• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
উইনস্টন চার্চিল: সাহিত্যে নোবেলজয়ী রাজনীতিবিদ

উইনস্টন চার্চিল: সাহিত্যে নোবেলজয়ী রাজনীতিবিদ

উইনস্টন চার্চিল। একজন ব্রিটিশ সেনা কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ, লেখক ও রাষ্ট্রনেতা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কঠিন দুঃসময়ে নাৎসি বাহিনীর বিরুদ্ধে অদম্য প্রতিরোধের জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি বিখ্যাত।

বিস্তারিত
কার্ল মার্কস: শ্রমিক শ্রেণির পরম বন্ধু

কার্ল মার্কস: শ্রমিক শ্রেণির পরম বন্ধু

কার্ল মার্কস। একজন জার্মান দার্শনিক, অর্থনীতিবিদ, সমাজ বিজ্ঞানী, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী, সাংবাদিক ও সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবী। উনবিংশ ও বিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে প্রভাবশালী দার্শনিকদের একজন। তিনি দূরদর্শী বুদ্ধিভিত্তিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন ‘মার্কসবাদ’ এর জনক।

বিস্তারিত
ইয়াসির আরাফাত: ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহানায়ক

ইয়াসির আরাফাত: ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের মহানায়ক

ইয়াসির আরাফাত, ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা আন্দোলনের পথিকৃৎ। এক অবিসংবাদিত আরব জাতীয়তাবাদী নেতা। ১৯৬৯-২০০৪ পর্যন্ত প্যালেস্টাইন লিবারেশন অরগেনাইজেশন (পিএলও)এর চেয়ারম্যান ও ১৯৯৪-২০০৪ পর্যন্ত প্যালেস্টাইন ন্যাশনাল অথরিটির (পিএনএ) প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

বিস্তারিত
জোসেফ স্ট্যালিন : খলনায়ক থেকে মহানায়ক

জোসেফ স্ট্যালিন : খলনায়ক থেকে মহানায়ক

১৯২৪ থেকে ১৯৫৩ পর্যন্ত সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের সর্বোচ্চ শাসক ছিলেন জোসেফ স্ট্যালিন। তিনি সোভিয়েত ইউনিয়নের শিল্প বিপ্লবের নেতৃত্ব দিয়েছেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী সর্বোচ্চ নেতাদের একজন তিনি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ উত্তর পূর্ব ইউরোপের রাষ্ট্রগুলোকে ঐক্যবদ্ধকরণ ও স্নায়ুযুদ্ধ সূচনার অন্যতম কারক ছিলেন স্ট্যালিন।

বিস্তারিত
গর্বাচেভ: একজন উদার গণতান্ত্রিক নেতার গল্প

গর্বাচেভ: একজন উদার গণতান্ত্রিক নেতার গল্প

মিখাইল গর্বাচেভ। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টির মহাসচিব। ছিলেন গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত রাশিয়ার প্রথম প্রেসিডেন্ট। সোভিয়েত ইউনিয়ন ও পূর্ব ইউরোপে কমিউনিস্টের বিস্তার প্রতিরোধ করতে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন।

বিস্তারিত
মার্টিন লুথার কিং: ন্যায় ও সাম্য প্রতিষ্ঠায় অনুপ্রেরণার প্রতীক

মার্টিন লুথার কিং: ন্যায় ও সাম্য প্রতিষ্ঠায় অনুপ্রেরণার প্রতীক

মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র। আমেরিকার সবচেয়ে প্রভাবশালী নাগরিক অধিকার আন্দোলন কর্মী। তার অনুপ্রেরণাদানকারী অহিংস আন্দোলন জাতিগত বৈষম্যের বিরুদ্ধে মার্কিন জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করেছিল। নিয়ে এসেছিল উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক পরিবর্তন। সাদা ও কালো সব মার্কিনির হৃদয়ে ছিল তার স্থান।

বিস্তারিত
জেমস মনরো: দক্ষ কূটনীতিক থেকে দক্ষ প্রেসিডেন্ট

জেমস মনরো: দক্ষ কূটনীতিক থেকে দক্ষ প্রেসিডেন্ট

জেমস মনরো। ছিলেন উনিশ শতকের প্রথমার্ধের আমেরিকার একজন সফল কূটনীতিক। যিনি পরবর্তীতে দুই মেয়াদে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন। তার গৃহীত পররাষ্ট্রনীতি ‘মনরো ডকট্রিন’ নামে পরিচিত, যা মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির বিবর্তনের মাইলফলক।

বিস্তারিত
দীর্ঘজীবী মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশের গল্প

দীর্ঘজীবী মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশের গল্প

জর্জ ওয়াকার বুশ, একজন বিখ্যাত মার্কিন রাজনীতিবিদ। ১৯৮৯-৯৩ মেয়াদে ছিলেন আমেরিকার ৪১তম প্রেসিডেন্ট। এর আগে ১৯৬৪ সালে রিপাবলিকান পার্টিতে যোগদানের পর প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগ্যানের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দুই মেয়াদে দায়িত্ব পালন করেন। পেশাগত জীবনে ছিলেন একজন রাষ্ট্রদূত এবং কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র পরিচালক।

বিস্তারিত
জিমি কার্টারঃ মানবকল্যাণের অনন্য ভাবমূর্তি

জিমি কার্টারঃ মানবকল্যাণের অনন্য ভাবমূর্তি

জিমি কার্টার, একজন মার্কিন রাজনীতিবিদ ও আমেরিকার ৩৯তম প্রেসিডেন্ট। এর আগে ডেমোক্রেট দল থেকে জর্জিয়ার স্টেট সিনেটর ও জর্জিয়ার গভর্নরের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি জীবিতদের মধ্যে সবচেয়ে প্রবীণ মার্কিন প্রেসিডেন্ট। গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখায় ২০০২ সালে তিনি নোবেল শান্তি পুরস্কার পান।

বিস্তারিত
মাও সেতুং : গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের জনক

মাও সেতুং : গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের জনক

মাও সেতুং। একজন চীনা কমিউনিস্ট বিপ্লবী। তাকে বলা হয় গণপ্রজাতন্ত্রী চীনের জনক। ১৯৪৯ সালে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ১৯৭৬ সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি চীনের কমিউনিস্ট পার্টির চেয়ারম্যান ছিলেন। তার দেয়া সামাজিক মতবাদ, সামরিক কৌশল ও রাজনৈতিক চিন্তা সামষ্টিকভাবে ‌‘মাওবাদ’ হিসেবে পরিচিত।

বিস্তারিত