• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬

ইয়াসির আরাফাত: ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহানায়ক

ইয়াসির আরাফাত: ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহানায়ক

ফিচার ডেস্ক০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৫৩এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ইয়াসির আরাফাত, ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের পথিকৃৎ। এক অবিসংবাদিত আরব জাতীয়তাবাদী নেতা। ১৯৬৯-২০০৪ পর্যন্ত প্যালেস্টাইন লিবারেশন অরগেনাইজেশন (পিএলও)এর চেয়ারম্যান ও ১৯৯৪-২০০৪ পর্যন্ত প্যালেস্টাইন ন্যাশনাল অথরিটির (পিএনএ) প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

১৯২৯ সালের ২৪ আগস্ট মিশরের কায়রোতে এক ফিলিস্তিনি পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন ইয়াসির আরাফাত। শৈশবের অধিকাংশ সময়ই তিনি মিশরের কায়রোতে ছিলেন। লেখাপড়া করেছেন মিশরের কিং ফুয়াদ ইউনিভার্সিটিতে। এখান থেকেই তিনি আরব জাতীয়তাবাদে আকৃষ্ট হন এবং ইহুদিবাদ বিরোধী আদর্শে প্রভাবিত হন।

১৯৪৮ সালে ফিলিস্তিন ভাগ করে ইসরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদে ১৯৪৮ সালে আরব-ইসরাইল যুদ্ধে মিশরের মুসলিম ব্রাদারহুডের পক্ষে তিনি ইসরাইলের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৫২-৫৬ পর্যন্ত ফিলিস্তিনি ছাত্রদের জেনারেল ইউনিয়নের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেছেন।

ইসরাইলকে উৎখাত করে ফিলিস্তিন রাষ্ট্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ১৯৫৯ সালে তিনি আধাসামরিক সংগঠন ‘ফাতাহ’ প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৫৯ থেকে ২০০৪ পর্যন্ত তিনি এ দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। এ দলটি মিশর, জর্ডান, লেবাননসহ বিভিন্ন আরব দেশ থেকে ইসরাইলের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রাম চালিয়ে যেতে থাকে।

১৯৮৩-৯৩ সাল পর্যন্ত তিনি তিউনিসিয়ায় ছিলেন এবং সশস্ত্র সংগ্রামের পরিবর্তে ইসরাইলের সঙ্গে সমঝোতা ও শান্তি আলোচনার চেষ্টা চালিয়ে যান। ১৯৮৮ সালে তিনি ইসরাইল রাষ্ট্রের অস্তিত্ব স্বীকার করে নেন এবং ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংকট নিরসনে ‘দ্বি-রাষ্ট্র’ ভিত্তিক সমাধান নীতির প্রতি সম্মতি দেন।

তার নেতৃত্বেই ১৯৮৮ সালের ১৫ নভেম্বর জেরুজালেমকে রাজধানী করে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের ঘোষণা দেয়া হয়। স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে সর্বপ্রথম স্বীকৃতি দেয় আলজেরিয়া।

১৯৯৪ সালে তিনি গাজায় বসতি স্থাপন করেন। ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংকট নিরসনের লক্ষ্যে তিনি ইসরাইলের সঙ্গে বেশ কিছু শান্তি আলোচনা ও সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর করেন। তার নেতৃত্বে ১৯৯৩ সালে ইসরাইল ও পিএলও এর মধ্যে ঐতিহাসিক ‘অসলো চুক্তি’ স্বাক্ষরিত হয়। স্বাধীন ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি না দিলেও এ চুক্তির মাধ্যমে ইসরাইল ও পিএলও পরস্পরকে স্বীকৃতি দেয়।

এই চুক্তি স্বাক্ষর করায় ১৯৯৪ সালে আইজ্যাক রবিনের সঙ্গে তিনি নোবেল শান্তি পুরস্কার পান। তার কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফলে ১৯৯৫ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর ইসরাইল ও পিএলও এর মধ্যে গাজা ও পশ্চিম তীর সম্পর্কিত অন্তর্বর্তীকালীন চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ফলে গাজা ও পশ্চিম তীরে সীমিত আকারে ফিলিস্তিনের স্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠিত হয়। রামাল্লাকে রাজধানী করে গাজা ও পশ্চিম তীরের প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনা করে পিএনএ। যার প্রেসিডেন্ট হন ইয়াসির আরাফাত।

ইয়াসির আরাফাতের নেতৃত্বে ফাতাহের উত্থানে ফিলিস্তিনে আরেক বিপ্লবী সংগঠন হামাসের প্রভাব কমে আসে। ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংকটের দীর্ঘমেয়াদি ও শান্তিপূর্ণ সমাধানের জন্য যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘ ২০০২ সালে শান্তির জন্য রোডম্যাপ প্রস্তাব ঘোষণা করে। এ প্রস্তাব প্রণয়নে ভূমিকা রাখেন ইয়াসির আরাফাত।

ইসরাইল কর্তৃক দুই বছর ধরে রামাল্লা অবরোধের সময় ২০০৪ সালের শেষ দিকে ইয়াসির আরাফাতের স্বাস্থ্যের অবনতি হতে থাকে। পরে ২০০৪ সালের ১১ নভেম্বর ফ্রান্সের প্যারিসে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান এই মহান নেতা।

ফ্রান্সের সামরিক বাহিনী তার কফিনে গার্ড অব অনার প্রদান করেন এবং ফরাসি প্রেসিডেন্ট জ্যাক শিরাক আরাফাতকে একজন ‘বীর পুরুষ’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন।

মিশরের কায়রোতে তার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা উপস্থিত হয়ে এই মহান নেতার প্রতি সম্মান জানান।

জেরুজালেমে পবিত্র আল-আক্বসা মসজিদের পাশে সমাহিত করার পরিকল্পনা থাকলেও ইসরাইলের আপত্তির কারণে তাকে রামাল্লায় সমাহিত করা হয়।

ইয়াসির আরাফাতকে বিষক্রিয়া দ্বারা হত্যা করা হতে পারে বলে অনেক বিশ্লেষক অভিযোগ করেন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এ নিয়ে অনেক তদন্ত ও গবেষণা করে।

সর্বশেষ ২০১৫ সালে ফ্রান্সের এক চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ইয়াসির আরাফাতের মৃত্যুর কারণ ছিল স্বাভাবিক। তার দেহে পলোনিয়াম নামে যে বিষাক্ত পদার্থের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে, তা প্রাকৃতিক কারণেই হয়েছে বলে এ প্রতিবেদনে বলা হয়।

ইসরাইলের দৃষ্টিতে তিনি একজন বিতর্কিত ব্যক্তি হলেও ফিলস্তিনিসহ বিশ্বের নিপীড়িত মুক্তিকামী মানুষের কাছে ইয়াসির আরাফাত ছিলেন একজন পথ প্রদর্শক।

তিনি বলেছিলেন, “আমার এক হাতে জলপাই গাছের শাখা (শান্তির প্রতীক), আর এক হাতে যুদ্ধাস্ত্র। আমার হাত থেকে জলপাই গাছের শাখা পড়তে দিও না।”

  

টাইমস/এএইচ/জিএস

গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি: মেনন

গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি: মেনন

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও পরবর্তীতে উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদ...

চুক্তিতে ভারতকে শুধু দেয়ার কথা আছে, নেয়ার কথা নেই: খন্দকার মোশাররফ

চুক্তিতে ভারতকে শুধু দেয়ার কথা আছে, নেয়ার কথা নেই: খন্দকার মোশাররফ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রতিক ভারত সফরে দেশটির সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তির...

১৫-৩০ বছরের তরুণেরাই উগ্রবাদে জড়াচ্ছে: মনিরুল ইসলাম

১৫-৩০ বছরের তরুণেরাই উগ্রবাদে জড়াচ্ছে: মনিরুল ইসলাম

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড...

জাতীয়

চট্টগ্রামে খাটে মেয়ের, ফ্লোরে বাবার গলাকাটা লাশ

চট্টগ্রামে খাটে মেয়ের, ফ্লোরে বাবার গলাকাটা লাশ

চট্টগ্রামের বন্দর থানাধীন নিমতলা এলাকায় নিজ বাসা থেকে বাবা-মেয়ের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার বেলা ১১টার দিকে নিমতলার বুচুইক্যা কলোনির তিনতলা বাসার নিচতলা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বন্দর থানার ওসি সুকান্ত চক্রবর্তী

আন্তর্জাতিক

ভারতে ধর্মগুরুর আশ্রমে ৫০০ কোটি রুপির অবৈধ সম্পদ

ভারতে ধর্মগুরুর আশ্রমে ৫০০ কোটি রুপির অবৈধ সম্পদ

ভারতে এক কথিত ধর্মগুরুর আশ্রমে অভিযান চালিয়ে স্বর্ণ, হীরাসহ ৫০০ কোটি রুপির বেশি অবৈধ সম্পদ জব্দ করেছে দেশটির আয়কর বিভাগের কর্মকর্তা। ভারতের জাতীয় বিমা কোম্পানির একজন কেরানি ছিলেন। পরে তিনি নিজেকে কৃষ্ণের দশম অবতার হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করে ফেলেন। আয়কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগে সেই ‘কল্কি ভগবান’-র দেশের নানা আশ্রমেই এ বার হানা দিলেন আয়কর দপ্তরের কর্মকর্তারা। উদ্ধার হয়েছে হিসাব বহির্ভূত নগদ ৯৩ কোটি রুপি। সঙ্গে স্বর্ণ ও হীরা মিলিয়ে ৪০৯ কোটি রুপির সম্পত্তি।

জাতীয়

রংপুরে প্রেমে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে রাস্তায় ফেলে মারপিট

রংপুরে প্রেমে রাজি না হওয়ায় স্কুলছাত্রীকে রাস্তায় ফেলে মারপিট

রংপুরের তারাগঞ্জে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক স্কুলছাত্রীকে রাস্তায় ফেলে মারধরের অভিযোগ উঠেছে খাদেমুল ইসলাম (২১) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই যুবকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়ে পুলিশ।

জাতীয়

লাশের বাক্স ভেবে পুলিশকে খবর, মিলল পাউডার

লাশের বাক্স ভেবে পুলিশকে খবর, মিলল পাউডার

কাঠের একটি বাক্স দেখতে পেয়ে সেটিকেকে লাশের বাক্স মনে করে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে বাক্সটি খুলে দেখে, সেখানে আছে পাউডার। যা অগ্নিনির্বাপণের কাজে ব্যবহৃত হয়। শনিবার সকাল সাতটার দিকে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় এ ঘটনাটি ঘটে।

বিনোদন

পপির হাতে এক হালি!

পপির হাতে এক হালি!

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পপি। এক সময় তার নামে সিনেমাহলে ব্যবসা হতো। পপির সিনেমা প্রদর্শিত হলে সারিবদ্ধভাবে দর্শকরা ছুটে আসতো। কিন্তু হঠাৎ চলচ্চিত্র থেকে সরে দাঁড়ান পপি। এরপর আস্তে আস্তে কমতে থাকে তার জনপ্রিয়তা। এদিকে বহুদিন ধরে আবারো চলচ্চিত্রে ফিরলেন পপি। এসেই কয়েকটি সিনেমার কাজ এরই মধ্যে শেষ করেছেন তিনি। তবে এখনো এসবের কোন ছবিই প্রেক্ষাগৃহের দেখা পায়নি।

বিনোদন

এই অভিনেতার স্বপ্নে আসে ‘বারাক ওবামা’!

এই অভিনেতার স্বপ্নে আসে ‘বারাক ওবামা’!

মূলত তার এসব কথা শোনা যাবে বাংলাভিশনের জনপ্রিয় রম্য-বিদ্রুপাত্মক ‘টক মিষ্টি ঝাল’ অনুষ্ঠানে। এবারের পর্বটি সাজানো হয়েছে ‘ঘুম’ নিয়ে। সেখানে অতিথি হয়ে এসেছিলেন মাজনুন মিজান। এবারের পর্বে ‘মি. মিষ্টি’ সেগমেন্টে পারফর্ম করেবেন স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান মাহমুদুল হাসান রেজা। রয়েছে আল মামনুন জামানের নিয়মিত পরিবেশনা ‘ঝালাইবাজ’।