• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

ইরাকের কারবালায় আশুরার মিছিলে পদদলিত হয়ে নিহত-৩১

ইরাকের কারবালায় আশুরার মিছিলে পদদলিত হয়ে নিহত-৩১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:২৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ইরাকের কারবালা শহরে আশুরার তাজিয়া মিছিলে পদদলিত হয়ে অন্তত ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন অন্তত শতাধিক ব্যক্তি।  নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। মঙ্গলবার ইরাকের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম মিডল ইস্ট আই।

মুসলিম শিয়া সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এই অনুষ্ঠানে ইরাকের কারবালা প্রদেশে প্রতিবছর দিনটি বেশ আড়ম্বরপূর্ণভাবে পালন করা হয়। কারবালা ইরাকের রাজধানী বাগদাদ শহর থেকে ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইফ আল-বদর জানান, হতাহতের এ সংখ্যা চূড়ান্ত নয়, সেখানে আরও অনেক মানুষ নিহত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

আশুরা উপলক্ষে আয়োজিত ওই মিছিলে নিহত হওয়ার খবর ইরাকে সম্প্রতি সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা। কালো পোশাক পরিহিত মিছিলগুলো কারবালায় হোসেনের স্বর্ণ-গম্বুজ খচিত মাজারের দিকে যাচ্ছিল। লাল কাপড়ে লেখা ‌‘ইমাম হোসেন’ ও মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের হাতে কালো পতাকা ছিল। এসময় মিছিলে তারা জোরে জোরে কাঁদতে কাঁদতে কারবালার দিকে যাচ্ছিল।

প্রসঙ্গত, প্রতিবছর ইরাকের বিভিন্ন অঞ্চল এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ মানুষ কারবালায় সমবেত হন। এর ফলে কারবালায় ইমাম হোসেনের মাজার এলাকা জনসমুদ্রে পরিণত হয়। কারবালা পরিণত হয়েছে শোক আর মাতমের শহরে। শোকের মিছিল ও সমাবেশে পুরুষদের পাশাপাশি ছিলেন নারী ও শিশুরাও।

১৪০০ বছর আগের আজকের দিনে ইরাকের কারবালায় বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর প্রাণপ্রিয় দৌহিত্র ইমাম হোসেন ও তার ৭২ জন সঙ্গী সত্য ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। অন্যায়ের কাছে মাথানত না করার কারণেই সেদিন ইমাম হোসেন পাপিষ্ঠ ইয়াজিদ বাহিনীর হাতে নির্মমভাবে শহীদ হন। এ কারণে ১০ মহররম বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জন্য একটি বেদনাবিধুর দিন।

 

টাইমস/এমএস 

শপথ নিলেন ঢাকার দুই সিটির মেয়র

শপথ নিলেন ঢাকার দুই সিটির মেয়র

ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত দুই মেয়র ও

নাছিরকে নিয়ে ফরম জমা দিলেন রেজাউল

নাছিরকে নিয়ে ফরম জমা দিলেন রেজাউল

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক

নির্বাচনে হেরে দিল্লিতে দাঙ্গা করছে বিজেপি

নির্বাচনে হেরে দিল্লিতে দাঙ্গা করছে বিজেপি

নির্বাচনে হেরে গিয়েই দিল্লিতে দাঙ্গা শুরু করেছে বিজেপি, শিব সেনার

জাতীয়

নারায়ণগঞ্জে চোর চক্রের ৭ সদস্য আটক

নারায়ণগঞ্জে চোর চক্রের ৭ সদস্য আটক

নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে সংঘবদ্ধ চোর চক্রের ৭ সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব। বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আদমজীনগরে র‍্যাব-১১ এর সহকারী পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান। এর আগে বুধবার রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের বাঘমারা, রূপগঞ্জের নোয়াপাড়া ও ঢাকার ডেমরায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে র‍্যাব।

জাতীয়

পুঠিয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে একজনের মৃত্যু

পুঠিয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে একজনের মৃত্যু

রাজশাহীর পুঠিয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তার আনুমানিক বয়স ৩০ বছর। বৃহস্পতিবার বেলপুকুর রেলক্রসিংয়ের অদূরে সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পশ্চিম রেলওয়ের ইশ্বরদী জিআরপি থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

যা কিছু প্রথম

জেনে নিন, টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ইতিহাস

জেনে নিন, টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ইতিহাস

বহুদূরের ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বস্তুকে দেখার উপযোগী যন্ত্রকে বলা হয় টেলিস্কোপ বা দূরবীক্ষণ। নলাকৃতির এই যন্ত্রটি সাধারণত লেন্স ও দর্পণ দিয়ে তৈরি করা হয়। এ ধরণের যন্ত্রের সাহায্যে দূরের বস্তু আরও উজ্জ্বলভাবে বা অস্পষ্ট বস্তু আরও স্পষ্ট করে দেখা যায়। টেলিস্কোপের আবিষ্কার নিয়ে মূলত গ্যালিলিওকে কৃতিত্ব দেয়া হলেও টেলিস্কোপের আবিষ্কার হয়েছিল তারও বেশ কিছুদিন আগে!

জাতীয়

ফুলপুরে নিখোঁজের ৫ দিন পর শ্রীপুর থেকে উদ্ধার চার ছাত্রী

ফুলপুরে নিখোঁজের ৫ দিন পর শ্রীপুর থেকে উদ্ধার চার ছাত্রী

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলা থেকে নিখোঁজের ৫ দিন পর দুই বোনসহ চার ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে গাজীপুরের শ্রীপুরের বেতজুড়ি গ্রাম থেকে তাদের উদ্ধার করে ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও ফুলপুর থানা পুলিশ।

স্বাস্থ্য

দই খেলে দূর হবে পেটের ব্যথাসহ নানা সমস্যা

দই খেলে দূর হবে পেটের ব্যথাসহ নানা সমস্যা

দই আমাদের অতিপরিচিত ও প্রিয় একটি খাবার। আমাদের মধ্যে বেশিরভাগ লোকই দই খেতে পছন্দ করেন। এটি যে কেবল স্বাদেই অসাধারণ তা কিন্তু নয়, হজমে সহায়তা করাসহ ত্বককে সুস্থ রাখতে দইয়ের ভূমিকাও অতুলনীয়। মশলাদার খাবারের পর দই খাওয়ার রীতি আমাদের সমাজে এখনো অনেক জায়গায় প্রচলিত রয়েছে। এটি কিন্তু এমনি এমনি সৃষ্টি কোনো রীতি নয়, বরং এর পেছনে রয়েছে বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা।

কৃষি কথা

আধুনিক পদ্ধতিতে শালগম চাষ

আধুনিক পদ্ধতিতে শালগম চাষ

শালগম বাংলাদেশে সুপরিচিত হলেও এর উৎপাদনের পরিমাণ খুব কম। এটি নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ুর উপযোগী ফসল। ১৫-২০ ডিগ্রি সে. তাপমাত্রায় এটি সবচেয়ে ভালো জন্মে। শালগম চাষের দু’মাসের মধ্যে পরিপক্ব হয়ে যায়। আমাদের দেশে কেবল রবি মৌসুমে শালগমের চাষ সম্ভব। কারণ, শালগমের চারা কচি থাকা অবস্থায় বৃষ্টি হলে ফসল সহজেই নষ্ট হয়ে যায়।