• ঢাকা, বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার কথা বলেননি প্রধানমন্ত্রী: কাদের

ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার কথা বলেননি প্রধানমন্ত্রী: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৫০পিএম, ঢাকা-বাংলাদেশ।

কেন্দ্রীয় দুই শীর্ষ নেতার বিতর্কিত কর্মকাণ্ড ও তাদের বিরুদ্ধে ওঠা নানান অভিযোগে ক্ষুব্ধ হয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি ভেঙে দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দিয়েছেন বলে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে  তা ঠিক নয় বলে জানালেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এ ব্যাপারে আলোচনা হলেও কোনো সিদ্ধান্ত দেননি প্রধানমন্ত্রী।

রোববার সচিবালয়ে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলারকে সৌজন্য সাক্ষাৎ দেয়ার পর সাংবাদিকদের সামনে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, 'গতকালকে আমাদের যে মিটিং ছিল, এটা পার্লামেন্টারি বোর্ড এবং স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভা ছিল। রংপুরের বাই ইলেকশন, ২২টি ইউনিয়ন পরিষদ, তিনটি পৌরসভা, সাতটি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হচ্ছে অক্টোবরে মাসে। এজন্যই আমরা বসেছিলাম।

মনোনয়নে বোর্ডের মিটিংয়ে ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দেয়ার কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি জানিয়ে কাদের বলেন, 'কথা প্রসঙ্গে হয়তো কথা আসে। এটা নিয়ে সিদ্ধান্ত আকারে কোনো কথা হয়নি। কোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হলে সেটার ফোরাম ওটা (বৈঠক) ছিল না। ওখানে ইনসাইডে আমরা অনেক কথাই বলতে পারি, অনেক আলোচনাই করতে পারি। এখানে কোনো কোনো প্রসঙ্গে ক্ষোভের প্রকাশও হতে পারে বা কারও কারও রিঅ্যাকশনও আসতে পারে। কিন্তু অ্যাজ এ জেনারেল সেক্রেটারি অব দ্য পার্টি আমার এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করা এ মুহূর্তে ঠিক হবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত না এটা ইমপ্লিমেন্টশন প্রসেসে যায়। এখানে ক্ষোভের প্রকাশ ঘটতে পারে, প্রতিক্রিয়া হতে পারে কিন্তু কোনো সিদ্ধান্ত আকারে কিছু হয়নি।'

বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর, শনিবার আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উপস্থিত নেতাদের সমালোচনার একপর্যায়ে ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙে দিতে বলেন শেখ হাসিনা। সে সময় ছাত্রলীগের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডে বিরক্তিও প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় দুই নেতার বিরুদ্ধে সংগঠনের ভেতর-বাইরে প্রচুর অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি সিলেটে সাংগঠনিক সফরে গিয়েছিলেন ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভন। ফেরার পথে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অসংখ্য নেতাকর্মী প্রবেশ করেন তার সঙ্গে। চলে যান একেবারে বিমানের টারমার্ক পর্যন্ত। সব নিরাপত্তা বলয় উপেক্ষা করে সেলফি তোলার হুড়োহুড়িতে ব্যস্ত দেখা যায় তাদের। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমেও প্রকাশ এই ছবি।

জানা গেছে, আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভায় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সম্পর্কে নানা অভিযোগ তোলেন উপস্থিত নেতারা। এসব অভিযোগের মধ্যে রয়েছে বিতর্কিত ব্যক্তিদের কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা দেয়া, দুপুরের আগে ঘুম থেকে না ওঠা, অনৈতিক আর্থিক লেনদেন ইত্যাদি।

এছাড়া জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মেলনে গিয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের জন্য বেলা ১১টা থেকে তিনটা পর্যন্ত অপেক্ষা করা, শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি ছাত্রলীগের অনুষ্ঠানে পৌঁছানোর পর সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের পৌঁছানোসহ নানা বিষয় আলোচিত হয় বলে জানায় গণমাধ্যম। পরে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে ক্ষুব্ধ হয়ে কমিটি ভেঙে দেয়ার কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ক্ষুব্ধ কিনা এমন প্রশ্নে কাদের বলেন, 'কিছু কিছু ব্যাপারে তো থাকতেই পারে। যেমন- আমাদের ইলেকশনে যারা বিদ্রোহী ছিল, আমাদের মন্ত্রী-এমপিদের মধ্যে, নেতাদের মধ্যে- এ সব ব্যাপারে তো ক্ষোভ প্রকাশ হয়। কাজেই ছাত্রলীগেরও বিচ্ছিন্ন-বিক্ষিপ্ত কিছু কিছু ব্যাপার আছে, সেগুলো নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কনসার্ন থাকতেই পারেন, এটা খুব স্বাভাবিক। কিন্তু এখানে কোনো স্পেসিফিক সিদ্ধান্তের বিষয়ে আমি জানি না, কারণ ওই ফোরামে কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনার বিষয় আসেনি।'

প্রধানমন্ত্রী নির্দেশের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, 'আমার মনে হয় এ ধরনের কিছু হলে আপনারা তো দেখবেনই। এ ধরনের কিছু হতে গেলে তো এটা পাবলিক স্টেটমেন্ট। ডিসিশনটা জানা যাবে, এটা তো ওপেন সিক্রেট হয়ে যাবে, তখন সিক্রেট থাকবে না।'

প্রধানমন্ত্রী মিটিংয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে একথা বলেছেন কিনা জানতে চাইলে কাদের বলেন, 'যতক্ষণ এটা সিদ্ধান্ত আকারে না আসছে ততক্ষণ পর্যন্ত এর সত্যতা আমি স্বীকার করব না।'

গত বছরের ৩১ জুলাই ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব নেন রেজওয়ানুল হক চৌধুরী ও গোলাম রাব্বানী। চলতি বছরের ১৩ মে ঘোষণা করা হয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি।

 

টাইমস/এসআই

এবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ করোনায় আক্রান্ত

এবার গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ করোনায় আক্রান্ত

এবার কারোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি

খুলনায় হাঁটুপানিতে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজের ছবি ভাইরাল!

খুলনায় হাঁটুপানিতে দাঁড়িয়ে ঈদের নামাজের ছবি ভাইরাল!

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে খুলনা অঞ্চলে। ভেঙে গেছে

দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল

দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়াল

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ৭৯তম দিনে মোট মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে

রাজনীতি

খালেদার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় সন্ধ্যায়

খালেদার সঙ্গে বিএনপি নেতাদের ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় সন্ধ্যায়

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া সোমবার সন্ধ্যায় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। সন্ধ্যা ৭টায় চেয়ারপার্সনের গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আসবেন বিএনপির নেতারা।

জাতীয়

যেসব এলাকায় হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি

যেসব এলাকায় হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি

রংপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ, ঢাকা ও সিলেট অঞ্চলে ঝড়-বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যোতে বলা হয়েছে।

জাতীয়

সিরাজগঞ্জে ঈদের নামাজে সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

সিরাজগঞ্জে ঈদের নামাজে সিজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু

ঈদের নামাজ পড়ানোর সময় সিজদারত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন আইউব আলী নামে এক ইমাম। এঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। ইমাম আইউব আলী সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার নন্দলালপুর গ্রামের মৃত দেরাজ আলী মুন্সির ছেলে ও নন্দলালপুর আলিম মাদ্রাসার সিনিয়র প্রভাষক ছিলেন।

স্বাস্থ্য

করোনাকালে ঈদে সুস্থ থাকতে প্রয়োজন স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ

করোনাকালে ঈদে সুস্থ থাকতে প্রয়োজন স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ

এক মাস সিয়াম সাধনার পর উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ আনন্দের বড় অনুষঙ্গ হলো খাবারদাবার। এই সময় কিছুটা ভালো-মন্দ খাওয়া হবে, এটাই তো স্বাদের নানা আয়োজনে উদরপূর্তিময়। কিন্তু এ বছর করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে পরিস্থিতি ভিন্ন। এবার ঈদ উদযাপনের চেয়ে শরীর ঠিক রাখার দিকেই নজর দিতে হচ্ছে বেশি। পাশাপাশি মেনে চলতে হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি।

অর্থনীতি

ইঁদুরের আঁকা ছবি বিক্রি করে লাখ টাকা আয়

ইঁদুরের আঁকা ছবি বিক্রি করে লাখ টাকা আয়

গুস নামের ইঁদুরটি সাধারণ কোনো ইঁদুর নয়, বরং সে একজন শিল্পী। একই সঙ্গে বড়লোক ইঁদুর। কারণ, ছবি এঁকে বেশ মোটা অঙ্কের টাকার রোজগার করছে সে। গুস তার ছোট ছোট পাঞ্জা ব্যবহার করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র মাস্টারপিস (ছবি) তৈরি করে, যা এখন পর্যন্ত বিক্রি করে আয় হয়েছে ১,০০০ পাউন্ড বা প্রায় এক লাখ টাকা।

জাতীয়

বাংলাদেশিসহ ৪ নাগরিকের জন্য এয়ার এম্বুলেন্স পাঠাল তুরস্ক!

বাংলাদেশিসহ ৪ নাগরিকের জন্য এয়ার এম্বুলেন্স পাঠাল তুরস্ক!

তুবা আহসান একজন তুর্কি নাগরিক। তিনি বিয়ে করেছিল বাংলাদেশি এক নাগরিককে। কিছুদিন আগে তুবা আহসান এবং তার পরিবারের কয়েক সদস্য