• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

স্বাদে-গুণে অনন্য ‘হাঁড়িভাঙা’ আম

স্বাদে-গুণে অনন্য ‘হাঁড়িভাঙা’ আম

নিজস্ব প্রতিবেদক০৮ জুলাই ২০১৯, ১০:৫২পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

স্বাদে-গুণে অনন্য রংপুরের হাঁড়িভাঙা আম এখন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। সুস্বাদু এই আমের সুখ্যাতি দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার পদাগঞ্জ এলাকা হাঁড়িভাঙা আমের জন্য বিখ্যাত। এখান থেকেই জেলার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়ে এ আমের চাষ।

বর্তমানে হাঁড়িভাঙা আমে বাজার সয়লাব। প্রতি কেজি আম ৯০-১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে বিভিন্ন প্রজাতের আম থাকলেও হাঁড়িভাঙা আমের প্রতি ক্রেতাদের ঝোঁক বেশি।

হাঁড়িভাঙা আমের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে আমটিতে কোনো আঁশ নেই। বড় ও ছোট দুই ধরনের আমই খুবই মিষ্টি ও সুস্বাদু এবং এর ঘ্রান খুব চমৎকার। ছোট থেকে পাকা পর্যন্ত একেক স্তরে একেক স্বাদ পাওয়া যায়।

এই আমের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো- পাকার পরও এর চামড়া অনেকটা শক্ত থাকে। দেখে সহজে বোঝার উপায় নাই আম পেকে গেছে। তবে এ অবস্থাতে খেলে হাঁড়িভাঙা আমের প্রকৃত স্বাদটা পাওয়া যায়।

আর বেশি পাকলে বা চামড়া অনেক নরম হয়ে গেলে এই আমের স্বাদে তারতম্য ঘটে। যে কারণে এই আম সম্পর্কে যারা জানেন, তারা ভুলেও বেশি পাকা আম কেনেন না। কারণ পাকার পর এই আম বেশি সময় সংরক্ষণ করা যায় না।

হাঁড়িভাঙা আমের আকার আকৃতিও অন্য আমের চেয়ে আলাদা। আমটির উপরিভাগ বেশি মোটা ও চওড়া, নিচের অংশ অপেক্ষাকৃত চিকন। আমটি দেখতে সুঠাম ও মাংসালো, গোলাকার ও একটু লম্বা। আমের তুলনায় আঁটি অনেক ছোট।

আকারের তুলনায় অন্য আমের চেয়ে ওজনে বেশি, গড়ে তিনটি আমে এক কেজি হয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে একটি আম ৫০০/৭০০ গ্রাম হয়ে থাকে।

এ আমটি শুধুমাত্রই রংপুরের। রংপুরের বাইরে কোথাও এই আমের চাষাবাদ-ফলন খুব একটা লক্ষ্য করা যায় না এখন পর্যন্ত।

রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার পদাগঞ্জ গ্রামে সর্বপ্রথম হাঁড়িভাঙা আম চাষ করে স্থানীয় লোকজন। আস্তে আস্তে এর সুনাম ছড়িয়ে পড়ে অন্যান্য এলাকায়। বর্তমানে বিভিন্ন গ্রামে হাজার হাজার বাগানে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে হাঁড়িভাঙা আম চাষ হচ্ছে।

হাঁড়িভাঙা আমের নামকরণ হলো যেভাবে

বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন সূত্রে জানা গেছে, রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নে অবস্থিত জমিদার বাড়িতে বিভিন্ন প্রজাতির সুগন্ধি ফুল ও সুস্বাদু ফলের বাগান ছিল। রাজা তাজ বাহাদুর শিংয়ের আমলে এই বাগানটি করা হয়েছিল। বাগানে রোপন করা অনেক ফুল ও ফল বিদেশ থেকেও আমদানি করা হয়েছিল।

ওই সময় ১নং খোরাগাছ ইউনিয়নের তেকানী গ্রামের মৃত নফল উদ্দিন পাইকার আমের ব্যবসা করতেন। তিনি জমিদারের বাগানসহ অন্য আম চাষীদের আম পদাগঞ্জসহ বিভিন্ন হাটে বিক্রি করতেন।

জমিদার বাগানের আমদানিকৃত আমের মধ্যে একটি আম অত্যন্ত সুস্বাদু, সুমিষ্ট ও দর্শনীয় হওয়ায় তিনি ওই আমটির একটি কলম (চারা) নিয়ে এসে নিজ জমিতে রোপন করেন।

বরেন্দ্র প্রকৃতির জমি হওয়ায় শুকনো মৌসুমে গাছের গোড়ায় পানি দেয়ার সুবিধার্থে একটি হাড়ি বসিয়ে ফিল্টার পদ্ধতিতে পানি সেচের ব্যবস্থা করেন তিনি।

কিন্তু অল্পদিনের ব্যবধানে কে বা কারা ওই হাড়িটি ভেঙে ফেলেন। তবে এক সময় আম গাছটি ফলবান বৃক্ষে পরিণত হয় ।

মৃত নফল উদ্দিনের পাড়া-প্রতিবেশী, বন্ধু-বান্ধব ও ভোক্তারা ওই গাছের আম খাওয়ার তার উৎস সম্বন্ধে তাকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, কে বা কারা যে গাছটির হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছিল এটি সেই গাছেরই আম।

গাছকে সনাক্তকরণের লক্ষ্যে নফল উদ্দিন কর্তৃক উচ্চারিত বা মুখ নিঃসৃত হাঁড়িভাঙা কথার সূত্র ধরেই পরবর্তীতে এটি ‘হাঁড়িভাঙ্গা’ নামে পরিচিত লাভ করে।  

 

টাইমস/জেডটি

করোনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত বাড়ছেই

করোনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত বাড়ছেই

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ৩৫

ক্লাসে তাচ্ছিল্যের শিকার সেই ছাত্রী এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি!

ক্লাসে তাচ্ছিল্যের শিকার সেই ছাত্রী এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি!

ক্লাসে বহুবার তিনি তাচ্ছিল্যের শিকার হয়েছেন। শিক্ষকরা তাকে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে

গণস্বাস্থ্যের করোনা কিটের পরীক্ষা শেষ, প্রতিবেদন বুধবার

গণস্বাস্থ্যের করোনা কিটের পরীক্ষা শেষ, প্রতিবেদন বুধবার

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত করোনার অ্যান্টিবডি কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা শেষ করেছে

আন্তর্জাতিক

বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে হাঁটু গেড়ে সংহতি জানালেন জাস্টিন ট্রুডো

বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে হাঁটু গেড়ে সংহতি জানালেন জাস্টিন ট্রুডো

বর্ণবাদ বিরোধী বৈশ্বিক আন্দোলনে সংহতি জানিয়েছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী ও বিশ্ব নেতৃত্বের আইকন জাস্টিন ট্রুডো। সম্প্রতি কানাডার রাজধানী অটোয়ায় পার্লামেন্ট হিলে প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে কালো মাস্ক পরে হাজির হন তিনি।

আন্তর্জাতিক

মাস্ক পরার পক্ষে নতুন যে নির্দেশনা দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

মাস্ক পরার পক্ষে নতুন যে নির্দেশনা দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে এতদিন গণহারে মাস্ক ব্যবহারের বিপক্ষেই হাটছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। কিন্তু এবার সেই ভোল পাল্টিয়ে মাস্ক ব্যবহারে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে সংস্থাটি।

জাতীয়

করোনায় আক্রান্ত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম, অবস্থা সংকটাপন্ন

করোনায় আক্রান্ত সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম, অবস্থা সংকটাপন্ন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সংকটাপন্ন অবস্থায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তাকে

জাতীয়

চট্টগ্রামে করোনা উপসর্গে আট ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যু

চট্টগ্রামে করোনা উপসর্গে আট ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যু

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলায় করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে আট ঘণ্টার ব্যবধানে দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। স্বজনদের অভিযোগ হাসপাতালে আইসিইউ বেড না পাওয়াতে বিনা চিকিৎসায় দুই ভাইয়ের করুণ মৃত্যু হয়েছে।

জাতীয়

করোনা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি সিলেটের সাবেক মেয়র কামরান

করোনা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি সিলেটের সাবেক মেয়র কামরান

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় শনিবার দুপুর ১২টার দিকে নগরীর শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হয়েছেন

স্বাস্থ্য

কিছু মানুষকে আক্রান্ত করার ক্ষমতা নেই করোনার

কিছু মানুষকে আক্রান্ত করার ক্ষমতা নেই করোনার

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। একই সঙ্গে প্রতিদিনই পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যারও। তবে এ মহামারীর মধ্যেও কিছু মানুষ কখনও করোনায় আক্রান্ত হবেন না। সম্প্রতি সেল জার্নালে প্রকাশিত এক নতুন গবেষণায় এমন দাবি করা হয়েছে। গবেষণায় বলা হয়, সব মানুষের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটানোর সক্ষমতা নেই। কিছু মানুষের শরীরে এমন ধরনের ‘টি সেল’ (এর টিকা নিউজের শেষে দেয়া আছে) রয়েছে, যার কারণে তারা কখনও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন না।