• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬

শিরোপার স্বপ্নপূরণ টাইগারদের

শিরোপার স্বপ্নপূরণ টাইগারদের

স্পোর্টস ডেস্ক১৮ মে ২০১৯, ০৯:১৩এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

১৯৯৮ সালের ১৭ মে ভারতে কেনিয়াকে হারিয়ে বাংলাদেশ পেয়েছিল ওয়ানডেতে প্রথম জয়ের দেখা। ২১ বছর পর সেই দিনেই ঘুচল বড় আক্ষেপ। শেষ হলো প্রতীক্ষা। সেই অধরা স্বপ্নটা ধরা দিল বাংলাদেশের হাতের মুঠোয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথমবার বাংলাদেশের পাশে লেখা হলো, ‘চ্যাম্পিয়ন’। আর এ কাব্যিক জয়ের দুই নায়ক সৌম্য সরকার আর মোসাদ্দেক হোসেন।

বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ফাইনাল ম্যাচ জয়ের জন্য ২৪ ওভারে ২১০ রানের টার্গেট পায় বাংলাদেশ। ওপেনার সৌম্য সরকারের ৬৬ ও মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেকের অপরাজিত ৫২ রানের সুবাদে ২২ দশমিক ৫ ওভারে ২১৩ রান তুলে ফাইনাল ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা।

ওপেনার সৌম্য ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা এবং মোসাদ্দেক ২টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন।

ডাবলিনের মালাহাইডে শুক্রবার শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০.১ ওভারে ১৩১ রান করার পর বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়। সোয়া পাঁচ ঘণ্টা রোদ-মেঘ-বৃষ্টির লুকোচুরির পর খেলা শুরু হলে ম্যাচ নেমে আসে ২৪ ওভারে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ তোলে ১ উইকেটে ১৫২ রান। ডাকওয়ার্থ-লুইসে বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ২১০। সৌম্য-মোসাদ্দেকরা জয় এনে দিয়েছেন ৭ বল বাকি থাকতে।

বৃষ্টির আগ পর্যন্ত ম্যাচ ছিল পুরোটাই ওয়েস্ট ইন্ডিজময়। শেই হোপ ও সুনিল আমব্রিসের দুর্দান্ত জুটিতে শুরুটা ছিল তাদের দাপুটে।

টানা তিন ম্যাচ হারের পর এ দিন টস ভাগ্যকে পক্ষে পান মাশরাফি বিন মুর্তজা। মেঘলা আকাশের নীচে, বৃষ্টির শঙ্কায় থাকা ম্যাচে নামেন বোলিংয়ে।

মাশরাফি নিজে ও সাইফ বোলিংয়ের শুরুটা করেছিলেন আঁটসাঁট। প্রথম ৫ ওভারে রান ছিল ১৫। বাউন্ডারি কেবল একটি। ষষ্ঠ ওভারে সাইফের বোলিংয়ে তিনটি বাউন্ডারি মেরে আমব্রিস ঝেরে ফেলেন জড়তা। ছুটতে থাকে দু'জনের রান রথ।

দু'জনের দারুণ ব্যাটিংয়ে যখন বাংলাদেশকে মনে হচ্ছিল অসহায়, তখনই বৃষ্টির হানা। খেলা বন্ধ থাকে লম্বা সময়।

বৃষ্টির পর যখন খেলা শুরু হয়, ডাকওয়ার্থ-লুইসে তখনই বাংলাদেশের লক্ষ্য ছিল বড় কিছুর পথে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাই বেছে নেয় নিরাপদ ব্যাটিংয়ের পথ। এর মাঝেও ছক্কা মারতে গিয়ে সীমানায় ধরা পড়েন ৬৪ বলে ৭৪ রান করা হোপ।

খেলা শুরুর পর বাকি ২৩ বলে ক্যারিবিয়ানরা তোলে ২১ রান। ৭৮ বলে ৬৯ রানে অপরাজিত থেকে যান আমব্রিস।

বাংলাদেশের জন্য ম্যাচটি তখন কার্যত টি-টোয়েন্টি। সময়ের ডাক শুনেই খেলার শুরুতেই সৌম্য ছুটতে থাকেন ঝড়ের বেড়ে। আরেক পাশে তামিম ইকবাল ৪ রানে জীবন পেয়ে দিতে থাকেন সঙ্গ।

পাওয়ার প্লের ৫ ওভারে বাংলাদেশ তোলে ৫০ রান। তাতে সৌম্যর অবদান ছিল ২০ বলে ৩৯, তামিম ১০ বলে ১০। শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে দুটি বাউন্ডারিতে গা ঝারা দেন তামিমও। কিন্তু টানা তৃতীয় বলে বেরিয়ে এসে মারতে গিয়ে বিলিয়ে আসেন উইকেট। তিনে নামা সাব্বিরকেও ওই ওভারে ফেরান গ্যাব্রিয়েল।

সৌম্যর ব্যাট দলকে এগিয়ে নেয় আরও অনেকটা দূর। যথারীতি শুরু থেকেই দারুণ খেলতে থাকেন মুশফিকুর রহিম। তবে দু'জনই সম্ভাবনাময় ইনিংসকে রূপ দিতে পারেননি পূর্ণতায়। ৪১ বলে ৬৬ করে বিদায় নেন সৌম্য। ২২ বলে ৩৬ করে ফেরেন মুশফিক।

মিঠুনের ১৪ বলে ১৭ রানের ইনিংসও শেষ হয়েছে কাজ শেষ করতে না পারার আক্ষেপে। সেই হতাশা উড়ে গেছে মাহমুদউল্লাহ ও মোসাদ্দেকের ব্যাটে। একপাশে মাহমুদউল্লাহ আগলে রেখেছেন উইকেট। আরেকপাশে ব্যাটিংয়ে দলকে জয়ের পথে নিয়ে গেছেন মোসাদ্দেক।

৩ ওভারে যখন প্রয়োজন ২৭ রান, ফ্যাবিয়ান অ্যালেনের বাঁহাতি স্পিনে মোসাদ্দেক হোসেনের তিন ছক্কা ও ১ চার নিশ্চিত করে দেয় জয়। ২০ বলে ফিফটি ছুঁয়ে মোসাদ্দেক গড়েন বাংলাদেশের দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড। মোসাদ্দেকের ব্যক্তিগত এই মাইলফলক রূপ নেয় দলের জয়ের মহাউচ্ছ্বাসে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ২৪ ওভারে ১৫২/১ (হোপ ৭৪, আমব্রিস ৬৯*, ব্রাভো ৩*; মাশরাফি ৬-০-২৮-০, সাইফ ৫-০-২৯-০, মুস্তাফিজ ৫-০-৫০-০, মোসাদ্দেক ২-০-৯-০, মিরাজ ৪-০-২২-১, সাব্বির ২-০-১২-০)।

বাংলাদেশ: ২২.৫ ওভারে ২১৩/৪ (তামিম ১৮, সৌম্য ৬৬, সাব্বির ০, মুশফিকুর ৩৬, মিঠুন ১৭, মাহমুদউল্লাহ ১৯*, মোসাদ্দেক ৫২*; নার্স ৩-০-৩৫-০, হোল্ডার ৪-০-৩১-০, রোচ ৫-০-৫৭-০, গ্যাব্রিয়েল ৩-০-৩০-২, রিফার ৩.৫-০-২৩-২, অ্যালেন ৪-০-৩৭-১)।

ফল: বাংলাদেশ ৫ উইকেটে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: মোসাদ্দেক হোসেন

ম্যান অব দা টুর্নামেন্ট: শেই হোপ

 

টাইমস/জিএস

এবার কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে র‍্যাবের অভিযান

এবার কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে র‍্যাবের অভিযান

ঢাকার ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাব ও ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে ক্যাসিনো পাওয়ার পর এবার কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ক্লাবটিতে অভিযান শুরু হয়। এর আগে শুক্রবার বিকালে নিকেতনে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামীমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে র‌্যাবের অভিযান শেষ হওয়ার আগেই কলাবাগান মাঠের পাশে র‌্যাবের আরেকটি দলের অবস্থান নেয়ার খবর আসে।

ছবি তুইলেন না, আমার একটা মানসম্মান আছে: জি কে শামীম

ছবি তুইলেন না, আমার একটা মানসম্মান আছে: জি কে শামীম

রাজধানীর নিকেতনে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে যুবলীগের নেতা জি কে শামীমকে তার সাত দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় তার অফিস থেকে নগদ প্রায় দুই কোটি টাকা, পৌনে দুইশ কোটি টাকার এফডিআর, আগ্নেয়াস্ত্র ও মদ পেয়েছে র‌্যাব। শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে জি কে শামীমের নিকেতনের ডি ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব।  এর আগে নিকেতন এলাকায় জি কে শামীমের আরেকটি বাসা থেকে তাকে ডেকে আনা হয়। পরে তাকে আটক করেই অভিযান চালায় র‌্যাব।

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা শামীমের অফিস থেকে যা যা জব্দ করল র‍্যাব

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা শামীমের অফিস থেকে যা যা জব্দ করল র‍্যাব

রাজধানীর গুলশান-১ সংলগ্ন নিকেতনের একটি অফিসে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে সাত দেহরক্ষীসহ শুক্রবার দুপুরে গ্রেপ্তার করেছে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামীমকে। এ সময় জি কে শামীমের অফিস থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ, মদ ও স্থায়ী আমানতের (এফডিআর) কাগজ পেয়েছে র‌্যাব। শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে জি কে শামীমের নিকেতনের ডি ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব। এর আগে নিকেতন এলাকায় জি কে শামীমের আরেকটি বাসা থেকে তাকে ডেকে আনা হয়। পরে তাকে আটক করেই অভিযান চালায় র‌্যাব।

রাজনীতি

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার

যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামিমকে তার ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজধানীর নিকেতনে তার ব্যবসায়িক কার্যালয় অভিযান চালিয়ে শুক্রবার দুপুরে তাদের আটক করে র‍্যাবের একটি দল। তার বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক তোফায়েল মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জাতীয়

জবানবন্দিতে যেসব ভয়াবহ তথ্য দিয়েছিল মিন্নি

জবানবন্দিতে যেসব ভয়াবহ তথ্য দিয়েছিল মিন্নি

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিট এক সেপ্টেম্বর আদালতে দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বরগুনা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হুমায়ূন কবির। আদালতে চার্জশিট দাখিল করলেও মামলার আসামিপক্ষ অথবা গণমাধ্যমকর্মীরা চার্জশিটের কপি এতদিন হাতে পায়নি। ১৮ সেপ্টেম্বর (বুধবার) চার্জশিট আদালত গ্রহণ করার পর বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) কপি বাহিরে প্রকাশ হয়েছে। আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির আইনজীবী মাহাবুবুল বারী আসলামের কাছ থেকে চার্জশিটের কপি পাওয়া গেছে।

বিনোদন

বাড়ির পথ ভুলে গেলেন সাইফ

বাড়ির পথ ভুলে গেলেন সাইফ

বলিউড তারকা সাইফ আলী খান। মাত্র ৩৯ বছর বয়সেই বাড়ির পথ ভুলে গেলেন তিনি! নিজের বাসা থেকে বাড়ি যেতে পথিকদের সহায়তা নিতে হয় তাকে। ঘটনা হলো, সাইফের বাবা ছিলেন পতৌদির নবাব। বাবার মৃত্যুতে সেই আসনে বসেছেন সাইফ আলী খান। কিন্তু নতুন নবাব নিজেই জানেন না, পতৌদির নবাবের বাড়ি কোথায়? কয়েকদিন আগে স্ত্রী কারিনা কাপুর খানের জন্মদিন উদযাপনের জন্য ছেলে তৈমুরকে নিয়ে ছুটছিলেন পতৌদি। আর সেখানেই ঘটেছে বিধিবাম। পথ ভুলে গেছেন সাইফ আলী খান। পরে স্থানীয় লোকজনকে নিজের বাড়ির রাস্তা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলেন তিনি। এরপর সাহায্যে এগিয়ে আসেন পথিকরা।

রাজনীতি

যুবদল থেকে যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা জি কে শামীম

যুবদল থেকে যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা জি কে শামীম

যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামিমকে তার সাত দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজধানীর নিকেতনে তার ব্যবসায়িক কার্যালয় অভিযান চালিয়ে শুক্রবার দুপুরে তাদের আটক করে র‍্যাবের একটি দল। তার বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক তোফায়েল মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ সময় জি কে শামীমের অফিস থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, অস্ত্র ও মদ উদ্ধার করেছে র‍্যাব।

রাজনীতি

যুবলীগ নেতা খালেদ দল থেকে বহিষ্কার

যুবলীগ নেতা খালেদ দল থেকে বহিষ্কার

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ ঢাকা দক্ষিণ মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তরফ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিনোদন

শুধু ফ্লোর নয় সালমান শাহর নামে হবে রাস্তা: শাকিব খান

শুধু ফ্লোর নয় সালমান শাহর নামে হবে রাস্তা: শাকিব খান

আমি যখন স্কুলে পড়তাম, তখন আমিও তার সিনেমা দেখতে যেতাম। সালমান শাহ ভক্তদের মতো আমারও পছন্দের একজন অভিনেতা। বৃহস্পতিবার সালমান শাহ’র জন্মোৎসবে উপস্থিত হয়ে রাজধানীর মতিঝিলের মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে চিত্রনায়ক শাকিব খান এসব কথা বলেন। এ সময় ঢাকায় চলচ্চিত্রের কিং খান আরও বলেন, নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে, কারণ আমার হাত দিয়ে তার মতো একজন মানুষের জন্মদিনের কেক কাটানো হচ্ছে। আমি আরও অনেক আনন্দিত হতাম যদি আজ তিনি আমার পাশে থাকতেন।