• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

শিশুদের শুধু পড় পড় বলা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

শিশুদের শুধু পড় পড় বলা যাবে না: প্রধানমন্ত্রী

সেন্ট্রাল ডেস্ক১৩ মার্চ ২০১৯, ০৪:৫৭পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

শিশুদের পড়াশোনার জন্য অতিরিক্ত চাপ না দিতে অভিভাবক, শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে আমি এটুকুই বলব, কোনো মতেই যেন কোমলমতি শিশুদের অতিরিক্ত চাপ না দেয়া হয়। তাহলেই দেখবেন তারা ভেতরে একটা আলাদা শক্তি পাবে। আর তাদের শিক্ষার ভীতটা শক্তভাবে তৈরি হবে।’

কোমলমতি বয়সে লেখাপড়ার কঠোর শৃঙ্খলে আবদ্ধ করাকে তিনি ‘এক ধরনের মানসিক অত্যাচার’ বলে অভিহিত করে বলেন,‘শিশুরা প্রথমে স্কুলে যাবে এবং হাসি খেলার মধ্য দিয়েই লেখাপড়া করবে। তারা তো আগে থেকেই পড়ে আসবে না, পড়ালেখা শিখতেই তো সে স্কুলে যাবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে শিক্ষার্থীদের বেশি বেশি সম্পৃক্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী শিশুদের পাঠদান সম্পর্কে নিজস্ব অভিব্যক্তি সকলের সঙ্গে ভাগাভাগি করতে গিয়ে বলেন,‘পৃথিবীর অনেক দেশেই ৭ বছরের আগে শিশুদের স্কুলে পাঠায় না। কিন্তু আমাদের দেশে অনেক ছোটবেলা থেকেই বাচ্চারা স্কুলে যায়। কিন্তু তারা যেন হাসতে খেলতে মজা করতে করতে পড়াশোনাটাকে নিজের মত করে করতে পারে সেই ব্যবস্থাটাই করা উচিত।

সেখানে অনবরত ‘পড়’,‘পড়’,‘পড়’ বলাটা বা ধমক দেয়াটা বা আরো বেশি চাপ দিলে শিক্ষার ওপর তাদের আগ্রহটা কমে যাবে, একটা ভীতির সৃষ্টি হবে,বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘শিক্ষার প্রতি সেই ভীতিটা যেন সৃষ্টি না হয়, সেজন্য আমি আমাদের শিক্ষক এবং অভিভাবকদেরকে অনুরোধ করব।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনেক সময় আমরা দেখি প্রতিযোগিতাটা শিশুদের মধ্যে না হলেও বাবা-মায়ের মধ্যে একটু বেশি হয়ে যায়। এটাকেও আমি একটি অসুস্থ প্রতিযোগিতা বলে মনে করি।’

তিনি বলেন, সকল শিক্ষার্থীর সমান মেধা থাকবে না এবং সকলেই সবকিছু একরকম করায়াত্ত করতে পারবে না। তবে, যার যেটি যেভাবে সহজাতভাবে আসবে তাকে সেটি গ্রহণ করার সুযোগ দেওয়া যেন শিক্ষাটাকে সে আপন করে নিয়ে সে শিখতে পারে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম আল হোসেন স্বাগত বক্তৃতা করেন।

প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে ‘প্রাথমিক শিক্ষা পদক’ বিতরণ করেন এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকাণ্ডের ওপর একটি ভিডিও চিত্রও প্রদর্শিত হয়।

প্রাথমিক শিক্ষাটা যেন আরো উন্নত এবং মান সম্মত হয় তার প্রতি দৃষ্টি রাখছে তার সরকার উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সকল শিশুর মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২০১৮-২০২৩ মেয়াদের জন্য ৩৮ হাজার ৩৯৭ কোটি টাকার চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে।’

শিক্ষার ক্ষেত্রে অর্থ ব্যয়ে সরকারের কোন কার্পণ্য নেই উল্লেখ করে তিনি তার সরকারের শিশু কল্যাণ ট্রাস্টের কল্যাণমূলক কার্যক্রমও আলোচনায় তুলে আনেন।

তিনি বলেন,‘শিশু কল্যাণ প্রাথমিক বিদ্যালয় চালু, ঝড়েপড়া রোধকল্পে বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে স্কুলের পোশাকসহ সকল শিক্ষা উপকরণ প্রদান, শিক্ষা ভাতা ও ক্ষেত্র বিশেষে পরীক্ষার ফি প্রদান করাসহ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জন্য তাদের নিজেদের ভাষায় শিক্ষা প্রদানের উদ্যোগ এবং অন্ধদের জন্য ব্রেইল বই এবং শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের জন্যও বই প্রদান ও হেয়ারিং এইড প্রদানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে শিক্ষার্থীদের বেশি বেশি সম্পৃক্ত করার আহবান জানিয়ে বলেন, তার সরকার এ জন্য প্রত্যেক উপজেলায় একটি করে মিনি স্টেডিয়াম করে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, পর্যায়ক্রমে শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য এই মিনি স্টেডিয়াম ইউনিয়ন পর্যায়েও করে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হবে।

এসব স্টেডিয়ামগুলোতে সারা বছরই যেন বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও খেলাধুলার আয়োজন থাকে সেদিকে দৃষ্টি দেয়ার জন্যও তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষতে আহ্বান জানান।

এ সময় প্রতিটি স্কুলে ধর্মীয় শিক্ষা এবং সাংস্কৃতিক চর্চায় তার সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এভাবেই শিক্ষাকে আমরা সার্বজনীন ও বহুমুখী করে দিচ্ছি।’

 

 

টাইমস/এসআই

লবণের দাম বেশি নিলে জেলে পাঠান, জরিমানা করুন: ভোক্তা অধিদপ্তরকে বাণিজ্যমন্ত্রী

লবণের দাম বেশি নিলে জেলে পাঠান, জরিমানা করুন: ভোক্তা অধিদপ্তরকে বাণিজ্যমন্ত্রী

লবণের দাম যারা বাড়াচ্ছে তাদের জেলে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী

লবণের ভালো-মন্দ দিক

লবণের ভালো-মন্দ দিক

লবণ বা নুন​ হলো খাদ্যে ব্যবহৃত এক প্রকারের দানাদার পদার্থ,

ব্যায়ামের আগে যেসব খাবার খেতে মানা

ব্যায়ামের আগে যেসব খাবার খেতে মানা

যারা জিমে গিয়ে ব্যায়াম করেন, তাদের জিমের প্রশিক্ষকরা পরামর্শ দেন

আন্তর্জাতিক

প্রধান শিক্ষককে খুঁটিতে বেঁধে শাস্তি

প্রধান শিক্ষককে খুঁটিতে বেঁধে শাস্তি

বিদ্যালয়ে সময় মতো উপস্থিত না হলে সাধারণত শিক্ষার্থীদের শাস্তি পেতে হয়। তবে এবার ঘটেছে তার উল্টো ঘটনা। সময় মতো বিদ্যালয়ে না আসায় প্রধান শিক্ষককে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে শাস্তি দিয়েছেন অভিভাবকরা।

রাজনীতি

মানুষকে জিম্মি করে পরিবহন ধর্মঘট করবেন না: নাসিম

মানুষকে জিম্মি করে পরিবহন ধর্মঘট করবেন না: নাসিম

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, আমাদের সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। দেশবাসীকে অনুরোধ করব নতুন সড়ক পরিবহন আইন হয়েছে, তা আপনারা মেনে চলুন। আর পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের অনুরোধ করব মানুষকে জিম্মি করে ধর্মঘট করবেন না। মঙ্গলবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এই আহবান জানান তিনি।

জাতীয়

চাহিদার চেয়ে ৬ গুণ বেশি লবণ মজুদ আছে: শিল্প মন্ত্রণালয়

চাহিদার চেয়ে ৬ গুণ বেশি লবণ মজুদ আছে: শিল্প মন্ত্রণালয়

লবণ নিয়ে সারা দেশে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। সে গুজবে কাউকে কান না দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে শিল্প মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, দেশের চাহিদার তুলনায় ছয় গুণ বেশি লবণ মজুদ আছে। মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সঙ্কট রয়েছে মর্মে গুজব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ ধরনের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।’

রাজনীতি

সাবেক মন্ত্রী মীর নাছিরের ১৩ বছরের সাজা বহাল

সাবেক মন্ত্রী মীর নাছিরের ১৩ বছরের সাজা বহাল

দুর্নীতির মামলায় বিএনপি নেতা মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিনকে ১৩ বছরের সাজা বহাল রেখেছে হাইকোর্ট। তাছাড়া নাছির উদ্দিনের ছেলে মীর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনকে দেওয়া তিন বছরের কারাদণ্ডও বহাল রেখেছে আদালত। মঙ্গলবার এই রায় দেয় বিচারপতি এ কে এম আব্দুল হাকিম ও বিচারপতি ফাতেমা নজীবের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

জাতীয়

গুলিস্তানের যাত্রীরা সদরঘাট যান ঘুমিয়ে!

গুলিস্তানের যাত্রীরা সদরঘাট যান ঘুমিয়ে!

রাজধানীর গুলিস্তান থেকে সদরঘাট পর্যন্ত মাত্র তিন কিলোমিটার পথ। আর এই পথের অনেক যাত্রী বাসে উঠেই ঘুমিয়ে পড়েন। এর কারণ জানতে চাইলে  যাত্রীরা জানায়, এই পথে যেতে কমপক্ষে পাঁচবার ট্রাফিক সিগন্যালে পড়তে হয়। আর এতেই কেটে যায় এক থেকে দেড় ঘণ্টা। তাই অনেকে এই সময়ে ঘুমিয়ে পড়ে। আরমান  হেকিম নামে এক যাত্রী জানান, যে পথ হেঁটে পাড়ি দিতে সময় লাগে ৩০ থেকে ৩৫ মিনিট। সেই পথ বাসে পাড়ি দিতে লাগে এক ঘণ্টার বেশি সময়। এই রুটে সবচেয়ে বেশি যানজট থাকে রোববার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

বিনোদন

সিনেমা হল কেন দর্শকশূন্য, জানালেন পূর্ণিমা

সিনেমা হল কেন দর্শকশূন্য, জানালেন পূর্ণিমা

ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় মুখ পূর্ণিমা। বর্তমানে মানুষ কেন সিনেমা হলে যায় না, এই প্রসঙ্গে বাংলাদেশ টাইমস প্রতিনিধির কাছে মুখ খুললেন তিনি।