• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭
অগ্রণী ব্যাংকের ২৫৮ কোটি টাকা আত্মসাৎ

দুই ব্যবসায়ী ও তিন ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

দুই ব্যবসায়ী ও তিন ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক০৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৫:৪২পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

অগ্রণী ব্যাংকের  টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুই ব্যবসায়ী ও তিন ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।  তাদের বিরুদ্ধে ২৫৮ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে।

বুধবার চট্টগ্রামের ডবলমুরিং থানায় মামলাটি করেন দুদকের সহকারী পরিচালক নেয়ামুল আহসান গাজী। দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযুক্তরা হলেন, মাররীন ভেজিটেবল অয়েল লিমিটেডের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহির আহমেদ, অগ্রণী ব্যাংকের উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) ও আগ্রাবাদ শাখার সাবেক শাখা ব্যবস্থাপক বেলায়েত হোসেন, সাবেক সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার রমিজ উদ্দিন এবং সাবেক সিনিয়র অফিসার ত্রিপদ চাকমা।

মামলার এজাহারে বলা হয়, অগ্রণী ব্যাংকের আগ্রাবাদ (জাহান ভবন) থেকে চট্টগ্রামের নূরজাহান গ্রুপের প্রতিষ্ঠান মাররীন ভেজিটেবল অয়েলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জহির আহমেদ ২০১১ সালের ১০ মার্চ ঋণের আবেদন করেন। আবেদনে মালয়েশিয়া অথবা ইন্দোনেশিয়া থেকে ৩৫ হাজার মেট্রিক টন ‘ক্রুড পামওলিন’ আমদানির জন্য ২০ শতাংশ মার্জিনে ১২০ দিন মেয়াদে প্রায় ৩২৭০ কোটি ৪ লাখ টাকার ঋণপত্র এবং মার্জিন অবশিষ্ট ২৬১ কোটি ৬৩ লাখ টাকার টিআর ঋণ মঞ্জুরের কথা বলা হয়। ব্যাংকের ওই শাখার তৎকালীন সিনিয়র অফিসার ত্রিপদ চাকমা ও সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার রমিজ উদ্দিন এ–সংক্রান্ত ঋণ প্রস্তাব তৈরি করেন। ওই ঋণ প্রস্তাব ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ক্রেডিট কমিটির সুপারিশ বা মতামতের আলোকে অনুমোদন দিলে অগ্রণী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে মঞ্জুরিপত্র দেওয়া হয়।

সেই মঞ্জুরিপত্রে মাররীন ভেজিটেবল অয়েলস লিমিটেডের অনুকূলে ২০১১ সালের ১৩ অক্টোবর থেকে ২০১২ সালের ২৩ মার্চ পর্যন্ত আটটি টিআর (ট্রাস্ট রিসিট) ও তিনটি পিএডি (পেমেন্ট অ্যাগেইনস্ট ডকুমেন্ট) ঋণ বাবদ মোট ২৮০ কোটি ৭২ লাখ ৩৮ হাজার ৩৭৩ টাকা বিতরণ করে অগ্রণী ব্যাংক। ঋণপত্রের বিপরীতে সংশ্লিষ্ট শাখায় মোট ১১টি আমদানি দলিল গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান আটটি আমদানি দলিলের প্রয়োজনীয় মার্জিন ব্যাংকের শাখায় জমা করে মূল দলিল দিয়ে আমদানি করা মালামাল খালাস করে। কিন্তু তিনটি আমদানি বিলের মূল দলিল ব্যাংকের শাখায় সংরক্ষিত থাকা অবস্থায় প্রতারণার মাধ্যমে জাল কাগজপত্র ব্যবহার করে ৯৮ কোটি ২৭ লাখ টাকার মালামাল চট্টগ্রাম কাস্টমস থেকে ছাড় করে। ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান মার্জিন ও অন্যান্য খাতে মোট ২২ কোটি ১৬ লাখ ২২ হাজার টাকা জমা দেয়। বাকি ২৫৮ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার ৩৭৩ টাকা আত্মসাৎ করে।

রেকর্ডপত্র পর্যালোচনা করে দুদক বলছে, নূরজাহান গ্রুপের প্রতিষ্ঠান মাররীন ও জাসমীর ভেজিটেবল অয়েলসের কাছে অগ্রণী ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় ২০১১ সালের ১ মে পর্যন্ত ২৩৩ কোটি ৫১ লাখ টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ ঋণ অনাদায়ি ছিল। নতুন ঋণ অনুমোদনের মঞ্জুরিপত্রের ১ নম্বর শর্তে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও এর সহযোগী প্রতিষ্ঠানের কাছে ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় টিআর ঋণের মেয়াদোত্তীর্ণ দায় পরিশোধ সাপেক্ষে ঋণসুবিধা কার্যকর করার শর্ত ছিল। কিন্তু তা প্রতিপালন না করেই ২৮০ কোটি ৭২ লাখ ৩৮ হাজার ৩৭৩ টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়।

এ ছাড়া ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক লেনদেনের গাইডলাইনে সহায়ক জামানত হিসেবে সহজেই নগদায়নযোগ্য তরল সম্পদ অথবা কেবল শহর এলাকায় অবস্থিত স্থাবর সম্পত্তি (ক্রেডিট সুবিধার পরিমাণের দ্বিগুণ মূল্যের সম্পত্তি) জামানত রাখার নির্দেশনা থাকলেও তা অনুসরণ করা হয়নি। জামানত হিসেবে শুধু টিআরের সমপরিমাণ চেক (অগ্রিম তারিখ সংবলিত) গ্রহণ করেই ওই ঋণ দেওয়া হয়। কিন্তু গ্রাহকের ব্যাংক হিসাবে প্রয়োজনীয় টাকা না থাকায় চেক নগদায়ন করে ঋণের টাকা আদায় করা সম্ভব হয়নি।

এজাহারে বলা হয়েছে, ঋণের বিপরীতে ব্যাংকের কাছে কোনো সহায়ক জামানত না থাকা এবং ওই ঋণের টাকা আদায় করতে না পারায় সরকারের বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। এ ক্ষেত্রে ব্যাংকের কর্মকর্তারা পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিজে অথবা অন্যকে আর্থিকভাবে লাভবান করার অসৎ উদ্দেশ্যে কাজ করেছেন। প্রয়োজনীয় বিধি-বিধান অনুসরণ না করেই মাররীন ভেজিটেবল অয়েলস লিমিটেডের অনুকূলে ঋণ বিতরণ এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ঋণের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে যথাযথভাবে দায়িত্ব (আমদানি করা মালামালের ওপর নিবিড় তদারকি, স্টক পরিদর্শন) পালন করেননি। এ কারণে ঋণগ্রহীতা প্রতিষ্ঠান ওই টাকা পরিশোধ না করে প্রতারণা, জালিয়াতি ও মানিলন্ডারিংয়ের মাধ্যমে ২৫৮ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার ৩৭৩ টাকা আত্মসাৎ করে শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।

 

 

টাইমস/এসআই

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই, আরও ২৯ জনের মৃত্যু

করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছেই, আরও ২৯ জনের মৃত্যু

দেশে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। গত ২৪

বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিল, ঢাকার চার প্রকৌশলী বরখাস্ত

বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিল, ঢাকার চার প্রকৌশলী বরখাস্ত

ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল করার অভিযোগে ঢাকা পাওয়ার ডিস্টিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের

করোনায় স্থগিত যশোর-বগুড়ার উপনির্বাচন ১৪ জুলাই

করোনায় স্থগিত যশোর-বগুড়ার উপনির্বাচন ১৪ জুলাই

আগামী ১৪ জুলাই যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ

জাতীয়

করোনায় মৃতের হিসেবে শীর্ষে যে এলাকা

করোনায় মৃতের হিসেবে শীর্ষে যে এলাকা

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের পর থেকে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা একই গতিতে এগিয়ে চলেছে। খুব বেশি উত্থান পতন নেই মৃত্যু ও আক্রান্তের হারে। বলা যেতে পারে, দেশে করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই ছকে বাঁধা। তারপরও প্রতিদিনই মানুষ মরছে, আক্রান্ত হচ্ছে অনেকে।

জাতীয়

১০ ঘণ্টার ব্যবধানে পাঁচশ গজ দূরে মিলল বাবা-ছেলের লাশ

১০ ঘণ্টার ব্যবধানে পাঁচশ গজ দূরে মিলল বাবা-ছেলের লাশ

ট্রলার বোঝাই চাই নিয়ে (মাছ ধরায় ব্যবহার হয়) ইয়াসিন হাওলাদার (২৫) ও তার বাবা হেলাল উদ্দিন হাওলাদার (৫০) শুক্রবার বরিশালের বাকেরগঞ্জের কবাই হাটে আসে। সেখানকার এক ব্যক্তি তাদের কাছ থেকে ৬০টি চাই ক্রয় করেন। এরপর ওই চাই তার বাড়িতে দিয়ে আসতে বলেন। ট্রলারসহ চাই পৌঁছে দিতে গিয়ে তারা আর ফিরে আসেনি।

জাতীয়

ঈদের আগেই শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধ করুন: কাদের

ঈদের আগেই শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধ করুন: কাদের

ঈদুল আজহার আগেই পোশাক শিল্পসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে কর্মরত শ্রমিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধের আহ্বান জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এছাড়া কারখানা মালিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, শ্রমিকদের প্রতি সহমর্মিতা দেখান। মানুষের পাশে দাড়ান।

জাতীয়

বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েও ভর্তি হতে না পারা ছেলেটি এখন বিসিএস ক্যাডার!

বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পেয়েও ভর্তি হতে না পারা ছেলেটি এখন বিসিএস ক্যাডার!

আল আমিন (নাফিস)। ৩৮ তম বিসিএসে আনসার ক্যাডারে সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন। মেধাক্রম ৮ম। তিনি ৩৬ তম বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে উত্তীর্ণ হয়ে বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর সরকারি কলেজে বোটানি বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কর্মরত আছেন।

জাতীয়

বিএসএফের সঙ্গে তর্ক করায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

বিএসএফের সঙ্গে তর্ক করায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বেপরোয়া ভাব থামছেই না। প্রতিদিনই কোনো না কোনো বাংলাদেশীকে নির্বিচারে গুলি করে হত্যা করছে বিএসএফ। এনিয়ে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ্য থেকেও কোনো প্রতিক্রিয়া দেখানো হচ্ছে না। এতে করে আরও পেয়ে বসেছে বিএসএফ। সীমান্তে বেড়েই চলেছে বিএসএফের বর্বরতা।

স্বাস্থ্য

হাই ব্লাড প্রেসারে ভয়াবহ হতে পারে কোভিড সংক্রমণ

হাই ব্লাড প্রেসারে ভয়াবহ হতে পারে কোভিড সংক্রমণ

দীর্ঘদিন ধরে রক্তচাপজনিত অসুখ বা হাই ব্লাড প্রেসারের সমস্যায় ভুগছেন, এসব ব্যক্তির ক্ষেত্রে লিঙ্গ, বয়স নির্বিশেষে সংক্রমণের ঝুঁকি অনেকটাই বেশি। তাদের ক্ষেত্রে ঝুঁকি কেন বেশি, এই নিয়ে ক্লিনিক্যাল মেডিসিন জার্নালের রিসার্চ বলছে, উচ্চ রক্তচাপ মানেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম। তাই ভাইরাস যুদ্ধে জয়ের সম্ভাবনাও কম।