• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • রোববার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬

নোবেল জয়ী নাদিয়া মুরাদের গল্প

নোবেল জয়ী নাদিয়া মুরাদের গল্প

ফিচার ডেস্ক৩১ অক্টোবর ২০১৮, ০১:৩৬পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

নাদিয়া মুরাদ জার্মানভিত্তিক ইয়াজিদি-ইরাকি মানবাধিকার কর্মী। স্কুলে পড়ার সময় বিউটি পার্লার খোলার স্বপ্ন দেখতেন। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস নাদিয়া ইসলামিক স্টেট (আইএস) কর্তৃক অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার হন।

তিন মাস আটক থাকার পর আশ্রয় পান জার্মানির একটি শরণার্থী শিবিরে। আইএস কর্তৃক যৌন নির্যাতনের শিকার হাজার হাজার নারীর মুক্তির লক্ষ্যে নতুন করে লড়াই শুরু করেন। গণহত্যা এবং মানব পাচারের মাধ্যমে নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশুদের সহায়তার লক্ষ্যে তিনি ‘‘নাদিয়াস ইনিশিয়েটিভ’’ নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করেন।

যৌন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তার এই অদম্য লড়াইয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি এ বছর শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান। একজন ইরাকি হিসেবে তিনিই প্রথম বিশ্বের সর্বোচ্চ এ পুরস্কার পেলেন।

নাদিয়ার উত্থান যেভাবে:

নাদিয়া মুরাদ ১৯৯৩ সালে ইরাকের সিঞ্জারের কজো গ্রামে ইয়াজিদি (জাতিগত ধর্মীয় সংখ্যালঘু) একটি কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯ বছর বয়সে তিনি যখন স্কুলে পড়তেন তখন ইসলামিক স্টেটের যোদ্ধারা কজো গ্রামে আক্রমণ চালায়। ইয়াজিদি সম্প্রদায়ের ৬শ জনকে হত্যা করে যাদের ছয়জনই ছিলেন নাদিয়ার ভাই। এ সময় আইএস নাদিয়াসহ ছয় হাজার ৭শ ইয়াজিদি নারীকে বন্দি করে নিয়ে যায়।

আইএস যোদ্ধারা অন্যান্য নারীর সাথে নাদিয়াকে যৌনদাসী হিসেবে বন্দি করে রাখে। এ সময় নানাভাবে তাকে শারীরিক নির্যাতন করা হয়। তাকে পেটানো হত। এমন কি সিগারেটের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছিল। পালাতে গিয়ে বেশ কয়েকবার ধরা পড়েন এবং ধর্ষণের শিকার হন।

তিন মাস বন্দি থাকাকালে বেশ কয়েকবার তাকে যৌনদাসী হিসেবে বিক্রি করা হয়। এ সময় আইএস জঙ্গিরা অসংখ্যবার তাকে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়ন করে। নানা হাত ঘুরে একসময় তিনি যৌনদাসী হিসেবে ইসলামিক খেলাফতের ইরাক অংশের রাজধানী মসুলে পৌঁছে যান।

বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে নাদিয়া জানান, এক পর্যায়ে তিনি পালিয়ে যেতে সক্ষম হন এবং একটি সুন্নি মুসলিম পরিবারে আশ্রয় নেন। এ সময় ওই পরিবারের নাসির নামের একজন স্ত্রী পরিচয় দিয়ে নাদিয়াকে মসুল সীমান্ত দিয়ে পালাতে সাহায্য করেন।

মসুল থেকে পালানোর পর উত্তর ইরাকে একটি শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রয় পান নাদিয়া। ওই সময় ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে রোয়াঙ্গা ক্যাম্পে তিনি বেলজিয়ামের দৈনিক পত্রিকা ‘লা লিবার বেলিজিক’কে সর্বপ্রথম আইএস জঙ্গিদের বীভৎস নির্যাতনের বর্ণনা তুলে ধরেন।

একই বছর এক হাজার শরণার্থীর সাথে নাদিয়া জার্মানির একটি শিবিরে আশ্রয় পান।

নাদিয়ার আন্দোলন-সংগ্রাম:

আইএসের নির্যাতন দমাতে পারেনি নাদিয়াকে। বরং এটা অদম্য নাদিয়ার বিপ্লবী চেতনাকে জাগিয়ে দিয়েছে। তাই জার্মানির শরণার্থী শিবির থেকেই নাদিয়া যুদ্ধাস্ত্র হিসেবে যৌন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই শুরু করেন।

২০১৫ সালের ১৬ ডিসেম্বর তিনি প্রথমবারের মতো জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে আইএস জঙ্গি কর্তৃক মানবপাচার এবং যৌন নির্যাতনের বীভৎস বর্ণনা তুলে ধরেন। অতঃপর নির্যাতিতদের দূত হিসেবে মানবপাচার ও উদ্বাস্তুদের সচেতনতা সৃষ্টির জন্য বিশ্বব্যাপী অ্যাডভোকেসি কার্যক্রমে অংশ নেন। শরণার্থী ও বেঁচে থাকা সম্প্রদায়ের কাছে পৌঁছেছেন। পাচার ও গণহত্যার শিকারদের সাক্ষ্য শুনেছেন।

নিজের ও শরণার্থীদের ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা বিশ্ববাসীকে জানাতে ২০১৭ সালে ‘‘The Last Girl: My Story of Captivity, and My Fight Against the Islamic State’’ নামে বই লিখেন। এ সময় কয়েকদফা আইএস কর্তৃক হত্যার হুমকি দেয়া হলেও তা দমাতে পারেনি অদম্য নাদিয়াকে।

গণহত্যা, ধর্ষণ ও পাচারের অপরাধে আইএসআইএল কমান্ডারদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নিতে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে তিনি অ্যাটর্নি আমল ক্লুনির সহায়তায় জাতিসংঘের কাছে আহবান জানান। একই বছর গণহত্যার শিকারদের পক্ষে সমর্থন ও সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে টিনা ব্রাউনের উদ্যোগে নিউইয়র্কে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

একই মাসে জাতিসংঘ তাকে মানবপাচারের শিকার সংগ্রামী লোকদের দায়িত্বের জন্য প্রথম ‘গুডউইল অ্যাম্বাসেডর’ হিসেবে ঘোষণা করে।

২০১৭ সালের ৩ মে, নাদিয়া ভ্যাটিকান সিটিতে পোপ ফ্রান্সিস এবং আর্চবিশপ গালাঘেরের সাথে দেখা করেন। বৈঠককালে তিনি ইরাকের নির্যাতিত সংখ্যালঘু ইয়াজিদি এবং উদ্বাস্তু শরণার্থীদেরর সাহায্যের জন্য আহবান জানান।

পুরস্কার এবং সম্মাননা:

• ২০১৬: মানবাধিকারের জন্য ‘‘কাউন্সিল অব ইউরোপ ভ্যাক্লেভ হাভেল অ্যাওয়ার্ড’’।
• ২০১৬: মুক্ত চিন্তার জন্য ‘‘সাখরভ পুরস্কার’’ (লামিয়া আজি বাশারের সাথে যৌথভাবে)।
• ২০১৮: নোবেল শান্তি পুরস্কার (ডেনিস মুকওয়েজের সাথে যৌথভাবে)।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ফল প্রকাশ

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় ৫৫ হাজার ২৯৫ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় এ ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এফ এম মনজুর কাদির জানান, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮’ ৬৩ জেলার লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে। সারাদেশে লিখিত পরীক্ষায় মোট ৫৫ হাজার ২৯৫ জন প্রার্থী পাস করেছেন।

দুই প্যাকেট খাবার দিয়ে অবৈধদের বাংলাদেশে পাঠানো হবে: বিজেপি নেতা

দুই প্যাকেট খাবার দিয়ে অবৈধদের বাংলাদেশে পাঠানো হবে: বিজেপি নেতা

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তি থাকা সত্ত্বেও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি(এনআরসি) করা হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন বিজেপির বিধায়ক সুরেন্দ্র সিং। তিনি হুমকি দিয়ে বলেছেন, এনআরসিতে যারা অবৈধ চিহ্নিত হবেন, তাদেরকে হাতে দুই প্যাকেট করে খাবার ধরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। শনিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন বিজেপির এই নেতা।

অন্যায়-দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না: কাদের

অন্যায়-দুর্নীতি করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বাংলাদেশে এই প্রথম শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হলো। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এবং বাধ্যতামূলক পদত্যাগ করানো হয়েছে। বাংলাদেশের অন্য কোন ছাত্র সংগঠনে এ ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণের নজির নেই। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ভুলতা ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন শেষে রোববার দুপুরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

আন্তর্জাতিক

‘ভারতের সঙ্গে প্রথাগত যুদ্ধে হারতে পারে পাকিস্তান’

‘ভারতের সঙ্গে প্রথাগত যুদ্ধে হারতে পারে পাকিস্তান’

ভারতের সঙ্গে প্রথাগত যুদ্ধে পাকিস্তান হারতে পারে উল্লেখ করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, আমি নিশ্চিত, যখন পারমাণবিক শক্তিধর দুটি দেশের মধ্য যুদ্ধ শুরু হয়, তখন সেটা অবশ্যই পারমাণবিক যুদ্ধের দিকে গড়াবে। ঈশ্বর না করুক, যদি এমন কোনো যুদ্ধ হয়, আর আমরা হেরে যাই তাহলে আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। রোববার আল জাজিরাকে দেয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে ইমরান খান এসব কথা বলেন।

জাতীয়

জনগণের আস্থা অর্জনে পুলিশ নিয়োগে স্বচ্ছতা গুরুত্বপূর্ণ : প্রধানমন্ত্রী

জনগণের আস্থা অর্জনে পুলিশ নিয়োগে স্বচ্ছতা গুরুত্বপূর্ণ : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জনগণের আস্থা-বিশ্বাস অর্জন করার জন্য পুলিশ সদস্য নিয়োগে স্বচ্ছতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এবার পুলিশ সদস্য নিয়োগ নিয়ে কোনভাবেই কোন লোক দুর্নীতি ও ঘুষ দেয়ার কথা বলতে পারেনি। আগামীতে এ পদক্ষেপে এগিয়ে যেতে হবে।

জাতীয়

নোয়াখালীতে পুলিশের দুই কর্মকর্তা প্রত্যাহার

নোয়াখালীতে পুলিশের দুই কর্মকর্তা প্রত্যাহার

নোয়াখালী পুলিশের বিশেষ শাখার দুই এএসআইকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়ার পর এবার দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তিন রোহিঙ্গার পাসপোর্ট করার ঘটনায় শনিবার রাতে জেলা বিশেষ শাখার (ডিএসবি) দুই এএসআই আবুল কালাম ও নুরুল হুদাকে জেলা পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন।

জাতীয়

ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষ ফওজিয়া

ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষ ফওজিয়া

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফওজিয়া রেজওয়ান ভিকারুননিসা ন্যূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে নতুন অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। রোববার জারি করা এক প্রজ্ঞাপনের এই নিয়োগের বিষয়টি প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ। ফওজিয়া এর আগে রাজধানীর সবুজবাগ সরকারি মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ছিলেন।

রাজনীতি

সোমবার ছাত্রলীগের দায়িত্ব নেবেন জয়-লেখক

সোমবার ছাত্রলীগের দায়িত্ব নেবেন জয়-লেখক

ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত দুই শীর্ষ নেতা আনুষ্ঠানিকভাবে সোমবার দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। এদিন তারা ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন। রোববার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান ছাত্রলীগের নতুন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনসহ ছাত্রলীগের আরও অনেক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বিনোদন

আরও চার শিল্পী পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান

আরও চার শিল্পী পেলেন প্রধানমন্ত্রীর অনুদান

এবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও চার শিল্পীকে ২০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন। শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে অসুস্থ এই শিল্পীদের হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন তিনি।