• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

ভ্রমণ

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত

মৌন পাহাড়রাজি, সাগরের কল্লোল, কর্ণফুলীর কলতান হাজার বছরের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির বিপুল বৈভব নিয়ে চট্টগ্রাম। এ নগরে বন্দরের আকর্ষণে ছুটে এসেছে এশিয়া-ইউরোপ-আফ্রিকার নাবিকরা, এসেছে ভ্রমণ পিয়াসু পর্যটক, অনেকে বাঁধা পড়েছে এখানকার জীবন ও জীবিকার সাথে, ঘর বেঁধেছে। বিভিন্ন ধর্ম-বর্ণ-গোত্রের মানুষের ভাষা, সংস্কৃতি জীবনাচার নগর জীবনকে ঐশ্বর্য দিয়েছে, বিচিত্র সংস্কৃতির উদ্ভাবন চট্টগ্রামের পরিচিতিকে পৃথক মর্যাদা দিয়েছে। পর্যটন নগরী হিসেবেও রয়েছে চট্টগ্রামের...

কালের সাক্ষী ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ী জমিদার বাড়ি

কালের সাক্ষী ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ী জমিদার বাড়ি

সাহিত্য সংস্কৃতি ও শিল্পকলায় সমৃদ্ধ ঐতিহ্যের অধিকারী ময়মনসিংহের কীর্তি সর্বজনবিদিত। মোমেনশাহীর নতুন ইতিহাস, ময়মনসিংহের জীবন ও জীবিকা, মৈমনসিংহ গীতিকা, গেজেটিয়ার ময়মনসিংহ ইত্যাদি গ্রন্থে ময়মনসিংহের সংস্কৃতি চেতনার প্রতিফলন ঘটেছে। এই ময়মনসিংহ জেলার ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার অন্যতম একটি জনপদের নাম আঠারবাড়ী। এখানে কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিড়রিত আঠারবাড়ী জমিদার বাড়ি। যেটি আঠারবাড়ী রাজবাড়ি নামেও পরিচিত।

পাহাড়ের কোলের শঙ্খ নদী

পাহাড়ের কোলের শঙ্খ নদী

একটি বাঁক পেরিয়ে আরেকটি বাঁক মানেই নতুন সৌন্দর্যের সংজ্ঞা খোঁজা। যেন নদীর গতিপথ এখানেই শেষ, তবে সেটি নিছক মরীচিকা। আরেকটি বাঁক নিয়ে যাবে নিরুদ্দেশের দিকে। এটিই ‘শঙ্খ’নদী। যার অপর নাম সাঙ্গু নদী। এ নদীকে নিয়ে চট্টগ্রামে অনেক গান ও গীতিকাব্য রচিত হয়েছে।

খুলনার কবি কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার ইনস্টিটিউট

খুলনার কবি কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার ইনস্টিটিউট

‘যে জন দিবসে মনের হরষে জ্বালায় মোমের বাতি’ কিংবা ‘চিরসুখী জন ভ্রমে কি কখন ব্যথিত বেদন বুঝিতে পারে’ কিংবা ‌আশু গৃহে তার দেখিবে না আর নিশীথে প্রদীপ ভাতি'। বিখ্যাত এই চরণদ্বয়ের রচিয়তা কবি, সাংবাদিক ও শিক্ষক কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার। বিভিন্ন কবি ও সাহিত্যিক তাদের লেখনীর মাধ্যমে বাংলা সাহিত্য ভাণ্ডারকে করছেন সমৃদ্ধ। যার কারণে আমরা পেয়েছি একটা বৃহৎ সাহিত্যভাণ্ডার। কবি কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার ছিলেন এমনই একজন কবি যিনি বাংলার সাহিত্য ভাণ্ডারকে তার লেখনীর মাধ্যমে সমৃদ্ধ করেছেন।

নয়নাভিরাম গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত

নয়নাভিরাম গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত

মনভরে প্রকৃতি উপভোগের এক অনন্য স্থান গুলিয়াখালী সমুদ্র সৈকত। প্রকৃতি যেনো এখানে দুহাত ভরে উজাড় করে দিয়েছে সব। একপাশে দিগন্তবিস্তৃত সাগরের জলরাশি, আরেকপাশে কেওড়ার বন। বনের মাঝ দিয়ে বয়ে চলেছে ছোট্ট একটা খাল। খালের পাশে এদিক ওদিক চারিদিকে ছড়িয়ে আছে কেওড়ার শ্বাসমূল। সব মিলিয়ে একটা ম্যানগ্রোভ ম্যানগ্রোভ ভাব, কোথাও আবার সেই ম্যানগ্রোভ চলে গিয়েছে সমুদ্রের অনেকটা ভেতরে। 

প্রকৃতি কন্যা জাফলং

প্রকৃতি কন্যা জাফলং

বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্তবর্তী খাসিয়া-জৈন্তা পাহাড়ের পাদদেশে সবুজ বন ও বাগানের সৌন্দর্য ঘেরা একটি পাহাড়ি অঞ্চলের নাম জাফলং। এখানে পাহাড় আর নদীর অপূর্ব সম্মিলন বলে এই এলাকা বাংলাদেশের অন্যতম একটি পর্যটনস্থল হিসেবে পরিচিত। সিলেট নগরী থেকে ৬২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত জাফলং।