• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬
শিবসেনার দাবি

নির্বাচনে হেরে দিল্লিতে দাঙ্গা করছে বিজেপি

নির্বাচনে হেরে দিল্লিতে দাঙ্গা করছে বিজেপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০২:২২পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

নির্বাচনে হেরে গিয়েই দিল্লিতে দাঙ্গা শুরু করেছে বিজেপি, শিব সেনার মুখপাত্র হিসেবে পরিচিত ‘সামানা’ পত্রিকাটির একটি সম্পাদকীয়তে এমনটি দাবি করা হয়েছে। শিব সেনা বলছে, “এটি রহস্যজনক যে বিজেপি দিল্লির বিধানসভা নির্বাচন হেরে যাওয়ার কয়েক দিন পর থেকেই দাঙ্গা শুরু হয়েছে। বিজেপি হেরেছে এবং এখন দিল্লির এই অবস্থা।”

বুধবার দিল্লির চলমান সহিংসতাকে একটি ‘ভূতুরে সিনেমা’র সাথে তুলনা করে শিব সেনা বলেছে, এটি ১৯৪৮ সালের শিখ বিরোধী দাঙ্গার ভয়াবহ বাস্তবতাকে চিত্রিত করছে। এই “রক্তস্নাত” জাতীয় রাজধানীকে এমনভাবে কলঙ্কিত করেছে যা আগে কখনো ঘটেনি এবং এমন সময় যখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ভারতে ‘ভালবাসার’ বার্তা নিয়ে এসেছেন। এই সহিংসতা থেকে স্পষ্ট বার্তা ছড়িয়ে পড়ছে যে দিল্লিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখতে কেন্দ্রীয় সরকার ব্যর্থ হয়েছে।

সম্পাদকীয়টিতে বলা হয় “দিল্লিতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছে। লোকেরা লাঠি, তলোয়ার, রিভলভার সজ্জিত হয়ে রাস্তায় নেমে আসছে, রাস্তায় রক্ত ঝরানো হচ্ছে। দিল্লিতে এখন ভূতুরে সিনেমার মতো পরিস্থিতি দেখা যাচ্ছে, যা ১৯৮৪ সালের দাঙ্গার চরম বাস্তবতাকে চিত্রিত করে।”

তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর হত্যার পরে শুরু হওয়া ওই সহিংসতায় শত শত শিখের মৃত্যুর জন্য বিজেপি এখনও কংগ্রেসকে দোষারোপ করছে বলেও সম্পাদকীয়টিতে মন্তব্য করা হয়।

‘বিজেপি নেতাদের হুমকি ও উসকানি’র কথা মনে করিয়ে দিয়ে শিব সেনা বলছে যে, দিল্লির বর্তমান দাঙ্গার জন্য কে দায়ী, তা খোলাসা করা দরকার।

“জাতীয় রাজধানী এমন সময়ে জ্বলছিল, যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং মার্কিন রাষ্ট্রপতি ট্রাম্পের মধ্যে বৈঠক চলছে। সহিংসতার ভয়াবহ চিত্র, রাস্তায় রক্তপাত, মানুষের আর্তচিৎকার এবং টিয়ার গ্যাসের মাধ্যমে দিল্লিতে ট্রাম্পকে স্বাগত জানানো উচিৎ হয়নি। ট্রাম্প সাহেব দিল্লিতে এসেছিলেন প্রেমের বার্তা নিয়ে, কিন্তু তার সামনে কী ফুটে উঠল? আহমেদাবাদে ‘নমস্তে’ এবং দিল্লিতে সহিংসতা! এর আগে কখনোই দিল্লিকে এভাবে বদনাম করা হয়নি,” বলেও উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য যে, ট্রাম্প গুজরাটের আহমেদাবাদ থেকে তার ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারির ভারত সফর শুরু করেছিলেন। এর মধ্যে গত রোববার থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) নিয়ে উত্তর পূর্ব দিল্লির বেশ কয়েকটি অঞ্চল যে সংঘাতের শিকার হয়েছে, তাতে এখন পর্যন্ত বিশ জন মারা গেছেন এবং শতাধিক আহত হয়েছেন।

কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করে শিব সেনা বলেছে, “কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অভিযোগ করেছে যে ট্রাম্পের জাতীয় রাজধানীতে সফরকালে হিংসাত্মক ঘটনাটি ঘটিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে ভারতকে বদনাম করার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। সিএএ-কে কেন্দ্র করে ঘটা এই সহিংসতার ষড়যন্ত্রের কথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর না জানা থাকলে তা জাতীয় সুরক্ষার জন্য ক্ষতিকারক। একই রকম সাহসের সাথে দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণ করতে কোনও সমস্যা নেই, যেভাবে ৩৭০ এবং ৩৫ এ ধারা রদ করা হয়েছিল।”

আরো বলা হয়েছে যে, “কয়েকজন বিজেপি নেতা হুমকি ও উসকানিমূলক ভাষায় কথা বলার পরে সহিংসতা শুরু হয়েছিল। তাহলে, কেউ কি চাইছিল যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন (শাহীন বাগে) দাঙ্গায় বদলে যাক? (তারা) কমপক্ষে ট্রাম্পের দেশ ছাড়ার জন্য অপেক্ষা করতে পারত।”

বিজেপির প্রাক্তন মিত্র উদ্ধব ঠাকুরের নেতৃত্বাধীন ‘শিব সেনা’ দলটি এখন মহারাষ্ট্রে এনসিপি এবং কংগ্রেসের সাথে জোট করে ক্ষমতা ভাগাভাগি করছে। তথ্যসূত্র: পিটিআই।

 

টাইমস/এনজে/এইচইউ

করোনা ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর : নিউ ইয়র্ক গভর্নর

করোনা ধারণার চেয়েও ভয়ঙ্কর : নিউ ইয়র্ক গভর্নর

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কেন্দ্রস্থল নিউ ইয়র্ক। মঙ্গলবার অঙ্গরাজ্যটির গভর্নর অ্যান্ড্রু

ছুটি ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়বে: প্রধানমন্ত্রী

ছুটি ৯ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়বে: প্রধানমন্ত্রী

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিপূর্ণভাবে ঠেকাতে সব ধরণের ছুটি (সরকারি-বেসরকারি) আরও

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা হবে রোগটি থেকে সেরে ওঠা ব্যক্তির রক্তে

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা হবে রোগটি থেকে সেরে ওঠা ব্যক্তির রক্তে

করোনাভাইরাস সংক্রমিত হবার পর যারা সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাদের রক্তের

উক্তি প্রতিদিন

“ক্ষুধাতুর শিশু চায় না স্বরাজ, চায় দুটো ভাত একটু নুন”

“ক্ষুধাতুর শিশু চায় না স্বরাজ, চায় দুটো ভাত একটু নুন”

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম। ১৮৯৯ সালের ২৪ মে পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বিদ্রোহী কবি নামে খ্যাত। ১৯৭৪ সালের ৯ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবিকে সম্মানসূচক ডি.লিট উপাধিতে ভূষিত করে। ১৯৭৬ সালের জানুয়ারি মাসে নজরুলকে বাংলাদেশ সরকার নাগরিকত্ব প্রদান করে। একই বছরে তাকে একুশে পদকে ভূষিত করা হয়।

মতামত

করোনা কি বিশ্বজুড়ে শ্রমিক শ্রেণীকে বিদ্রোহী করে তুলবে?

করোনা কি বিশ্বজুড়ে শ্রমিক শ্রেণীকে বিদ্রোহী করে তুলবে?

করোনাভাইরাসের মহামারী ছড়িয়ে পড়ার ফলে ইতিমধ্যে গৃহবন্দী হয়ে পড়েছেন বিশ্বের মোট জনসংখ্যার প্রায় দুই পঞ্চমাংশ, বুধবার পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে আট লাখ। এই পরিস্থিতিতে সব থেকে বেশি ঝুঁকিতে আমাদের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি; বিশ্বের আপামর শ্রমিক শ্রেণী, খেটে খাওয়া দিনমজুর আর স্বল্প আয়ের লোকজন। দেশে দেশে কল কারখানাগুলি বন্ধ হয়ে পড়ছে, খেটে খাওয়া মানুষের আয়ের পথ রুদ্ধ হয়ে যাচ্ছে। রাষ্ট্র কর্তৃক ঘোষিত গৃহবন্দীর ফলে ঘরে আটকে থাকতে হচ্ছে দিন এনে দিন খাওয়া এসব লোকের।

জাতীয়

বাড়ির মালিকদের সহানুভূতিশীল হওয়ার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর

বাড়ির মালিকদের সহানুভূতিশীল হওয়ার আহ্বান বাণিজ্যমন্ত্রীর

করোনাভাইরাসের কারণে শ্রমিকদের বাড়িভাড়া বিবেচনা করার জন্য বাড়ির মালিকদের সহানুভূতিশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। মঙ্গলবার মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

আন্তর্জাতিক

গণহারে মাস্ক ব্যবহার বন্ধ করুন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

গণহারে মাস্ক ব্যবহার বন্ধ করুন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

গণহারে মাস্ক পরা থেকে বিরত থাকার নির্দেশনা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সংস্থাটি জানিয়েছে, সবাই গণহারে মাস্ক পরার কারণে গুরুত্বপূর্ণ এই চিকিৎসা সরঞ্জামের দাম বিশ্বব্যাপী বেড়ে যেতে পারে। ফলে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যারা রোগাক্রান্ত অথবা যারা চিকিৎসা সেবা প্রদানের সঙ্গে জড়িত তারাই শুধু মাস্ক ব্যবহার করুন। অন্যদের মাস্ক পরার প্রয়োজনীয়তা নেই।

বিনোদন

সুরে সুরে করোনা প্রতিরোধের নিয়ম শোনাবেন মমতাজ

সুরে সুরে করোনা প্রতিরোধের নিয়ম শোনাবেন মমতাজ

কণ্ঠশিল্পী ও সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম। এবার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ডাক দিলেন তিনি। ব্র্যাকের উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে গানটি গেয়েছেন এই শিল্পী।