• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ০৫ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

স্কুলগামী কিশোরীদের প্রেগনেন্সি টেস্ট বাধ্যতামূলক!

স্কুলগামী কিশোরীদের প্রেগনেন্সি টেস্ট বাধ্যতামূলক!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক১৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৪৬এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

ভালো স্কুলগুলোতে ভর্তির ক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবেই অনেক বেশি প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হতে হয়। আবার কিছু প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। কিন্তু পূর্ব আফ্রিকার প্রজাতান্ত্রিক রাষ্ট্র কেনিয়ায় স্কুলে ভর্তি হতে কিশোরীদের প্রেগনেন্সি টেস্টের (গর্ভধারণ পরীক্ষা) রিপোর্ট জমা দিতে হয়। বিষয়টি শ্রুতিকটু হলেও ঘটনাটি একদমই সত্য। সম্প্রতি দেশটির নারুক শহরে এই অদ্ভুত নিয়মটি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এতে বলা হয়েছে, স্কুলগামী কিশোরীদের প্রেগনেন্সি ও এফজিএম পরীক্ষা করা বাধ্যতামূলক।

এফজিএম হচ্ছে আফ্রিকার বেশ কিছু দেশে প্রচলিত একটি সামাজিক প্রথা, যেখানে জন্মের পর মেয়েদের জননাঙ্গের বিশেষ অংশ কেটে ফেলা হয়। যা আইনগতভাবে অবৈধ।

নারুক প্রশাসনের আইন অনুযায়ী স্কুলগামী কিশোরীদেরকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ফিমেল জেনিটাল মিউটিলেশন (এফজিএম) ও গর্ভবতী কিনা তা পরীক্ষা করে স্কুল কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট দিতে হবে।

নারুক কান্ট্রি কমিশনার জর্জ নাতেম্বেয়া বলেন, যাদের এফজিএম হয়েছে বলে ধরা পড়বে, তাদেরকে পুলিশ প্রতিবেদন দিতে হবে। আর যারা গর্ভবতী বলে পরীক্ষায় ধরা পড়বে, তাদেরকে এই কাজের জন্য দায়ী পুরুষকে খুঁজে বের করতে হবে।

কেন এই অদ্ভূদ নিয়ম? এর উত্তরে জানা যায়, কেনিয়ার নারুক শহরে কিশোরীদের গর্ভবতী হবার হার সবচেয়ে বেশি। তাছাড়া স্থানীয় মাসাই সম্প্রদায়ের মধ্যে অবৈধ এফজিএম প্রথার অনুশীলন ব্যাপক। যদিও ইতোমধ্যে ২০১১ সালে কেনিয়ায় এফজিএম প্রথা নিষিদ্ধ করা হয়। তাই এফজিএম ও কিশোরী বয়সে গর্ভধারণ প্রতিরোধ করতেই সরকার এমন আইন করেছে বলে জানান কমিশনার জর্জ নাতেম্বেয়া।

তবে এফজিএম প্রতিরোধে চেষ্টা করার জন্য কর্তৃপক্ষের উদ্যোগকে স্বাগত জানালেও স্কুলগামী কিশোরীদের এফজিএম ও প্রেগনেন্সি পরীক্ষার এই কৌশলের তীব্র সমালোচনা করছেন মানবাধিকার কর্মীরা।

তাদের মতে, এফজিএম ও কিশোরী গর্ভাবস্থার জন্য মূলত যেসব উপাদান দায়ী, সেদিকে গুরুত্ব না দিয়ে স্কুলগামী কিশোরীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার এমন কৌশল আদৌ কাজে আসবে না। বরং এ ধরনের উদ্যোগ স্কুলগামী কিশোরীদের জন্য চরম অপমানজনক ও মানবাধিকারের লংঘন।

মানবাধিকার কর্মী ফেলিস্টার গিতঙ্গা বলেন, এফজিএম প্রতিরোধে আমাদের ভিন্ন কোনো কৌশল গ্রহণ করতে হবে, যা কিশোরীদের গোপনীয়তার নিশ্চয়তা দেবে এবং এ তথ্যগুলো ব্যবহার করার জন্য আমাদের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা থাকতে হবে।

একই সঙ্গে যেসব কিশোরীর এফজিএম হয়েছে বলে জানা যাবে তাদের পরিণতি কী হবে? তারা কি যথেষ্ট মনোসামাজিক সহযোগিতা পাবে? নাকি তাদেরকে স্কুলে ভর্তি হবার অনুমিতি দেয়া হবে না? এসব ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট নীতিমালা থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেন এই মানবাধিকার কর্মী।

 

টাইমস/এএইচ/জিএস

করোনায় আক্রান্ত আ'লীগের আরেক এমপি, এনিয়ে ৪ জন

করোনায় আক্রান্ত আ'লীগের আরেক এমপি, এনিয়ে ৪ জন

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনের আওয়ামী লীগের এমপি

যেভাবে মাত্র ৭ দিনে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর করোনা জয়!

যেভাবে মাত্র ৭ দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর করোনা জয়!

আসলে কতটুকু সচেতনতা আমাদেরকে জয় এনে দিতে পারে নভেল করোনা

সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত গণস্বাস্থ্যের কিটের উদ্ভাবক ড. ফিরোজ

সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত গণস্বাস্থ্যের কিটের উদ্ভাবক ড. ফিরোজ

এবার সস্ত্রীক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ড. ফিরোজ আহমেদ। তিনি গণস্বাস্থ্য

আন্তর্জাতিক

করোনায় আক্রান্ত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিহত সেই জর্জ ফ্লয়েড!

করোনায় আক্রান্ত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিহত সেই জর্জ ফ্লয়েড!

যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের হাতে নিহত কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েড করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বুধবার তার চূড়ান্ত ময়নাতদন্তের

জাতীয়

বরিশালে দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসক

বরিশালে দ্বিতীয়বার করোনায় আক্রান্ত চিকিৎসক

করোনা থেকে সুস্থ হওয়ার কিছুদিন পর আবার করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বরিশালের এক চিকিৎসক। তার নাম মো. শিহাবউদ্দিন। তিনি বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালট্যান্ট (সার্জারি)।

অর্থনীতি

চলতি জুন থেকেই শুরু শ্রমিক ছাঁটাই: রুবানা হক

চলতি জুন থেকেই শুরু শ্রমিক ছাঁটাই: রুবানা হক

‘চলতি জুন থেকে শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হবে। এটি অনাকাঙ্ক্ষিত বাস্তবতা। কিন্তু করার কিছু নেই। কারণ শতকরা ৫৫ শতাংশ ক্যাপাসিটিতে ফ্যাক্টরি চলছে। আমাদের ছাঁটাই ছাড়া কোনো উপায় থাকবে না। তবে এ ছাঁটাই প্রক্রিয়ায় শ্রমিকদের জন্য কী করা হবে; এ বিষয়ে সরকারের সঙ্গে কথা বলছি, কীভাবে এ সংকট মোকাবিলা করা যায়। তবে এ অবস্থা হঠাৎ করে বদলেও যেতে পারে। তখন ছাঁটাই হওয়া শ্রমিকরাই কাজে যোগ দেয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন।’

জাতীয়

ভিন্ন নামে ২০০ বার একই নম্বর, সেই ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

ভিন্ন নামে ২০০ বার একই নম্বর, সেই ইউপি চেয়ারম্যান বরখাস্ত

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে দরিদ্রদের জন্য প্রধানমন্ত্রী নগদ আড়াই হাজার টাকা অর্থ সহায়তার তালিকায় ভিন্ন ভিন্ন নামে একই মোবাইল নম্বর সর্বোচ্চ ২০০ বার ব্যবহার করেছিলেন হবিগঞ্জের এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান। তার নাম রফিকুল ইসলাম মলাই। তিনি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ওই চেয়ারম্যানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সরকার।

জাতীয়

করোনা: নতুন শনাক্ত ২৪২৩, মৃত্যু ৩৫ জনের

করোনা: নতুন শনাক্ত ২৪২৩, মৃত্যু ৩৫ জনের

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন আরও দুই হাজার ৪২৩ জন। ফলে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৭ হাজার ৫৬৩ জনে। একই সময়ে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে নতুন করে মারা গেছেন ৩৫ জন। ফলে করোনায় মোট মারা গেলেন ৭৮১ জন।

স্বাস্থ্য

মাস্ক না ফেস শিল্ড, কোনটি বেশি নিরাপদ?

মাস্ক না ফেস শিল্ড, কোনটি বেশি নিরাপদ?

কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্তের গ্রাফ ক্রমেই উর্ধমুখী। এর মধ্যেই যেতে হচ্ছে বিভিন্ন অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। রাস্তা ও যানবাহনে সামাজিক দূরত্বের মাপকাঠি বজায় থাকছে না বললেই চলে। এদিকে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা থেকে জানানো হচ্ছে- করোনাভাইরাসের মারণক্ষমতা একটুও কমেনি। কাজেই লকডাউন তোলার পর্যায়ে খুব সতর্ক থাকতে হবে। বাড়তি সতর্কতা হিসেবে অনেকেই মাস্কের উপর স্বচ্ছ প্লাস্টিকের মুখাবরণ বা ফেস শিল্ড পরছেন।