• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

অবসরে জাপানিরা জেলে থাকতে চান কেন?

অবসরে জাপানিরা জেলে থাকতে চান কেন?

ফিচার ডেস্ক০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:১১এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘায়ু দেশের মধ্যে অন্যতম একটি জাপান। যেখানে মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশের বেশি ৬৫ বছরের উপরে। জানা যায়, বয়স্ক জাপানিদের অনেকেই অবসরে যাওয়ার পর জেলে থাকতে চান। এজন্য তাদের অনেকেই ইচ্ছে করে বিভিন্ন ধরনের ছোট ছোট অপরাধ করে। যাতে তাদের জেলে থাকার সুযোগ হয়।

লক্ষ্য করা গেছে যে, গত বিশ বছর ধরে দিন দিন বয়স্ক জাপানিদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু কেন? কেন বয়স্ক জাপানিরা অপরাধ প্রবণ হয়ে ওঠছে? আর কেনই বা তারা ইচ্ছে করে জেলে থাকতে চায়?

সম্প্রতি এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে চেষ্টা করেন বিবিসির এক প্রতিবেদক। হিরোশিমার পুনর্বাসন কেন্দ্রে এ প্রতিবেদক এমনই একজন জাপানির দেখা পান, যিনি বারবার ইচ্ছে করে জেলে গিয়েছেন। ৬৯ বছর বয়সী এই জাপানির নাম তোশিও তাকাতা।

তোশিও জানান, তিনি বেশ কয়েকবার ইচ্ছে করে আইন ভঙ্গ করে জেলে গিয়েছেন। কিন্তু কেন? এর উত্তরে তিনি বলেন, এর প্রধান কারণ তার দরিদ্রতা। সম্প্রতি তিনি অবসরে গিয়েছেন। এখন তিনি এমন একটি জায়গা খুঁজছেন, যেখানে বিনামূল্যে থাকা যায়। এমনকি এটা মদের বার হলেও।

তিনি বলেন, ‘আমি পেনশনে চলে গেছি, আমার টাকা ফুরিয়ে গেছে। আমি যদি জেলে যাই তাহলে বিনামূল্যে থাকতে পারব। তাই আমি একটি বাইসাইকেল চুরি করি এবং পুলিশ স্টেশনে গিয়ে বলি যে, আমি এটা চুরি করেছি।’

তোশিওর পরিকল্পনাটি কাজে লাগে। এটা ছিল তার প্রথম অপরাধ। তবে অপরাধটি ছোট হলেও জাপানে এসব ছোটখাটো অপরাধকেও অনেক গুরুত্ব দেয়া হয়। তাই তার এক বছরের জেল হয়।

‘জেল থেকে বের হবার পর আমি একটি পার্কে যাই এবং কিছু লোককে ছুরি দেখিয়ে ভয় দেখাই। তাদের ক্ষতি করার কোনো ইচ্ছে আমার ছিল না। আমি কেবল চেয়েছিলাম যে তাদের কেউ পুলিশকে ফোন করুক। আর সেটাই হয়েছে। তাদের একজন পুলিশকে ফোন দিল। আমি জেলে চলে গেলাম’- বলেন তোশিও।

তোশিও যখন এই অপরাধটি করেছিলেন তখন তার বয়স ৬২। যদিও তিনি কোনো পেশাদার অপরাধী না। তবুও এভাবে তিনি গত আট বছরের প্রায় অর্ধেক সময়ই জেলে কাটিয়েছেন। তোশিও জাপানে লক্ষণীয়ভাবে অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধির একজন প্রতিনিধি।

ব্যাপকভাবে আইন মান্যকারী একটি সমাজ ব্যবস্থা জাপান। যেখানে গত বিশ বছর ধরে ৬৫ বছরের উপরের জনসংখ্যার মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বেড়ে চলেছে। ১৯৯৭ সালে যেখানে প্রতি বিশটি অপরাধের একটি সংঘটিত হত পঁয়ষট্টি ঊর্ধ্ব ব্যক্তিদের দ্বারা, সেখানে বিশ বছর পর বর্তমানে প্রতি পাঁচটি অপরাধের একটির সঙ্গে এই বয়স্করা জড়িত।

১৯৯০ সালেও যেখানে ষাটোর্ধ জাপানিরা প্রায় ৫শতাংশ অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিল সেখানে ২০১৬ সালে এসে এর হার বেড়ে প্রায় ২০শতাংশ।

তোশিওর ন্যায় অনেক বয়স্ক জাপানিরা এভাবে অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন। যেখানে ২০১৬ সালে আড়াই হাজার অপরাধ সংঘটিত হয় পঁয়ষট্টি ঊর্ধ্ব ব্যক্তিদের দ্বারা।

তোশিওর ন্যায় আরেকটি উদাহরণ হচ্ছে- কেইকো (ছদ্ম নাম)। ৭০ বছর বয়সী এই নারীও বিবিসির ওই প্রতিবেদককে বলেছেন যে, তিনি দরিদ্রতার জন্যই এমনটা করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমি স্বামীর সঙ্গে থাকতে পারি না। আমার এখন বসবাসের কোনো জায়গা নেই। তাই আমার কাছে একটাই বিকল্প: চুরি করা।’

‘এমনকি আশি বছর বয়সেও যখন নারীরা হাটতে পারেন না, তখনও তাদেরকে এমন অপরাধ করতে হয়। এর একমাত্র কারণ তাদের খাদ্য ও অর্থের অভাব’- বলেন কেইকো।

একজন অস্ট্রেলিয়ান বংশোদ্ভূত টোকিও ভিত্তিক গবেষক মাইকেল নিউম্যান বলেন, জাপানের রাষ্ট্রীয় পেনশন অতি অল্প যে, তা দিয়ে জীবন চালানো খুবই কঠিন।

২০১৬ সালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, জাপানিরা যে পেনশন পায় তা বাসা ভাড়া, খাদ্য আর চিকিৎসা ব্যয়ে চলে যায়। আয়ের অন্য কোনো উৎস না থাকায় জামা-কাপড়সহ অন্যান্য প্রয়োজন মেটাতে তাদেরকে দেনা করতে হয়।

তাছাড়া, পূর্বে সন্তানরা বাবা-মার দেখাশোনা করতো। কিন্তু বিভিন্ন প্রদেশে অর্থনৈতিক সুযোগ-সুবিধা কমে যাওয়ায় তারা বাবা-মাকে একা রেখে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন। ফলে এসব বাবা-মাকে নিজের ব্যবস্থা নিজেকেই করতে হয়।

তাই বৃদ্ধ বয়সে সন্তানদের উপর বোঝা হতে চায় না বলেই বয়স্করা জেলে থাকার মত কৌশল গ্রহণ করছে। শুধু তাই নয়, একই কারণে জাপানিদের মধ্যে আত্মহত্যার প্রবণতাও বেড়ে যাচ্ছে বলে জানান মাইকেল নিউম্যান।

হিরোশিমার ওই পুনর্বাসন কেন্দ্রের পরিচালক কানিচি ইয়ামাদা বলেন, জাপানের বদলে যাওয়া পরিবার কাঠামোই বয়স্কদের অপরাধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তবে এসব অপরাধের জন্য অর্থনৈতিক কারণের চেয়ে মনোসামাজিক কারণকে তিনি গুরুত্ব দেন।

তার মতে, মানুষের মধ্যে সামাজিক সম্পর্ক বদলে যাচ্ছে। মানুষ এখন আরও বেশি বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে। তারা সমাজে নিজেদের স্থান খুঁজে পায় না। এই একাকীত্বের সঙ্গে তারা খাপ খাওয়াতে পারে না বলেই এমন অপরাধ প্রবণ হয়ে যাচ্ছে বলে কানিচি ইয়ামাদা মনে করেন।

 

টাইমস/এএইচ/জিএস

ঐতিহ্যবাহী  ‘জাহাজবাড়ি’ স্থাপনায় নতুন নকশা অনুমোদন দেবে না রাজউক   

ঐতিহ্যবাহী  ‘জাহাজবাড়ি’ স্থাপনায় নতুন নকশা অনুমোদন দেবে না রাজউক  

হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে ভেঙে ফেলা পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী জাহাজবাড়ি স্থাপনায় নতুন কোনো নকশা অনুমোদন দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এ প্রসঙ্গে রাজউকের উন্নয়ন নিয়ন্ত্রণের সদস্য (যুগ্ম সচিব) আবুল কালাম আজাদ বাংলাদেশ টাইমস’কে বলেন, জাহাজবাড়ির মতো ঐতিহ্যবাহী ভবন ভেঙে খুবই খারাপ কাজ করা হয়েছে। তবে আমাদের কাছে ওয়াক্ফ প্রশাসক স্বাক্ষরিত একটি চিঠি এসেছিল। আমরা সেই চিঠি মোতাবেক ভেঙে ফেলা সেই জাহাজবাড়ির স্থাপনায় কোনো নকশা অনুমোদন দেব না।

দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে রোহিঙ্গারা: প্রধানমন্ত্রী

দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে রোহিঙ্গারা: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের দ্রুত মিয়ানমারে প্রত্যাবাসন করা না গেলে বাংলাদেশের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা ব্যাহত হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার জাতীয় সংসদে কিশোরগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ও পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি) নূর মোহাম্মদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বড়গুনায় ফিল্মি স্টাইলে খুন: সন্ত্রাসীদের সাথে লড়েও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রী   

বড়গুনায় ফিল্মি স্টাইলে খুন: সন্ত্রাসীদের সাথে লড়েও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রী  

বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে শত শত লোকের উপস্থিতিতে স্ত্রীর সামনে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। এসময় স্বামীকে বাঁচাতে সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করতে প্রাণপন চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন স্ত্রী। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। হত্যাকাণ্ডের একটি ভিডিও এরইমধ্যে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

রাজনীতি

হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল ইউনিটে এরশাদ: জি এম কাদের

হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল ইউনিটে এরশাদ: জি এম কাদের

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে বুধবার সকালে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) ‘ক্রিটিক্যাল ইউনিটে’ ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার মতিঝিলের এজিবি কলোনির মিলনায়তনে জাতীয় পার্টির সিলেট ও চট্টগ্রামের বিভাগীয় সম্মেলনে এ তথ্য দেন এইচ এম এরশাদের ছোট ভাই ও জাপার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম কাদের।

জাতীয়

ঘুষ কেলেঙ্কারিতে এনামুল বাছিরের সংশ্লিষ্টতা মিলেছে: দুদক

ঘুষ কেলেঙ্কারিতে এনামুল বাছিরের সংশ্লিষ্টতা মিলেছে: দুদক

পুলিশের বিতর্কিত ডিআইজি মিজানের কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা ঘুষ নেওয়ার বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) বরখাস্তকৃত পরিচালক এনামুল বাছিরের সংশ্লিষ্টতা মিলেছে। অনুসন্ধানে সত্যতা পাওয়ার পর এনামুল বাছিরকে দেশত্যাগের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে চিঠিও দিয়েছে দুদকের অনুসন্ধান টিম।

রাজনীতি

নাশকতার অভিযোগে চট্টগ্রাম বিএনপির ৫২ নেতাকর্মী কারাগারে   

নাশকতার অভিযোগে চট্টগ্রাম বিএনপির ৫২ নেতাকর্মী কারাগারে  

চট্টগ্রামে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নাশকতার অভিযোগে করা ‘গায়েবি’ মামলায় বিএনপির ৫২ নেতাকর্মীর জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম মো. আল ইমরান খান শুনানি শেষে এই আদেশ দেন। কারাগারে পাঠানো আসামিদের সবাই নগরের পতেঙ্গা থানা বিএনপির নেতাকর্মী।

রাজনীতি

৭১ ইউনিয়নে আ. লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

৭১ ইউনিয়নে আ. লীগের প্রার্থী চূড়ান্ত

আটটি বিভাগের ৩৭ জেলার ৭১টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়। খবর বাসসের।

জাতীয়

ভিকারুননিসার সামনে নারী খুন: ২৮ বছর পর সচল হচ্ছে মামলা

ভিকারুননিসার সামনে নারী খুন: ২৮ বছর পর সচল হচ্ছে মামলা

রাজধানীর ভিকারুননিসা নুন স্কুলের সামনের ছিনতাইয়ের সময় এক নারী নিহতের ঘটনায় করা খুনের মামলার ওপর স্থগিতাদেশ ২৮ বছর পর তুলে নিয়েছেন হাইকোর্ট। মামলাটিতে অধিকতর তদন্তের আদেশের বিরুদ্ধে করা ২৮ বছর আগের আবেদন খারিজ করে দিয়ে বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় দেন।

চাকরি

চট্টগ্রাম কর কমিশনারের কার্যালয়ে ৫৩ জনের চাকরির সুযোগ

চট্টগ্রাম কর কমিশনারের কার্যালয়ে ৫৩ জনের চাকরির সুযোগ

কর কমিশনারের কার্যালয়, কর অঞ্চল-৪ চট্টগ্রাম-এ আটটি পদের বিপরীতে ৫৩ জনকে নিয়োগ দিতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ। আগ্রহী ও যোগ্য প্রার্থীরা ২৫ জুলাই ২০১৯ পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন।