• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

গাজীপুরে গ্যাস লাইটার বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ

গাজীপুরে গ্যাস লাইটার বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ

প্রতীকী ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর২৬ মার্চ ২০২০, ০৬:৪৫পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

গাজীপুরের কাশিমপুরে একটি বাসায় গ্যাস লাইটার বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিনজন দগ্ধ হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোর ৬টার দিকে কাশিমপুরের ইউসুফ মার্কেটের পাশের এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দগ্ধরা হলেন- নির্মল চন্দ্র সরকার (৪৫), তার স্ত্রী চায়না চন্দ্র সরকার (৩৮) ও তাদের ছেলে নিপু চন্দ্র সরকার (১৩)। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

দগ্ধ চায়নার বড় ভাই পরিতোষ চন্দ্র সরকার বলেন, আমার বোন পরিবার নিয়ে কাশিমপুর ইউসুফ মার্কেটের পাশে একটি টিনসেড বাড়িতে ভাড়া থাকে। চায়না একটি গার্মেন্টসে চাকরি করে। তার স্বামী ট্রেইলার। তার একটি দোকান রয়েছে। আর তাদের ছেলে পড়ালেখা করে।

ভোরে চায়না রান্নার জন্য গ্যাস লাইটার জ্বালাচ্ছিলো। এসময় জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে লাইটারটিতে বিস্ফোরণ ঘটে। দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এতে পরিবারের তিনজনই দগ্ধ হন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া বলেন, চায়নার শরীরের ৯৫ শতাংশ, নির্মলের ১০০ শতাংশ ও নিপুর ৪৫ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তাদের বার্ন ইউনিটে ভর্তি রাখা হয়েছে।

 

টাইমস/এইচইউ

করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, আক্রান্ত ১৫৪১

করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, আক্রান্ত ১৫৪১

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ৮১তম দিনে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে আরও

খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন -ফখরুল

খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন -ফখরুল

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখনও হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন বলে জানিয়েছেন

নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ মায়ের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই সন্তানসহ মায়ের মৃত্যু

ঝড়ের আঘাতে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে টিনের ঘরের ওপর পড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে

জাতীয়

বজ্রপাত থেকে রক্ষার উপায়

বজ্রপাত থেকে রক্ষার উপায়

তীব্র গরমে স্বস্তি এনে দেয় বৃষ্টি। কিন্তু এই স্বস্তির বৃষ্টির সঙ্গে আসা বজ্রপাত বিপর্যয়ের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আমাদের দেশে মার্চ থেকে অক্টোবর পর্যন্ত বজ্রপাত হয়ে থাকে। এর মধ্যে এপ্রিল ও মে মাসে বজ্রপাত তুলনামূলকভাবে বেশি হয়। আর এই বজ্রপাতে প্রায়শই প্রাণহানির শিকার হচ্ছেন দেশের মানুষ।

যা কিছু প্রথম

তালাচাবি আবিষ্কারের ইতিহাস

তালাচাবি আবিষ্কারের ইতিহাস

যবে থেকে মানুষের কিছু জিনিসপত্র সম্বল হল, তবে থেকেই সেগুলোকে আগলে রাখার প্রবণতা এসে গেল। প্রথম প্রথম তালাচাবি বলতে শুধু দড়ি বা অন্য কিছু দিয়ে বেঁধে রাখা হতো। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সত্যিকারের তালাচাবি ব্যবহার করতে শুরু করল মানুষ। সেগুলো কাঠ বা ধাতুর তৈরি। ঠিক কে বা কোনো সভ্যতায়ে প্রথম তালাচাবি ব্যবহার হয়েছিল সেটা সঠিকভাবে জানা যায়নি।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

জেনে নিন, শিলাবৃষ্টি হওয়ার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা

জেনে নিন, শিলাবৃষ্টি হওয়ার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা

আমাদের দেশে গ্রীষ্মকালে বায়ুমন্ডলের তাপমাত্রা বেশি হয় বলে, তখন শিলাবৃষ্টি হতে দেখা যায়; বিশেষ করে কালবৈশাখীর সময়। গ্রীষ্মকালের অতিরিক্ত গরম শিলাবৃষ্টির একটি কারণ বলে ধরে নেয়া হয়। ঝড়ো আর সংকটপূর্ণ আবহাওয়াতে যখন শক্তিশালী বায়ুপ্রবাহ উপরের দিকে উঠতে থাকে, তখন শিলা তৈরি হয়।

জাতীয়

উপকূলে ঝড়ো হাওয়া, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

উপকূলে ঝড়ো হাওয়া, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

ঈদের দিন বিকাল থেকেই দেশের উপকূলীয় এলাকা ও সমুদ্রবন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। তাই দেশের সকল সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

জাতীয়

করোনা থাকলে খুলবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি

করোনা থাকলে খুলবে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, দীর্ঘ হচ্ছে ছুটি

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধীরে ধীরে বাড়ছে। বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার চিন্তা-ভাবনা আপাতত বাদ দেয়া

বিনোদন

লকডাউনে কাজ নেই, নিজের প্রাণটাই দিয়ে দিলেন অভিনেত্রী!

লকডাউনে কাজ নেই, নিজের প্রাণটাই দিয়ে দিলেন অভিনেত্রী!

করোনাভাইরাসে লকডাউনের কারণে কোন কাজ নেই। একারণে হতাশায় পড়ে আত্মহত্যা করেছেন এক অভিনেত্রী।