি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার চেয়ে উপাচার্য বরাবর চিঠি দিয়েছেন ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

জাবির সেই চাঁদার টাকা হয় হরিলুট, অন্তরের খোলা চিঠি

জাবির সেই চাঁদার টাকা হয় হরিলুট, অন্তরের খোলা চিঠি

কথপোকথনের এক পর্যায়ে হামজা রহমান অন্তরকে বলতে শোনা যায়, ক্যাম্পাসের ৪৪-৪৫ ব্যাচ পর্যন্ত টাকা পাইছে, আমি এটা গোপন রাখার কী আছে স্যার?....স্যার আপনি যদি চান, আমি আপনাকে প্রমাণ দেখাতে পারবো, ৪৪-৪৫ ব্যাচও টাকা পাইছে।

জাতীয়

প্রাথমিকে শিক্ষকপদে উত্তীর্ণদের যা করতে হবে

প্রাথমিকে শিক্ষকপদে উত্তীর্ণদের যা করতে হবে

উত্তীর্ণ প্রার্থীগণকে অনলাইনে আবেদনের আপলোডকৃত ছবি, আবেদনের কপি,লিখিত পরীক্ষার প্রবেশপত্র,নাগরিকত্ব সনদ এবং শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রসহ মুক্তিযোদ্ধা সনদ,মুক্তিযোদ্ধার সাথে সম্পর্ক সনদ,প্রযোজ্য ক্ষেত্রে এতিম সংক্রান্ত সনদ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কমপক্ষে ৯ম গ্রেডের গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত করে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর-২০১৯ অফিস চলাকালে নিজ নিজ জেলায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে জমা দিয়ে স্বীকারপত্র সংগ্রহ করতে হবে।

রাজনীতি

ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে গোলাম রাব্বানীর স্ট্যাটাস   

ক্ষমা চেয়ে ফেসবুকে গোলাম রাব্বানীর স্ট্যাটাস  

চাঁদাবাজিসহ নানা অনিয়মের দায়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে বরখাস্ত হওয়া গোলাম রাব্বানী নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত হয়ে কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। সোমবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেয়া স্ট্যাটাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষমা চান রাব্বানী। পোস্টে নিজের ভুলত্রুটির জন্য অনুতপ্ত বলে উল্লেখ করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

খেলাধুলা

সৌম্যসহ চারজন বাদ, ফিরেছেন রুবেল-শফিউল

সৌম্যসহ চারজন বাদ, ফিরেছেন রুবেল-শফিউল

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচের জন্য দল ঘোষণা করেছে বিসিবি। তাতে সৌম্য সরকারসহ চারজন দল থেকে বাদ পড়েছেন। আর নতুন করে দল অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন পাঁচজন। বাদ পড়াদের মধ্যে সৌম্য সরকার ছাড়াও রয়েছেন মেহেদী হাসান, ইয়াসিন মিশু ও আবু হায়দার রনি।

জাতীয়

ডেঙ্গু জ্বরে খুলনা মেডিকেলে আট মাসের শিশুর মৃত্যু

ডেঙ্গু জ্বরে খুলনা মেডিকেলে আট মাসের শিশুর মৃত্যু

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে রাফিত নামে আট মাসের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। রোববার রাত ১২টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুটি মারা যায়।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এফআরবিস শনাক্ত: সত্যিই কি ভিনগ্রহীরা সংকেত পাঠাচ্ছে?

এফআরবিস শনাক্ত: সত্যিই কি ভিনগ্রহীরা সংকেত পাঠাচ্ছে?

হলিউড সিনেমা বা সাইন্সফিকশন গল্পে প্রায়ই এলিয়েনের দেখা মেলে। তবে পৃথিবীর বাইরে সত্যিই প্রাণের অস্তিত্ব আছে কিনা, সে এক অজানা রহস্য। এই রহস্য সমাধানে বিজ্ঞানীরা দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

স্বাস্থ্য

মনোযোগ বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

মনোযোগ বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

অস্বীকার করার উপায় নেই যে আমরা যখন বৃদ্ধ হয়ে যাই, সঙ্গে সঙ্গে আমাদের দেহও বার্ধক্যে উপনীত হয়। তবে, আনন্দের খবর হলো একটু হিসেব করে দৈনন্দিন জীবনের খাদ্যাভাস নির্বাচন করলে আমরা নিজেদের মস্তিষ্ক সুস্থ রাখতে পারি।