• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬

যা কিছু প্রথম

ঘড়ি আবিষ্কারের গল্প

ঘড়ি আবিষ্কারের গল্প

সময় নির্ধারণের জন্য আমরা ঘড়ি ব্যবহার করে থাকি। আর এই ঘড়ি আবিষ্কারের পিছনে রয়েছে কয়েক হাজার বছরের ইতিহাস। ওই সময়ে মিশরীয়রা আবিষ্কার করেছিল জমি মাপজোক করার পদ্ধতি আর মাপজোক করতে গিয়ে তারা সময়কেও পরিমাপ করতে চাইল। সময় পরিমাপের জন্য তারা আবিষ্কার করল ‘সূর্যঘড়ি’ বা ‘ছায়াঘড়ি’। এটি প্রথম যান্ত্রিক ঘড়ি। আনুমানিক সাড়ে পাঁচ হাজার বছর আগে মিসর ও ব্যাবলনে এর উৎপত্তি।

বিশ্বে প্রথম লিফট ব্যবহার করেন ফরাসি সম্রাট

বিশ্বে প্রথম লিফট ব্যবহার করেন ফরাসি সম্রাট

বহুতল ভবনে লিফট বা এলিভেটর থাকবে না, এই সময়ে এটা প্রায় অকল্পনীয়। দ্রুত গতিতে ওঠা-নামা করার জন্য লিফটের বিকল্প নেই। এই লিফটকে আধুনিক বিজ্ঞানের অবদান হিসেবে গণ্য করা হলেও এর পেছনের গল্পটা বেশ পুরনো। রোমান লেখক ভিত্রুভিয়াসের মতে, প্রায় ২ হাজার ২০০ বছর আগে প্রাচীন গ্রিসে বিজ্ঞানী আর্কিমিডিসের তৈরি এক ধরনের এলিভেটরের প্রচলন ছিল।

দুর্ঘটনাবশত আবিষ্কৃত হয় পেনিসিলিন

দুর্ঘটনাবশত আবিষ্কৃত হয় পেনিসিলিন

পেনিসিলিন এক প্রকার অ্যান্টিবায়োটিক। এটি চিকিৎসাবিজ্ঞানের একটি অসামান্য আবিষ্কার। পেনিসিলিন পৃথিবীতে আবিষ্কৃত প্রথম এ্যান্টিবায়োটিক, যা ব্যাকটেরিয়া ঘটিত বিভিন্ন রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। সর্দি-কাশি জাতীয় রোগ জীবাণু ধ্বংস করাই এর কাজ। এই পেনিসিলিন আবিষ্কার করেছিলেন চিকিৎসাবিজ্ঞানী আলেকজান্ডার ফ্লেমিং (১৮৮১-১৯৫৫)।

জেনে নিন, টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ইতিহাস

জেনে নিন, টেলিস্কোপ আবিষ্কারের ইতিহাস

বহুদূরের ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র বস্তুকে দেখার উপযোগী যন্ত্রকে বলা হয় টেলিস্কোপ বা দূরবীক্ষণ। নলাকৃতির এই যন্ত্রটি সাধারণত লেন্স ও দর্পণ দিয়ে তৈরি করা হয়। এ ধরণের যন্ত্রের সাহায্যে দূরের বস্তু আরও উজ্জ্বলভাবে বা অস্পষ্ট বস্তু আরও স্পষ্ট করে দেখা যায়। টেলিস্কোপের আবিষ্কার নিয়ে মূলত গ্যালিলিওকে কৃতিত্ব দেয়া হলেও টেলিস্কোপের আবিষ্কার হয়েছিল তারও বেশ কিছুদিন আগে!

পঞ্চদশ শতকে তাস খেলার উদ্ভাবন

পঞ্চদশ শতকে তাস খেলার উদ্ভাবন

ইস্কাপন, হরতন, রুইতন, চিরতন নামগুলো কমবেশি সবার কাছেই পরিচিত। আন্তর্জাতিকভাবে এগুলো ডায়মন্ডস, স্পেডস, হার্টস, ক্লাবস নামে পরিচিত। বলা হচ্ছে তাস খেলার কথা। হাত দিয়ে খেলাধুলার মধ্যে তাস খেলা কেবল আমাদের দেশেই নয়, বিশ্বের বেশির ভাগ দেশেই জনপ্রিয়। ভার্সিটিতে পড়েছেন অথচ খেলাচ্ছলে জীবনে কখনও তাস হাতে নেননি এমন মানুষ বিরল।

দেশের প্রথম পতাকা ভাস্কর্য মুন্সীগঞ্জে অবস্থিত

দেশের প্রথম পতাকা ভাস্কর্য মুন্সীগঞ্জে অবস্থিত

মুষ্টিবদ্ধ ছয়টি হাতের মধ্যে চারটি হাতে ধরে রেখেছে পতাকাদণ্ড। সেটির মাথায় যে পতাকাটি উড়ছে তা মুক্তিযুদ্ধের সময়কার; বাংলাদেশের মানচিত্রখচিত ঐতিহাসিক পতাকা। তবে রংহীন। আর এটিই ‘পতাকা-৭১’ ভাস্কর্য। যা মুন্সীগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র লিচুতলা এলাকায় অবস্থিত। ২০১৮ সালের ২ মার্চ এই ‘পতাকা-৭১’ ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করা হয়।