• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

কখন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করবেন?

কখন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করবেন?

স্বাস্থ্য ডেস্ক২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:৪৫এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক সেবন কখনই স্বাস্থ্যসম্মত নয়। অথচ বিশ্বব্যাপী ফার্মেসিগুলোতে অবাধে প্রেসক্রিপশন ছাড়াই অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি হচ্ছে। যা উল্লেখযোগ্যহারে রোগীর অ্যান্টিবায়োটিক রেসিস্ট্যান্স ইনফেকশন সংক্রান্ত ঝুঁকির বিকাশ ও বিস্তারে ভূমিকা রাখছে।

একটি গবেষণায় দেখা গেছে, বিশ্বের প্রতি চারজন রোগীর তিনজন অ্যান্টিবায়োটিকের জন্য ফার্মেসিতে যান এবং প্রতি পাঁচটি ফার্মেসির তিনটিই প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি করে।

অথচ প্রায়ই দেখা যায়, রোগীরা প্রয়োজন ছাড়াই অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করে থাকেন। তাই সবাইকে জেনে রাখতে হবে যে, কখন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা উচিত?

গবেষণায় দেখা গেছে, বেশ কিছু সাধারণ স্বাস্থ্যগত সমস্যা রয়েছে, যার জন্যে একজন ব্যক্তির অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা উচিত।

উদাহরণস্বরূপ, ব্রঙ্কাইটিস রোগীদের ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হচ্ছে- যাদের হৃদকম্পন ১০০ বিটের বেশি অথবা জ্বর ১০০.৪ ডিগ্রির বেশি অথবা প্রতি মিনিটে ২৪ বারেরও বেশি দ্রুতগতিতে শ্বাস-প্রশ্বাস হয়, সেসব রোগীদের অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা উচিত।

সাইনাসের প্রদাহজনিত রোগীদের ক্ষেত্রে আমেরিকান কলেজ অফ ফিজিশিয়ান্স বলছে, যখন রোগের উপসর্গ দশদিন পর্যন্ত স্থায়ী হয় বা বিপজ্জনক হয় অথবা তিনদিন ধরে ১০২.২ ডিগ্রির বেশি জ্বর থাকে এবং নাকের ছিদ্রপথ রঙ্গিন ও সম্মুখভাগে ব্যথা থাকে তখন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করতে হবে। এছাড়া প্রথমবার রোগ থেকে সেরে ওঠার কিছুদিন পর আবার রোগ আরও খারাপভাবে দেখা দিলে অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করার প্রয়োজন হতে পারে।।

গলাভাঙা বা গলাব্যথা রোগীদের ক্ষেত্রে আমেরিকার ইনফেকশাস ডিসিস সোসাইটির পরামর্শ হচ্ছে, কেবল ওইসব রোগীদের বেলায় অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা যাবে, যাদের পরীক্ষা করার পর উপসর্গ দেখে মারাত্মক গলাভাঙা ধরা পড়বে। অন্যথায় কেবল সর্দি, কাশি বা গলার কর্কশ শব্দের কারণে অ্যান্টিবায়োটিক সেবন উচিত নয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কানের ইনফেকশনের ক্ষেত্রে ছয়মাস বয়সী শিশুদের যখন মারাত্মক ব্যথা করবে বা ব্যথা ৪৮ ঘণ্টার বেশি স্থায়ী হয়, অথবা ১০২.২ ডিগ্রির বেশি জ্বর হয় তখন অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা যাবে।

এছাড়া, সাধারণ ঠাণ্ডাসহ অধিকাংশ শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণজনিত রোগের ক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিক সেবন উচিত নয়। উদাহরণ স্বরূপ হাঁচি, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা, স্বল্পমাত্রার জ্বর ও সাধারণ ঠাণ্ডাজনিত মাথা ব্যথার ক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিক সেবন উচিত নয়।

তাছাড়া, ভাইরাল ইনফেকশনের ক্ষেত্রেও অ্যান্টিবায়োটিক সেবন উচিত নয়। যদিও অধিকাংশ চিকিৎসকরা এ ধরণের পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, প্রতি বছর আমেরিকায় প্রায় ১৫কোটি রোগীকে চিকিৎসকরা অ্যান্টিবায়োটিকের পরামর্শ দেন। যার তিন ভাগের এক ভাগ থেকে অর্ধেক ভাগই অপ্রয়োজনীয়।

এ ধরণের পরামর্শের কারণে শুধু শুধু টাকা অপচয় হয়, বিভিন্ন ধরণের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় এবং ওষুধ-প্রতিরোধী ব্যাকটেরিয়ার সৃষ্ট হয়। এ জন্য কেবল সংশ্লিষ্ট রোগের ক্ষেত্রেই অ্যান্টিবায়োটিক সেবন করা প্রয়োজন।

তবে সঠিক অ্যান্টিবায়োটিক বেছে নেয়ার জন্য সর্বোত্তম উপায় হলো চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া। যিনি রোগীর সমস্যাগুলো ভাল করে বুঝবেন, তার চিকিৎসার ইতিহাস জানবেন এবং তাড়াহুড়ো না করে রোগীকে সঠিক পরামর্শ দেবেন।

এ ব্যাপারে কিংস্টন ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মার্ক ফিল্ডার বলেন, প্রেসক্রিপশন ছাড়া অ্যান্টিবায়োটিক সরবরাহ করা কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। এ সমস্যা দূর করতে কমিউনিটির ফার্মেসিগুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। বিশেষ করে যেসব ওষুধ সেবনের প্রয়োজন নেই, সে সম্পর্কে তারা রোগীদের সচেতন করতে পারে।

পাশাপাশি আমাদের উচিত চিকিৎসক ও সুবিধাভোগী সবাইকে সচেতন করা যে, সব সময় অ্যান্টিবায়োটিক সেবনের প্রয়োজন নেই- বলেছেন প্রফেসর ফিল্ডার।

 

টাইমস/এএইচ/জিএস 

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

করোনায় আক্রান্ত ৫০ হাজার ও মৃত্যু ৭০০ ছাড়াল

দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে নতুন করে একদিনে রেকর্ড

ফ্লেক্সিলোড দোকানির সোনালী ব্যাংক অফিসার হয়ে উঠার গল্প

ফ্লেক্সিলোড দোকানির সোনালী ব্যাংক অফিসার হয়ে উঠার গল্প

অভাবের সংসারে থেকেও অদম্য স্পৃহা নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। বাবা চাকরি

এবার করোনায় ‘গরীবের বন্ধু’ সেই বিসিএস ক্যাডারের মৃত্যু

এবার করোনায় ‘গরীবের বন্ধু’ সেই বিসিএস ক্যাডারের মৃত্যু

এবার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন গরীবের বন্ধু হিসেবে খ্যাত

জাতীয়

এসএসসিতে ১৩শ' নম্বরের মধ্যে ১২৭৪ পেয়ে সেরা নাফিস

এসএসসিতে ১৩শ' নম্বরের মধ্যে ১২৭৪ পেয়ে সেরা নাফিস

এসএসসি পরীক্ষায় রাজশাহী বোর্ডে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে প্রথম হয়েছেন নাফিস উদ্দীন ফুয়াদ। তিনি মোট ১৩০০ নম্বরের পরীক্ষায়

জাতীয়

মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচ আবারও বাড়ছে

মোবাইল ফোনে কথা বলার খরচ আবারও বাড়ছে

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশের অর্থনৈতিক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আগামী অর্থবছরে দেশের টেলিকম খাত থেকে রাজস্ব বৃদ্ধির পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের একাধিক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

রাজনীতি

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার: রিজভী

গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছে সরকার: রিজভী

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে রিজভী বলেন, শর্তসাপেক্ষে গণপরিবহন চালুর কথা থাকলেও সরকার সেটি কোনোভাবেই সেটি বাস্তবায়ন করতে পারেনি। গণপরিবহন চালুর প্রথমদিন থেকেই চরম ভাবে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করা হচ্ছে। যা বিভিন্ন গণমাধ্যম মারফত দেশবাসী প্রত্যক্ষ করেছে।

জাতীয়

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনায় প্রথম একজনের মৃত্যু

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে করোনায় প্রথম একজনের মৃত্যু

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে প্রথমবারের মতো এক বৃদ্ধের (৭১) মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে তার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তিনি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা।

অর্থনীতি

একনেকের প্রথম ভার্চুয়াল সভায় ১০ প্রকল্প অনুমোদন

একনেকের প্রথম ভার্চুয়াল সভায় ১০ প্রকল্প অনুমোদন

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) প্রথম ভার্চুয়াল সভায় ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ১৬ হাজার ২৭৬ কোটি ৩ লাখ টাকা খরচে এসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে।

স্বাস্থ্য

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

কোভিড-১৯ নিয়ে ইউটিউবের অনেক ভিডিও’র তথ্যই বিভ্রান্তিমূলক

ইন্টারনেটে যেকোনো তথ্য কিংবা ভিডিও জনপ্রিয় হওয়ার পেছনে রহস্যময় কোনো না কোনো কারণ থাকতে পারে, কিন্তু সঠিক তথ্য প্রদানের সাথে এর কোনো যোগসূত্র নেই বলে মনে করছেন গবেষকরা। বিএমজে গ্লোবাল হেলথ কর্তৃক সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, সার্স-কোভ-২ নিয়ে আলোচনা করা সর্বাধিক দেখা প্রতি চারটি ইউটিউব ভিডিওর মধ্যে একটিতে বিভ্রান্তিমূলক বা ভুল তথ্য রয়েছে।