• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬

ডাক্তার বনাম শাবানার ঠেলাগাড়ি

ডাক্তার বনাম শাবানার ঠেলাগাড়ি

অতিথি লেখক৩০ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:৪৫এএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

রোগীর অবস্থা খুবই খারাপ। দ্রুত অপারেশন করতে হবে, নয়তো বাঁচবেন না। তাকে বাঁচাতে হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৫০ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। অন্যথায় অপারেশন হবে না বলে রোগীর স্বজন শাবানাকে জানাল ডাক্তার। এর পরের দৃশ্য শাবানা ঝড়-তুফানের মধ্যে ঠেলাগাড়িতে করে স্বজনের লাশ নিয়ে বাড়ি ফিরছেন। তখন তার মাথায় ঢুকল ডাক্তার একটা ‘জানোয়ার’।

সিনেমায় দেখা যায়, নায়ক ডাক্তারের কলার ধরে বলছে “ওই কুত্তার বাচ্চা আমার ভাইয়ের যদি কিছু হয়, তোরে মাইরা ফালামু, অই-অই-অই ডাক্তারের বাচ্চা তোরে কইয়া দিলাম।” সিনেমার এমন ডায়লগে আমরা ধরে নিলাম- ডাক্তারকে এভাবে না বললে হয়ত কাজ হয় না।

এভাবেই ডাক্তারের ইমেজটাকে আমাদের সামনে বিভিন্ন দিক থেকে এমনভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে যে তাতে সাধারণ মানুষের মগজে ঢুকে গেছে ডাক্তার মানেই একজন ‘কসাই’।

মজার ব্যাপার হচ্ছে পুলিশ বা প্রশাসনে কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে তাদের হেনস্তা বা পেটানোর সাহস কারও হয়না। কারণ একজনের আছে বন্দুক, অপরজনের আছে ক্ষমতা। এমনকি ডাক্তার পেটানো নায়কও সিনেমার দৃশ্যে অনেক সময় পুলিশ দেখে পালায়।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে- কোনো পেশাকে ঢালাও ভাবে খারাপ বলা বা টার্গেট করা কতটুকু যুক্তিযুক্ত? খারাপ হয় মানুষ, সে যেকোনো পেশায় থাকতে পারে। সেজন্য কেউ অপরাধ করলে তার বিচার হবে। কিন্তু আমরা ডাক্তারদের যেভাবে গণহারে ভিলেন বানাচ্ছি, তাতে প্রকারান্তরে ক্ষতিটা কার হচ্ছে?

ডাক্তাররা যদি ঠিকমতো চিকিৎসা নাই দেন, তাহলে সরকারী হাসপাতালগুলোতে হাজার হাজার রোগী কি বেড়াতে যায়? একেকটি হাসপাতাল সক্ষমতার তিন-চারগুণ বেশি রোগীকে চিকিৎসা দেয়। স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেক হাসপাতালের বারান্দায় রোগীদের পড়ে থাকতে দেখা যায়। ডাক্তারদের ভিলেন বানানোর আগে এসব পরিস্থিতির উন্নয়নে আমরা কি পদক্ষেপ নিয়েছি?

সম্মানিত সংসদ সদস্যদের প্রতি পরামর্শ। আপনারা নিজ নিজ এলাকার হাসপাতালগুলোতে যে পরিমাণ রোগী ভর্তি রয়েছে, তাদের প্রত্যেকের শয্যার ব্যবস্থা, রোগের পরীক্ষা-নিরীক্ষাসহ হাসপাতালে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ ও ওষুধের ব্যবস্থা করুন। মূল সমস্যা এটাই।

আমাদের দেশের বাজেট বরাদ্দের বড় অংশ যায় স্বাস্থ্য আর শিক্ষা খাতে। এতো টাকা কই যায়, একটু সরেজমিনে দেখবেন? এসব একটু ভাইরাল করবেন? আমি বলছি না ডাক্তার সবাই ধোয়া তুলশী পাতা। ‘বদের হাড্ডি’ সব পেশাতেই আছে। যারা এমন তাদের জন্য একটা আইন করেন। যেখানে পাবলিকের হাতে বিচার তুলে দিয়ে নয়, বরং যথাযথ মাধ্যমে তদন্ত করে ডাক্তারের অনুপস্থিতি, অবহেলা ও ভুলের প্রমাণ হলে কঠোর থেকে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত হয়।

আবার অনেক সময় দেখা গেছে- এক ডাক্তারের রোগী অন্য ডাক্তারের কাছে গেলে তিনি বলেন, “আরে আপনাকে খামাখা এসব টেস্ট করিয়েছে কেন? অথবা এ রোগের জন্য-তো অপারেশন লাগবে না, ওই ডাক্তার কেন এসব বলল বুঝলাম না।” রোগীকে এসব বলার ফলাফল কি দাড়ায়?

ডাক্তার সাহেবদের সংগঠনগুলো কেন বর্তমান পরিস্থিতি উন্নয়নে এগিয়ে আসেন না, তাও বুঝে আসে না। সে জন্য বলা যায়- রোগী ও ডাক্তার উভয় পক্ষেরই আস্থার সংকট রয়েছে। তাই আপনাদের এগিয়ে আসা উচিত, নাকি?

হাসপাতাল ও ডাক্তার সবকিছু ঠিক হলেও পরিস্থিতির কতটুকু উন্নতি হবে জানি না। কারণ, আমরা সাধারণ পাবলিক এতো ইনটেলিজেন্ট, যে সাধারণ সর্দি-কাশি হলে এফসিপিএস খুঁজি, আর টিউমার-ক্যান্সারের চিকিৎসায় হোমিওপ্যাথী খাই। এছাড়া সব মৃত্যুর পেছনে কাউকে না কাউকে দোষ দেই, যেমন হার্টএ্যাটাক বা স্ট্রোক হলে আগে বলতাম ‘শয়তানের বাতাস’ লেগে মারা গেছে এখন বলি ‘ডাক্তার মারছে’।

লেখক: হোসাইন শাহিদ, ব্যুরো প্রধান, যমুনা টিভি, ময়মনসিংহ। 

 

টাইমস/জিএস

এবার কলাবাগান ক্রীড়া চক্রে র‍্যাবের অভিযান

এবার কলাবাগান ক্রীড়া চক্রে র‍্যাবের অভিযান

ঢাকার ফকিরাপুল ইয়ংমেনস ক্লাব ও ওয়ান্ডারার্স ক্লাবে ক্যাসিনো পাওয়ার পর এবার কলাবাগান ক্রীড়াচক্রে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে ক্লাবটিতে অভিযান শুরু হয়। এর আগে শুক্রবার বিকালে নিকেতনে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামীমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে র‌্যাবের অভিযান শেষ হওয়ার আগেই কলাবাগান মাঠের পাশে র‌্যাবের আরেকটি দলের অবস্থান নেয়ার খবর আসে।

ছবি তুইলেন না, আমার একটা মানসম্মান আছে: জি কে শামীম

ছবি তুইলেন না, আমার একটা মানসম্মান আছে: জি কে শামীম

রাজধানীর নিকেতনে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে যুবলীগের নেতা জি কে শামীমকে তার সাত দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করেছে। এ সময় তার অফিস থেকে নগদ প্রায় দুই কোটি টাকা, পৌনে দুইশ কোটি টাকার এফডিআর, আগ্নেয়াস্ত্র ও মদ পেয়েছে র‌্যাব। শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে জি কে শামীমের নিকেতনের ডি ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব।  এর আগে নিকেতন এলাকায় জি কে শামীমের আরেকটি বাসা থেকে তাকে ডেকে আনা হয়। পরে তাকে আটক করেই অভিযান চালায় র‌্যাব।

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা শামীমের অফিস থেকে যা যা জব্দ করল র‍্যাব

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা শামীমের অফিস থেকে যা যা জব্দ করল র‍্যাব

রাজধানীর গুলশান-১ সংলগ্ন নিকেতনের একটি অফিসে র‍্যাব অভিযান চালিয়ে সাত দেহরক্ষীসহ শুক্রবার দুপুরে গ্রেপ্তার করেছে যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামীমকে। এ সময় জি কে শামীমের অফিস থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ, মদ ও স্থায়ী আমানতের (এফডিআর) কাগজ পেয়েছে র‌্যাব। শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে জি কে শামীমের নিকেতনের ডি ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব। এর আগে নিকেতন এলাকায় জি কে শামীমের আরেকটি বাসা থেকে তাকে ডেকে আনা হয়। পরে তাকে আটক করেই অভিযান চালায় র‌্যাব।

রাজনীতি

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার

কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জি কে শামীম ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার

যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামিমকে তার ৭ দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজধানীর নিকেতনে তার ব্যবসায়িক কার্যালয় অভিযান চালিয়ে শুক্রবার দুপুরে তাদের আটক করে র‍্যাবের একটি দল। তার বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক তোফায়েল মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জাতীয়

জবানবন্দিতে যেসব ভয়াবহ তথ্য দিয়েছিল মিন্নি

জবানবন্দিতে যেসব ভয়াবহ তথ্য দিয়েছিল মিন্নি

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার চার্জশিট এক সেপ্টেম্বর আদালতে দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বরগুনা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হুমায়ূন কবির। আদালতে চার্জশিট দাখিল করলেও মামলার আসামিপক্ষ অথবা গণমাধ্যমকর্মীরা চার্জশিটের কপি এতদিন হাতে পায়নি। ১৮ সেপ্টেম্বর (বুধবার) চার্জশিট আদালত গ্রহণ করার পর বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) কপি বাহিরে প্রকাশ হয়েছে। আয়শা সিদ্দিকা মিন্নির আইনজীবী মাহাবুবুল বারী আসলামের কাছ থেকে চার্জশিটের কপি পাওয়া গেছে।

বিনোদন

বাড়ির পথ ভুলে গেলেন সাইফ

বাড়ির পথ ভুলে গেলেন সাইফ

বলিউড তারকা সাইফ আলী খান। মাত্র ৩৯ বছর বয়সেই বাড়ির পথ ভুলে গেলেন তিনি! নিজের বাসা থেকে বাড়ি যেতে পথিকদের সহায়তা নিতে হয় তাকে। ঘটনা হলো, সাইফের বাবা ছিলেন পতৌদির নবাব। বাবার মৃত্যুতে সেই আসনে বসেছেন সাইফ আলী খান। কিন্তু নতুন নবাব নিজেই জানেন না, পতৌদির নবাবের বাড়ি কোথায়? কয়েকদিন আগে স্ত্রী কারিনা কাপুর খানের জন্মদিন উদযাপনের জন্য ছেলে তৈমুরকে নিয়ে ছুটছিলেন পতৌদি। আর সেখানেই ঘটেছে বিধিবাম। পথ ভুলে গেছেন সাইফ আলী খান। পরে স্থানীয় লোকজনকে নিজের বাড়ির রাস্তা সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলেন তিনি। এরপর সাহায্যে এগিয়ে আসেন পথিকরা।

রাজনীতি

যুবদল থেকে যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা জি কে শামীম

যুবদল থেকে যুবলীগের প্রভাবশালী নেতা জি কে শামীম

যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জি কে শামিমকে তার সাত দেহরক্ষীসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রাজধানীর নিকেতনে তার ব্যবসায়িক কার্যালয় অভিযান চালিয়ে শুক্রবার দুপুরে তাদের আটক করে র‍্যাবের একটি দল। তার বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক তোফায়েল মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ সময় জি কে শামীমের অফিস থেকে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা, অস্ত্র ও মদ উদ্ধার করেছে র‍্যাব।

রাজনীতি

যুবলীগ নেতা খালেদ দল থেকে বহিষ্কার

যুবলীগ নেতা খালেদ দল থেকে বহিষ্কার

দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও অনৈতিক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ ঢাকা দক্ষিণ মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির তরফ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিনোদন

শুধু ফ্লোর নয় সালমান শাহর নামে হবে রাস্তা: শাকিব খান

শুধু ফ্লোর নয় সালমান শাহর নামে হবে রাস্তা: শাকিব খান

আমি যখন স্কুলে পড়তাম, তখন আমিও তার সিনেমা দেখতে যেতাম। সালমান শাহ ভক্তদের মতো আমারও পছন্দের একজন অভিনেতা। বৃহস্পতিবার সালমান শাহ’র জন্মোৎসবে উপস্থিত হয়ে রাজধানীর মতিঝিলের মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে চিত্রনায়ক শাকিব খান এসব কথা বলেন। এ সময় ঢাকায় চলচ্চিত্রের কিং খান আরও বলেন, নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে, কারণ আমার হাত দিয়ে তার মতো একজন মানুষের জন্মদিনের কেক কাটানো হচ্ছে। আমি আরও অনেক আনন্দিত হতাম যদি আজ তিনি আমার পাশে থাকতেন।